যে ৭টি কারণে অল্প বয়সেই বুড়িয়ে যাচ্ছেন

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মুখে ও ত্বকে বয়সের ছাপ পড়বে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সেটা যদি অল্প বয়সে হয় তবে এর পেছনে অবশ্যই বড় কোনো কারণ রয়েছে। আগেকার যুগের মানুষের তুলনায় এখনকার মানুষ খুব অল্প বয়সেই বুড়িয়ে যাচ্ছে। বয়স ৩০ পার হলেই দেহ ও ত্বকে পড়ে যাচ্ছে বয়সের ছাপ এবং ঘনিয়ে আসছে বার্ধক্য। মানুষের গড় আয়ু কমতে শুরু করেছে। 

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মুখে ও ত্বকে বয়সের ছাপ পড়বে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সেটা যদি অল্প বয়সে হয় তবে এর পেছনে অবশ্যই বড় কোনো কারণ রয়েছে। আগেকার যুগের মানুষের তুলনায় এখনকার মানুষ খুব অল্প বয়সেই বুড়িয়ে যাচ্ছে। বয়স ৩০ পার হলেই দেহ ও ত্বকে পড়ে যাচ্ছে বয়সের ছাপ এবং ঘনিয়ে আসছে বার্ধক্য। মানুষের গড় আয়ু কমতে শুরু করেছে।

এর পেছনে রয়েছে মানুষের নিজের তৈরি কিছু বদঅভ্যাস যা শরীর ও ত্বকের উপর মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে, যার কারণে অল্প বয়সে বার্ধক্যের সমস্যায় পড়তে হয় অনেককে। কি কারণে অল্প বয়সে ত্বক উজ্জ্বলতা হারিয়ে বুড়িয়ে যাচ্ছে সেটি জানা থাকলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আসুন বেশ কয়েকটি কারণ জেনে নেই:

অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস :

তৈলাক্ত খাবার ত্বকের ওপর বেশ খারাপ প্রভাব ফেলে। বাইরের তেলেভাজা খাবার থেকে শুরু করে ফাস্ট ফুড সবই আপনার ত্বকের বয়স বাড়ানোর জন্য দায়ী। চিনি জাতীয় খাবার অনেক পছন্দ হলে জেনে রাখুন এই চিনি জাতীয় খাবারের কারণেই আপনার ত্বক হারাচ্ছে ইলাস্টিসিটি। কোমল পানীয় পানের অভ্যাস রয়েছে? নিজের হাতেই ক্ষতি করছেন নিজের দাঁত ও হাড়ের। এতে করে বার্ধক্য আরও দ্রুত আসছে শরীরে।

ধূমপান ও মদ্যপান :

অতিরিক্ত ধূমপান ও মদ্যপান করার অভ্যাস কারণে অনেকেরই দেহ ও ত্বক দুটোরই বয়স বেড়ে যাচ্ছে। এক গবেষণায় দেখা যায় যারা নিয়মিত ধূমপান করেন তাদের প্রতিবছরে দেহের যতোটা ক্ষয় হয় তা সাধারণত একজন অধুমপায়ীর ৫ বছরে হয়ে থাকে। একইভাবে মদ্যপানের ফলাফলও থাকে প্রায় একই রকম।

শারীরিক পরিশ্রম না করা :

গবেষণায় দেখা যায় ধূমপানের ও মদ্যপানের কারণে প্রতিবছর যত মানুষ মৃত্যুবরণ করেন ঠিক ততো মানুষ অলসতা ও অপরিশ্রমী হওয়ার জন্যও করেন। শারীরিক পরিশ্রম করার মাধ্যমে নানা রোগ ও শারীরিক সমস্যা দেহ থেকে দূরে থাকে। দেহের অলসতা কিংবা বসা কাজের কারণে শারীরিক পরিশ্রম না করলে ধীরে ধীরে দেহ বার্ধক্যের দিকে এগিয়ে যেতে থাকে।

অতিরিক্ত মানসিক চাপ :

ঘরে বাইরে আজকাল প্রায় সকলেরই মানসিক চাপটা একটু বেশি। কিন্তু এই মানসিক চাপের ফলে আপনার মস্তিষ্কের ক্ষতি করে চলেছেন আপনি নিজেই। অল্পতেই অতিরিক্ত অস্থির হয়ে পড়া, মানসিক চাপ নেয়া আপনার মস্তিষ্কের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা নষ্ট করে যা বয়সের সাথে সাথে হয়ে থাকে। দুশ্চিন্তা থাকবেই, সবকিছুর সাথে মানিয়ে চলার চেষ্টা করুন, স্বাভাবিকভাবে নিয়ে দুশ্চিন্তামুক্ত রাখুন নিজেকে।

উপুড় হয়ে ঘুমানো :

উপুড় হয়ে ঘুমালে মুখ বেকায়দাভাবে বালিশের উপর থাকে যা ত্বকে রিংকেল পড়ার অন্যতম প্রধান কারণ। এতে করে অল্প বয়সেই আপনাকে বেশ বয়স্ক মনে হয়। এছাড়াও খাবার হজমে সমস্যা এবং মেরুদণ্ডের ক্ষতি তো রয়েছেই।

প্রোটেকশন না নিয়ে রোদে ঘোরাঘুরি :

সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি ত্বকের যতোটা ক্ষতি করে অন্য কোনো কিছুই এতোটা ক্ষতি করতে পারে না। আপনি যদি সানস্ক্রিন না লাগিয়ে বেশি রোদে ঘোরাঘুরি করেন তাহলে বয়স ৩০ পার হতে না হতেই ত্বকে দেখা দেবে বয়সের ছাপ। এছাড়াও সানগ্লাস ব্যবহার না করার কারণে দৃষ্টিশক্তিরও সমস্যা দেখা দেয় অনেকাংশে।

বেশি সময় এসিতে থাকা :

বাড়িতে হোক বা কর্মস্থলে, অনেককেই দিনভর শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) ঘরে দীর্ঘক্ষণ কাটাতে হয়। যা ত্বকে শুষ্ক করে দেয় এবং তার ফলে কমবয়সেই ত্বকে ভাঁজ পড়তে শুরু করে।

Free Download WordPress Themes
Premium WordPress Themes Download
Download Premium WordPress Themes Free
Download WordPress Themes
udemy course download free