বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে জোটের বৈঠকের এক ফাঁকে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত ব্রিফিংয়ে তিনি এ দাবি জানান।

খালেদা জিয়ার কারামুক্তি দাবি করেছেন কর্নেল (অব.) অলি

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি দাবি করেছেন জোটের শরিক দল এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম। বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে জোটের বৈঠকের এক ফাঁকে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত ব্রিফিংয়ে তিনি এ দাবি জানান। কর্নেল (অব.) অলি বলেন, খালেদা জিয়ার কারাগারে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পড়ায় হাইকোর্টের নির্দেশে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

সেখানে তার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি ও চিকিৎসার কতদূর কি হয়েছে তা দেশবাসী জানতে পারেনি। তার পরিবারের সদস্যরাও তার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি সম্পর্কে কিছু জানতে পারেনি। এমন পরিস্থিতিতে হঠাৎ করেই তাকে ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে কারাগারে। কর্নেল (অব.) অলি বলেন, খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে ফিরিয়ে নিতে তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড কোন ছাড়পত্র দেয়নি। তারপরও সম্পূর্ণ একতরফাভাবে, অন্যায়ভাবে, হুইল চেয়ারে বসিয়ে পরিত্যক্ত কারাগারে ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে।

এটা তাকে হত্যা করার একটি ষড়যন্ত্র। প্রবীণ এ নেতা বলেন, কারাগারে ফিরিয়ে নিয়ে আবার হুইল চেয়ারে করে তাকে কারাঅভ্যন্তরে স্থাপিত আদালতে হাজির করা হয়েছে।

আমরা মনে করি, দেশবাসী মনে করে; এখন হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার হচ্ছে কিন্তু খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যে মামলা দেয়া হয়েছে সেখানে কোন চুরি বা আত্মসাতের ঘটনা ঘটেনি। কর্নেল (অব.) অলি বলেন, খালেদা জিয়া যেন তেন কেউ নন। তিনি সাবেক প্রেসিডেন্ট, মহান মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণাকারী, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণাকারী, মুক্তিযুদ্ধের সূচনাকারী শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্ত্রী এবং তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। তার বিরুদ্ধে যে মামলা ও বিচার সেটা দেশবাসীর কাছে গ্রহণযোগ্য হয়নি। আমি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও অবিলম্বে নিঃশর্তে মুক্তি দাবি করছি। অন্যত্থায় সুষ্ঠু নির্বাচনের পথরুদ্ধ হবে।

এদিকে দেশের সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে গুলশানে বিএনপির কার্যালয়ে জরুরি বৈঠক করেছেন ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতারা। বৈঠকে নেতারা খালেদা জিয়ার মুক্তি, তফসিল ঘোষণার পরবর্তি আন্দোলন কর্মসূচির সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। এ বৈঠককে কেন্দ্র করে দীর্ঘ ১০ মাস পর জোটের বৈঠকে অংশ নেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টিরÑএলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম। ৮ই ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়ার পর গতকাল পর্যন্ত বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কৈানো বৈঠকে যাননি তিনি। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীরবিক্রম, বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ২০ দলের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মে. জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, জামায়াতের মাওলানা আব্দুল হালিম, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাপা (জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, জাগপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, লেবার পার্টির ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইসলামী ঐক্যজোটের অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব ও ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শাওন সাদেকী প্রমূখ।

Free Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
online free course