২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য নির্মূল করা সম্ভব : পরিকল্পনামন্ত্রী

মৌসুমি দারিদ্র্য দূর হলেও আঞ্চলিক দারিদ্র্য মোকাবিলায় এখনো বড় চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।
Ashraful IslamAugust 8, 20191min0

মৌসুমি দারিদ্র্য দূর হলেও আঞ্চলিক দারিদ্র্য মোকাবিলায় এখনো বড় চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

তিনি বলেন, সবার সমন্বিত উদ্যোগে মৌসুমে দারিদ্র্য, মৌসুমি রোগব্যাধী অনেকটাই কমে এসেছে। ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য দূর করার লক্ষ্যের পথেও সরকার অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে নারীদের ক্ষমতায়ন শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হাংগার প্রজেক্টের গ্লোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট ও কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার।

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক হাঙ্গার প্রজেক্টের গ্লোবাল ভাইস-প্রেসিডেন্ট ও কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। পরিকল্পনা কমিশনের জেনারেল ইকোনমিক ডিভিশনের (জিইডি) ডা. শামসুল আলম বক্তব্য রাখেন।

মান্নান বলেন, দেশে ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য নির্মূল করা সম্ভব এবং এ ব্যাপারে এনজিও, সুশীল সমাজ এবং বেসরকারি খাতকে সরকারের সঙ্গে কাজ করতে হবে।

এসডিজির লক্ষ্যসমূহকে সর্বজনীন অবিহিত করে তিনি বলেন, সরকার এ ক্ষেত্রে একটি সামগ্রীক সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে কাজ করছে। এ ক্ষেত্রে লক্ষ্য হলো কাউকে পিছনে ফেলে নয় বরং প্রত্যেককে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাওয়া।

পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, হাঙ্গার প্রজেক্টের মতো নাগরিক সংগঠনগুলো এ ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। যেহেতু সরকার তাদের জ্ঞান ও অভিজ্ঞতাকে সরকারি কর্মকাণ্ডে কাজে লাগাতে পারে। মৌসুমী দারিদ্র্য ‘মঙ্গা’ শুধুমাত্র বাংলাদেশেই ছিল না, এ ধরনের দারিদ্র্য অনেক ধনী দেশগুলোতে বা উত্তরের দেশগুলোর মধ্যেও ছিল এবং তারা সময়ের সাথে সাথে এগুলো মোকাবেলা করেছে।

তিনি বলেন, সরকার এখন পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের মাধ্যমে ডেঙ্গু ভাইরাস নিরসনে সর্বাত্মক সচেষ্ট রয়েছে।

Download WordPress Themes Free
Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
udemy course download free