আন্তর্জাতিক Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

honeypreet-ramrahim-20190622220222.jpg

জেলখানায় বসে সবজি চাষ করেন বহুল আলোচিত সিরসা ডেরার প্রধান গুরমিত রাম রহিম সিং। দুই বছর ধরে তিনি জেলে রয়েছেন। এ দুই বছলর তিনি সবজি চাষ করে ১৮ হাজার রুপি আয় করেছেন। এ রুপি আয় করতে তার শরীরের ওজনও ১৫ কেজি কমেছে। ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দণ্ডিত হয়ে ‘বাবা’ হিসেবে পরিচিত সাবেক এই ধর্মগুরু ২০১৭ সাল থেকে ভারতের সুনারিয়া জেলে বন্দি রয়েছেন।

৫০তম জন্মদিন পালনের ১০ দিন পরই ডেরা সদরদফতর থেকে গ্রেফতার করা হয় গুরমিতকে। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট তাকে জেলে ঢোকানো হয়। পাঁচকুলার সিবিআই আদালত তাকে ২০ বছরের জেল দেন।

গ্রেফতারের পর তাকে সুনারিয়া জেলে রাখা হয়। এরপর থেকে জেলখানাটি উচ্চ নিরাপত্তা জোনে পরিণত হয়। জেলখানাটিতে গড়ে তোলা হয়েছে বহুস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা। এতে মোতায়েন করা হয়েছে আধা-সামরিক বাহিনীর সদস্য। সার্বক্ষণিক সেখানে প্রহরা চলছে। নিয়মিত কয়েদিদের কয়েদখানা থেকে কিছুটা দূরে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন একটি বিশেষ জেলে রাখা হয়েছে গুরমিতকে। সেখানে তার সঙ্গে রয়েছে মাত্র তিনজন অভিযুক্ত।

গুরমিত রাম-রহিম সিংকে জেলে ঢোকানোর পর তার পালিতকন্যা হানিপ্রিত আর কখনও তাকে দেখতে যাননি। তবে তার পরিবারের সদস্যরা সপ্তাহে একবার দেখা করতে যান। তাদের কাছে গুরমিত তার ময়লা কাপড় দিয়ে ধোয়া কাপড় গ্রহণ করেন। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া।

priyanka-gandhi-20190825214743.jpg

ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের মহাসচিব প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেছেন, জাতীয়তাবাদের নামে লাখো মানুষের কণ্ঠরোধ করা হচ্ছে। রোববার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে তিনি ওই মন্তব্য করেন।

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত ৩৭০ ধারা অপসারণের পর রাজ্যের পরিস্থিতি সম্পর্কে ওই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আর কতদিন ধরে এসব চলবে?

শনিবার কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে বিরোধীদলীয় একটি প্রতিনিধিদল শ্রীনগর বিমানবন্দরে পৌঁছায়। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের বিমানবন্দরের বাইরে পা রাখতে না দিয়ে দিল্লিতে ফেরত পাঠানো হয়।

শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকে ফেরার সময় বিমানে এক কাশ্মীরি নারী রাহুল গান্ধীকে তাদের দুর্ভোগের কথা তুলে ধরে কেদে ফেলেন। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও শেয়ার করে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেন, তিনি (কাশ্মীরি নারী) হলেন সেই লাখো মানুষের মধ্যে একজন; যাদেরকে জাতীয়তাবাদের নামে চুপ করানো ও চূর্ণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘কাশ্মীরে এখন যেভাবে গণতান্ত্রিক অধিকারগুলোকে খর্ব করা হচ্ছে, তার চেয়ে বড় রাজনীতি আর বড় জাতীয়তাবিরোধী কার্যকলাপ আর কিছু হতে পারে না।’

