ব্রণের ৫ সমাধান

নিখুঁত ও উজ্জ্বল ত্বক কে না চায়? তবে নিখুঁত ত্বকের সবচেয়ে বড় বাধা ব্রণ। ব্রণের ফলে মুখে দাগের বা ক্ষতের সৃষ্টি হয়। চিকিৎসা নিয়ে ব্রণ থেকে রক্ষা পাওয়া গেলেও তা বেশ ব্যয়বহুল। ব্রণ থেকে রক্ষা পেতে, ব্যয় সাশ্রয় করতে জেনে কিছু ঘরোয়া সমাধান। 

নিখুঁত ও উজ্জ্বল ত্বক কে না চায়? তবে নিখুঁত ত্বকের সবচেয়ে বড় বাধা ব্রণ। ব্রণের ফলে মুখে দাগের বা ক্ষতের সৃষ্টি হয়। চিকিৎসা নিয়ে ব্রণ থেকে রক্ষা পাওয়া গেলেও তা বেশ ব্যয়বহুল। ব্রণ থেকে রক্ষা পেতে, ব্যয় সাশ্রয় করতে জেনে কিছু ঘরোয়া সমাধান।

১. নিমপাতা অত্যন্ত কার্যকর একটি জীবাণুনাশক উপাদান। তাই ব্রণ, ফুসকুড়ি সারাতে নিমপাতা বেটে তার সঙ্গে চন্দনের গুঁড়া মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ ত্বকের আক্রান্ত অংশে লাগিয়ে মিনিট বিশেক রেখে ধুয়ে ফেলুন।

২. যাদের মুখে ব্রণের পরিমাণ অত্যধিক বেশি তারা দিনে অন্তত ২-৩ বার ব্রণ আক্রান্ত জায়গাগুলোতে লেবুর রস লাগান। লেবুর রস ৪-৫ মিনিট রাখন, এর বেশি রাখবেন না। তার পর ধুয়ে ফেলুন। যত দিন না সমস্যা কমছে, এই পদ্ধতি কাজে লাগান।

৩. এক কাপের মতো পাকা পেঁপে চটকে তার সঙ্গে এক চামচ লেবুর রস আর প্রয়োজন মতো চালের গুঁড়া মেশান। এই মিশ্রণটি মুখে মাখুন। ২০-২৫ মিনিট মালিশ করে তার পর ধুয়ে ফেলুন।

৪. ব্রণ সারাতে গোলাপ পানি অত্যন্ত কার্যকরী। গোলাপ পানি নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের দাগ কমে যায়। দারুচিনি গুঁড়ার সঙ্গে গোলাপ পানি মিশিয়ে সেটি ব্রণের ওপর লাগিয়ে মিনিট বিশেক পর ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণের সংক্রমণ, চুলকানি এবং ব্যথা অনেকটাই কমে যাবে।

৫. পুদিনা পাতার রস করে নিয়ে সেটা দিয়ে আইস কিউব তৈরি করুন। ব্রণের ওপর এই আইস কিউব ঘষুন ১০-১৫ মিনিট। এতে ব্রণের সংক্রমণ তো কমবেই সঙ্গে ত্বকের জ্বালাপোড়া ভাবও দূর হবে।

Download WordPress Themes Free
Download Nulled WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
udemy paid course free download