Lucky Ety, Author at 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

aamir_bebo.jpg

২০০০ সালের কথা। বলিউড তারকা অভিষেক বচ্চনের বিপরীতে ‘রিফিউজি’ ছবি দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু করেন কারিনা কাপুর খান। বলিউডে প্রায় দুই দশক হতে চলল এই তারকার। এবার ই-টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানালেন, অভিনেত্রী হওয়ার জন্যই জন্মেছেন তিনি। আর মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত অভিনয় করতে চান।

‘যব উই মেট’, ‘উড়তা পাঞ্জাব’, ‘ভিড়ে ডি ওয়েডিং’, ‘চামেলি’ আর ‘অশোক’-এর মতো সফল চলচ্চিত্র উপহার দেওয়া এই তারকা বলেন, ‘আমার জীবনের সবচেয়ে চমৎকার ২০ বছর কেটেছে এই ইন্ডাস্ট্রিতে। অসংখ্য মেধাবী মানুষের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হয়েছে। আমি অভিনয় করার জন্যই জন্মেছি। আর আমৃত্যু অভিনয় করতে চাই।’

এবার কারিনা কাপুর খানকে দেখা যাবে ‘লাল সিং চাডঢা’ ছবিতে। ‘থ্রি ইডিয়টস’ ছবির পর আবার বলিউডের ‘মিস্টার পারফেকশনিস্ট’ আমির খানের বিপরীতে তিনি অভিনয় করবেন। হলিউডের কালজয়ী ছবি ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর হিন্দি রিমেক। এই ছবি দিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো অস্কার জয় করেন টম হ্যাঙ্কস।

নতুন ছবির বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে কৌশলে এড়িয়ে যান কারিনা। বললেন, ‘এখনই এই ছবির বিষয়ে কিছু বলা যাবে না। আমির খানের সঙ্গে একই ফ্রেমে থাকা খুবই সম্মানজনক। কারণ আমি বরাবরই আমিরের বড় ভক্ত।’ গত শনিবার মিডিয়া বিউটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে এসে সাংবাদিকদের বললেন তিনি।

আমির খানের সঙ্গে আবার পর্দা ভাগ করার বিষয়ে কারিনা কাপুর খান বলেন, ‘আমির খানের সঙ্গে কাজ করা সব সময়ই স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো অনুভূতি। আমির একজন “সিনেমাটিক জিনিয়াস”।’

‘লাল সিং চাডঢা’ ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন অতুল কুলকার্নি। পরিচালনা করছেন অদ্ভেদ চন্দন। যৌথভাবে প্রযোজনা করবে ভায়াকম এইটিন স্টুডিওস ও আমির খান প্রোডাকশনস। ২০২০ সালে বড়দিন উপলক্ষে ছবিটি মুক্তি দেওয়া হবে।

ইশক এফএমে কারিনা কাপুর খান তাঁর জনপ্রিয় চ্যাট শো ‘হোয়াট উইমেন ওয়ান্ট’-এর দ্বিতীয় সিজন নিয়ে ফিরেছেন। আর এবার আরও বেশি ব্যক্তিগত আলাপ হবে নারীদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে। দ্বিতীয় সিজনের প্রথম অতিথি তাঁর স্বামী, বলিউড তারকা সাইফ আলী খান।

কারিনা কাপুর খান বলেন, ‘অবশেষে “হোয়াট উইমেন ওয়ান্ট” অনুষ্ঠানের সেটে আমরা সাইফকে পেয়েছি। আমাদের আলাপের বিষয় “আধুনিক বিয়ে”। প্রথম সিজন অপ্রত্যাশিত সাফল্য পেয়েছে। আর অসংখ্য নারী তাঁদের জীবনের নানা ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন।’

কারিনা কাপুর খান আরও বলেন, তিনি তাঁর এই শোতে দুর্দান্ত অতিথিদের পেয়েছেন। তাঁর শাশুড়ি ভারতের চলচ্চিত্রের বরেণ্য অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরের সঙ্গে শো করেছেন। তাই এই শো থেকে তাঁর প্রাপ্তি কম নয়। আর দ্বিতীয় সিজন যে প্রথম সিজনকেও ছাড়িয়ে যাবে, সেই ব্যাপারে দারুণ আত্মবিশ্বাসী তিনি।