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এক সাংবাদিকের ভিডিও শেয়ার করেন যাতে দেখা যায়, বিমানের মধ্যে এক নারী রাহুল গান্ধীকে বলেন, বর্তমানে কাশ্মীরের মানুষ খুব দুর্ভোগে রয়েছেন। ওই নারী রাহুল গান্ধীকে বলেন, ছোট ছোট শিশুরা স্কুলে যেতে পারছে না। একে অন্যকে খুঁজতে বাসা থেকে বেরোলে তাদেরকে ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

ওই নারী বলেন, আমার এক ভাই হার্টের রোগী। তিনি নিজ শিশুকে খুঁজতে বেরিয়েছিলেন। তাকে আটক করা হয়েছে এবং ১০ দিন ধরে তার খোঁজখবর পাওয়া যাচ্ছে না যে কোথায় আছে কীভাবে আছে। আমরা সবদিক দিয়ে খুব দুর্ভোগে রয়েছি।

শ্রীনগর থেকে ফিরে শনিবার সন্ধ্যায় রাহুল গান্ধী বলেন, সেখানকার পরিস্থিতি ভালো নয়। আমরা সেখানকার পরিস্থিতি জানতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমাদেরকে বিমানবন্দরের বাইরে বেরোনোর অনুমতি দেয়া হয়নি।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে গণমাধ্যমের সদস্যরা ছিলেন। তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে, এ থেকে স্পষ্ট যে জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়।

me2a.jpg

ইহুদিবাদী ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্র কোনো কাপুরুষতা দেখালে ইরান তাদের বিরুদ্ধে কঠোর জবাব দেবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তেহরানের উপ প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাসেম তাকিযাদে।

শনিবার তেহরানের ‘মালেক আশতার’ সামরিক শিল্প বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ইরানে তৈরি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি একই ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের তুলনায় অনেক বেশি নিখুঁতভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে।

তিনি আরও বলেন, তার দেশ বর্তমানে ট্যাংক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির দিক দিয়ে বিশ্বের ছয়টি দেশের কাতারে শামিল হয়েছে। এছাড়া, অত্যাধুনিক ট্যাংক নির্মাণের দিক দিয়ে ইরান এখন বিশ্বের প্রধান চারটি দেশের একটিতে পরিণত হয়েছে।

শত্রুর হুমকির কথা বিবেচনা করে ইরান ১,৮০০ কিলোমিটার পর্যন্ত পাল্লার ব্যালিস্টিক ও ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নির্মাণ করেছে। ইরানে তৈরি সামরিক বাহিনীর অন্যান্য যুদ্ধাস্ত্রগুলো যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি যুদ্ধাস্ত্রের চেয়ে শতকরা ২০ ভাগ বেশি নিখুঁত ও ধ্বংস ক্ষমতাসম্পন্ন বলেও জানান তিনি।

Amazon-Wild-Fire.jpg

এতদিন আমাজনের জঙ্গলে আগুন নিয়ে এক প্রকার নিরুত্তাপ ছিলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসনারো। ব্রাজিলের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে অন্য দেশের নাক গলানোকেও ভাল চোখে দেখছিলেন না তিনি। তবে, বিশ্বের তাবড় দেশের চাপের মুখে পড়ে অবশেষে মাথা নত করলেন জাইর। আমাজনের আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করলেন তিনি। খবর: জি নিউজ।

পরিবেশবিদদের মতে বায়ুমন্ডলের ২০ শতাংশ অক্সিজেনের উত্স আমাজনের জঙ্গল। তাই আমাজনে বিপুল পরিমাণ গাছে নষ্ট হওয়ায় তার প্রভাব শুধু ব্রাজিলে বা দক্ষিণ আমেরিকায় সীমাবদ্ধ থাকবে না। প্রভাব পড়বে সারা বিশ্বে। আমাজনের জঙ্গলের আগুন নিয়ে গভীর চিন্তা প্রকাশ করেছে ট্রাম্প সরকার। ফ্রান্সে জি-সেভেন সম্মেলনেও এটি নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানা গিয়েছে।

