‘আমার বেটা লাখে একটাও হয়না রে…’

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের মৃত্যুতে তার গ্রামের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সন্তান হারিয়ে কান্না আর আহাজারিতে আবরারের মা রোকেয়া খাতুন এখন পাগলপ্রায়। পরিবার পরিজন থেকে শুরু করে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামবাসীর কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে পরিবেশ।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের মৃত্যুতে তার গ্রামের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সন্তান হারিয়ে কান্না আর আহাজারিতে আবরারের মা রোকেয়া খাতুন এখন পাগলপ্রায়। পরিবার পরিজন থেকে শুরু করে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামবাসীর কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে পরিবেশ।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকাল পৌনে ৮টায় আবরার ফাহাদের মরদেহ তার গ্রামের বাড়ি রায়ডাঙ্গায় পৌঁছালে হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়।

ছেলের অকাল মৃত্যুতে কান্না আর আহাজারি করতে করতে আবরারের মা রোকেয়া খাতুন বলেন, আমার বেটা লাখে একটাও হয়না রে…। সবার ঘরে বেটা থাকতে পারে, আমার বেটার মতো বেটা ছিল না। আমার বেটা কোনো দিনও জোরে কারো সাথে কথা বলে নাই। কোনো রাজনীতির মিছিলে যায় নাই। যেইখানে রাজনীতির আলাপ করে সেইখানেও যায় নাই। আমার বেটা শুধু লেখাপড়া নিয়াই থাকতো।

রোকেয়া খাতুন জানান, তার ছেলে আবরার চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে চারটিতেই সুযোগ পান। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং-এ মেধা তালিকায় ১৩ নম্বরে ছিলেন। সরকারের কাছে ছেলে হত্যার সুষ্ঠু বিচার ও দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান তিনি।

অপরদিকে ছেলের মরদেহ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ। তার ছেলেকে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে এটা কোনোভাবেই মানতে পারছেন না তিনি। তিনি বলেন, এটা একটা পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনায় কোনো নেতার ইন্ধন রয়েছে। কেননা দু–একজন নয়, সেখানে ১৫ জনের বেশি এই হত্যায় অংশ নিয়েছে। পরিকল্পনা ছাড়া ১০–১৫ জন ব্যক্তি কাউকে মারতে পারে না।

এর আগে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ফাহাদের মরদেহ কুষ্টিয়ার পিটিআই রোডস্থ বাড়িতে পৌঁছায়। সকাল সাড়ে ৬টায় সেখানকার আল হেরা জামে মসজিদে তার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে ফাহাদের মরদেহ নিয়ে আসা হয় ফাহাদের গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ার কুমারখালী ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গা। সেখানে নিজ বাসার সামনে আবরারের তৃতীয় জানাজা শেষে স্থানীয় রায়ডাঙ্গা কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এতে হাজারো মানুষ অংশ নেয়।

এদিকে আবরারের হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানবন্ধন করছে স্থানীয়রা। এ সময় জড়িতদের বিচারের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগানও দেন তারা।

Premium WordPress Themes Download
Download WordPress Themes Free
Download WordPress Themes Free
Download Nulled WordPress Themes
free download udemy paid course