ফিলিপাইন এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে সম্প্রতি এমনই ঘটনা ঘটেছে। যা সামনে আসার পর ওই বিমানবালাকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন সকলে। মানবিকতার প্রতিমূর্তি বলেও কেউ কেউ উপমা দিয়েছেন তাকে।

শিশুর কান্না থামাতে স্তন্যদান করলেন বিমানবালা

মাঝ আকাশে ক্ষুধার জ্বালায় কেঁদে চলেছে শিশুটি। চেষ্টা করেও থামাতে পারছেন না মা। অগত্যা এগিয়ে এলেন বিমানবালা। পরম স্নেহে শিশুটিকে কোলে তুলে নিলেন তিনি। স্তন্যপান করিয়ে তাকে শান্ত করলেন। ফিলিপাইন এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে সম্প্রতি এমনই ঘটনা ঘটেছে। যা সামনে আসার পর ওই বিমানবালাকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন সকলে। মানবিকতার প্রতিমূর্তি বলেও কেউ কেউ উপমা দিয়েছেন তাকে।

আনন্দবাজার জানায়, ঘটনাটি গত ৬ নভেম্বরের। সকাল সকাল রওনা দিয়েছিল বিমানটি। তাতে বাচ্চা নিয়ে উঠেছিলেন এক নারী। দুধের বোতল নিয়েই উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু উড্ডয়নের কিছুক্ষণের মধ্যে তা শেষ হয়ে যায়। কাঁদতে শুরু করে বাচ্চাটি। চেষ্টা করেও তাকে থামাতে পারেননি ওই নারী। তখনই এগিয়ে আসেন ২৪ বছর বয়সী বিমানবালা প্যাট্রিশা অরগ্যানো। কয়েক মাস আগে তিনি নিজেই সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। জিজ্ঞাসা করে জানতে পারেন, দুধ শেষ হয়ে গেছে। বাচ্চাটিকে থামানোর আর কোনও উপায় না দেখে তিনি নিজে স্তন্যপান করানোর সিদ্ধান্ত নেন।

সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন আরেক বিমানবালা। দুজন মিলে ওই নারী ও তার শিশুকে বিমানের মধ্যেই এক কোণে নিয়ে যান। সেখানে শিশুটিকে স্তন্যপান করান প্যাট্রিশা। তার এই পদক্ষেপ সোশ্যাল মিডিয়ায় চাউর হতে সময় লাগেনি। তাতে মুহূর্তের মধ্যে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন তিনি।

তবে আহামরি কিছু করেছেন বলে মানতে নারাজ প্যাট্রিশা। এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। আচমকা কাঁদতে শুরু করে বাচ্চাটি। এমনভাবে কাঁদছিল যে থাকতে পারিনি।তাই নিজেই স্তন্যপান করানোর সিদ্ধান্ত নিই। কয়েক মাস আগে আমার নিজেরও সন্তান হয়েছে। তাকে তো স্তন্যপান করাই। তাই তেমন অস্বস্তি হয়নি।’

ওই শিশুটির মা প্যাট্রিশাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। শিশুটিকে কোলে নিয়ে তোলা একটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন প্যাট্রিশাও।

Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
Free Download WordPress Themes
udemy paid course free download