শুক্রবার আয়ারল্যান্ড জানায় পরিবেশ বিষয়ক আন্তর্জাতিক চুক্তিগুলি লঙ্ঘন করছে ব্রাজিল সরকার। ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন ও মার্কোসুর মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিকে সমর্থন না করার হুমকি দিয়েছেন আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকর।

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ব্রাজিলের কড়া সমালোচনা হওয়ায় চাপে ব্রাজিলের শিল্পপতিরাও। বহুদিন ধরেই উন্নয়নশীল দেশগুলির আন্তর্জাতিক সংগঠনে(অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কোঅপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট) যোগ দেওয়ার চেষ্টা করছে ব্রাজিল। প্যারিসের এই সংগঠনে আছে বিশ্বের ৩৭টি উন্নয়নশীল দেশে। ফলে, ব্রাজিলের অর্থনীতিতে এর প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কায় ব্রাজিলের শিল্পপতিরা। কমতে পারে আন্তর্জাতিক বিনিয়োগের সম্ভাবনাও। এই সকল কারণে সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করছিল ব্রাজিলের বণিক সংগঠনগুলি।

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে প্রবল চাপের মুখে কার্যত কোণঠাসা হয়ে পড়ে ব্রাজিল সরকার। শুক্রবার রোরাইমার গভর্নর অ্যান্টনিও দেনারিয়াম জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে সেনাবাহিনীকে নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট।

শুধু তাই নয়, নিজেদের ভাবমূর্তি উদ্ধারেও উঠে পড়ে লেগেছে ব্রাজিল সরকার। একটি ১২ পাতার সার্কুলার জারি করে পরিবেশ রক্ষার্থে ব্রাজিল সরকারের পদক্ষেপগুলি এক প্রকার আঙুল দিয়ে দেখানোর চেষ্টায় ব্রাজিল সরকার।

প্রথমে এই বিশাল বিপর্যয়কে সাধারণ বলে উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও এবার পদক্ষেপ করল ব্রাজিল সরকার। ব্রাজিলের কৃষি মন্ত্রী টেরেজা ক্রিস্টিনা দিয়াস বললেন, “আমাজনের জঙ্গলের গুরুত্ব অপরিসীম। ব্রাজিল সরকার সে বিষয়ে ওয়াকিবহাল। আমাজনের জঙ্গলকে বাঁচাতে সবরকম চেষ্টা করবে সরকার।”

5-12-1.jpg

সম্প্রতি ভারতীয় সংবিধান থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ তুলে দেয়া হয়েছে। এতে করে বিশেষ মর্যাদা হারিয়েছে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীর। চলতি মাসের শুরুতে কার্যকর মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতি সমর্থন রয়েছে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভারতীয়দের।

তবে এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইন্ডিয়ান অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিসের (আইএএস) এক কর্মকর্তা। কান্নান নামের ওই কর্মকর্তা জম্মু-কাশ্মীরে দমন-নিপীড়নের প্রতিবাদে পদত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছেন।

নরেন্দ্র মোদি সরকার ভারতীয় সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেয়ার পর এই প্রথম কোনো শীর্ষ কর্মকর্তা পদত্যাগ করে প্রতিবাদ জানালেন।

এর আগে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক পদে দায়িত্ব পালন করেছেন কান্নান। জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে তার ভাষ্য, ‘ভেবেছিলাম সিভিল সার্ভিসে থেকে মানুষের বক্তব্য তুলে ধরতে পারব। দেখলাম আমার কণ্ঠই রুদ্ধ হয়ে যাচ্ছে।

’তিনি আরও বলেন, ‘আমি স্বরাষ্ট্রসচিব বা অর্থসচিব নই। আমার পদত্যাগে পরিস্থিতির বদল হবে না। কিন্তু আমার বিবেক স্বচ্ছ।’ আইএএস অ্যাসোসিয়েশন সূত্র জানিয়েছে, জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের মৌলিক অধিকার খর্ব হওয়ায় ক্ষুব্ধ ছিলেন কান্নান।

