সিয়াম-পরীরা নিষেধাজ্ঞা মানছেন না, শুটিং করছেন ৫০ জনের টিম

বিশ্বব্যাপী নতুন আতঙ্কের নাম করোনাভাইরাস।  ইতোমধ্যে এ ভাইরাসে বিশ্বে ৩৮১৬২১ জন আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। যার মধ্যে মত্যু হয়েছে ১৬৫৭৪ জনের। আর বাংলাদেশে ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে চারজনের।  এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের সকল সিনেমা হল বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। ভাইরাসটির সংক্রমণ ঠেকাতে   সবাইকে ছবির শুটিং আপাতত স্থগিত রাখতে চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠন মিলে একটা সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে এর আগে সমকাল অনলাইনকে জানিয়েছিলেন  পরিচালক, প্রযোজক সমিটির নেতারা। সে  সিদ্ধান্তের কথা পরিচালক-শিল্পী-প্রযোজক-কলাকুশলীসহ সবাইকে জানিয়েও হয়েছে।

বিশ্বব্যাপী নতুন আতঙ্কের নাম করোনাভাইরাস।  ইতোমধ্যে এ ভাইরাসে বিশ্বে ৩৮১৬২১ জন আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। যার মধ্যে মত্যু হয়েছে ১৬৫৭৪ জনের। আর বাংলাদেশে ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে চারজনের।  এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের সকল সিনেমা হল বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। ভাইরাসটির সংক্রমণ ঠেকাতে   সবাইকে ছবির শুটিং আপাতত স্থগিত রাখতে চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠন মিলে একটা সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে এর আগে সমকাল অনলাইনকে জানিয়েছিলেন  পরিচালক, প্রযোজক সমিটির নেতারা। সে  সিদ্ধান্তের কথা পরিচালক-শিল্পী-প্রযোজক-কলাকুশলীসহ সবাইকে জানিয়েও হয়েছে।

কিন্তু সে সিদ্ধান্ত মানছেন না ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ নামের একটি ছবির টিম। তারা নিষেধজ্ঞতা অমান্য করেই সুন্দরবন এলাকায় শুটিং করছেন। ছবিটিতে প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয় করছেন সিয়াম আহমেদ ও পরীমনি। তারাও শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন। তাদের সঙ্গে ছবিটিতে শিশুশিল্পী হিসেবে ২৫টি শিশুশিল্পীও শুটিং করছেন।

সরকারি অনুদানের এই ছবিটির পরিচালক আবু রায়হান। সুন্দরবন এলাকায় ১১ দিন ধরে এই ছবির শুটিং চলছে বলে জানা গেছে। শুটিংসংশ্লিষ্ট সবারই ফোন বন্ধ। কেউ যাতে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারেন, তাই ফোন বন্ধ করে রেখেছেন বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার সকালে ছবিসংশ্লিষ্ট কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রযোজক ও পরিচালকের পরিকল্পনা মতো শুটিং করে যাচ্ছেন তারা। কাল তাদের শুটিং শেষ হওয়ার কথা। ২৬ মার্চ অভিনয়শিল্পীদের কারও ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে।

শুটিংয়ের জন্য ১৩ মার্চ ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ ছবির অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলীরা সুন্দরবন অঞ্চলে পৌঁছান। এই দলে শিশুশিল্পীরা যেমন আছেন তেমনি নায়ক-নায়িকাসহ অন্য অভিনয়শিল্পীরাও আছেন। কলাকুশলীরা তো আছেনই। ধারণা করা হচ্ছে, ৫০ জনের বড় একটি ইউনিট নিয়ে সুন্দরবনে চলছে ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ ছবির শুটিং।

বিষয়টি নিয়ে কথা হয়  প্রযোজক সমিতির  সাধারণ সম্পাদক সামসুল আলমের সঙ্গে। তিনি বলেন, ছবিটির শুটিংয়ের বিষয়ে আমাদের সমিতিতে জানানো হয়েছে। এ ধরনের সংকটময়ক সময়ে শুটিংয়ের যে কোন ধরনের ক্ষতির দায়ভার তারা নিয়েছে।  এ ছাড়াও তারা  সর্বোচ্চ সতকর্তা নিয়ে শুটিং করছেন বলে  আমাদের জানিয়েছেন। করোনার জন্য তারাও সতর্ আছেন বলেই আমাদের জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার  সুন্দরবনে শুটিং করার একটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন পরীমনি। ছবিটির ক্রেডিটে আছে অভিনেতা শহীদুল  আলম সাচ্চুর নাম। পরীমনি জানান ছবিটির এগানো দিনের শুটিং চলছে। এর বেশি কিছু জানাননি তিনি।

এদিকে ২৫ জন শিশুকে নিয়ে ৫০ জনের টিমের এ শুটিংয়ে অংশ নেয়াকে ভালো চোখে দেখছেন না  পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার। তার মতে, `এটা দায়িত্বহীনতার পরিচয়। সমিতি থেকে নিষেধ করা বা না করার কি আছে। আমরা এই পরিস্থিতিতে শুটিং করতে যাওয়াটাই ঠিক হয়নি।  তাদের সেচ্ছায় শুটিং বন্ধ করে দেয়ার দরকার ছিলো। যতদূর জানি এই ছবিটি ছাড়া আর কো ছবির শুটিং হচ্ছেনা কোথাও।’

Free Download WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
Download Premium WordPress Themes Free
Download Nulled WordPress Themes
free download udemy course