ভেসে আসা ২ তিমির গায়ে আঘাতের চিহ্ন

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) হিমছড়ি সৈকতে ভেসে আসে বিশাল আকৃতির মৃত তিমি। এরপর শনিবারও (১০ এপ্রিল) ভেসে আসে আরো একটি মৃত তিমি। যাদের গায়ে ছিল আঘাতের চিহ্ন। ভেঙে গেছে হাড়ও। তিমি দুটি পচে দুর্গন্ধ ছড়ালেও মুছে যায়নি এসব আঘাতের চিহ্ন। মৃত তিমির নমুনা সংগ্রহ করতে আসেন নানা সংস্থা ও গবেষক। তারাও জানিয়েছেন, তিমির গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

গেল কয়েক বছর ধরে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ভেসে আসছে মৃত কাছিম, ডলফিন ও তিমি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত জানা যায়নি এসব সামুদ্রিক প্রাণির মৃত্যুর রহস্য।

গবেষকরা বলছেন, সাগরে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ভেসে আসছে উপকূলে এসব মৃত সামুদ্রিক প্রাণী। তবে সমুদ্র দূষণের মাত্রা বেড়ে যাওয়াও হতে পারে এসব সামুদ্রিক প্রাণির মৃত্যুর কারণ। বার বার কক্সবাজার উপকূলে মৃত প্রাণী ভেসে আসার কারণ অনুসন্ধানে কাজ করছে বলে জানিয়েছে সামুদ্রিক গবেষণা ইনস্টিটিউট।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) হিমছড়ি সৈকতে ভেসে আসে বিশাল আকৃতির মৃত তিমি। এরপর শনিবারও (১০ এপ্রিল) ভেসে আসে আরো একটি মৃত তিমি। যাদের গায়ে ছিল আঘাতের চিহ্ন। ভেঙে গেছে হাড়ও। তিমি দুটি পচে দুর্গন্ধ ছড়ালেও মুছে যায়নি এসব আঘাতের চিহ্ন। মৃত তিমির নমুনা সংগ্রহ করতে আসেন নানা সংস্থা ও গবেষক। তারাও জানিয়েছেন, তিমির গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

কক্সবাজারের মেরিন লাইফ অ্যালাইয়েন্স এর নির্বাহী পরিচালক জহিরুল ইসলাম বলেন, শনিবারের মৃত তিমিটির গায়ে বড় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। যা হতে পারে জাহাজের আঘাতে। মেরুদন্ডের একটি হাড়ও ভাঙা রয়েছে। এছাড়াও ১০-১৫ দিন আগে সাগরে কি ঘটেছে এটাও খতিয়ে দেখা দরকার, ওখানে কিছু হয়েছিল কিনা?

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানি মো. আশরাফুল হক বলেন, তিমির পিঠে আঘাত রয়েছে। মাথার অংশের হাড় পচে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। যাতে বুঝা যায়, অনেক দিন আগে তিমিগুলো মারা গিয়েছে। তীব্র পচনশীল হওয়ার কারণে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে বেশি। প্রাথমিকভাবে আঘাতের কারণে মারা যেতে পারে বলে ধারণা করছি।

Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
free download udemy course