পদত্যাগের ঘোষণার পর কান্নানের এক সহকর্মী বলেছেন, ‘ও বলত মৌলিক অধিকার খর্ব হওয়ার অর্থ জরুরি অবস্থা জারি হওয়া।’

মোদি সরকারের সঙ্গে আগেও বিরোধ হয়েছে কান্নানের। লোকসভা ভোটের সময়ে এক নেতা তাকে নির্দেশ দেয়ায় নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছিলেন কান্নান।

তার এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কান্নানকে ‘দেশ-বিরোধী’ আখ্যায়িত করে টুইটারে সমালোচনা করছে এক পক্ষ। তবে এসব পাত্তা দিচ্ছেন না তিনি। তিনি বলেছেন, ‘দেশের স্বার্থে আমি দেশ-বিরোধী তকমা সহ্য করতে রাজি আছি।’

তবে কান্নানের পাশে দাঁড়িয়েছেন কেউ কেউ। সাবেক আইএএস অনিল স্বরূপ বলেছেন, ‘কান্নানের মতো অফিসারদের নিয়ে আমরা গর্বিত।’

nue5w.jpg

কোনোরকম যুদ্ধ অভিযান ছাড়াই আকাশে ওড়ার সময় বিধ্বস্ত হয়ে পড়ছে ভারতীয় যুদ্ধবিমানগুলো। চলতি বছরেই পৃথক ১০টি ঘটনায় অন্তত ১১ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে এক ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। এসব দুর্ঘটনায় পাইলটসহ কমপক্ষে ২২ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

ওই দুর্ঘটনাগুলো ও ক্ষতির হিসাব দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি ২০১৯ সালকে ভারতীয় বিমানবাহিনীর জন্য একটি রক্তাক্ত বছর আখ্যা দিয়েছে।

তবে ভারতের অভ্যন্তরে ঠিক কী কারণে বিমান বাহিনীর জঙ্গিবিমানে এমন দুর্ঘটনা ঘটছে তার সঠিক কোনো কারণ এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ভারতে সর্বশেষ গত ৮ আগস্ট রাতে একট সুখোই এসইউ এমকেআই যুদ্ধবিমান আসাম রাজ্যের তেজপুরে টহলরত অবস্থায় বিধ্বস্ত হয়।

ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, গত ৩ জুন ১৩ আরোহীসহ নিখোঁজ হয় এএন-৩২ বিমান। পরে বিমানটির বিধ্বস্ত অংশ উদ্ধার করা হয়।

গত মার্চ মাসে ভারতীয় বিমানবাহিনীর ২টি ‘মিগ’ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়। ৮ মার্চ পাখির সঙ্গে ধাক্কা লেগে একটি মিগ-২১ ও মাসের শেষের দিকে যোধপুরে বিধ্বস্ত হয় মিগ-২৭।

গেল ফেব্রুয়ারি মাসে ঘটে সবচেয়ে বড় ঘটনা। এ মাসে ছয়টি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়। বালাকোটে ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

১ ফেব্রুয়ারি পরীক্ষামূলক উড্ডয়নের সময় বিধ্বস্ত হয় মিরেজ ২০০০।

১২ ফেব্রুয়ারি কোনো কারণ ছাড়াই রাজস্থানের জয়সালমারে বিধ্বস্ত হয় মিগ-২৭।

১৯ ফেব্রুয়ারি ব্যাঙ্গালুরুর বিধ্বস্ত হয় ভারতীয় বিমান কসরত (অ্যাক্রোবেটিক) দল সূর্য কিরণের দুটি বিমান।

২৭ ফেব্রুয়ারি মিগ-২১ ও এমআই-১৭ভি৫ হেলিকপ্টার হারায় ভারত।

পাকিস্তান বিমান বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে ভারতীয় মিগ-২১ কে ভূপাতিত করে পাকিস্তান।

বালাকোটে উত্তেজনার মধ্যে নিজেদের ভুলেই বিধ্বস্ত হয় ভারতীয় বিমান বাহিনীর এমআই-১৭ভি৫ হেলিকপ্টার।

