খবর Archives - Page 2 of 1412 - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

করোনাভাইরাসের টিকা কেনার জন্য বাজেটে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বুধবার অর্থনৈতিক ও ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এরই মধ্যে রাশিয়াসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী।

এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, টিকা কীভাবে সংগ্রহ করব এর জন্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বলেছি, শুধু সিঙ্গেল সোর্সের ওপর বসে থাকলে হবে না।

একাধিক সোর্স থেকে টিকা সংগ্রহের চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।

আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, এরই মধ্যে অনেক দেশ টিকা সংগ্রহে চুক্তি করেছে, অগ্রিম টাকাও দিয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বলা হয়েছে বাংলাদেশকেও এ ধরনের ব্যবস্থায় যেতে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অপফোর্ডের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত না হতে পারলে ভারতীয় কোম্পানির সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারি।

সব সোর্স থেকে চেষ্টা করতে হবে। যেখান থেকে সহজে পাওয়া যাবে, সেখান থেকেই ক্রয় করা হবে।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছিলেন, যে টিকা আগে পাওয়া যাবে ও কার্যকর হবে, সেটিই আনার চেষ্টা করা হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, কয়েকটি দেশে করোনাভাইরাসের প্রায় ১৬০টি টিকা উদ্ভাবনের কাজ বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে।

কয়েক ধাপ পেরিয়ে এখন মানবদেহে টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও চীনে।

কার্যকর টিকা সংগ্রহে বাংলাদেশ এসব দেশের সঙ্গে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

 

Gold-1.jpg

টানা বৃদ্ধির পর এক সপ্তাহের ব্যবধানে কমলো স্বর্ণের দাম। ভরিতে দাম কমেছে সাড়ে তিন হাজার টাকা।

আন্তর্জাতিক বাজারে হঠাৎ অস্বাভাবিক দর পতনে দেশের বাজারেও স্বর্ণের দাম কমলো বলে বুধবার বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির (বাজুস) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

অল্প কিছু দিন আগে করোনা মহামারির মধ্যেই বিশ্ববাজারে বেশ চাঙ্গা ছিল স্বর্ণের দাম। সেই সঙ্গে দেশের বাজারেও স্বর্ণের দাম রেকর্ড বৃদ্ধি পায়।

গত কয়েক মাসে দফায় দফায় এর দাম বাড়ে। দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম সর্বশেষ বাড়ে গত বৃহস্পতিবার।

বুধবার হঠাৎ করে বিশ্ব বাজারের পাশাপাশি দেশের বাজারেও স্বর্ণের দাম কমে।

বাজুস নির্ধারিত নতুন মূল্য তালিকা অনুযায়ী, ২২ ক্যারেট প্রতি ভরি স্বর্ণ এখন ৭৩ হাজার ৭১৬ টাকায় বেচাকেনা হবে, যা বুধবার পর্যন্ত ছিল ৭৭ হাজার ২১৫ টাকা।

২১ ক্যারেট প্রতি ভরির দাম পড়বে ৭০ হাজার ৫৬৭ টাকা, যা বুধবার পর্যন্ত বিক্রি হয় ৭৪ হাজার ৬৬ টাকায়।

১৮ ক্যারেট প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম কমে হয়েছে ৬১ হাজার ৮১৯ টাকা, যা বুধবার পর্যন্ত ছিল ৬৫ হাজার ৩১৮ টাকা।

সনাতনি স্বর্ণ প্রতি ভরির নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৫১ হাজার ৪৯৬ টাকা, যা বুধবার পর্যন্ত ৫৪ হাজার ৯৯৫ টাকায় বেচাকেনা হয়।

এদিকে রূপার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। ২১ ক্যাডমিয়ামের প্রতি ভরি রূপার দাম এখন ৯৩৩ টাকা।

national-flag-229424.jpg

১৫ আগস্ট স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদতবার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবসে সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বেসরকারি ভবন ও বিদেশে বাংলাদেশ মিশনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে।

অর্ধনমিত পতাকা উত্তোলনের সঠিক নিয়ম সম্পর্কে জানিয়েছে সরকার। বুধবার এক তথ্য বিবরণীতে এ বিষয়ে জানানো হয়েছে।

সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলনকালে পতাকাটি প্রথমে সোজাভাবে রশির সাহায্যে পতাকা দণ্ডের মাথা পর্যন্ত উত্তোলন করতে হবে।