-ত্বকের-জন্য-ঘরোয়া-স্ক্রাব-1280x853.jpg

প্রায় সকলেই কোন না কোন সময়ে ত্বকের সমস্যায় ভুগে থাকেন।

যা খুবই স্বাভাবিক একটি বিষয়। এদিকে ত্বকের সমস্যাটির মতোই স্বাভাবিক বিষয় হলো সবাই সুস্থ ও সুন্দর ত্বক পেতে চান। কাঙ্ক্ষিত ত্বক পাওয়ার জন্য ত্বকের সঠিক পরিচর্যার কোন বিকল্প নেই একদম। ত্বকের পরিচর্যার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের পণ্য ব্যবহার করা হয়। সেটা হতে পারে কেমিক্যালযুক্ত কোন পণ্য অথবা প্রাকৃতিক ও পরিচিত কোন উপাদান। সাধারণত ত্বকের পরিচর্যার জন্য প্রাকৃতিক উপাদানের ব্যবহারের প্রতি জোর দেওয়া হয়। কারণ প্রাকৃতিক উপাদানের পুষ্টিগুণ সরাসরি ত্বককে প্রাণবন্ত করে তুলতে ও উপকার করতে কাজ করে।

প্রাকৃতিক উপাদানের মাঝে চালের গুঁড়া আদি ও অন্যতম একটি উপাদান। অ্যান্টি-অক্সিডেন্টপূর্ণ চালের গুঁড়া ত্বকের ফ্রি রেডিক্যাল ড্যামেজকে প্রশমিত ও প্রতিরোধ করে ত্বককে সুরক্ষিত রাখে। শসা কিংবা অ্যালোভেরার ভিড়ে চালের গুঁড়া ব্যবহারের কথা ভুলতে বসেছি আমরা। অথচ এই উপাদানটি খুব গভীর থেকে ত্বককে পরিষ্কার করে এবং ত্বকের নানান উপকারিতায় কাজ করে।

চালের গুঁড়া ব্যবহারে কী উপকারিতা পাওয়া যাবে?

ত্বকের পরিচর্যায় চালের গুঁড়া ব্যবহারে শুধু একটি বা দুইটি নয়, বেশ কিছু উপকারিতা একসাথে পাওয়া যাবে।

১. ত্বক এক্সফলিয়েট করতে কাজ করে।

২. একনের সমস্যা প্রতিরোধ করে।

৩. ত্বক কোমল করে।

৪. প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

৫. ত্বককে টানটান রাখতে সাহায্য করে।

৬. চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল দূর করে।

৭. রোদেপোড়াভাব কমাতে কাজ করে।

৮. হোয়াইট হেডস ও ব্ল্যাক হেডস দূর করে।

৯. দূর করবে ত্বকের বলীরেখা।

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে চালের গুঁড়া?

ত্বকের যত্নে চালের গুঁড়া ব্যবহারের বেশ কয়েকটি পদ্ধতি আছে। এখানে তিনটি সহজ ও প্রচলিত পদ্ধতি জানানো হলো।

চালের গুঁড়া ও হলুদ গুঁড়া

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে এই পদ্ধতিতে চালের গুঁড়া ব্যবহার করা হলে। এক টেবিল চামচ চালের গুঁড়া, এক চা চামচ লেবুর রস ও এক চিমটি হলুদ গুঁড়া একসাথে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে ত্বকে প্রলেপ মাখাতে হবে। ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

চালের গুঁড়া ও গোলাপজল

ত্বককে টান টান রাখতে ও ত্বকের বলীরেখা দূর করতে এই পদ্ধতিটি চমৎকার কাজ করবে। এই ফেসপ্যাক তৈরিতে এক চা চামচ চালের গুঁড়া, এক চা চামচ কর্নফ্লাওয়ার, এক টেবিল চামচ গোলাপ জল ও কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন একসাথে মেশাতে হবে। এই মিশ্রণটি ত্বকে ম্যাসাজ করে সম্পূর্ণ শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এরপর কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে নিতে হবে।

চালের গুঁড়া ও দুধ

এই মিশ্রণটি মূলত রোদে পোড়াভাব দূর করতে কাজ করবে। দুই টেবিল চামচ চালের গুঁড়া ও কাঁচা দুধ, এই দুইটি উপাদান একসাথে মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করে আধা ঘন্টা রেখে এরপর পানিতে ত্বক ধুয়ে ফেলতে হবে।

image-4-1280x845.jpg

নির্দিষ্ট একটি বয়সের পর চেহারায় বয়সের ছাপ দেখা দেওয়া শুরু হয়।

ত্বকের কোলাজেনের মাত্রা কমে যায়, কমে যায় ত্বকের ইলাস্টিটি। যা ত্বকে ঢিলেভাব তৈরি করে। তবে সঠিক বয়সের আগেই অনেক সময় বলিরেখার সমস্যাটি দেখা দেয়। অযত্ন ও ত্বকে সঠিক পুষ্টি গুণের অভাবে এই সমস্যাটি তৈরি হয়।

