আরেকটি সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র হচ্ছে চট্টগ্রামে

চট্টগ্রামের বারৈয়ারহাটে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন আরেকটি সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। একই স্থানে অবস্থিত ১৩২/৩৩ কেভি সাব-স্টেশনের কাছে এ প্রকল্পটি স্থাপন করা হবে। এটি বাস্তবায়ন করবে জার্মানির কনসোর্টিয়াম অব আবি ভোগড জিএমবিএইচ অ্যান্ড এজি অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

চট্টগ্রামের বারৈয়ারহাটে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন আরেকটি সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। একই স্থানে অবস্থিত ১৩২/৩৩ কেভি সাব-স্টেশনের কাছে এ প্রকল্পটি স্থাপন করা হবে। এটি বাস্তবায়ন করবে জার্মানির কনসোর্টিয়াম অব আবি ভোগড জিএমবিএইচ অ্যান্ড এজি অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

বিল্ড ওন অপারেট (বিওও) পদ্ধতিতে উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুতের দাম পড়বে ৮ টাকা ৭৫ পয়সা। ২০ বছর মেয়াদে এ বিদ্যুৎ কেনায় সরকারের মোট ব্যয় হবে এক হাজার ৪১৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

এ সংক্রান্ত একটি ক্রয়প্রস্তাব বুধবার (২ অক্টোবর) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে বলে বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, প্রাইভেট সেক্টর পাওয়ার জেনারেশন পলিসি-১৯৯৬ এর আওতায় বিওও ভিত্তিতে দেশের ৪টি স্থানে প্রতিটি ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের লক্ষে দরপত্রের মাধ্যমে স্পন্সর নির্বাচনের প্রস্তাবে বিদ্যুৎ বিভাগ থেকে ২০১৮ সালের ২৩ এপ্রিল সম্মতি দেয়া হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিউবো) ওয়েবসাইটসহ বিভিন্ন পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

দরপত্রে জার্মানির কনসোর্টিয়াম অব আইবি ভোগড জিএমবিএইচ অ্যান্ড এজি অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এবং নরওয়ের স্কেয়াটেক সোলার এএসএ নামক দুটি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি বারৈয়ারহাটে ১৩২/৩৩ কেভি সাবস্টেশনের নিকটবর্তী স্থানের জন্য প্রাপ্ত ২টি কোয়ালিফিকেশন স্টেটমেন্ট মূল্যায়ন শেষে প্রতিবেদন দাখিল করে।

দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি তার মূল্যায়ন প্রতিবেদনে উভয় প্রতিষ্ঠানকে প্রাথমিকভাবে যোগ্য হিসেবে সুপারিশ করে। পরবর্তীতে টেকনিক্যাল, কমার্শিয়াল এবং ফাইনান্সিয়াল মূল্যায়নে জার্মানির কনসোর্টিয়াম অব আবি ভোগড জিএমবিএইচ অ্যান্ড এজি অ্যাগো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেকে যোগ্য হিসেবে নির্বাচনের জন্য সুপারিশ করে।

সূত্র জানায়, মূল্যায়ন কিমটির প্রতিবেদন ২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর বিউবোর সাধারণ বোর্ড সভায় অনুমোদিত হয় এবং আনুষঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করা হয়। বিউবোর সুপারিশ অনুযায়ী দাখিল হওয়া কোয়ালিফিকেশন স্টেটমেন্টের মূল্যায়ন প্রতিবেদন এবং রেসপনসিভ বিডারের ট্যারিফ প্রপোজাল খোলার জন্য বিদ্যুৎ বিভাগ থেকে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি অনুমোদন দেয়া হয়। পরে ১৭ জানুয়ারি বিউবো কর্তৃক বারৈয়ারহাট সাইটের একমাত্র রেসপন্সিভ বিডারের আর্থিক প্রস্তাব তাদের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে খোলা হয়।

কমিটি মূল্যায়ন প্রতিবেদনে বারৈয়ারহাট ১৩২/৩৩ কেভি সাবস্টেশনের নিকটবর্তী স্থানে বিওও ভিত্তিতে আইপিপি হিসেবে ‘নো ইলেকট্রিসিটে, নো পেমেন্ট’ ভিত্তিতে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র বাস্তবায়নের লক্ষে একমাত্র রেসপন্সিভ বিডারের কনসোর্টিয়াম অব আইবি ভোগড জিএমবিএইচ অ্যান্ড এজি অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের লেভেলাইজড ট্যারিফ চার্জ ১০ দশমিক ৭৫ ইউএস সেন্ট/কিলো ওয়াট ঘণ্টা সমপরিমাণ বাংলদেশি ৮ দশমিক ৭৫ টাকা/কিলোওয়াট ঘণ্টা অনুমোদনের সুপারিশ করেছে।

এর আগে বিভিন্ন সময় সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে আরও ৮টি সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়।

Premium WordPress Themes Download
Premium WordPress Themes Download
Download WordPress Themes
Premium WordPress Themes Download
udemy course download free