সময় মতো অস্ত্রোপচার করা না গেলে, বা সমস্যা ধরা না পড়লে অ্যাপেনডিসাইটিসের কারণে মৃত্যুও হতে পারে। সেই জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানে একে ‘সার্জিক্যাল ইমার্জেন্সি’ হিসেবে ব্যাখ্যা করা হয়। তাই অ্যাপেনডিসাইটিসের সমস্যা অবহেলা করা উচিত নয়।

অ্যাপেনডিসাইটিসের যত লক্ষণ

আমাদের শরীর বড়ই বিচিত্র।  বৃহদান্ত্র এবং ক্ষুদ্রান্ত্রের সংযোগস্থলে বৃহদান্ত্রের সঙ্গে যুক্ত একটি ছোট থলির মতো অঙ্গ থাকে। যাকে অ্যাপেন্ডিক্স বলা হয়। এই অঙ্গটিতে ময়লা ঢুকে রক্ত চলাচল বন্ধ হতে পারে। অভাব হতে পারে পুষ্টিরও। এছাড়া জীবানুরও সংক্রমণ হতে পারে। এর কোনো একটা হলেই  শুরু হয় তীব্র পেটের ব্যথা যা অ্যাপেনডিসাইটিস নামে পরিচিত।

সময় মতো অস্ত্রোপচার করা না গেলে, বা সমস্যা ধরা না পড়লে অ্যাপেনডিসাইটিসের কারণে মৃত্যুও হতে পারে। সেই জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানে একে ‘সার্জিক্যাল ইমার্জেন্সি’ হিসেবে ব্যাখ্যা করা হয়। তাই অ্যাপেনডিসাইটিসের সমস্যা অবহেলা করা উচিত নয়।

অ্যাপেনডিসাইটিসের লক্ষণসমূহ:

১. পেটে ব্যথা হয়। সাধারণত, নাভির কাছ থেকে শুরু হয়ে পেটের ডান দিকের নিচের দিকে ব্যথা ছড়িয়ে পড়ে।

২. বমি বমি ভাব হওয়া।

৩. বমি হওয়া।

৪. ক্ষুধামন্দা।

৫. কোষ্ঠকাঠিন্য ও ডায়রিয়া।

৬. জ্বর থাকতে পারে। তবে এ ক্ষেত্রে শরীরের তাপমাত্রা খুব বেশি হয় না।

৭. অ্যাপেন্ডিক্স কোনও কারণে ফেটে গেলে সারা পেট জুড়ে সাংঘাতিক ব্যথা অনুভূত হয় এবং পেট ফুলে ওঠে।

Download Best WordPress Themes Free Download
Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
free download udemy paid course