স্বাভাবিকভাবেই বলিরেখা চেহারার সৌন্দর্যকে অনেকটাই ম্লান করে দেয়। ত্বককে বলিরেখার হাত থেকে দূরে রাখতে চাইলে নারিকেল তেল ব্যবহার করা যাবে সকল ধরনের ত্বকের ক্ষেত্রেই। প্রাকৃতিক নারিকেল তেল ত্বকে পুষ্টি জোগাতে কার্যকর বিধায় নিত্যদিনের সৌন্দর্যচর্চার অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে নারিকেল তেল হতে পারে চমৎকার একটি উপাদান।

নারিকেল তেল ও লেবুর রস

এর জন্য প্রয়োজন হবে এক টেবিল চামচ নারিকেল তেল, ৫-৬ ফোঁটা লেবুর রস ও এক চা চামচ দুধ। প্রথমে লেবুর রস দুধে মিশিয়ে ছানা কেটে নিতে হবে। এতে নারিকেল তেল ভালোভাবে মিশিয়ে পুরো মুখে ২-৩ মিনিট যাবত ম্যাসাজ করতে হবে এবং ১০ মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে। এরপর কুসুম গরম পানিতে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। উপকারী এই নিয়মটি প্রতিদিন ব্যবহারে সবচেয়ে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে। কারণ লেবুর রস একদিকে যেমন ত্বককে পরিষ্কার করবে ও লোমকূপ ছোট করতে কাজ করবে অন্যদিকে দুধ মুখের আর্দ্রতা রক্ষা করতে কাজ করবে।

অ্যাপল সাইডার ভিনেগার ও নারিকেল তেল

মুখের ত্বকে ব্যবহারের জন্য এক চা চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগার, এক টেবিল চামচ পানি, ১০-১৫ ফোঁটা নারিকেল তেল ও তুলার বল প্রয়োজন হবে। প্রথমে অ্যাপল সাইডার ভিনেগার পানিতে মিশিয়ে তুলার বলের সাহায্যে মুখের ত্বকে ম্যাসাজ শুকিয়ে নিতে হবে। তার উপরে নারিকেল তেল ম্যাসাজ করতে হবে এবং সারারাত রেখে দিতে হবে। যদি সারারাত রাখা সম্ভব না হয় তবে অন্তত চার ঘন্টা রেখে এরপর ধুয়ে ফেলতে হবে।

একদিন পরপর এই পদ্ধতিতে নারিকেল তেল ব্যবহার করতে হবে। এই পদ্ধতিতে নারিকেল তেল ব্যবহারে ত্বকের pH এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকবে এবং অ্যাপল সাইডার ভিনেগার অ্যাস্ট্রিজেন হিসেবে কাজ করবে।এক টেবিল চামচ নারিকেল তেল ও এক চিমটি হলুদ গুঁড়া একসাথে মিশিয়ে ত্বকের বলিরেখার ভাব দেখা যাওয়া স্থানগুলোতে এই মিশ্রণটি আলতোভাবে ১৫-২০ মিনিট ম্যাসাজ করতে হবে। এরপর ঠাণ্ডা পানিতে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। উপকারী এই মিশ্রণের ব্যবহার প্রতিদিন করলে দ্রুত ও ভালো উপকারিতা পাওয়া যাবে। হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ফ্রি-রেডিক্যালের হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করবে এবং কোলাজেন বৃদ্ধিতে অবদান রাখবে, অন্যদিকে নারিকেল তেল প্রদাহ বিরোধী উপাদান হিসেবে কাজ করবে।

-নুজিব-বুি-1280x720.jpg

উৎসবের আমেজ চলছে সবজায়গায় নানারকমভাবে। আজকে শিখি নিবো কীভাবে উৎসবের আমেজকে বিশেষ করা যায় মজাদার রান্না দিয়ে।

রুই বিরিয়ানি

উপকরণ

ধাপ-১ : রুই ৫ টুকরো, আমন্ড বাটা ২ চামচ, লেবুর রস ২ চামচ, লবণ  দেড় চা চামচ, হলুদের গুঁড়ো ১ চা চামচ, কঁাচা মরিচ ১ চামচ, টকদই ৪ চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ চামচ, আদা বাটা ১ চামচ, রসুন বাটা ১ চামচ, গোলমরিচের গুঁড়ো ১ চা চামচ।

