দীর্ঘ সময় ধরে মোবাইল-ল্যাপটপ ব্যবহারকারীদের চোখের সুরক্ষায় করণীয়

দীর্ঘ সময় ধরে মোবাইল অথবা ল্যাপটপের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকলে চোখের দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতি হওয়ার জোর শঙ্কা রয়েছে বলে চিকিৎসকরা বারবার আমাদের সাবধান করছেন। যেহেতু চোখের সঙ্গে মস্তিষ্কের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে, তাই মস্তিষ্কের সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

দীর্ঘ সময় ধরে মোবাইল অথবা ল্যাপটপের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকলে চোখের দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতি হওয়ার জোর শঙ্কা রয়েছে বলে চিকিৎসকরা বারবার আমাদের সাবধান করছেন।

যেহেতু চোখের সঙ্গে মস্তিষ্কের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে, তাই মস্তিষ্কের সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

কিন্তু মোবাইল বা ল্যাপটপেই যাদের কাজ, দিনের বেশিরভাগ সময় যাদের ল্যাপটপ মোবাইলের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয়- তাদের জন্য কী করণীয়?

চোখের ডাক্তাররা বলছেন কিছু নিয়ম মেনে মোবাইল ল্যাপটপ ব্যবহার করলে চোখের ওষুধ থেকে বেঁচে থাকা যায়।

আসুন তাহলে নিয়মগুলো জেনে নিই।

১. প্রতি ২০ মিনিট পর ২০ সেকেন্ডের জন্য বিরতি নিন এবং ৩০ মিনিট পর ৫ মিনিট বিরতি নিন। বিরতির সময় অন্তত ২০ ফুট দূরত্বে দৃষ্টি ফেলুন। এটা শুধু চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখবে না মানসিকভাবেও আপনাকে চাঙ্গা এবং সুস্থ রাখবে।

২. শরীরের স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য যেমন ব্যায়াম করতে হয় তেমনি চোখের স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্যেও চোখের ব্যায়াম করতে হয়। দিনের পর দিন ঘন্টার পর ঘন্টা অনবরত মোবাইল-ল্যাপটপের দিকে তাকিয়ে থাকার ফলে চোখের উপর যে কী পরিমান চাপ পড়ে, ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করলে ফলাফল দেখে নিজেই চমকে যাবেন। চোখের নানান ধরনের ব্যায়াম আছে, প্রতিদিন সেগুলো চর্চা করুন।

৩. পর্দার ফন্টের সাইজ বাড়িয়ে কাজ করুন। এত করে চোখের উপর কম চাপ পড়বে।

৪. ল্যাপটপ বা ডেক্সটপের স্ক্রিন চোখ থেকে কমপক্ষে ২০-২৮ ইঞ্চি দূরত্বে রাখুন। ঘাড়, কাঁধ এবং কোমর ব্যথা থেকে বাঁচতে আই লেভেল থেকে কম্পিউটারের স্ক্রিন ১৫-২০ ডিগ্রি নিচে রাখুন।

৫. স্ক্রিনের ব্রাইটনেস বেশি বা কম রাখা দুটোই চোখের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। চোখের সঙ্গে সহনশীল মাত্রার ব্রাইটনেস ব্যবহার করুন। অনেক মোবাইল-ল্যাপটপে আই-কমফোর্ট সিস্টেম আছে সেটি ব্যবহার করতে পারেন।

৬. ১ ঘণ্টা কাজ করার পর চোখে পানির ঝাপটা দিতে পারলে চোখে বড় ধরনের ক্ষতি হওয়ার শঙ্কা কেটে যায়।

৭. চোখের প্রেসার ঠিক রাখতে আলাদা চশমা ব্যবহার করতে পারেন।

৮. যদি মনে হয়, চোখ অথবা মাথায় কোন সমস্যা হচ্ছে- বিষয়টি অবহেলা করবেন না। চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করুন, অল্পতেই সেরে যাবে।

Download Nulled WordPress Themes
Download WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
Free Download WordPress Themes
free download udemy paid course