খবর Archives - Page 2 of 512 - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

ctg-20190522225506.jpg

চট্টগ্রাম নগরের বন্দরটিলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে বনফুল-ফুলকলিসহ সাত প্রতিষ্ঠানকে ৭৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জেলা প্রশাসন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (২২ মে) এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন সদর সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসমাইল হোসেন।

তিনি জানান, ওজনে কম দেয়ায় বনফুলের বন্দরটিলা বিক্রয়কেন্দ্রের মালিক মুজিবুর রহমানকে ১৫ হাজার টাকা, বাসি হালিম বিক্রি এবং নোংরা পরিবেশে মিষ্টি সংরক্ষণের দায়ে ফুলকলির বন্দরটিলা বিক্রয়কেন্দ্রের মালিক মিজানুর রহমানকে ২০ হাজার টাকা, সিজল বিক্রয়কেন্দ্রের মালিক জামাল উদ্দিনকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়া একই এলাকার বাজারে হাইকোর্ট কর্তৃক নিষিদ্ধ পণ্য বিক্রির দায়ে চার মুদি দোকানিকে ২০ হাজার এবং পচা খেজুর বিক্রির দায়ে সৈয়দ উদ্দিনকে ছয় হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

alrajjak.jpg

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত রাজধানী ঢাকার বংশালের আল-রাজ্জাক রেস্টুরেন্ট ও ধানমন্ডির বাবুর্চি রেস্টুরেন্টকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে ।

বুধবার ডিএমপি’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন এর নেতৃত্বে ডিবি ও ক্রাইম বিভাগের সমন্বয়ে খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল বিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পঁচা-বাসি খাবার রাখা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরির অভিযোগে বংশালের নর্থ সাউথ রোডের আল রাজ্জাক রেস্টুরেন্টকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করে ।

এছাড়া পঁচা-বাসি খাবার রাখা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার প্রস্তুতের অভিযোগে ধানমন্ডি’র বাবুর্চি রেস্টুরেন্টকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে ।

ডিএমপির উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান জানান, ভেজাল বিরোধী এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

bristi66.jpg

কয়েক দিনের ভ্যাপসা গরমের পর অবশেষে রাজধানীতে নামলো স্বস্তির বৃষ্টি। তীব্র গরমে অতিষ্ট হয়ে পড়েছিল রাজধানীবাসী। বুধবার রাতের বৃষ্টির ছোঁয়ায় স্বস্তি মিলেছে নগরবাসীর মধ্যে।

বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শুরু হয় বৃষ্টি। এরপর শুরু হয় ঝড়ো হাওয়া বজ্রসহ মুসলধারে বৃষ্টি।

সকাল থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকার কথা থাকলে সেটা মেঘের দেখা আর পাওয়া যায়নি। অবশেষে রাতে নামলো বৃষ্টি।

রাত হওয়ায় রাজধানীর রাস্তায় জনসমাগম কম থাকায় বৃষ্টিতে দুর্ভোগ তুলনামূলক কম। পথে যারা ছিলেন তারাও দ্রুত পা চালিয়ে বাড়ি ফেরেন। বাকিরা নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে আশেপাশের দোকানপাট, বাড়ির সামনের বারান্দা ইত্যাদিতে আশ্রয় নিয়েছেন।

jarin_diya2-1.jpg

আত্মহত্যা চেষ্টার পর এবার স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ছাত্রলীগ নেত্রী জারিন দিয়া। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

বুধবার (২২ মে) দুপুর ২টায় স্ট্রোকে আক্রান্তের পর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ছাত্রলীগের গত কমিটির সমাজসেবা সম্পাদক রানা হামিদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, জারিন দিয়ার অবস্থা খুবই খারাপ। দুপুর ২টায় স্ট্রোক করার পর তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার (২১ মে) তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তখন তাকে ল্যাব এইডে নেয়ার হয়।

এরপর ডাক্তার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার বিষয়ে বলেন, আত্মহত্যার চেষ্টার পর সবারই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়। এটা দুইদিন আগে পরে যেকোনো সময় হতে পারে। ওয়াশ করে ঘুমের ওষুধ বের করা হলেও এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়ে গেছে। পরে সেখানে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শেষে একটু সুস্থ হলে তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