মাছ ম্যারিনেট : ওপরের সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে ঘণ্টাখানেক ম্যারিনেট করে রাখুন।

ধাপ-২ : বাসমতি চাল আধা কিলো (ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখা আধঘণ্টা রেখে ৮০ শতাংশ সেদ্ধ করে নেওয়া), বেরেস্তা ১ কাপ, রসুনকুচি ভেজে নেওয়া সিকি কাপ, দুধে ভেজানো জাফরান সিকি কাপ, গোটা গরম মসলা ফোড়নের জন্য, ধনেপাতা কুচি, সরিষা তেল সিকি কাপ, তেজপাতা ৩টি, কাঁচা মরিচ ফালি ৫টি।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. কড়াই খুব গরম করুন। এরপর তেল দিন। তেল গরম হলে পর ম্যারিনেট করা মাছ দিন। উল্টেপাল্টে সাবধানে কষিয়ে চুলা বন্ধ করে দিন।

২. এবার  ফ্রাইপ্যান গরম করুন। তেজপাতা দিন। এবার সেদ্ধ করা চাল কিছুটা দিন। তার ওপর কিছুটা রান্না করা মাছ, বেরেস্তা, রসুনকুচি, ধনেপাতার কুচি ছড়িয়ে দিন।

৩. পরপর একইভাবে স্তর সাজান। শেষে জাফরান গোলা ছড়িয়ে দিন। আট মিনিটের মতো ঢেকে রাখুন। নামিয়ে পরিবেশন করুন।

মনপছন্দ মুরগি

উপকরণ

মুরগি আধা কেজি, নারকেলের দুধ ১৫০ গ্রাম, নারকেল কোরা ২ চামচ, পোস্ত ১ চামচ, কাজু বাদাম ১ চামচ, কারিপাতা ৭টি, আদা এক টুকরো, রসুন ৭ কোয়া, লবণ দেড় চা চামচ, চিনি ১ চা চামচ, ফ্রেশ ক্রিম ২ চামচ, সাদা তেল পরিমাণমতো, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, কাঁচা মরিচ বাটা ১ চামচ, কাশ্মীরি মরিচ গুঁড়ো ১ চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়ো আধা চামচ।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. কড়াইতে সামান্য তেলে মুরগির মাংস ভেজে নিন।

২. নারকেল কোরা, পোস্ত, কাজু বাদাম, কারিপাতা, আদা ও রসুন একসঙ্গে বেটে নিন।

৩. কড়াইতে তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজকুচি লাল করে ভেজে বাটা মসলা দিন। ভালো করে কষিয়ে এবারে মুরগির টুকরো,লবণ চিনি, কাঁচা মরিচ বাটা, কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে কষিয়ে সামান্য পানি দিয়ে ঢেকে রাখুন।

৪. যখন মুরগি প্রায় সেদ্ধ হয়ে আসবে তখন নারকেল দুধ দিয়ে ফুটিয়ে গরম মসলা ছড়িয়ে নামিয়ে নিলে প্রস্তুত মনপছন্দ মুরগি।

ferdous-ahamed-1280x788.jpg

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নেতৃবৃন্দের কর্মকা- নিয়ে সমালোচনা করলেন সমিতির সদস্য চিত্রনায়ক ফেরদৌস। বর্তমান কমিটির বিভিন্ন কর্মকা-ের সমালোচনা করে ফেরদৌস বলেন, শিল্পী সমিতি কোনো রাজনৈতিক সংগঠন না। কোনো লাভজনক প্রতিষ্ঠান না।

এটা কারো ব্যাবসা না, পৈতৃক স¤পদও না। শিল্পীদের কল্যাণের জন্য এই সমিতি করা হয়েছে। যেখানে শিল্পীরা একত্রিত হবেন, বসবেন, গল্প করবেন, নিজেদের সুখ দুঃখ শেয়ার করবেন, নিজেদের সমস্যার সমাধান করবেন।

এফডিসি আমাদের একটা জায়গা দিয়েছে। সেখানে শিল্পী সমিতির কার্যালয়। আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ এটাকে সম্মান করা। এটা কারো ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহার করা উচিৎ নয়, যেটা এখন হচ্ছে। এখন যারা আছেন তারা এটাকে ব্যক্তিগতভাবে ব্যবহার করার চেষ্টা করছেন। অনিয়মের আখড়া যেন শিল্পী সমিতি। ফেরদৌস বলেন, যাদের সদস্য হওয়ার যোগ্যতা নেই তাদের তারা ভোট পাওয়ার জন্য সদস্য বানিয়েছেন।

