দ্বিতীয় দিনের মতো আন্দোলনে নর্থ সাউথের শিক্ষার্থীরা

আন্দোলনকারীরা জানান, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে প্রায় সবাই আর্থিক সঙ্কটে রয়েছেন। এ কারণে শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে গত সেমিস্টারে ২০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফ করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি আরও তীব্রতর হওয়ার আশঙ্কা শুরু হলে কোন নোটিশ ছাড়াই এ সুবিধা বাতিল করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে একাধিকবার নানা মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও কোন সাড়া দেয়নি কর্তৃপক্ষ।

আন্দোলনকারীরা জানান, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে প্রায় সবাই আর্থিক সঙ্কটে রয়েছেন। এ কারণে শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে গত সেমিস্টারে ২০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফ করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ।

বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি আরও তীব্রতর হওয়ার আশঙ্কা শুরু হলে কোন নোটিশ ছাড়াই এ সুবিধা বাতিল করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে একাধিকবার নানা মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও কোন সাড়া দেয়নি কর্তৃপক্ষ।

বর্তমানে তারা বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছেন বলে জানান। দাবি আদায়ে গতকাল রোববার প্রায় তিন ঘণ্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখেন আন্দোলনকারীরা।

সেদিনের মত আন্দোলন স্থগিত করা হলো আজ সোমবার দুপুর ১২টা থেকে ফের আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে সোমবার সকাল থেকে আন্দোলনকারীরা নর্থ সাউথ ক্যাম্পাসে সমবেত হতে থাকেন।

দুপুর ১২টায় শতাধিক শিক্ষার্থীর হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে ছয় দফা দাবি আদায়ে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন।

তাদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ২০ শতাংশ টিউশন ফি ওয়েভার, কোটা এবং ফলাফলের ওপর প্রাপ্ত ওয়েভারের সঙ্গে অতিরিক্ত ২০ শতাংশ যুক্ত, অর্থনৈতিক সমস্যাগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের শতভাগ ওয়েভার প্রদান, সেমিন্টার ফির সঙ্গে অতিরিক্ত অর্থ আদায় না করা, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন পরিশোধের দাবি রয়েছে।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ছয় দফা দাবিতে সকাল থেকে আমাদের আন্দোলন চলছে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

প্রয়োজনে আজকে বিকেলে সব গেট বন্ধ করে দিয়ে উপাচার্যসহ ভেতরে কর্মরত সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে রাখা হবে।

Download Best WordPress Themes Free Download
Download Nulled WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Download WordPress Themes
free download udemy course