‘কিন্তু এখন তার অবস্থা ক্রিটিক্যাল। ডাক্তার বলেছেন, তার অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক। তাকে দুইদিন হাসপাতালে রাখার কথা বলা হয়েছে। দুইদিন গেলেই সব বলা যাবে।’

মধুর ক্যান্টিনে সংগঠিত অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার দায়ে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার হওয়ায় পর গত ২০ মে সোমবার রাতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ছাত্রলীগ নেত্রী জারিন দিয়া। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার দুপুরে তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে ছাত্রলীগ সভাপতি রেওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর প্রতি কিছু প্রশ্ন রেখে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

নতুন কমিটিতে পদ না পাওয়ার এবং তারপরের কিছু ঘটনা উল্লেখ করে নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে জারিন দিয়া লিখেছিলেন, ‘আমি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছি। জানি না কী করবো। আমি যদি মারা যাই শোভন-রাব্বানী ভাইদের কাছ থেকে প্রশ্নগুলির উত্তর নিয়ে আমাকে কলঙ্কমুক্ত করবেন পারলে।’

গত ১৩ মে সোমবার সন্ধ্যায় মধুর ক্যান্টিনে মারামারির ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে ২০ মে সোমবার তাকে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করে ছাত্রলীগ।

ওই ঘটনায় তিনি নিজেও আহত হয়েছিলেন। ‘ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধুর ক্যান্টিন ভর্তি মেয়ে লাগে’ উল্লেখ করে ফেসবুকে তার দেয়া একটি স্ট্যাটাস সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছিল। যদিও পরবর্তীতে তিনি ওই স্ট্যোটাস দেয়ার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।

Feni-Nusrat-Ognidogdo-Folou.jpg

ফেনীর সোনাগাজীতে পুড়িয়ে হত্যা করা সেই মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির শ্লীলতাহানির ঘটনায় তার মায়ের করা মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাকে দুই দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার (২২ মে) ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. জাকির হোসাইন এই রিমান্ডের আদেশ দেন।

এর আগে নুসরাতের শ্লীলতাহানির ঘটনায় সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহ আলম সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

আদালত সূত্র জানায়, বুধবার দুপুরে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজকে রিমান্ড শুনানির জন্য আদালতে হাজির করা হয়। আদালতে তার পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। শুনানি শেষে তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

আদালত সূত্র জানায়, গত ২৭ মার্চ সকালে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ ওই মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে তার কক্ষে ডেকে নিয়ে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন।

এ ঘটনায় নুসরাতের মা শিরিন সোনাগাজী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। পুলিশ ওই দিনই মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠায়।

গত ৬ এপ্রিল সকালে নুসরাত পরীক্ষা দিতে গেলে তাকে ডেকে মাদ্রাসার প্রশাসনিক ভবনের ছাদে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ১০ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুসরাত মারা যান। এ ঘটনায় দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

নুসরাত হত্যা মামলায় এখন পর্যন্ত পিবিআই ২১ জনকে গ্রেফতার করেছে। এর মধ্যে ১৮ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় এবং ১২ জন আসামি আদালতে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

এদিকে নুসরাত হত্যা মামলায় আদালতে দেয়া ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে অধ্যক্ষ সিরাজ মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাতের গায়ে আগুন দেয়ার ঘটনায় তার হাত আছে বলে স্বীকার করেন।

নুসরাতের মায়ের দায়ের করা শ্লীলতাহানির মামলা ও নুসরাতের ভাইয়ের দায়ের করা হত্যার ঘটনায় করা মামলা দুটি ফেনীর পিবিআই তদন্ত করছে।

sylhet-20190523011732.jpg

সিলেট বিভাগীয় কার্যালয় ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভেজালবিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। বুধবার পৃথক অভিযান পরিচালনা করে ওয়েলফুড ও মধুবনসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে চার লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বুধবার দুপুর ১২টায় শহরতলীর খাদিমপাড়া ও বিসিক শিল্প এলাকায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ হেলাল চৌধুরী অভিযান চালান। এ সময় লাইসেন্স না থাকায় মেসার্স লুৎফা ব্রিক ফিল্ডকে আড়াই লাখ টাকা ও বিভিন্ন অপরাধে মেসার্স নিশিতা ফুডসকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সিলেট জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ হেলাল চৌধুরীর এ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদফতরের সহকারী কেমিস্ট সানোয়ার হোসেন, বিএসটিআই কর্মকর্তা রফিকুল হাসান রিপন, মহানগর পুলিশের এসআই আব্দুল গাফফার ও হুমায়ুন রশীদ।