অনেক যোগ্য লোক সদস্যপদ হারিয়েছেন। কিছু শিল্পীর নৈতিক অবক্ষয় হয়েছে। যারা শিল্পী সমিতির পদ আঁকড়ে ধরে থাকতে চান। তারা নিশ্চই কোনো না কোনোভাবে লাভবান হন এখান থেকে। নইলে এত টাকা ঢেলে, ক্ষমতা দেখিয়ে কেন নির্বাচনের ছক কষবেন! শিল্পীদের তো এসব রাজনীতি মানায় না। তিনি বলেন, একটা অশুভ শক্তির হাত থেকে সমিতিকে বাঁচাতে সবাই এক হয়েছিলাম।

দুঃখের ব্যাপার, এবার নিজেদের ভেতরেই সেই অশুভ আরেকটা শক্তির সৃষ্টি হয়েছে। আমি যদি শিল্পীদের পাশেই দাঁড়াতে না পারি। আমি ওখানে কেনো যাব? যারা যাচ্ছে তাদের হাতে কোনো সিনেমা নাই। তারা গিয়ে ওখানে বসে আছে। দিন রাত ২৪ ঘন্টা সমিতিতে বসে থাকে। এটাকে নিজের পার্সোনাল অফিস হিসেবে ব্যবহার করে। এটা খুব বাজে ব্যপার। অশিল্পীর নেতৃত্ব থেকে শিল্পী সমিতিকে বাঁচাতে হবে।

গত দুই বছরে অনেক কিছু দেখা হয়েছে। কিছু বলতে গেলেই তোষামোদ করে, নানাভাবে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। শিল্পী সমিতিতে যে অনাচার শুরু হয়েছে এর সমাধান হওয়া দরকার। এটাতো একটা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এখান থেকে তো কেউ বেতন পায় না। তাহলে যারা এটাকে আঁকড়ে থাকার এতো আগ্রহ কেন? কেন এখানে তারা এতো টাকা খরচ করে। শুনেছি নির্বাচন করতে নাকি ২০ লাখ ৩০ লাখ টাকা তারা খরচ করে।

তারা ভোট কেনে। ফেরদৌস বলেন, গত বছর নির্বাচনে আমার মাত্র ৬০০ টাকা খরচ হয়েছিলো। অথচ তারা নাকি ৩০ লাখ, ৪০ লাখ টাকা দিয়ে এখানে নির্বাচন করেছে। কেন? কিসের লাভ তাদের, কিসের লোভ তাদের? এটা বুঝতে পারছি না। এটা খতিয়ে দেখা উচিত সবার।

আর সদস্যদের উচিৎ সঠিক মানুষকে নির্বাচিত করা। আমি এবার নতুনের পক্ষে। শিল্পী সমিতির নানা অনাচার নিয়ে ফেরদৌস বলেন, বিভিন্ন ক্লাব ও সমিতির নামে ঢাকা শহরে যে ধরণের অনাচার চলছে, শিল্পী সমিতিতে তার চেয়ে কম কিছু হচ্ছে না। সমিতির একটা নির্দিষ্ট সময় থাকবে, এটা কখন খুলবে, কখন বন্ধ হবে। কারও ইচ্ছে হলে সেখানে রাত বারোটা পর্যন্ত আড্ডা মারতে পারবে না। অথচ শিল্পী সমিতি রাত ২টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

কেন? কী প্রয়োজনে? কী হয় সেখানে? এভাবে রাত-বিরাতে সমিতি খুলে রাখায় এফডিসির কর্মকর্তারাও বিরক্ত। ফেরদৌস বলেন, এবার সদস্য পদে নির্বাচন করার ইচ্ছে ছিল। মৌসুমীর প্যানেল থেকেই করতাম। আলাপও হয়েছিল। সময়ের অভাবে করা সম্ভব হচ্ছে না। পাশাপাশি কিছু ঝামেলাও ছিলো প্যানেল নিয়ে।

EAtypV6UYAALfou.jpg

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। এরই মধ্যে পূজার আনন্দে মেতে উঠেছেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। পূজা মণ্ডবগুলোর পাশাপাশি উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে সবখানে। সে আনন্দে মেতে উঠেছেন তারকা শিল্পীরাও। চিত্রনায়িকা পূজা চেরি জানালেন, তার পূজার গল্প।