২৮ জানুয়ারি উত্তর প্রদেশে জাগুয়ার বিমান আকাশে ওড়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে বিধ্বস্ত হয়।

amzon-plane-crush-20190825163321.jpg

ইকুয়েডরের আমাজন অঞ্চলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান কোম্পানি সিসেনা এয়ারক্রাফটের একটি ছোট বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে ওই বিমানের চার আরোহীর সবাই নিহত হয়েছেন। শনিবার দেশটির কর্তকর্তাদের বরাত দিয়ে ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, সিসেনা এয়ারক্রাফটের সিসেনা-১৮২ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে অন্তত চার আরোহীর প্রাণহানি ঘটেছে। ছোট ওই বিমানটিতে পাইলট ও তিন আরোহী ছিলেন।

তাৎক্ষণিকভাবে বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার কোনো কারণ জানা যায়নি। তবে বিমান বিধ্বস্তের এ ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে।

ইকুয়েডরের আমাজন অঞ্চলের মোরোনা স্যান্টিয়াগো ও জামোরা চিনচিপে সীমান্তের কাছে শুক্রবার বিমানটি বিধ্বস্ত হয়।

কয়েক ঘণ্টার দীর্ঘ অভিযানের পর ইকুয়েডরের সেনাবাহিনী ও অন্যান্য সংস্থার কর্মকর্তারা শনিবার বিমানটির আরোহীদের মরদেহ উদ্ধার করেছেন।

amazom4.jpg

ভয়াবহ আগুনে পুড়ছে আমাজন। দিকে দিকে সে আগুনে পুড়ে কয়লা হচ্ছে শতসহস্র বর্গমাইলের চিরহরিৎ বন। প্রাণ বাঁচাতে আগুনের মুখে ছুটছে অবলা প্রাণিকুল, না পেরে পড়ে থাকছে অঙ্গার হয়ে। কিন্তু কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না সে আগুন, পুড়ে খাক হচ্ছে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’।

বনটির প্রায় আট হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকা আগুনে পুড়ে গেছে। আগুন নেভাতে বিমান ভাড়া করে পানি ঢালছে বলিভিয়া।বোয়িংয়ের একটি সুপার ট্যাংকার বিমানের মাধ্যমে শুক্রবার (২৩ আগস্ট) থেকে আমাজনে পানি ঢালতে শুরু করেছে বলিভিয়া সরকার।

বলিভিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট আলভারো গার্সিয়া বলেছেন, মার্কিন কোম্পানির কাছ থেকে ভাড়া করা একটি বিমানে আমাজনের আগুন নেভানোর চেষ্টা করছি আমরা। সুপার ট্যাংকার ওই বিমানটি ১ লাখ ৫০ হাজার লিটার অর্থাৎ ৪০ হাজার গ্যালন পানি বহনে সক্ষম। বলিভিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী জাভিয়ের জাবালেতা বলেছেন, সান্তা ক্রুজ প্রদেশের উত্তরাঞ্চলে চারটি আকাশযান ভয়াবহ আগুনে শিকার আমাজনের ছয়টি স্থান চিহ্নিত করে পানি ঢালার কাজ করছে। প্রতিবেশী প্যারাগুয়ে ও ব্রাজিলকে অগ্নিনির্বাপণের জন্য পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে দেশটি।

