৮ মাস পর খুলে দেয়া হল মাচুপিচু

প্রায় আট মাস পর খুলে দেওয়া হলো পেরুর ইনকা সভ্যতার প্রাচীন নিদর্শন মাচুপিচু। করোনার কারণে এতদিন এটি বন্ধ ছিল। পৃথিবীর সবচেয়ে রহস্যময় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি ইনকাদের গড়ে তোলা এ শহর। পেরুর দর্শনীয় স্থানের মধ্যে এটিই সবচেয়ে জনপ্রিয়। বিবিসি জানায়, করোনা সংক্রমণ শুরুর পর দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় মাচুপিচু।

প্রায় আট মাস পর খুলে দেওয়া হলো পেরুর ইনকা সভ্যতার প্রাচীন নিদর্শন মাচুপিচু। করোনার কারণে এতদিন এটি বন্ধ ছিল।

পৃথিবীর সবচেয়ে রহস্যময় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি ইনকাদের গড়ে তোলা এ শহর। পেরুর দর্শনীয় স্থানের মধ্যে এটিই সবচেয়ে জনপ্রিয়।

বিবিসি জানায়, করোনা সংক্রমণ শুরুর পর দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় মাচুপিচু।

আন্দিজ পর্বতমালার এই নিদর্শন খুলে দেওয়া উপলক্ষে রবিবার প্রাচীন কিছু আচার-অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তবে স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য দর্শনার্থীর সংখ্যা কমিয়ে দেয়া হয়েছে মাচুপিচুতে। এখন প্রতিদিন ৬৭৫ জন প্রাচীন শহরটিতে যেতে পারবেন।

মহামারির শুরুর আগের তুলনায় দর্শকের এ সংখ্যা প্রায় ৩০ শতাংশ।

২০১৮ সালের হিসাব অনুযায়ী ওই বছর মাচুপিচুতে পর্যটনের সমাগম ছাড়িয়েছে ১৫ লাখ।

পেরুর বৈদেশিক বাণিজ্য এবং পর্যটনমন্ত্রী রোসিও ব্যারিওস বলেন, ‘আজ থেকে মাচুপিচুর দ্বার আবার খুলল।

যথেষ্ট দায়িত্ব ও সতর্কতা মেনেই এটি খুলে দেওয়া হলো।’

১৯৮১ সালে একে পেরুর সংরক্ষিত ঐতিহাসিক এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হয় এবং ইউনেসকো ১৯৮৩ সালে এটিকে তাদের বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে। বর্তমানে এটি বিশ্বের সাতটি নতুন বিস্ময়েরও একটি।

যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষক ১৯১১ সালে মাচুপিচুকে নতুন করে বিশ্বের নজরে নিয়ে আসেন। মাচুপিচু শব্দের অর্থ ‘পুরোনো চূড়া’।

দক্ষিণ আমেরিকার একটি প্রাচীন সভ্যতা হলো ইনকা। আর এ সভ্যতার অনন্য নিদর্শন মাচুপিচু নির্মিত হয়েছিল ১৪৫০-১৪৬০-এর মাঝামাঝি সময়ে। তখন ইনকা সভ্যতার স্বর্ণযুগ চলছিল। এ অঞ্চলে স্পেনের অভিযানের পর মাচুপিচু পরিত্যক্ত হয়।

Free Download WordPress Themes
Free Download WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
free online course