কিন্তু চিকিৎসক এই নবদম্পতির সব আশাই নিরাশায় পরিণত করে দিয়েছে মহাখালীগামী একটি বাস। বেপরোয়া গতির গ্রিনলাইন পরিবহনের ওই বাসের ধাক্কায় না ফেরার দেশে চলে গেলেন ২৮ বছর বয়সী ওই নারী চিকিৎসক।

ঢাকায় গিয়ে প্রাণ হারালেন চিকিৎসক রুম্পা

দুমাস আগে ডা. কাজী মোহাম্মদ মহসীনের সঙ্গে আক্দ হয়েছিল চিকিৎসক আখতার জাহান রুম্পার। এ শীতেই বেশ জাঁকজমক করে তাদের অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল। নববধূকে বরণ করে নিতে শ্বশুরবাড়ির প্রস্তুতিও প্রায় ঠিকঠাক।

কিন্তু চিকিৎসক এই নবদম্পতির সব আশাই নিরাশায় পরিণত করে দিয়েছে মহাখালীগামী একটি বাস। বেপরোয়া গতির গ্রিনলাইন পরিবহনের ওই বাসের ধাক্কায় না ফেরার দেশে চলে গেলেন ২৮ বছর বয়সী ওই নারী চিকিৎসক।

চাকরির সাক্ষাৎকার দিতে ঢাকায় এসে মঙ্গলবার ভোরে রাজধানীর বিজয় সরণির মোড়ে গ্রিনলাইন পরিবহনের বাসের ধাক্কায় মৃত্যু হয় সিএনজিচালিত অটোরিকশার আরোহী রুম্পার। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শত আনন্দের মাঝে মুহূর্তেই দুটি পরিবারের নেমে আসে বিষাদের ছায়া। মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অটোরিকশার চালকও। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে ওই নারী চিকিৎসকের মরদেহ তার স্বজনের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ। গতকাল বিকালে ঢামেক মর্গ থেকে রুম্পার বিদায়বেলায় স্বজনদের আহাজারিতে শোকের ছায়া নেমে আসে।

রুম্পার দেবর অশ্রুশিক্ত সাইদ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, তার ভাবির বাবার নাম আখতারুজ্জামান। গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের হালিশহরে। ডা. রুম্পা সিলেট ওসমানী নগর ভার্ড আই হসপিটাল থেকে একটি কোর্স করে সেখানেই কর্মরত ছিলেন। চাকরির সুবাদে তিনি সিলেটের ওসমানীনগর এলাকায় থাকতেন। রুম্পার স্বামী ডা. মহসীন চট্টগ্রামের একটি হাসপাতালে কর্মরত। এ শীতেই ঘটা করে চট্টগ্রামের শ্বশুরবাড়িতে রুম্পাকে তুলে আনার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তারা।

সাইদ আরও জানান, মঙ্গলবার বাংলাদেশ আই হাসপাতালে নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল রুম্পার। এ জন্য সিলেট থেকে তিনি ঢাকায় এসেছিলেন। শ্যামলীর ওই চক্ষু হাসপাতালে সাক্ষাৎকার দিতে রুম্পার বন্ধু ডা. মহসিন ফারুকও এসেছিলেন চট্টগ্রাম থেকে। শ্যামলী থেকে তাদের দুজনের একসঙ্গে বাংলাদেশ আই হাসপাতালে যাওয়ার কথা ছিল।

মঙ্গলবার ভোর রাতে মহাখালীতে বাস থেকে নেমে একটি সিএনজি অটোরিকশায় শ্যামলীর দিকে যাচ্ছিলেন রুম্পা। ভোর সাড়ে ৪টার দিকে বিজয় সরণির মোড়ে বিপরীত দিক থেকে মহাখালীগামী গ্রিনলাইন পরিবহনের একটি বাস তাদের সিএনজিকে ধাক্কা দেয়। এসময় সেটি রাস্তায় উল্টে পড়ে গেলে রুম্পা এবং অটোরিকশাচালক গুরুতর আহত হন।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভোর সোয়া ৫টার দিকে রুম্পাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত অটোরিকশার চালককে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যায় পথচারীরা। খবর পেয়ে মর্গে এসে লাশ শনাক্ত করেন ডা. মহসিন ফারুক।

তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজি অটোরিকশাটি উদ্ধার করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনামতে ঘাতক বাসটি গ্রিনলাইন পরিবহনের। সেটিকেও আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Premium WordPress Themes Download
Download Best WordPress Themes Free Download
Free Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
free download udemy paid course