কিডনি দেহের একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। ক্ষতিকর টক্সিন দেহ থেকে বের করে দেওয়াই এর মূল কাজ। এছাড়া দেহে পানি, রাসায়নিক ও ধাতুর সমতা বজায় রাখে কিডনি।

ঘরোয়া উপায়েই কিডনির পাথর সারাবেন যেভাবে

কিডনি দেহের একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। ক্ষতিকর টক্সিন দেহ থেকে বের করে দেওয়াই এর মূল কাজ। এছাড়া দেহে পানি, রাসায়নিক ও ধাতুর সমতা বজায় রাখে কিডনি। কিডনির সবচেয়ে বড় সমস্যা পাথর। কিডনিতে পাথর হলে কিডনি নষ্ট হয়ে মানুষ মারাও যেতে পারে।। তাই কিডনিতে পাথর হলে অস্ত্রোপচার করে পাথর বের করা হয়। তবে ঘরোয়া উপায়েও বের করা যায় কিডনির পাথর

পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে: পানি দেহের হাইড্রেশন লেভেল ঠিক রাখতে সাহায্য করে। পানি মিনারেলস ও নিউট্রেশন গলিয়ে দিতে কিডনিকে সাহায্য। অযাচিত টক্সিন দেহ থেকে বের করে দেওয়ার কাজেও পানি অপরিহার্য। যাদের কিডনিতে পাথর রয়েছে তাদের প্রচুর পানি পান করা দরকার। দিনে অন্তত সাত থেকে আট গ্লাস পানি পান করার পরামার্শ দেন চিকিৎসকরা। এর ফলে কিডনির পাথর গলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

লেবুর রস ও অলিভ অয়েল: লেবুর রস ও অলিভ অয়েলের মিশ্রণ কিডনির রোগের পক্ষে খুব উপকারী। যারা অস্ত্রপচার ছাড়া সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে পাথর থেকে মুক্তি চান, তারা এই উপায়টি ভেবে দেখতে পারেন। রোজ নিয়ম করে এই মিশ্রণটি খেলে পাথর গলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে যতদিন না পাথর সম্পূর্ণ গলে যাচ্ছে, ততদিন এটি খেয়ে যেতে হবে।

আপেলের রস: আপেলে থাকে সাইট্রিক অ্যাসিড কিডনির পাথর গলিয়ে দিতে খুবই সাহায্য করে। তারপর মূত্রের সাহায্যে সেটি দেহ থেকে বের করে দেয়। এছাড়া অতিরিক্ত টক্সিন বের করে দিতেও সাহায্য করে এই মিশ্রণ। তাই গরম জলে দু’চামচ আপেলের রস মিশিয়ে খাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

ডালিম: ডালিমে প্রচুর পুষ্টিকর উপাদান থাকে। ফলে স্বাস্থ্যের পক্ষে এটি খুব উপকারী। দেহকে হাইড্রেট করতে এই ফল ভাল কাজ দেয়। রোজ ডালিম খেলে শরীরে রক্তের পরিমাণ যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনই কিডনির স্টোন থেকে মুক্তি পেতেও ডালিম বেশ উপকারী।

ভুট্টা গুঁড়া: পানির সঙ্গে ভুট্টার গুঁড়া মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন। নিয়মিত এই মিশ্রণ খান। ধীরে ধীরে কিডনির পাথর চলে যাবে। এতে আপনার প্রস্রাবও স্বাভাবিক হবে।

Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
Download WordPress Themes Free
Free Download WordPress Themes
online free course