যে কারণে পুলিশ ভ্যানে নেট লাগানো হয়েছে

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পারভেজ ইসলাম জানিয়েছেন, তাদের থানার একটি গাড়ির চালক নিজে থেকে এভাবে রশি বেঁধেছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের একটি গাড়ির সামনের অংশে চালক নিজেই রশি দিয়ে নেটের মতো তৈরি করেছেন। যাতে চলন্ত অবস্থায় কিংবা ঝড়বৃষ্টির সময়ে গাড়ির ভেতরে থাকা ত্রিপল আটকে থাকে। এটি অনেক আগেই করা হয়েছে। আসামি পলায়ন রোধের সঙ্গে এটির কোনো সম্পর্ক নেই।’

সম্প্রতি ফেসবুক ও ইউটিউবে একটি ভিডিওচিত্র ভাইরাল হয়। যাতে দেখা যায়- দুই জনকে পুলিশের গাড়িতে তোলার পর তার সামনের ফাঁকা অংশ দিয়ে লাফা দিয়ে নেমে দৌড়ে পালিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটে রাজধানীর গাবতলী টার্মিনাল এলাকায়। ওই ভিডিও চিত্র নিয়ে নেটিজেনদের মধ্যে হাস্যরস তৈরি হয়। এরপরই আবার একটি স্থিরচিত্র ভাইরাল হয়। যেটিতে দেখা যায়- পুলিশের গাড়ির সামনের অংশ দড়ি দিয়ে বাঁধা রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে অনেকেই বলতে শুরু করেন, আসামিদের পালিয়ে যাওয়া ঠেকাতে পুলিশ এই ব্যবস্থা করেছে।

তবে পুলিশ বলছে, ওই দুই আসামির পলায়নের সঙ্গে পরের গাড়িতে রশি লাগানোর কোনো সম্পর্ক নেই। সেটি লাগানো হয়েছে বৃষ্টি ঠেকাতে ত্রিপল লাগানোর জন্য। আর সেটিও পুলিশের আনুষ্ঠানিক কোনো সিদ্ধান্তে নয়। সেটি গাড়ি চালক নিজে থেকে লাগিয়েছেন।

পুলিশ সদরদপ্তরের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, ‘পুলিশের পিকআপের সামনের ফাঁকা অংশ বন্ধের কোনো নির্দেশনা জারি হয়নি পুলিশের পক্ষ থেকে।’

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পারভেজ ইসলাম জানিয়েছেন, তাদের থানার একটি গাড়ির চালক নিজে থেকে এভাবে রশি বেঁধেছিলেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের একটি গাড়ির সামনের অংশে চালক নিজেই রশি দিয়ে নেটের মতো তৈরি করেছেন। যাতে চলন্ত অবস্থায় কিংবা ঝড়বৃষ্টির সময়ে গাড়ির ভেতরে থাকা ত্রিপল আটকে থাকে। এটি অনেক আগেই করা হয়েছে। আসামি পলায়ন রোধের সঙ্গে এটির কোনো সম্পর্ক নেই।’

পুলিশ ভ্যানগুলো সাধারণ পিকআপ হয়ে থাকে। পেছনের অংশে ত্রিপল দিয়ে দেয়া থাকে ছাউনি। এর পেছনের অংশ পুরোটাই ফাঁকা। সামনে চালকের কেবিনের পেছনের অংশ পর্যন্ত থাকে ছাউনি। এখান দিয়ে আসামি পালিয়ে গেছে, এমন কোনো ঘটনা এর আগে ঘটেনি। ফলে সেখানে কোনো বাধা তৈরি করতে হবে, এমন কোনো চিন্তা করতে হয়নি।

এই ভ্যানগুলো মূলত ব্যবহার হয় টহল ভ্যান হিসেবে। পিকআপের পেছনে বসা থাকে পুলিশ। আর তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে কাউকে আটক বা পলাতক আসামি পেয়ে গেলে গ্রেপ্তার করা হলেও সেই ভ্যান দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় থানায়।

এমন কাউকে আটক করা হলে সাধারণত হ্যান্ডকাফ বা রশি দিয়ে বাঁধা থাকে। সেটি না হলেও যাদের আটক করা হয়, তাদেরকে সাধারণত দুই পাশে পুলিশ রেখে মাঝ বসানো হয়। ফলে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকে না বললেই চলে।

তবে গাবতলীতে যে দুই জন পুলিশ ভ্যানের সামনের অংশ দিয়ে বের হয়ে পালিয়ে গিয়েছেন, তাদেরকে বাসনো হয়েছিল সামনে। আর পেছনে উঠছিলেন কেবল পুলিশ সদস্যরা। পুলিশ পাহারায় ছিল ভ্যানের পেছনের অংশে। যে কারণে এমন ঘটনা ঘটে যায়।

Premium WordPress Themes Download
Download Nulled WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
udemy course download free