বাজারে আসছে ১২৫ সিসির পালসার

তরুণের কাছে জনপ্রিয় স্পোর্টস বাইক পালসার। কমিউটার বাইক হিসেবেও এর জুড়ি মেলা ভার। পালসারের বেশ কয়েকটি মডেল এই পর্যন্ত বাজারে এসেছে। প্রত্যেকটিই জনপ্রিয়তায় তুঙ্গে ছিল। এবার আসছে নতুন পালসার। এটি ১২৫ সিসির। এটি বাজারে আসলে সবচেয়ে কম সিসির পালসার হবে এটাই।

জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বাজারে আসছে ১২৫ সিসির পালসার। সম্প্রতি এই পালসারের ছবি ভারতের বিভিন্ন অটোমোবাইল ব্লগে প্রকাশ হয়েছে। প্রকাশিত ছবি দেখে এটাকে ১৩৫ সিসির এলএস পালসারের মতোই মনে হচ্ছে। ১৩৫ সিসির মতো এতে স্প্লিট সিট, আকর্ষণীয় ডিজাইনের এক্সহস্ট পাইপ এবং ফুয়েল ট্যাংকের দুপুাশে সুদৃশ্য এয়ারস্কুপ ব্যবহৃত হয়েছে।

তরুণের কাছে জনপ্রিয় স্পোর্টস বাইক পালসার। কমিউটার বাইক হিসেবেও এর জুড়ি মেলা ভার। পালসারের বেশ কয়েকটি মডেল এই পর্যন্ত বাজারে এসেছে। প্রত্যেকটিই জনপ্রিয়তায় তুঙ্গে ছিল। এবার আসছে নতুন পালসার। এটি ১২৫ সিসির। এটি বাজারে আসলে সবচেয়ে কম সিসির পালসার হবে এটাই।

বাজাজের মোটরসাইকেলের বহরে ২০০১ সালে যুক্ত হয় পালসার। পালসারের জনপ্রিয় সিরিজগুলো হলো ১৩৫, ১৫০, ১৬০, ১৮০, ২০০, ২২০ এবং ৪০০ সিসি। এবারই প্রথম আসছে ১২৫ সিসির পালসার। পালসার মোটরসাইকেলে বাজাজ ডিটিএস-আই ইঞ্জিন ব্যবহার করে। ছোট পালসারের বিএস-ফোর ডিটিএস-আই ইঞ্জিন ব্যবহৃত হচ্ছে।

নতুন পালসারের নাম এলএস ১৩৫ এর মতোই নাম রাখা হয়েছে পালসার ১২৫ এলএস। বাইকটিতে সিসি কম হলেও এটি হবে মনোশক অ্যাবসর্ভার সম্বলিত স্পোর্টস কমিউটার।

ভারত সরকারের নতুন বাইক সেফটি নীতিমালা অনুযায়ী ১২৫ সিসির বাহক হলে তাতে অবশ্যই কম্বি ব্রেকিং সিস্টেম সংযোজন করতে হবে। বাজাজ সেই নীতিমালা মেনে পালসার ১২৫ বাইকটিতে কম্বি বেকিং সিস্টেম সংযোজন করবে।

অটোকার ইন্ডিয়া তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পালসার ১২৫ এর ডিজাইন হবে ১৩৫ এলএস পালসারের মতোই।

১২৫ সিসির পালসারে থাকছে এয়ার কুলড সিঙ্গেল সিলিন্ডার ডিটিএস-ইঞ্জিন। ইঞ্জিনের অশ্বক্ষমতা ১৩ পিএস। টর্ক ১০.৮ এনএম।

ছোট পালসারের দামও হবে হাতের নাগালে। ডিসকভার ১২৫ এর চেয়েও এর দাম হবে কম।

Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
free online course