এরপর দণ্ডের মাথা থেকে পতাকার প্রস্থের সমান নিচে নামিয়ে পতাকাটি বাঁধতে হবে।

দিন শেষে পতাকাটি যখন নামানো হবে, তখন পতাকাটি আবার দণ্ডের মাথা পর্যন্ত উত্তোলন করতে হবে এবং তারপর ধীরে ধীরে নামাতে হবে।

পতাকা বিধিতে বলা হয়েছে, পতাকার রং হবে গাঢ় সবুজ এবং সবুজের ভিতরে একটি লাল বৃত্ত থাকবে।

জাতীয় পতাকার মাপ হবে ১০ ফুট বাই ৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের।

আয়তাকার ক্ষেত্রের গাঢ় সবুজ রঙের মাঝে লাল বৃত্ত এবং বৃত্তটি পতাকার দৈর্ঘ্যরে এক-পঞ্চমাংশ ব্যাসার্ধবিশিষ্ট হবে।

ভবনে উত্তোলনের জন্য পতাকার তিন ধরনের মাপ হচ্ছে- ১০ ফুট বাই ৬ ফুট, ৫ ফুট বাই ৩ ফুট এবং ২.৫ ফুট বাই ১.৫ ফুট।

ছেঁড়া বা বিবর্ণ জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা যাবে না। মানসম্মত কাপড়ে যথানিয়মে তৈরি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে হবে।

Aaif-corona-vaccing-229428.jpg

দেশীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস গ্রুপ অব কোম্পানিজ লিমিটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড বিজয়ে মাস ডিসেম্বরে বাংলাদেশের বাজারে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে আসার ব্যাপারে আশাবাদী।

প্রতিষ্ঠানটির রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্টের প্রধান ডা. আসিফ মাহমুদ এমন তথ্য জানিয়েছে।

বুধবার (১২ আগস্ট) দেশের একটি গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাতকারে তিনি এ কথা জানান।

এ সময় তিনি বলেন, ‘সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বর মাস নাগাদ ভ্যাকসিন বাজারজাত করতে পারবো বলে আশা করছি।’

ডা. আসিফ মাহমুদ আরও জানান, তারা এখনও অ্যানিমেল ট্রায়ালে রয়েছেন, সেটা এখনও শেষ হয়নি।

অ্যানিমেল ট্রায়াল শেষ করে সেপ্টেম্বরের মধ্যে হিউম্যান ট্রায়ালের (মানুষের মধ্যে প্রয়োগ) জন্য আবেদন করবেন।

হিউম্যান ট্রায়ালের তিন ধাপ শেষ করে ডিসেম্বর নাগাদ বাজারে আসবে ভ্যাকসিন।

তিনি জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে প্রতিষ্ঠানটির গবেষণা কেন্দ্রে প্রাণীর ওপর ট্রায়াল চলছে, বাকি কাজ চলছে তাদের ল্যাবে।

গ্লোব কি আদৌ কোনও ভ্যাকসিন আনতে পারবে কিনা জানতে চাইলে ডা. আসিফ মাহমুদ বলেন, বিশ্বে এখন অনেকেই ভ্যাকসিনের জন্য চেষ্টা করছে।

রাশিয়া ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে। আরও বেশ কিছু ঘোষণা শিগগিরই আসবে।

বাংলাদেশে ভ্যাকসিন নিয়ে কেউ কাজ করছে এমনটা আমার জানা নেই। তাই দেশে কেউ যদি পারে তাহলে আমরাই পারবো।

কারণ, কাজটা তো শুরু করেছি আমরা। গ্লোব এতদূর এসেছে থেমে যাওয়ার জন্য নয়।

অবশ্যই এর শেষ দেখতে চাই আমরা। আমার মনে হয়, কেউ যদি পারে বাংলাদেশে গ্লোবই পারবে।

Sinha-Sifat.jpg

এবার বেরিয়ে এলো সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা হত্যার মূল ঘটনা। অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার সময় কি ঘটেছিলো সে বর্ণনা এবার উঠে এলো ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সিফাতের মুখে।

সিফাত জানান, শামলাপুর চেকপোস্টে এপিবিএন ছেড়ে দিলেও কিছু দূর যাওয়ার পর ড্রাম ফেলে তাদের পথরোধ করে টেকনাফ থানা পুলিশ।

সিফাতের দাবি, হাত উঁচু করে গাড়ি থেকে নেমেছিলেন সিনহা।

গত ৩১ জুলাই, কক্সবাজার শামলাপুর চেকপোস্ট। দায়িত্বরত এপিবিএন সদস্যদের তল্লাসি চৌকিতে গাড়ি থামান মেজর অবসরপ্রাপ্ত সিনহা মো. রাশেদ খান। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তারা ছেড়ে দিলেও ড্রাম ফেলে পথ রোধ করে টেকনাফ থানা পুলিশ।

