সাংবাদিক হত্যায়ও দোষী সেই স্বঘোষিত ‘গডম্যান’ রাম রহিম

দুই সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের ঘটনাতে দোষী সাব্যস্ত ডেরা সাচ্চা সওদা প্রধান স্বঘোষিত ‘গডম্যান’ গুরুমিত রাম রহিম ২০ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করছেন কারাগারে। এবার তার বিরুদ্ধে ২০০২ সালে সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতিকে খুনের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত করল হরিয়ানার বিশেষ সিবিআই আদালত। এ মামলায় তার তিন সহযোগীকেও দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

দুই সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের ঘটনাতে দোষী সাব্যস্ত ডেরা সাচ্চা সওদা প্রধান স্বঘোষিত ‘গডম্যান’ গুরুমিত রাম রহিম ২০ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করছেন কারাগারে। এবার তার বিরুদ্ধে ২০০২ সালে সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতিকে খুনের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত করল হরিয়ানার বিশেষ সিবিআই আদালত। এ মামলায় তার তিন সহযোগীকেও দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

রাম রহিমের অন্য তিন সঙ্গী হলেন কুলদীপ সিংহ, নির্মল সিংহ এবং কৃষাণ লাল। আগামী ১৭ জানুয়ারি তার শাস্তি ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

এদিকে দুই সন্নাসিনীকে ধর্ষণের ঘটনায় তাকে রাখা হয়েছে রোহতক জেলে। সন্ন্যাসিনীদের ধর্ষণের পাশাপাশি এখন সাংবাদিক খুনের ঘটনাতেও দোষী সাব্যস্ত করা হলো গুরমিত রাম রহিমকে।

২০০২ সালের অক্টোবর মাসে নিজের বাড়ির সামনেই গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতিকে। ২০০৩ সালে শুরু হয় খুনের তদন্ত। হরিয়ানার সিরসায় ডেরা সাচ্চা সওদার সদর দফতরে কীভাবে মহিলা ভক্তদের ওপর যৌন অত্যাচার চালানো হয়, সেই ঘটনা ফাঁস করেছিলেন তিনি। এরপরেই খুন করা হয় ওই সাংবাদিককে। ২০০৬ সালে এই তদন্তের দায়ভার নেয় সিবিআই। এই খুনে মূল অভিযুক্ত ছিলেন রাম রহিম ও তার সাঙ্গোপাঙ্গোরাই।

সিবিআই আইনজীবী জানিয়েছেন, ‘রাম রহিমসহ মোট চার অভিযুক্তকেই দোষী সাব্যস্ত করেছেন আদালত।’ রাম রহিমকেই এ খুনের মূল ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে মেনে নিয়েছেন আদালত।

১৫ বছর আগে দুই শিষ্যাকে ধর্ষণ করেছিলেন রাম রহিম, এই অভিযোগে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত গত বছর ২৫ আগস্ট গুরমিত রাম রহিম সিংহকে দোষী সাব্যস্ত করে। ওই রায়ের পর গুরমিতের শিষ্যদের তাণ্ডবে ৩৮ জনের মৃত্যু হয়। নষ্ট হয় কয়েক কোটি টাকার সম্পত্তি। এরপর রোহতক জেলে বসে আদালতের বিশেষ সেশন। সেখানে ২০ বছরের কারাদণ্ড হয় গুরমিতের।

Download WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
Download Best WordPress Themes Free Download
Download Best WordPress Themes Free Download
free download udemy course