রান্নায় পেঁয়াজের বিকল্প পেঁয়াজকলির স্বাদ ও স্বাস্থ্যগুণ

বাজারে গিয়ে পেঁয়াজ কিনতে গেলেই মন খারাপ হয় আপনার। কারণ পেঁয়াজের বাড়তি দাম মনের ওপর চাপ সৃষ্টি করে। আবার দেখা যায় পেঁয়াজ ছাড়া রান্না খেতে মন চায় না।

বাজারে গিয়ে পেঁয়াজ কিনতে গেলেই মন খারাপ হয় আপনার। কারণ পেঁয়াজের বাড়তি দাম মনের ওপর চাপ সৃষ্টি করে। আবার দেখা যায় পেঁয়াজ ছাড়া রান্না খেতে মন চায় না।

এমন অবস্থায় পেঁয়াজের কলির কদর অনেকটাই বেড়েছে। এটি এমন একটি সবজি যার আছে অনেক ঔষধি গুণ। পেঁয়াজ কলি শুধু খেতেই সুস্বাদু নয়, বরং পুষ্টিগুণেও ভরপুর।

রান্না করে বা সালাদের সঙ্গে কাঁচাও খাওয়া হয়। অনেকের হয়তো জানা নেই, পেঁয়াজের মতো অতটা ঝাঁঝালো স্বাদের না হলেও পেঁয়াজ কলির অনেক গুণ রয়েছে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক-

পেঁয়াজের কলি সালফারের দারুণ উৎস। যা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এতে যে ধরণের এলিয়েল সালসাইফ থাকে তা শরীরে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। এতে থাকা সালফার শরীরে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। যা ডায়বেটিস রোগীর জন্য দারুণ উপকারী।

রান্নায় স্বাদ বাড়াতে পেঁয়াজ কলির জুড়ি নেই। এতে প্রচুর পরিমাণে আঁশ থাকে যা হজমে সহায়তা করে। পেঁয়াজ কলিতে থাকা ক্যারোটিন দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। এছাড়া এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ।

সালাদ তৈরির সময় গাজর ও শসার সঙ্গে পেঁয়াজ কলি মিশিয়ে খেলে সালাদের স্বাদ যেমন বাড়ে, তেমনি শরীরে পুষ্টির চাহিদাও মেটে। সর্দি-কাশি সারাতেও এর বিরাট অবদান রয়েছে। এজন্য অবশ্যই নিয়মিত খেতে হবে।

Premium WordPress Themes Download
Free Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Download WordPress Themes Free
free download udemy paid course