ফোন অ্যানোনিমাইজেসন প্রযুক্তি এখন উবারে

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অন-ডিমান্ড রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান উবার সোমবার থেকে বাংলাদেশে চালু করেছে ‘টু ওয়ে ফোন অ্যানোনিমাইজেসন’ প্রযুক্তি। নতুন এ প্রযুক্তি চালক ও যাত্রীর মধ্যে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ভিন্ন মাত্রা যোগ করবে।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অন-ডিমান্ড রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান উবার সোমবার থেকে বাংলাদেশে চালু করেছে ‘টু ওয়ে ফোন অ্যানোনিমাইজেসন’ প্রযুক্তি। নতুন এ প্রযুক্তি চালক ও যাত্রীর মধ্যে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ভিন্ন মাত্রা যোগ করবে।

এ প্রযুক্তিতে ট্রিপ-সংক্রান্ত যাত্রী ও চালকের মধ্যে কথোপকথনে ব্যবহৃত উভয়ের ব্যক্তিগত ফোন নম্বর গোপন রাখা হবে অর্থাৎ কেউ কারও ব্যক্তিগত নম্বর জানতে পারবেন না।

চালু হওয়া ফিচারটি উবারের কমিউনিটি গাইডলাইন মেনে তৈরি করা হয়েছে, যা চালক ও যাত্রীর মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে। ট্রিপ শেষে চালক বা যাত্রীর কেউ যেন কখনোই অনাকাঙ্ক্ষিত কল করে অন্যজনকে বিরক্ত না করে সেটা নিশ্চিত করতে ফিচারটি চালু করা হয়েছে।

ফিচারটির বিষয়ে উবারের বাংলাদেশের প্রধান (লিড) জুলকার কাজী ইসলাম বলেন, ‘উবারের মূলে রয়েছেন যাত্রী ও চালক। ফোন অ্যানোনিমাইজেসন ফিচারটি চালুর মাধ্যমে চালক ও যাত্রীর ব্যক্তিগত তথ্য নিরাপদ থাকবে এবং তাদের মধ্যকার যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত হবে।’

তিনি আরও বলেন, সচলতার মাধ্যমে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টিই উবারের লক্ষ্য। আপনি কীভাবে বাটনের এক চাপে যাতায়াতের জন্য একটি গাড়ি পেতে পারেন- এ সমস্যার সমাধান খুঁজতে আমাদের শুরুটা হয় ২০১০ সালে। ১০ বিলিয়নেরও বেশি ট্রিপ সম্পন্নের পর এখন আমরা সেসব সার্ভিস তৈরির প্রচেষ্টায় নিয়োজিত যেগুলো একজন গ্রাহককে তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করবে।

‘শহরের যাতায়াত ব্যবস্থা, খাদ্য ও জিনিসপত্র আনা-নেয়ার পদ্ধতি পরিবর্তনের মাধ্যমে উবার সম্ভাবনার এক নতুন দ্বার উন্মোচন করেছে’- বলেন তিনি।

Free Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
udemy course download free