এই অভিনেত্রী বলেন, পূজা এলে অন্যরকম ভালোলাগা কাজ করে। কখন কী করব, কোন কোন মণ্ডপে ঘুরে বেড়াবো, এমন পরিকল্পনা করতে থাকি। যদিও পরিকল্পনা অনুযায়ী, সব হয়ে উঠে না। তবুও ভাবতে আনন্দ লাগে। পূজার দিনগুলোর পরিবারের সঙ্গেই কাটানো হয়।

তিনি আরও বলেন, পূজার দিনগুলো বাসায় রীতিমত উৎসব আমেজ বিরাজ করে। আত্মীয়-স্বজনদের আসা যাওয়া, তাদের সঙ্গে পূজা মণ্ডবে যাওয়া, আনন্দ করা আরও কত কি।

পূজা এলে আমার নতুন জামাকাপড় লাগবেই জানিয়ে পূজা বলেন, ‘শুধু আমার না, পরিবারের সবাই মিলে নতুন পোশাক কিনে থাকি। এবারও তাই করেছি। পূজার জন্য এবার আমি অনেক শপিং করেছি।’

তবে ছোটবেলার পূজার উৎসবগুলো আরও অনেক মজার ছিল জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘বড় হওয়ার পর মনে হয়, তা আস্তে আস্তে কমে যাচ্ছে। আমার বেড়ে উঠা ঢাকার হাজারীবাগে। ছোটবেলায় তাঁতীবাজার, শাঁখারীবাজারসহ বহু মন্দিরে বন্ধুদের নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছি। অনেক আনন্দ করেছি। সেই দিনগুলো খুব মিস করি।’

‘পড়াশোনা আর অভিনয় নিয়ে এখন ব্যস্ত থাকতে হয়। ইচ্ছে থাকলেও অনেক কিছু করা হয় না। তবে দুর্গাপূজার এই আনন্দ মিস করতে চাই না। এরই মধ্যে পূজা মণ্ডবে যাওয়া হয়েছে, আজও যাব। বনানী পূজামণ্ডপে এখনে যাওয়া হয়নি, তবে যাওয়ার ইচ্ছা আছে’ যোগ করেন পূজা।

Hrithik_Roshan_1.jpg

সফলভাবে মুক্তির চার দিন পার করে ফেলেছে সিদ্ধার্থ এবং হৃতিকের দ্বিতীয় ছবি ‘ওয়ার’। এর আগে ২০১৪ সালে ‘ব্যাং ব্যাং’ ছবিটিতে তারা একসাথে কাজ করেছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, ‘ব্যাং ব্যাং’ এর সিকুয়েল নির্মাণ করা হবে এবং তাতে হৃতিকই থাকবেন।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে ‘ওয়ার’ এর সাফল্যের পরিপ্রেক্ষিতে হৃতিক এবং এর পরিচালক সিদ্ধার্থ আনন্দ একটি প্রশ্নের সম্মুখীন হন। প্রশ্নে তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয় ‘ব্যাং ব্যাং’ এর সিকুয়েল নির্মাণের বিষয়ে। এসময় উত্তরে সিদ্ধার্থ বলেন, “অনুগ্রহপূর্বক এই প্রশ্নটি হৃতিককে করুন। তিনি যখন চাইবেন তখনই এটি সম্ভব।”

সিদ্ধার্থের এমন উত্তরে হৃতিক হাসতে হাসতে জবাব দিয়ে বলেন, “আমি তো তৈরি”। এর পরপরই সিদ্ধার্থ বলেন, “সত্যি বলতে আমি প্রচণ্ড ভাবে অপেক্ষায় আছি সিকুয়েল নির্মাণের জন্য। ছবিটি সবাই পছন্দ করেছিল সেসময় এবং এর সাথে আমার অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে। হৃতিক রাজি হলেই আমি এর সিকুয়েল নির্মাণে নেমে পড়বো।”

তাদের এমন ইতিবাচক উত্তর থেকেই ধারণা পাওয়া যাচ্ছে খুব শিগগিরি হয়ত ‘ব্যাং ব্যাং’এর সিকুয়েল নির্মাণে নেমে পরবেন পরিচালক সিদ্ধার্থ আনন্দ।

765968-000-sara-ali-khan-1-1280x720.jpg

‌‘কেদারনাথ’ সিনেমা দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু, জিতেও নিয়েছেন আইফা অ্যাওয়ার্ড ২০১৯। অভিনয় দক্ষতার গুণে ইতিমধ্যেই বলিউডে নিজের একটা শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন। তিনি আর কেউ নন, সাইফ আলী খানের মেয়ে সারা আলী খান। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বাবা সাইফ ও সৎ মা কারিনা কাপুরের বিয়ের সঙ্গে সম্পর্কিত কিছু রহস্যের উন্মোচন করেছেন এই অভিনেত্রী।

