সন্তানের জন্মগত ত্রুটি এড়াতে পুরুষদের ৩৫ বছরের আগে বিয়ে করা উচিত:গবেষণা

গবেষকরা জানিয়েছেন অনাগত সন্তানের জন্মগত ঝুঁকি এড়াতে পুরুষদের ৩৫ বছরের মধ্যে বিয়ে করা উচিত বলে। সম্প্রতি এক গবেষণায় এমন দাবি করেছেন তারা।

গবেষকরা জানিয়েছেন অনাগত সন্তানের জন্মগত ঝুঁকি এড়াতে পুরুষদের ৩৫ বছরের মধ্যে বিয়ে করা উচিত বলে। সম্প্রতি এক গবেষণায় এমন দাবি করেছেন তারা।

চার কোটি শিশুর ওপর এক গবেষণা চালিয়ে দেখা গেছে, যেসব বাবারা ৩৫ বছরে বিয়ে করেছেন তাদের সন্তানদের জন্মগত ত্রুটি বেশি। আর যারা ৪৫ বছরের বাবা তাদের ঝুঁকি আরো বেশি।

স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির মেডিসিনের অধ্যাপক গবেষক মাইকেল এইজেনবার্গ বলেন, আমরা সাধারণত শিশুর জন্মগত ত্রুটির জন্য মায়ের সমস্যা বের করার চেষ্টা করি, কিন্তু এই গবেষণায় দেখা গেছে, সুস্থ্য বাচ্চা নির্ভর করে বাবার বয়সের ওপর। তিনি আরো বলেন, যখন একজন বাবা পয়ত্রিশ বছর বয়সে বিয়ে করেন এবং বাচ্চা হয় তখন তার সন্তানের জন্মগত ঝুঁকি বেশি থাকে।

তিনি আরো বলেন, বাবার বয়স যখন ৩৫ হয় তখন সন্তানের জন্মগত ঝুঁকি কিছুটা বাড়ে, আর যদি বাবার বয়স ৪০ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে হয় তখন সন্তানের জন্মগত ত্রুটি অনেকগুণ বেড়ে যায়।

প্রতি বছর একজন পুরুষের স্পামের পরিবর্তন দেখা যায়। যেসব বাবাদের বয়স ২৫ থেকে ৩৪ তাদের তুলনায় ৩৫ থেকে ৪৪ বছর বয়স্ক বাবাদের সন্তানরা প্রায় পাঁচভাগ অপরিণত বয়সে জন্মায় এবং কম ওজনের হয়।

গবেষণায় আরো দেখা গেছে, ৪৫ বছর বয়সে যেসব পুরুষ সন্তানের জনক হন তাদের প্রায় ১৪ ভাগ ইনটেনসিভ কেয়ারে ভর্তি হতে হয়। আর ১৮ ভাগ শিশু খিঁচুনিতে ভোগেন এবং ১৪ ভাগ কম ওজনে জন্ম নেয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডে গড়ে ৩৩ বছরে বাবা হতো যা ১৯৭৪ সালে ছিলো ২৯ বছর। আর মায়েদের ক্ষেত্রে্ও দেখা গেছে, তাদের মাতৃত্বের বয়স বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৬ সালের প্রতিবেদনে দেখা যায় তারাও গড়ে ৩০ বছরে মা হচ্ছেন যা ১৯৭৪ সালে ছিলো ২৬ বছর।

Premium WordPress Themes Download
Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
udemy paid course free download