পেঁয়াজ-কান্না থেকে মুক্তি পেতে যা করবেন

কাটার আগে পেঁয়াজ খোসা ছাড়িয়ে ১৫ মিনিট ফ্রিজে রেখে দিন। তারপর ভালো করে ধুয়ে তা কাটুন বা কাটার আগে পেঁয়াজ লবণ-পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। ১৫ মিনিট পর পানিতে ধুয়ে তা কাটলে আর চোখ জ্বালা করবে না। লবণ পানি পেঁয়াজের সালফার শুষে নেয়।

পেঁয়াজ কাটার সময় চোখে পানি আসে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। অনেকেই তো ভয়ে পেঁয়াজ কাটতে চান না।

কিন্তু উপায় নাই তাই কাটতে হয়। আসলে পেঁয়াজ কাটার সময়ে তা থেকে প্রোপানেথিওল সালফার অক্সাইড নামে এক ধরনের গ্যাস বেরোয়।

পেঁয়াজের বিভিন্ন এনজাইমের সঙ্গে যুক্ত হয়ে যা তৈরি করে সালফারের এক ধরনের গ্যাস।

এই গ্যাস চোখের সংস্পর্শে এসে এক ধরনের অ্যাসিড তৈরি করে, যার ফলে চোখ থেকে পানি বেরোয়।

তবে সহজেই আপনি এই পেঁয়াজ-কান্না থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

চলুন জেনে নিই কিছু পদ্ধতি-

পেঁয়াজের খোসা ছাড়িয়ে, তা পানিতে ১০-১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন, তারপর পানি থেকে বের করে কাটুন।

এতে পেঁয়াজ থেকে প্রায় সবটুকু সালফার যৌগই বেরিয়ে যায়। ফলে আপনার কান্না আসবে না।

কাটার আগে পেঁয়াজ খোসা ছাড়িয়ে ১৫ মিনিট ফ্রিজে রেখে দিন।

তারপর ভালো করে ধুয়ে তা কাটুন বা কাটার আগে পেঁয়াজ লবণ-পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।

১৫ মিনিট পর পানিতে ধুয়ে তা কাটলে আর চোখ জ্বালা করবে না। লবণ পানি পেঁয়াজের সালফার শুষে নেয়।

গরম পানির কাছে পেঁয়াজ কাটুন। গরম পানি, পেঁয়াজ থেকে বেরোনো ভাপকে বাধা দেয় এবং একে আপনার চোখ পর্যন্ত পৌঁছাতে বাধা দেয়, যাতে চোখ জ্বলে না বা চোখে পানি আসে না। একটি পাত্রে গরম পানি রাখুন এবং তার কাছে পেঁয়াজ রেখে কাটুন।

পেঁয়াজ কাটার সময় চুইংগাম চিবোন। চুইংগাম চিবোনোর কারণে আপনি মুখ দিয়ে শ্বাস নেন।

আপনি যখন মুখ দিয়ে শ্বাস নেন, তখন পেঁয়াজ থেকে বেরোনো ভাপ কম মাত্রায় আপনার নাক দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে।

এই কারণে চোখ থেকে অশ্রু বেরোয় না।

পেঁয়াজ কাটার সময় মোমবাতি জ্বালান। মোমবাতি থেকে নির্গত তাপ অ্যাসিড এনজাইমকে ল্যাকরিমাল গ্রন্থি পর্যন্ত পৌঁছতে বাধা দেয়, যার কারণে চোখ থেকে অশ্রু বের না হয়।

Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
Download Best WordPress Themes Free Download
udemy course download free