সারা জানিয়েছেন, বাবার বিয়ের সময় তার মা অমৃতা কি করেছিলেন? তার দেওয়া বক্তব্য শুনলে অবাক হবেন আপনিও।

ভারতের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, সম্প্রতি ভাই ইব্রাহীমের সঙ্গে একটি ম্যাগাজিনের কভার পেজের জন্য ফটোশুট করতে দেখা গেছে সারাকে। এরপরই হেলো ম্যাগাজিনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সাইফ ও কারিনার বিয়ে সম্পর্কিত অজানা তথ্য জানান এই অভিনেত্রী।

সারা জানান, যে সময় কারিনা-সাইফের বিয়ে হচ্ছিল, সেই সময় তার মা অমৃতা তাকে খুব সুন্দর একটা ল্যাহেঙ্গা কিনে দিয়েছিলেন।

অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘আমার খুব ভালো মনে আছে, বাবা যখন কারিনাকে বিয়ে করছিল, তখন মা আমাকে নিয়ে লকারে গেছিলেন এবং সেখান থেকে ভালো ভালো গয়না বার করে আমার হাতে তুলে দিয়েছিলেন। আমি কোন ঝুমকো পরলে ভালো লাগবে, সেটা মাকেই জিজ্ঞাসা করেছিলাম। মা সন্দীপ ও আবুকে ডেকে বলেছিলেন, সাইফ বিয়ে করছে, আমি চাই সেই বিয়েতে সবচেয়ে সুন্দর ল্যাহেঙ্গা সারা পরুক।’

প্রসঙ্গত, বিয়ের কয়েক বছর বাদে সাইফ ও অমৃতার মধ্যে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। অন্যদিকে সারা ও কারিনার সম্পর্ক খুবই ভালো, তারা একে অপরের খুব ভালো বন্ধু।
বর্তমানে ‘কুলি নম্বর ওয়ান’-এর শুটিং নিয়ে খুবই ব্যস্ত সারা। এই সিনেমায় তার বিপরীতে রয়েছেন বরুন ধাওয়ান। সিনেমাটি কারিশ্মা কাপুর ও গোবিন্দ অভিনীত ‘কুলি নম্বর ওয়ান’-এর রিমিক।

এর আগে ‘লাভ আজ কাল ২’ ছবির শুটিং শেষ করেন সারা। এই সিনেমায় তার বিপরীতে রয়েছে কার্তিক আরিয়ান।

Mousumi-1280x863.jpg

ফেরদৌস, রিয়াজ, পূর্ণিমা, পপি, নিপুণ, ইমনসহ অনেকেই পাশে ছিলেন মৌসুমীর। কিন্তু হঠাৎ তার পাশ থেকে সরে গেলেন সবাই। একা হয়ে পড়েছেন বাংলা চলচ্চিত্রের ‘প্রিয়দর্শিনী’।

২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির ২০১৯-২১ মেয়াদি নির্বাচন। উপরে যাদের নাম লেখা হয়েছে তাদের উৎসাহ-উদ্দীপনায় ডি এ তায়েবের সঙ্গে জোট বেঁধে শিল্পী সমিতির নির্বাচন করতে চাচ্ছিলেন মৌসুমী। নিজেকে সভাপতি ও তায়েবকে সম্পাদক করে প্যানেলও আহ্বান করেছিলেন।

১ অক্টোবর ২১ পদে ৩০টি মনোনয়ন ফরমও তুলেছিল প্যানেলটি। এতেই থাকার কথা ছিল ফেরদৌস, রিয়াজ, পূর্ণিমা, পপি, নিপুণ, ইমনসহ আরও কয়েকজন অভিনতো-অভিনেত্রীর। কিন্তু তারা সবাই সটকে পড়েছেন। তাই সভাপতি পদে সতন্ত্র নির্বাচন করছেন ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমায় অভিষিক্ত এই অভিনেত্রী।

গতকাল বৃহস্পতিবার নিজের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন মৌসুমী। বিকেল ৩টার দিকে স্বামী ওমর সানীকে সঙ্গে নিয়ে বিএফডিসিতে নির্বাচন কমিশনারের কার্যালয়ে আসেন তিনি। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছে মনোনয়ন দিয়ে বেরিয়ে পড়েন। ডি এ তায়েব এ সময় তার সঙ্গে না থাকলেও জানান গেছে সতন্ত্র নির্বাচন করবেন তিনি।