সিনহা হত্যার ঘটনার বর্ণনায় শুরুটা এমনই ছিলো সিনহা হত্যার সাক্ষী সিফতের মুখে।

সিফাত জানান, আমাদের হাতে ট্রাইপড ছিলো; সম্ভবত এটা তারা ভুল বুঝতে পারে। গাড়িতে নামার  সময় আমাদের হাতে কোনো অস্ত্র ছিলো না।

গাড়ি থেকে নামতেই গুলির শব্দ, তারপর মাটিতে লুটিয়ে পড়ার দৃশ্য। যেন কল্পনাকেও হার মানায় সেদিনের ঘটনা।

সিফাত বলেন, উনি (সিনহা) নামার সময়ে দুই হাত উঁচু করে নামেন। এরপর আমি পিছনে চলে যাই।

কিন্তু গাড়ির কারণে আমি আর কিছু দেখতে পারি নাই। যখন নামেন তখন বলেন, কাল্ম ডাউন, কাল্ম ডাউন আওয়াজ শুনতে পাই।

যে অফিসার বন্দুক তাক করেছিলেন (তিনি বলছিলেন)। এর ভিতরে গুলির শব্দ শুনি।

পরে দেখি সিনহা সাহেব শুয়ে পড়েন; আমি ভাবছি; হয়-তো উনার শরীরে গুলি লাগেনি।

ফাঁকা আওয়াজ হয়েছে। তারপর দেখি উনার শরীর থেকে রক্ত বের হচ্ছে।

সিফাতের দাবি, সিনহার ব্যক্তিগত অস্ত্রটিও ছিলো গাড়িতে, সিনহা নেমেছিলেন হাত উঁচু করেই।

সেদিনের পুরো ঘটনার সাক্ষী সিফাত গত ১০ আগস্ট কক্সবাজার কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান।

যদিও পুরো ঘটনা সবার সামনে তুলে ধরতে ক্ষানিকটা সময়ও চেয়েছেন সিনহার সঙ্গী সিফাত ও শিপ্রা।

Sinha22.jpg

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনা তদন্তে আগামী ১৬ আগস্ট প্রত্যক্ষদর্শীদের নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে। আর এ শুনানির আয়োজন করছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি।

বুধবার (১২ আগস্ট) রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তদন্ত কমিটির সদস্য ও কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির এ সদস্য জানান, আগামী ১৬ আগস্ট সকাল ১০টা থেকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এলাকায় অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিদের গণশুনানির আয়োজন করেছে।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের শামলাপুর চেকপোস্টে গাড়ি তল্লাশিকে কেন্দ্র করে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

এ ঘটনার তদন্তে গত ২ আগস্ট কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলিকে প্রধান এবং পুলিশ সুপারের একজন প্রতিনিধি (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) ও সেনাবাহিনীর রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসির একজন প্রতিনিধির সমন্বয়ে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পরদিন ৪ আগস্ট কমিটি পুণঃগঠন করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট করা হয়। এতে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করা হয়। আর কমিটির সদস্য রাখা হয় কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলি, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এর একজন প্রতিনিধি এবং সেনাবাহিনীর রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসির একজন প্রতিনিধি।

তদন্ত কমিটির সদস্য ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান বলেন, টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহত হওয়ার ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিদেরকে নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিদের নির্ধারিত সময় ও তারিখে উপস্থিত হয়ে গণশুনানিতে অংশ গ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে অবহিত করা হয়েছে বলেন তদন্ত কমিটির এ সদস্য জানান।

এছাড়া গণ শুনানি আয়োজনের বিষয়ে প্রস্তুতির পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট পর্যায়ে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান শাজাহান আলি।

zakir-primary.jpg

প্রাথমিক শিক্ষকরা নতুন পদ্ধতিতে বছরের যে কোনো সময় বদলি হতে পারবেন বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। আগামী অক্টোবর থেকে অনলাইনে এ বদলি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

বুধবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটা অক্টোবর/নভেম্বর থেকে আমরা করব, অক্টোবরের কথা বলা হয়েছে।

আমরা অনলাইনে শিক্ষক বদলির কার্যক্রম করতে চাচ্ছি।

জাকির হোসেন, আপনারা জানেন শিক্ষক বদলি হয় মাত্র ২ মাস। এই দুই মাসে আমরা অফিস-আদালত কিছু করতে পারি না।

