অল্প একটু দুধ মাটিতে ঢালুন। যদি দেখেন গড়িয়ে গিয়ে মাটিতে সাদা দাগ রেখে যাচ্ছে, তা হলে দুধ খাঁটি। ভেজাল হলে মাটিতে সাদা দাগ পড়বে না।

ভেজাল দুধ চিনবেন যেভাবে

ভেজালের ভিড়ে আসল-নকল চেনাই মুশকিল। পুষ্টির আশায় যে দুধ কিনে আনছেন তা আসলে কতটা খাঁটি? তা নির্ণয় করারও উপায় থাকে না সবসময়। আবার এই ভেজাল দুধ আমাদের শরীরে প্রবেশ করে উপকারের বদলে অপকার করে। কারণ হতে পারে নানা কঠিন অসুখের। তবে উপায় জানা থাকলে আপনিও বুঝতে পারবেন দুধে ভেজাল মিশ্রিত কি না। কিভাবে? চলুন জেনে নেয়া যাক-

অল্প একটু দুধ মাটিতে ঢালুন। যদি দেখেন গড়িয়ে গিয়ে মাটিতে সাদা দাগ রেখে যাচ্ছে, তা হলে দুধ খাঁটি। ভেজাল হলে মাটিতে সাদা দাগ পড়বে না।

দুধ গরম করতে গেলেই কি হলদেটে হয়ে যাচ্ছে? তাহলে দুধ খাঁটি নয়। এতে মেশানো হয়েছে কার্বোহাইড্রেট।

Milk-2

বাড়িতেই করে ফেলুন স্টার্চ টেস্ট। পাত্রে একটু দুধ নিয়ে তাতে ২ চা চামচ লবণ মেশান। যদি লবণের সংস্পর্শে এসে দুধ নীলচে হয়, তাহলে বুঝবেন, দুধে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে।

দুধে ফর্মালিন রয়েছে কি না তা বুঝতে এর মধ্যে একটু সালফিউরিক এসিড মেশান। যদি নীল রং হয়, তবে ফর্মালিন আছে।

দুধে ইউরিয়া মেশানো আছে কি না তা ঘরোয়া উপায়ে নির্ণয় একটু কঠিন। তবে একান্তই বুঝতে চাইলে এক চামচ দুধে সয়াবিন পাউডার মেশান। কিছু ক্ষণ রেখে এতে লিটমাস পেপার রাখুন। যদি লিটমাস ডোবাতেই লাল লিটমান নীল হয়, তবে বুঝবেন ইউরিয়া রয়েছে সেই দুধে।

দুধের সমান পানি মেশান একটি শিশিতে। এবার শিশির মুখ বন্ধ করে জোরে ঝাঁকান। অস্বাভাবিক ফেনা হলেই বুঝবেন, দুধে মেশানো আছে ডিটারজেন্ট।

Download Best WordPress Themes Free Download
Free Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
download udemy paid course for free