ফেডারেশন কাপে বসুন্ধরার টানা দ্বিতীয় শিরোপা

প্রথম শিরোপার স্বপ্নে বিভোর ছিল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। কিন্তু দলটির স্বপ্ন ভেঙে ফেডারেশন কাপ ফুটবলের মুকুট ধরে রাখলো বসুন্ধরা কিংস। টানা দ্বিতীয়বারের মতো আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব দেখালো ঢাকার ফুটবলের নতুন জায়ান্টরা।

প্রথম শিরোপার স্বপ্নে বিভোর ছিল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। কিন্তু দলটির স্বপ্ন ভেঙে ফেডারেশন কাপ ফুটবলের মুকুট ধরে রাখলো বসুন্ধরা কিংস।

টানা দ্বিতীয়বারের মতো আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব দেখালো ঢাকার ফুটবলের নতুন জায়ান্টরা।

রোববার (১০ জানুয়ারি) বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতে নেয় বসুন্ধরা কিংস।

দ্বিতীয়ার্ধে দলটির পক্ষে একমাত্র গোলটি করেন রাউল অস্কার বেসেরা। আর্জেন্টাইন বংশোদ্ভূত চিলিয়ান এই ফরোয়ার্ডের গোলটিই শেষ পর্যন্ত গড়ে দেয় পার্থক্য।

সাইফ স্পোর্টিংয়ের খেলোয়াড়দের ডুবতে হয় হতাশায়। আর বসুন্ধরার খেলোয়াড়রা মাতে উৎসবে।

করোনার প্রাদুর্ভাবে মাঝে দীর্ঘ সময় বন্ধ ছিল ঘরোয়া ফুটবল। ২০১৯-২০ মৌসুম বাতিলই হয়ে যায়।

ফেডারেশন কাপ দিয়ে শুরু হয়েছে নতুন মৌসুম ২০২০-২১। আর নতুন মৌসুমের প্রথম টুর্নামেন্টেই চ্যাম্পিয়ন হলো বসুন্ধরা।

এদিন গোলশূন্য প্রথমার্ধে দুই দলই ছিল সমানে সমান। শুরুতেই বসুন্ধরার তপু বর্মন জাল খুঁজে নেন।

তবে অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়। এরপর দুই দল খেলতে থাকে সমানে সমানে।

ম্যাচের ৫২ মিনিটে গোলের অপেক্ষা ফুরোয় বসুন্ধরা কিংসের। প্রতি-আক্রমণে রবসন দি সিলভা রবিনিয়োর পাস ধরে গায়ের সঙ্গে সেঁটে থাকা ডিফেন্ডারের প্রতিরোধ ভেঙে বাঁ পায়ের নিখুঁত শটে দূরের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন বেসেরা।

বসুন্ধরা কিংসের কোচ অস্কার ব্রুসনের বিশ্বাস, মৌসুমের বাকি প্রতিযোগিতাগুলোয় ভালো করার জন্য এ সাফল্য অনুপ্রেরণা জোগাবে।

দলীয় প্রচেষ্টায় সাফল্য মিলেছে বলে মনে করেন ব্রুসন। ম্যাচ শেষের প্রতিক্রিয়ায় আলাদাভাবে প্রশংসা করেন গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো ও ইরানি ডিফেন্ডার খালিদ শাফিইয়ের।

বলেন, দারুণ একটা টুর্নামেন্ট জয় করলাম। বর্তমান পরিস্থিতিতে এ জয় আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। নতুন মৌসুমের বাকি ট্রফিগুলো জিততে আমাদের প্রেরণা হয়ে থাকবে এ টুর্নামেন্ট।

ব্রুসন বলেন, আমাদের দল দারুণ ভারসাম্যপূর্ণ। সবগুলো বিভাগে রয়েছে অসাধারণ ফুটবলার।

আজকের ম্যাচে জিকো ও খালেদ দারুণ খেলেছে। তবে আমাদের প্রতিটা ফুটবলারই সমান গুরুত্বপূর্ণ। সবাই মিলেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছি।

এবারের পুরস্কার

* চ্যাম্পিয়ন : বসুন্ধরা কিংস

* রানার্সআপ : সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব

* ফেয়ার প্লে ট্রফি : চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেড

* ম্যান অব দ্য ফাইনাল : রাউল বেসেরা (বসুন্ধরা কিংস)

* সর্বোচ্চ গোলদাতা : ৫টি, কেনেথ ইকেচুকু (সাইফ), রাউল বেসেরা (বসুন্ধরা কিংস)

* টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড় : কেনেথ ইকেচুকু (সাইফ)

Download Best WordPress Themes Free Download
Free Download WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
Download WordPress Themes
free online course