তদবিরের জ্বালায় বাসায় থাকতে পারি না। শুধু আমি নই, আমার সচিব, ডিজি, কর্মকর্তারাও। এটা (বদলি) আমরা সারাবছর করতে চাচ্ছি, অনলাইন সিস্টেমে। যার যোগ্যতা আছে সে পারবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘(শিক্ষক বদলির) দুই-তিন মাস আমাদের কাজকর্ম সব হারাম হয়ে যায়। আমরা কোনো কাজ করতে পারি না। তদবিরের তো অভাব হয় না। তারপর ঘুষ, দুর্নীতি-নানাকিছু এর মধ্যে জড়িত। (শিক্ষক বদলিতে) আমরা স্বচ্ছতা আনতে চাই।’

জাকির হোসেন বলেন, ১৭ বছর, ২০ বছর যখন একজন শিক্ষক এক জায়গায় থাকেন, তখন কিন্তু তিনি আর শিক্ষক থাকেন না।

শিক্ষকদেরও তো শিক্ষক হতে হবে। শিক্ষক কখনও নেতা হয়ে যান, কখনও ডাক্তার হন- শিক্ষকরা অনেক কিছু করতে পারেন। এটা থেকে আমরা একটু মুক্তি চাই।’

rizvi73.png

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এ দেশের মানুষ হারানো অধিকার ফিরে পাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ বুধবার আরাফাত রহমান কোকোর ৫১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হকের উদ্যোগে মিরপুরে মোহাম্মাদীয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসা ও এত্রিমখানায় খাবার বিতরণের পর রিজভী এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসসহ স্থানীয় নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

মোট পাঁচটি মাদ্রাসা ও এতিমখানায় খাবার বিতরণ করেন আমিনুল হক।

খালেদা জিয়াকে বালুভর্তি ট্রাক দিয়ে বাড়িতে বন্দী করে রাখার বীভৎস দৃশ্য তার কনিষ্ঠপুত্র আরাফাত রহমান কোকো সহ্য করতে পারেননি উল্লেখ করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আরাফাত রহমান কোকো আমাদের মাঝ থেকে অনেক দুঃসময়ে চলে গেছেন।

যখন তার মাকে বালুভর্তি ট্রাক দিয়ে বাড়িতে বন্দী করে রাখা হয়েছিল। সেই বীভৎস পরিস্থিতি তিনি সহ্য করতে পারেননি।

তিনি দেশের বাইরে মালয়েশিয়া ছিলেন। সেখানে বসে তিনি এসব দেখে এতটা ব্যথিত হয়েছিলেন যে, পৃথিবীর মাঝে আর বেঁচে থাকতে পারেননি।’

রিজভী বলেন, ‘এ দেশের স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও এ দেশের চারবারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কনিষ্ঠপুত্র আরাফাত রহমান কোকোর আজ ৫১তম জন্মবার্ষিকী।

তার জন্মবর্ষ উপলক্ষে আজকে এতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ করার এই আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি একজন ক্রীড়া সংগঠক ও সামাজিক ক্রিয়া ব্যক্তিত্ব ছিলেন।

যখন তার পরিবারের ওপর জুলুম-নির্যাতন এবং তার মাকে বন্দী করে রাখা হয়েছিল, তখন সন্তান হিসেবে তিনি সেটা সহ্য করতে পারেননি।’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘গত ১২ বছর যাবৎ জাতীয়বাদী শক্তিকে দমন-পীড়ন করে রাখা হয়েছে, সেটা নজিরবিহীন। একটি দানব সরকার যা করে তার সকল কিছুকে ছাড়িয়ে গেছে এই সরকার।

মানুষ নির্বিঘ্নে চলাচল করতে ভয় পাচ্ছে, মানুষ তার স্বাধীন মতামত প্রকাশ করতে ভয় পাচ্ছে।

তাই মানুষের নির্বিঘ্নে চলাচল করা এবং মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা অর্জনের জন্য আমাদের আজকে যে লাড়াই, সেই লড়াই অব্যাহত থাকবে।

আমরা আজকে অঙ্গীকার করছি, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এ দেশের মানুষ আবার তাদের হারানো দিক ফিরে পাবে।‘

DG-Abul-Kalam-Azad.jpg

নিজেকে ‘সৎ, দক্ষ ও সজ্জন’ বলে দাবি করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি আবুল কালাম আজাদ। দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে এমন কথা বলেন তিনি।

আজ বুধবার দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি বলেন, ‘আমি কোনো দুর্নীতি করিনি, আমি সৎ, দক্ষ ও সজ্জন হিসেবে কাজ করেছি।