এছাড়া পৃথক আরেকটি অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহিনা আক্তার। নগরের গোটাটিকরের বিসিক শিল্প নগরীতে ওয়েলফুডের কারখানায় মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরির অভিযোগে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহিনা আক্তার জানান, নোংরা পরিবেশে খাবার তৈরি ও মেয়াদোত্তীর্ণ সেমাই সংরক্ষণ ও হাইকোর্ট ঘোষিত মানহীন একটি পণ্য পাওয়ায় ওয়েলফুডকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে প্রায় চারশ কেজি সেমাই পুড়িয়ে ফেলা হয়।

এদিকে সিলেট বিভাগীয় কার্যালয় কর্তৃক ভোক্তা অধিকারবিরোধী কার্য প্রতিরোধ ও হাইকোর্ট কর্তৃক নিষিদ্ধ ৫২টি পণ্য বাজার থেকে অপসারণের লক্ষ্যে তদারকিমূলক অভিযান চালানো হয়। দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত পরিচালিত অভিযানে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ অভিযান পরিচালনা করেন সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (মেট্টো) মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ। উপস্থিত ছিলেন ৭ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ানের ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) কাজী মাহমফুজ হাসান চৌধুরী, এসআই শরিফুল ইসলাম ও বিনিদ কুমার চন্দ্র।

bridha-20190522215948.jpg

এবার শত বছরের এক বৃদ্ধাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরের বিরুদ্ধে। পুলিশ ওই কিশোরকে গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে খুঁজছে। ওই দিন সন্ধ্যায় টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় এ ঘটনা ঘটেছে। ওই কিশোর বৃদ্ধার ঘরে ঢুকে তার মুখ বেঁধে তাকে ধর্ষণ করেছে বলে জানা গেছে।

এলাকার কয়েকজন জানায়, অন্ধ ওই বৃদ্ধা চলাফেরা করতে পারেন না। তাদের কাছে ঘটনাটি বলেছেন ওই বৃদ্ধা। এসময় ঠিকমতো কথাও বলতে পারছিলেন না তিনি।

তারা আরও জানান, ধর্ষণের সময় ওই কিশোরকে তিনি (বৃদ্ধা) বারবার বলছিলেন, আমাকে ছেড়ে দাও। আমি রোজা রাখছি।

মধুপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিক কামাল জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অভিযুক্ত কিশোর পালিয়ে গেছে। তাকে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ওই বৃদ্ধাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে।

khalid-20190522230153.jpg

একুশে পদকপ্রাপ্ত খ্যা‌তিমান নজরুল সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেন আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বুধবার রাত ১০টা ১৫ মিনিটে রাজধানীর জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) মারা যান তিনি।

খালিদ হোসেনের ছে‌লে আ‌সিফ হো‌সেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ৮৪ বছর বয়সী এই শিল্পী বেশ কয়েক বছর ধরে হৃদরোগে ভুগছিলেন। কিছুদিন আগে থে‌কে কিডনির জটিলতা ও ফুসফুসের সমস্যাও বে‌ড়ে গি‌য়ে‌ছিল তার। অব‌শে‌ষে চ‌লে গে‌লেন তি‌নি।

খালিদ হোসেনের জন্ম ১৯৩৫ সালের ৪ ডিসেম্বর। তখন তারা ছিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কৃষ্ণনগরে। দেশ বিভাগের পর মা-বাবার সঙ্গে তিনি চলে আসেন কুষ্টিয়ার কোর্টপাড়ায়। ১৯৬৪ সাল থেকে তিনি স্থায়ীভাবে ঢাকায় ছিলেন।

