শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর উপায়

স্মৃতিশক্তি তুখোড় হলে অনেক কিছুই জয় করা সহজ হয়ে যায়। শক্তিশালী স্মৃতি নিয়ে আমরা জন্ম নেই না। অন্য যেকোনো দক্ষতার মতো এটিও বিভিন্ন উপায়ে অর্জিত হয় এবং যত বেশি অনুশীলন করবেন ততই উন্নত হবে।

স্মৃতিশক্তি তুখোড় হলে অনেক কিছুই জয় করা সহজ হয়ে যায়। শক্তিশালী স্মৃতি নিয়ে আমরা জন্ম নেই না।

অন্য যেকোনো দক্ষতার মতো এটিও বিভিন্ন উপায়ে অর্জিত হয় এবং যত বেশি অনুশীলন করবেন ততই উন্নত হবে।

শিশুদের নিয়ে অভিভাবকদের মূল অভিযোগ- তারা পড়া-লেখায় অমনোযোগী। কোনো কোনো মা-বাবার আক্ষেপ- সন্তান পড়া মনে রাখতে পারে না।

আমাদের মনে রাখতে হব যে, সব শিশুর স্মৃতিশক্তি সমান না। যাদের স্মৃতিশক্তি দুর্বল, তাদের সেটি প্রখর করারও কিছু কৌশল আছে।

শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর উপায়

(১) শিশুকে প্রশ্ন করতে শেখান। যেন আপনার শিশুর মধ্যে কোনো কিছু জানার আগ্রহ তৈরি হয়। যত প্রশ্ন করবে, ততই বিষয়টি গভীরভাবে উপলব্ধি করবে সে। ফলে শিশুর স্মৃতিশক্তি শক্তিশালী হয়ে উঠবে।

(২) শিশু যা শিখছে, সেগুলো দিয়ে তাকে ছড়া, গান তৈরি করতে শেখান। মানুষের মস্তিষ্ক মিউজিক ও প্যাটার্ন মনে রাখতে পারে দ্রুত। তাই মিউজিক বা ছড়া শিশুকে কিছু শেখালে সে তাড়াতাড়ি সব কিছু মনে করতে পারবে।

(৩) শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়াতে লাইব্রেরি ও মিউজিয়ামে নিয়ে যান। তাকে এক জায়গায় বসিয়ে পড়াবেন না, বরং ঘুরতে ঘুরতে শেখান। লাইব্রেরিতে নিয়ে গিয়ে বই দেখাতে পারেন। মিউজিয়াম বা আর্ট গ্যালারিতেও নিয়ে যান।

(৪) বিভিন্ন বিষয়ে শিশুর সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। তারা কী ভাবছে জানতে চান। এভাবে তাদের চিন্তাধারার যেমন উন্নতি হবে, তেমন স্মৃতিশক্তিও বাড়বে।

(৫) শিশুকে কিছু শেখানোর সময় ছবির ব্যবহার করুন। তা হলে শিশুর মনে রাখতে সুবিধা হবে।

(৬) বাবা-মা, বন্ধু-বান্ধব ও ভাই-বোনের কাছ থেকে শিশু অনেক কিছু শেখে, সে যা শিখছে সেগুলো সম্পর্কে জানতে চান। আপনাকে বোঝানোর মাধ্যমে শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়বে।

(৭) শরীরচর্চা শরীর ও মন দুই-ই ভালো রাখে। মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বাড়াতে সহায়তা করে। রোজ শরীরচর্চা করুন।

Download WordPress Themes Free
Download Best WordPress Themes Free Download
Free Download WordPress Themes
Download Premium WordPress Themes Free
udemy paid course free download