দুর্নীতি যেই করুক আমি তার শাস্তি চাই, দুদককে আমি সহযোগিতা করব।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি আরও বলেন, ‘যেহেতু আমার সময়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, তাই আমি পদত্যাগ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছি।

একটি মহল আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়েছে।’

তবে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্নের উত্তর দেননি আবুল কালাম আজাদ। এর আগে সকাল ১০টায় কোভিড সুরক্ষা সরঞ্জাম কেনায় দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন দুদকের তদন্ত কর্মকর্তা ও দুদক পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীন শিবলী।

এছাড়া রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চুক্তির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাবেক পরিচালক ডা. মোহাম্মদ আমিনুল হাসানসহ আরও দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক।

দুদক জানিয়েছে, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পরস্পর যোগসাজশে ‘অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে’ কোভিড-১৯ এর চিকিৎসার জন্য ‘নিম্নমানের’ মাস্ক, পিপিই ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সরঞ্জাম কিনে বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহ করে কোটি কোটি টাকা আত্মসাত করেছেন বলে অভিযোগ এসেছে কমিশনের হাতে।

এসব অভিযোগ অনুসন্ধানে গত ১৫ জুন দুদক কর্মকর্তা জয়নুল আবেদীন শিবলীকে প্রধান করে চার সদস্যের এ অনুসন্ধান টিম গঠন করে কমিশন। অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের (সিএমএসডি) এক উপ-পরিচালকসহ তিন কর্মকর্তাকে গত ২০ জুলাই দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এরপর গত ৬ অগাস্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদকে তলব করে চিঠি পাঠায় দুদক।

এছাড়া করোনাভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ ও চিকিৎসার বিষয়ে রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর চুক্তির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে তাকে আগামীকাল বৃহস্পতিবার আবারও কমিশনের কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে।

মহামারির মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একের পর এক কেলেঙ্কারিতে সমালোচনার মুখে গত ২১ জুলাই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগপত্র দেন ডা. আজাদ। শুরুটা হয়েছিল চিকিৎসকদের নিম্নমানের মাস্ক সরবরাহ দিয়ে।

এরপর রিজেন্ট হাসপাতাল, জেকেজি হেলথ কেয়ারের জালিয়াতি ফাঁস হওয়ার পর তোপের মুখে পড়েন তিনি।

prodip.jpg

কক্সবাজারের মহেশখালীর আবদুস সাত্তার হত্যার ঘটনায় ওই থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ২৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে হত্যা মামলা করা হয়েছে।

আজ বুধবার ( ১২ আগস্ট) দুপুরে মহেশখালীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি করেন আবদুস সাত্তারের স্ত্রী হামিদা আক্তার (৪০)।

মামলায় পুলিশের আরও পাঁচ সদস্যকে আসামি করা হয়েছে। তারা হলেন- এসআই ইমাম হোসেন, এসআই হারুনুর রশীদ, এএসআই মনিরুল ইসলাম, এএসআই শাহেদুল ইসলাম ও এএসআই আজিম উদ্দিন।

ভিকটিম আবদুস সাত্তার হোয়ানক পূর্ব মাঝেরপাড়ার মৃত নুরুচ্ছফার ছেলে।

হামিদা আক্তার জানান, ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি সকালে ফেরদৌস বাহিনীর সহায়তায় হোয়ানকের লম্বাশিয়া এলাকায় তার স্বামী আবদুস সাত্তারকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি। পরে উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হন তিনি।

রিট পিটিশন নং-৭৭৯৩/১৭ মূলে ‘ট্রিট ফর এফআইআর’ হিসেবে গণ্য করতে আদেশ দেন বিচারক।

আদালত সূত্র জানায়, হামিদা বেগমের করা রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট ২০১৭ সালের ৭ জুন আদেশ দেন।

এতে বলা হয়, হামিদা বেগম এজাহার দাখিল করলে মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে তা তাৎক্ষণিক গ্রহণ করতে হবে।

এই আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে পুলিশ মহাপরিদর্শকের (আইজিপি) পক্ষে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়।

অন্যদিকে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্র সচিবের (জননিরাপত্তা বিভাগ) পক্ষে আপিল বিভাগে আবেদন করা হয়।

এই আবেদনের শুনানি নিয়ে ২০১৮ সালের ১৩ মে আপিল বিভাগ আদেশ দেন। এতে রুল ইস্যু না করে এজাহার গ্রহণ করতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ বাতিল করা হয়।

একই সঙ্গে ওই রিটটি নতুন মামলা হিসেবে নতুন করে শুনানি করতে বলা হয়।