নিরাময় হতে পারে টাইপ-২ ডায়াবেটিস!

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের আবির্ভাবের পর অনেকটা চাপা পড়ে গেছে আরেক মরণঘাতী রোগ ডায়াবেটিসের কথা। বর্তমান বিশ্বে ভয়াবহ রোগগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হলো ডায়াবেটিস। বিশ্বের প্রায় ৪০ কোটি মানুষ টাইপ-২ ডায়াবেটিসে ভুগছেন। এই টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য একটি সুখবর নিয়ে এলো অস্ট্রেলীয় গবেষকরা। অস্ট্রেলীয় গবেষকদের দাবি, নিরাময় হতে পারে টাইপ-২ ডায়াবেটিস

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের আবির্ভাবের পর অনেকটা চাপা পড়ে গেছে আরেক মরণঘাতী রোগ ডায়াবেটিসের কথা।

বর্তমান বিশ্বে ভয়াবহ রোগগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হলো ডায়াবেটিস। বিশ্বের প্রায় ৪০ কোটি মানুষ টাইপ-২ ডায়াবেটিসে ভুগছেন।

এই টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য একটি সুখবর নিয়ে এলো অস্ট্রেলীয় গবেষকরা।

অস্ট্রেলীয় গবেষকদের দাবি, নিরাময় হতে পারে টাইপ-২ ডায়াবেটিস

ইউনিভার্সিটি অব মেলবোর্নের গবেষকদের দাবি, প্রথমবারের মতো টাইপ-২ ডায়াবেটিস নিরাময়ের উপায় আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন তারা।

তারা বলছেন, প্রাকৃতিকভাবে মানুষের শরীরে এমন একটি প্রোটিন তৈরি হয়, যা ব্যবহার করে টাইপ-২ ডায়াবেটিস নির্মূল করা সম্ভব।

বর্তমানে রোগটি নিয়ন্ত্রণের জন্য যেসব চিকিৎসা পদ্ধতি চালু আছে, তার চেয়ে তাদের উদ্ভাবিত পদ্ধতি বেশি কার্যকর।

বিদ্যমান চিকিৎসা পদ্ধতি স্বল্পস্থায়ী এবং এর উল্লেখযোগ্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও রয়েছে। যা তাদের আবিষ্কৃত পদ্ধতিতে নেই বললেই চলে।

অস্ট্রেলীয় গবেষকদের দাবি, নিরাময় হতে পারে টাইপ-২ ডায়াবেটিস

গবেষকরা বলছেন, তারা মানবদেহে এসএমওসি-১ নামে একটি প্রোটিনের সন্ধান পেয়েছেন। যা প্রাকৃতিকভাবেই মানুষের লিভারের মধ্যে তৈরি হয়।

আর রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমিয়ে দিতে সক্ষম এই প্রোটিন। এর ফলে যেসব টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীর শরীরে রক্তে উচ্চমাত্রায় গ্লুকোজ রয়েছে, তাদের চিকিৎসায় এসএমওসি-১ একটি কার্যকর পদ্ধতি হতে পারে।

অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যম দ্য নিউডেইলি ডটকম বলছে, ইউনিভার্সিটি অব মেলবোর্নের গবেষকরা কৃত্রিমভাবে এসএমওসি-১ উদ্ভাবিত করে তা প্রাণী দেহে পরীক্ষা করেছেন। তারা দেখেছেন যে, এসএমওসি-১ কার্যকরভাবে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়টির সিনিয়র গবেষক ম্যাগডালিন মন্টগোমারি বলছেন, বর্তমানে ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তের গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রণে যে মেটফর্মিন নামক ওষুধ বহুল প্রচলিত, তার চেয়ে কার্যকরভাবে রক্তের গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রণে সক্ষম তাদের উদ্ভাবিত এসএমওসি-১ প্রোটিন।

ফ্যাটি লিভার ও রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করতেও এটি সক্ষম, অথচ টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা এগুলো।

এই গবেষক বলেন, বর্তমান বিশ্বে বিরাট জনগোষ্ঠী টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। আর দিন দিন এই সংখ্যাটা বাড়ছেই।

এক্ষেত্রে তাদের আবিষ্কৃত নতুন চিকিৎসা পদ্ধতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

গবেষণার পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে তারা এখন এই প্রোটিনটি মানদহে ট্রায়াল করতে যাচ্ছেন, বলেন মন্টগোমারি।

Download WordPress Themes Free
Download Best WordPress Themes Free Download
Download Premium WordPress Themes Free
Download WordPress Themes
online free course