সুশান্তের আত্মহত্যা মামলা: বান্ধবী রিয়ার ভাই পুলিশের নজরে

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর চুপ কেন বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী? প্রশ্নটা অনেকেই তুলেছেন। উপরন্তু, মুম্বাই নিবাসী এই বঙ্গতনয়াকে নিয়ে কদর্য মন্তব্য করতেও পিছপা হননি নেটজনতার একাংশ। অভিনেতার মৃত্যুর তদন্তের জন্য ইতিমধ্যেই দফায় দফায় বান্দ্রা থানায় জেরা করা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে। এবার মুম্বাই পুলিশের নজরে রিয়ার ভাই সৌয়িক চক্রবর্তী। যিনি দিদি রিয়ার পাশাপাশি সুশান্তের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কোম্পানির অন্যতম পার্টনার ছিলেন।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর চুপ কেন বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী? প্রশ্নটা অনেকেই তুলেছেন।

উপরন্তু, মুম্বাই নিবাসী এই বঙ্গতনয়াকে নিয়ে কদর্য মন্তব্য করতেও পিছপা হননি নেটজনতার একাংশ।

অভিনেতার মৃত্যুর তদন্তের জন্য ইতিমধ্যেই দফায় দফায় বান্দ্রা থানায় জেরা করা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে।

এবার মুম্বাই পুলিশের নজরে রিয়ার ভাই সৌয়িক চক্রবর্তী।

যিনি দিদি রিয়ার পাশাপাশি সুশান্তের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কোম্পানির অন্যতম পার্টনার ছিলেন।

সূত্রের খবর, ভিভিড্রেজ রিয়ালিটিক্স নামে সুশান্ত একটি কোম্পানি শুরু করেছিলেন ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে।

যে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কোম্পানিটি ভার্চুয়াল রিয়ালিটি নিয়ে কাজ করছিল।

আর এই কোম্পানিরই পার্টনার ছিলেন তিনজন- সুশান্ত, রিয়া ও রিয়ার ভাই সৌয়িক চক্রবর্তী।

যদিও এই সংস্থার পুরো বিনিয়োগই সুশান্ত নিজে করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে প্রাথমিক সূত্রে।

তবে পরবর্তীতে এই বান্ধবী রিয়া এবং তার ভাই সৌয়িককেও সংস্থার অংশীদার করেন অভিনেতা। তাও এবার সইসাবুদ করেই।

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে এই কোম্পানির যে ওয়েবসাইট রেজিস্টার করা হয়েছিল, সেখানেও উজ্জ্বল উপস্থিতি সৌয়িক চক্রবর্তীর।

এমনকি শোনা যাচ্ছে, কোম্পানির বোর্ড অফ ডিরেক্টরসে সৌয়িকের নাম মোটেই পছন্দ ছিল না সুশান্তের পরিবারের!

রিয়া নিজেই নাকি সুশান্তকে পরামর্শ দিয়েছিলেন ভাইকে এই সংস্থার অন্যতম অংশীদার করার জন্য।

আর সেই সূত্রেই এবার সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার অন্তর্তদন্তের জন্য প্রাক্তন বান্ধবী রিয়ার ভাই

সৌয়িক চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে বান্দ্রা পুলিশ।

অন্য দিকে, নেটদুনিয়ায় ক্রমাগত কদর্য মন্তব্যের কারণে ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলের কমেন্ট বক্স অপশন বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছেন রিয়া।

প্রসঙ্গত, শনিবার বান্দ্রা থানায় জেরার মুখে যশ রাজ ফিল্মসের কাস্টিং ডিরেক্টর শানু শর্মা জানিয়েছেন যে,

সংস্থার ব্যানারে ‘পানি’ ছবি তৈরির প্ল্যান ভেস্তে যাওয়ার পরই সুশান্ত সংশ্লিষ্ট প্রযোজনা সংস্থার চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসেন।

সুশান্ত যশরাজের সঙ্গে তার তৃতীয় ছবি ‘পানি’ নিয়ে অত্যন্ত উৎসাহী ছিলেন। যশরাজও এটি বিগ বাজেট ছবি হিসেবে তৈরি করতে চেয়েছিল।

এর প্রি-প্রোডাকশনেই খরচ হয়েছিল প্রায় ৪-৫ কোটি টাকা। কিন্তু আদিত্য চোপড়া ও পরিচালক শেখর কাপুরের মধ্যে ছবি নিয়ে মতান্তর হয়।

ফলে ছবিটি আর হয়নি। এতে সুশান্ত খুবই কষ্ট পেয়েছিলেন। এরপরই যশরাজের সঙ্গে চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি।

পুলিশ শানুকে পালটা প্রশ্ন করে, চুক্তিমতো তৃতীয় ছবি না করার পরেও যশরাজ ফিল্মস সুশান্তকে বেরিয়ে যেতে দিল কেন?

জবাবে শানু বলেন, সুশান্ত তাদের কাছে যশরাজ ছাড়ার ইচ্ছের কথা জানান। তারাও বিষয়টি আর টানতে চাইছিলেন না।

সকলের সহমতের ভিত্তিতে চুক্তি শেষ হয়। কিন্তু শানুর এই বয়ান পুলিশ তদন্ত করে দেখবে।

এবং তাকে আবার জেরা করার জন্য ডাকা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। এই চুক্তির সঙ্গে যুক্ত অন্যদেরও বয়ান নেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, মুম্বাই পুলিশ এই তদন্তে কোনওরকম ফাঁক-ফোকড়ই রাখতে চাইছে না।

শিব সেনা পার্টির এক সদস্যের তরফে সম্প্রতি জানানো হয়েছে যে, ‘সুশান্তকে জর্জ ফার্নান্ডেজের বায়োপিকের জন্য ভাবা হয়েছিল।

কিন্তু ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে তারা খবর পান, সুশান্ত মানসিকভাবে সুস্থ নয়। অবসাদে ভুগছে। সেটেও অদ্ভুত আচরণ করতেন।

অনেকেই তাকে এই জন্য এড়িয়ে যেতেন।

সুশান্তের এমন আচরণই নাকি ওর ক্যারিয়ার তলানিতে ঠেকে যাওয়ার জন্য দায়ী! তবে ওর মৃত্যু বলিউডের মাফিয়াদের মুখোশ খুলে দিয়েছে।’

Download Nulled WordPress Themes
Premium WordPress Themes Download
Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
udemy paid course free download