চীনে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনাভাইরাস, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০৬

এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৭৪৪ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। চীনের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, এই ভাইরাসে আক্রান্ত তিন শতাধিক মানুষ মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েছে। চীনের হুবেই প্রদেশে ৫০ হাজারের বেশি মেডিকেল স্টাফ এই ভাইরাস প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ এবং চিকিৎসায় অংশ নিয়েছেন।

চীনে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০৬ জন এবং প্রায় ১৩০০ জন নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ ।

মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সকালে কেন্দ্রীয় হুবেই প্রদেশের স্বাস্থ্য কমিশন এতথ্য জানিয়েছে।

এই মহামারীর কেন্দ্রস্থল কেন্দ্রীয় হুবেই প্রদেশের স্বাস্থ্য কমিশন জানিয়েছে, সোমবার (২৭ জানুয়ারি) ২৪ ঘন্টায় ভাইরাস থেকে আরও ২৪ জন লোক মারা গিয়েছে এবং আরও ১৩০০ জন নতুন করে এই ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছে।

সোমবারে নিহতের ২২জনই উহান শহরের বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে ।

এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৭৪৪ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। চীনের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, এই ভাইরাসে আক্রান্ত তিন শতাধিক মানুষ মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েছে। চীনের হুবেই প্রদেশে ৫০ হাজারের বেশি মেডিকেল স্টাফ এই ভাইরাস প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ এবং চিকিৎসায় অংশ নিয়েছেন।

কমপক্ষে দুই হাজার শয্যাবিশিষ্ট দু’টি নতুন অস্থায়ী হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে। মাস্ক এবং সুরক্ষিত পোশাক উৎপাদনে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে বিভিন্ন কোম্পানি।

অপরদিকে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ক্ষমতা আরও প্রবল হচ্ছে এবং সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন।

শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত এ ভাইরাস গত ডিসেম্বরে চীনের হুবেইপ্রদেশের উহান শহরে একটি সামুদ্রিক বাজার থেকেই ওই করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।

এর পর তা চীনের সীমান্ত পেরিয়ে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ান, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম হয়ে অস্ট্রেলিয়া, নেপাল, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ফ্রান্স এবং যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়েছে।

চীনে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০৬ জন এবং প্রায় ১৩০০ জন নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ ।

মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সকালে কেন্দ্রীয় হুবেই প্রদেশের স্বাস্থ্য কমিশন এতথ্য জানিয়েছে।

এই মহামারীর কেন্দ্রস্থল কেন্দ্রীয় হুবেই প্রদেশের স্বাস্থ্য কমিশন জানিয়েছে, সোমবার (২৭ জানুয়ারি) ২৪ ঘন্টায় ভাইরাস থেকে আরও ২৪ জন লোক মারা গিয়েছে এবং আরও ১৩০০ জন নতুন করে এই ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছে।

সোমবারে নিহতের ২২জনই উহান শহরের বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে ।

এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৭৪৪ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। চীনের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, এই ভাইরাসে আক্রান্ত তিন শতাধিক মানুষ মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েছে। চীনের হুবেই প্রদেশে ৫০ হাজারের বেশি মেডিকেল স্টাফ এই ভাইরাস প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ এবং চিকিৎসায় অংশ নিয়েছেন।

কমপক্ষে দুই হাজার শয্যাবিশিষ্ট দু’টি নতুন অস্থায়ী হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে। মাস্ক এবং সুরক্ষিত পোশাক উৎপাদনে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে বিভিন্ন কোম্পানি।

অপরদিকে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ক্ষমতা আরও প্রবল হচ্ছে এবং সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন।

শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত এ ভাইরাস গত ডিসেম্বরে চীনের হুবেইপ্রদেশের উহান শহরে একটি সামুদ্রিক বাজার থেকেই ওই করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।

এর পর তা চীনের সীমান্ত পেরিয়ে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ান, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম হয়ে অস্ট্রেলিয়া, নেপাল, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ফ্রান্স এবং যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়েছে।

Download Nulled WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
Download Nulled WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
udemy course download free