প্রায় ৫৫ লাখ বর্গকিলোমিটার আয়তনের আমাজন বন আকারে ইউরোপ মহাদেশের প্রায় অর্ধেক। ব্রাজিলের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেশির ভাগ এলাকা, কলম্বিয়া, পেরুসহ দক্ষিণ আমেরিকার নয়টি দেশে বিস্তৃত এই বন। তবে এই বনের সিংহভাগ পড়েছে ব্রাজিলে। জীববৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ আমাজনের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে প্রশস্ত নদী আমাজনসহ অনেকগুলো নদ-নদী। এই বনে রয়েছে প্রায় ৩০ লাখ প্রজাতির উদ্ভিদ ও প্রাণী। এ ছাড়া প্রায় ১০ লাখ ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর বাস এখানে। বিশ্বের প্রায় ২০ শতাংশ অক্সিজেন তৈরি করে এই বন।

dead-body.jpg

 মালয়েশিয়ার অন্যতম এবং টুরিস্টদের প্রথম পছন্দের সমুদ্র ল্যাংকাউই সমুদ্র সৈকতের তাংযুং রুহুতে গোছল করতে নেমে নিহত হয়েছে পাকিস্তানের নাগরিক।

শুক্রবার (২৩ আগষ্ট) স্থানীয় সময় রাত আটটার দিকে চারজন বন্ধু মিলে সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে নেমে হাসিব আসফাক (৩২) হারিয়ে যায়। এসময় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা চেষ্টা চালিয়ে ২৪ আগষ্ট বিকালে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।

ল্যাংকাউই পুলিশের সুপার মোঃ ইকবাল ইব্রাহিম জানান, চার জন বন্ধু মিলে সমুদ্র সৈকতে গোসল করার সময় হাসিব আসফাক হারিয়ে যায়। সময় সহকর্মীসহ স্থানীয়রা পুলিশে ফোন দিলে পাই সার্ভিস কর্মীরা করার চেষ্টা চালিয়ে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়ে আজ শনিবার (২৪ আগস্ট) স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে তিনটায় পানিতে ভাসা অবস্থায় মৃত্যু দেহ উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ল্যাংকাউই হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

inter-arab-amirat-modi-pic.jpg

আরব আমিরাত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননায় ভূষিত করেছে ।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়নে নেতৃত্ব দেওয়ায় বিশেষ স্বীকৃতিস্বরূপ নরেন্দ্র মোদিকে ‘অর্ডার অব জায়েদ’ পদকে ভূষিত করে আরব দেশটি।

আরব আমিরাতের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান দেশটির এই বেসামরিক সর্বোচ্চ সম্মাননা তুলে দেন মোদির হাতে।

এক টুইটার বার্তায় নরেন্দ্র মোদি এই সম্মাননা গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মোদি তার টুইটার বার্তায় বলেন, “কিছুক্ষণ আগে অর্ডার অব জায়েদ সম্মাননা গ্রহণ করে ধন্য হয়েছি। এই পুরস্কার একা কোনো ব্যক্তির প্রতি নয়, এটি ভারতীয় সংস্কৃতি চেতনা এবং ১৩০ কোটি ভারতীয় নাগরিকের প্রতিও। এই সম্মান জানানোর জন্য আমি আরব আমিরাত সরকারকে ধন্যবাদ জানাই।”

এর আগে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ এবং চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং সহ বিশ্বের আরও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে এই সম্মাননা প্রদান করে আরব আমিরাত।

এই পুরস্কারে ভূষিত করার কথা উল্লেখ করে আমিরাতের যুবরাজ ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে লক্ষ্য করে বলেন, আমার ভাই তার দ্বিতীয় বাড়িতে আসায় তিনি কৃতজ্ঞ।

শুক্রবার দুই দিনের সফরে আরব আমিরাতে যান ভারতের প্রধানমন্ত্রী। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে এটি মোদির তৃতীয় সফর।

২০১৪ সালে প্রথমবার ক্ষমতায় এসেই মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে গুরুত্ব বাড়ান মোদি। ৩৪ বছরের মধ্যে প্রথম কোনো ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী আরব রাষ্ট্রটিতে সফর করেন।

আমিরাতের এক সংবাদ সংস্থাকে সাক্ষাৎকারে মোদি বলেন, “দেশি বিদেশি বিনিয়োগ ও পারস্পরিক অংশীদারত্বের মাধ্যমে ৫ হাজার বিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির লক্ষ্য অর্জনে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে বিবেচনা করি।