নগরী প্রায় শতভাগ বর্জ্যমুক্ত : মেয়র সাঈদ খোকন

গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) ১৬ হাজার টন কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করেছে। এর মাধ্যমে নগরী প্রায় শতভাগ বর্জ্যমুক্ত করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) ১৬ হাজার টন কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করেছে। এর মাধ্যমে নগরী প্রায় শতভাগ বর্জ্যমুক্ত করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন।

মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) বিকেলে নগর ভবন প্রাঙ্গণে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ নিয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মেয়র সাঈদ খোকন এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, ঈদুল আজহার প্রথম দিন অর্থাৎ সোমবার বিকেল ৩টা থেকে আজ (মঙ্গলবার) বিকেল ৩টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ১৭টি পশুর হাটের বর্জ্যসহ কোরবানিকৃত পশুর বর্জ্য মিলিয়ে প্রায় ১৬ হাজার মেট্রিক টন বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পুরান ঢাকাবাসী ঈদুল আজহার দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দিনেও পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন। তাই এ দুদিনে আরও পাঁচ হাজার টন বর্জ্য উৎপন্ন হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে- যা ডিএসসিসি দ্রুততম সময়ের মধ্যে অপসারণ করবে।

মেয়র জানান, ডিএসসিসি এলাকায় বর্জ্য অপসারণে ৯ হাজার ৫০০ জন পরিচ্ছন্নতাকর্মী, ১৫২টি খোলা ট্রাক, ৮২টি কন্টেইনার বক্স, ৬৯টি কন্টেইনার ক্যারিয়ার, ৮০টি ডাম্পিং ট্রাক, ২৯টি পানির গাড়ি, ২৩টি পে লোডার, ১২টি টায়ার ডোজারসহ নানা ধরনের যান ও যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয়। এছাড়া নাগরিকদের জন্য কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে বর্জ্যব্যাগ সরবরাহ করা হয়েছে।

রাজধানীর কিছু স্থানে এখনও বর্জ্য রয়ে গেছে- এ বিষয়ে মেয়র বলেন, মেরাদিয়া বাজার, কমলাপুর স্টেডিয়ামসংলগ্ন বিশ্ব রোডের খালি জায়গা ও শনির আখড়া হাটের বর্জ্য ইজারাদারদের আসহযোগিতার কারণে এখনও পরিষ্কার করা যায়নি। তারা বাঁশ-খুঁটি সরিয়ে নেয়নি।

‘আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তাদের জামানত বাজেয়াপ্ত করব,’ যোগ করেন মেয়র।

মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন নাগরিক সমাজসহ নগরবাসীকে বর্জ্য অপসারণ কাজে ডিএসসিসিকে সহযোগিতাদানের জন্য আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানান।

Download Premium WordPress Themes Free
Download WordPress Themes Free
Download Nulled WordPress Themes
Download WordPress Themes Free
udemy paid course free download