বঙ্গবন্ধুর ব্যবহৃত গাড়িটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা

যশোরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ব্যবহৃত এবং ৬ ডিসেম্বর যশোর মুক্ত দিবসে মুক্তিযুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে ব্যবহার করা গাড়িটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করেছে জেলা প্রশাসন। দীর্ঘদিন গাড়িটি ব্যবহার না করায় খোলা আকাশের নিচে পড়ে থেকে নষ্ট হয়ে গেছে। মুজিব বর্ষ দিন গণনার থেকে গাড়িটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে জেলা প্রশাসন।

যশোরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ব্যবহৃত এবং ৬ ডিসেম্বর যশোর মুক্ত দিবসে মুক্তিযুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে ব্যবহার করা গাড়িটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করেছে জেলা প্রশাসন।

দীর্ঘদিন গাড়িটি ব্যবহার না করায় খোলা আকাশের নিচে পড়ে থেকে নষ্ট হয়ে গেছে।

মুজিব বর্ষ দিন গণনার থেকে গাড়িটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে জেলা প্রশাসন।

যশোর অঞ্চলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আসলে তিনি এই গাড়িটি ব্যবহার করতেন।

তৎকালীন মোমিন গার্লস স্কুল, বর্তমান যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী পরিবহনের জন্য ব্যবহার হত জার্মানির তৈরি ভক্সেল রিভারের এই গাড়িটি।

গাড়িটি মোমিন গার্লস স্কুলে দীর্ঘদিন পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল অযত্ন অবহেলায়।

তবে গাড়িটির কাগজপত্র এখনও যত্নে সংরক্ষণ করছে বিদ্যালয়টি।

যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লায়লা শিরিন সুলতানা বলেন, এই মাইক্রোবাসটি আমাদের স্কুলেরই সম্পদ।

বঙ্গবন্ধু যখন যশোরে আসতেন তখন তিনি এই গাড়িটি ব্যাবহার করতেন।

যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বলেন, এটি একটি ঐতিহাসিক গাড়ি।

মুক্তিযোদ্ধারে জন্য বিভিন্ন রশদ আনা নেওয়া করতে এই গাড়িটি ব্যবহার করা হতো।

গাড়িটিতে চড়ে যশোর থেকে চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

মুক্তিযুদ্ধের পর গাড়িটি ব্যবহার করেছেন যশোরের সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রাজেক আহমেদ।

যশোর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এর সাবেক কমান্ডার রাজেক আহমেদ বলেন, এই গাড়ীর সাথে অনেক সৃতি জরিয়ে আছে।

গ্রামের সহযোগিতায় তিনজন পাকবাহিনীর সদস্যকে বেধে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল এই গাড়ি করে।

১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর যশোর মুক্ত দিবসে একটি অভিযান চালানো হয় এই গাড়িতে চড়ে।

মুক্তিযুদ্ধে যশোর অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধারা অস্ত্র, গোলাবারুদ ও মুক্তিযোদ্ধাদের বহনে গাড়িটি ব্যবহার করেছেন।

সেই সময়ের যশোরের এই গাড়ীর চালক সিদ্দিক হোসেন বলেন, কখনও প্রাইভেটকার করে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গেছি, কখনও এই গাড়ি করে।

এই গাড়িটি মুক্তিযোদ্ধার কাজে ব্যাবহার করা হত।

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত গাড়িটি সংরক্ষণের উদ্যোগের পাশাপাশি সর্বসাধারণের দেখার জন্য রাখা হয়েছে যশোর জেলা কালেক্টরেট চত্বরে।

Download WordPress Themes Free
Download Premium WordPress Themes Free
Download Premium WordPress Themes Free
Download WordPress Themes Free
udemy course download free