বিএফডিসিতে নির্বাচন কমিশনারের কার্যালয় থেকে বেরিয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের মৌসুমী বলেন, ‘প্যানেল করতে পারলাম না। স্বতন্ত্রভাবে সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র জমা দিলাম। কারণ, আমি এখন একা। যারা আমাকে সভাপতি করে প্যানেল তৈরিতে পরামর্শ, সাহস দিয়েছিলেন, তারা সরে গেছেন। নির্বাচনে আমার সঙ্গে কেউ নেই।’

এ সময় তিনি জানান, বড় চমক দিয়ে প্যানেল তৈরি করলেও গত কয়েক দিন ধরে একটি মহল আড়াল থেকে বাঁধা সৃষ্টি করে আসছিল। তার সঙ্গে যারা ছিলেন তাদের নির্বাচন না করতে প্রভাবিত করেছে ওই মহল। একজন শিল্পী হিসেবে এসব প্রত্যাশা করেননি তিনি।

কারা তাকে সরে যেতে বলছেন এবং কেন প্রশ্ন করা হলে মৌসুমী বলেন, ‘আমি জানি না। এটি কোনো জাতীয় নির্বাচন না। তারপরও বড় বড় জায়গা থেকে বলা হচ্ছে, সরে যাও। ঠিক আছে আমি সরে যাব। কিন্তু অন্যায়ভাবে যেসব শিল্পীর ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে, তাদের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেওয়া হোক। অসহায় শিল্পীদের ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়ার প্রতিবাদের ভাষা হিসেবেই আমি নির্বাচন করছি।’

এ সময় অভিভাবক ও জ্যেষ্ঠ শিল্পীদের কাছে অনুরোধ জানান বাংলা চলচ্চিত্রের প্রিয়দর্শিনী খ্যাত এই অভিনেত্রী। বলেন, ‘নির্বাচনে আমাকে সরে দাঁড়ানো বা প্রতিহত করার জন্য যে অপচেষ্টা চলছে, তা যেন না হয়। একটি প্যানেল করতে দিলে কিছুই ক্ষতি হতো না। আমি আগে থেকেই যেহেতু ঘোষণা দিয়েছি, এ কারণে সরে যাচ্ছি না। তা ছাড়া অনেকেই আমার দেখাদেখি স্বতন্ত্র দাঁড়াচ্ছেন। তাদের কথা, শেষ পর্যন্ত যদি আমিও নির্বাচনে না থাকি, তাহলে চাওয়ার জায়গাটা সব শেষ হয়ে যাবে। তাই আমি নির্বাচন করছি। দেখি কী হয়!’

Faruki_Megan.jpg

প্রায় এক বছর ধরে জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী তার নতুন ছবি ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’-এর জন্য নায়িকা খুঁজছেন। নানা যাচাই-বাছাইয়ের পর অবশেষে নায়িকা পেলেন তিনি। তবে দেশের কোনো অভিনেত্রী না, নতুন ছবির জন্য তিনি বেছে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার অভিনেত্রী মেগান মিশেলকে। এর মধ্য দিয়েই বড়পর্দায় অভিষেক হবে মেগানের।

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী জানান, ছবির প্রযোজক প্যানেলে যুক্ত হয়েছেন ‘ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পিরিট অ্যাওয়ার্ড’ জয়ী মার্কিন প্রযোজক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা শ্রীহরি শাথে। এতে প্রধান নারী চরিত্রে অভিনয় করবেন মিশেল মেগান।‘এক হাজারি নোট’ নির্মাণের পাশাপাশি বেশ কিছু ইন্ডিপেন্ডেন্ট সিনেমা প্রযোজনা করেছেন শাথে। যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির স্কুল অব আর্টস-এ সহকারী অধ্যাপক তিনি।

এদিকে ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’ ছবির প্রযোজক হিসেবে যুক্ত আছেন ভারতের জনপ্রিয় এবং মেধাবী অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী। এর চিত্রনাট্য ইতিমধ্যে একাধিক উৎসবে ফান্ড জিতে নিয়েছে। এ ছবির মধ্য দিয়ে প্রযোজনায় নাম লেখাতে যাচ্ছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। এ ছাড়া ছবিটি প্রযোজনা করছেন বাংলাদেশের স্কয়ার গ্রুপের অঞ্জন চৌধুরী ও মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ছবিয়াল। আগামী বছরের শুরুতে সিনেমার চিত্রায়ণ শুরু হবে। ছবির দৃশ্যধারণ করা হবে আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের বিভিন্ন লোকেশনে।