নজরুল সংগীতের শিক্ষকতার সঙ্গে জড়িত ছিলেন দীর্ঘদিন। তিনি একুশে পদক পেয়েছেন ২০০০ সালে। এছাড়া পেয়েছেন নজরুল একাডেমি পদক, শিল্পকলা একাডেমি পদক, কলকাতা থেকে চুরুলিয়া পদকসহ অসংখ্য সম্মাননা।

খালিদ হোসেনের গাওয়া নজরুল সংগীতের ছয়টি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। আরও আছে একটি আধুনিক গানের অ্যালবাম ও ইসলামি গানের ১২টি অ্যালবাম।

খালিদ হোসেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এবং দেশের সব মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ও বাংলাদেশ টেক্সট বুক বোর্ডে সংগীত নিয়ে প্রশিক্ষক ও নিরীক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন। নজরুল ইনস্টিটিউটে নজরুল সংগীতের আদি সুরভিত্তিক নজরুল স্বরলিপি প্রমাণীকরণ পরিষদের সদস্য ছি‌লেন তিনি।

18-20.jpg

জাকাতের টাকায় বিয়ে হলো পূর্ণিমা কর্মকার রানী নামের এক হিন্দু ধর্মাবলম্বী অসহায় নারীর। রোববার রাতে জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ওই নারীর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়।

জানা গেছে, বিয়ের খরচের সিংহভাগ বহন করেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মাগুরার এক ব্যবসায়ী। তিনি শহরের পারনান্দুয়ালী এলাকার বাসিন্দা।

তার দেয়া জাকাতের অর্থে পূর্ণিমার বিয়েতে আলোকসজ্জা, স্টেজ, ব্যান্ডপার্টি সব আয়োজন হয়েছে। বেশ ধুমধাম করেই সোমবার স্বামীর বাড়িতে পা রেখেছেন নববধূ পূর্ণিমা।
স্থানীয়রা জানান, অসাম্প্রদায়িকতার দৃষ্টান্তমূলক উদাহরণ রাখতে জাকাতের জন্য নির্ধারিত অর্থ ব্যয় করেছেন পারনান্দুয়ালী এলাকার ওই ব্যবসায়ী।

এ বিয়ের অন্যতম আয়োজক স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধ্যাপিকা পলি সাহা। তিনি বলেন, পূর্ণিমার বিয়ের খরচের সিংহভাগই এসেছে একজনের জাকাতের টাকা থেকে। বাংলাদেশ যে ধর্মীয় সম্পৃতির এক অনন্য উদাহরণ তা এ ঘটনায় প্রমাণিত।

অসহায় পূর্ণিমা বিষয় পলি সাহা বলেন, ৪ বছর আগে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে পূর্ণিমার বাবা ক্ষিতিষ কর্মকার পরপারে চলে যান। এরপরই মাসহ পূর্ণিমার পরিবার অসহায় হয়ে পড়ে। অন্যের বাড়িতে কাজ করে কোনো মতে সংসার চলে তাদের। তবে অভাবের মধ্যেও নিজের পড়াশোনা চালিয়ে গেছেন পূর্ণিমা।

সম্প্রতি চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জ এলাকার ব্যবসায়ী বিমল দাস পূর্ণিমাকে বিয়ে করার আগ্রহ প্রকাশ করলে পলি সাহা ও তার স্বামী তরুণ ভৌমিকসহ স্থানীয় কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে পূর্ণিমার বিয়ের আয়োজন শুরু করেন।

বিষয়টি জানতে পেরে এলাকার বিভিন্ন স্তরের মানুষ সাধ্যমতো সহযোগিতা করেন। এ সময় এগিয়ে আসেন ওই ব্যবসায়ী।

পূর্ণিমার সুখী দাম্পত্য জীবন কামনা করে মাগুরা পৌরসভার কাউন্সিলর মো. সাকিব হাসান তুহিন বলেন, আমরা সবাই মিলে একটা অসহায় মেয়ের বিয়েতে সহায়তা করেছি। এক্ষেত্রে তার ধর্মীয় পরিচয় মুখ্য নয়। মুখ্য হলো আমাদের সদিচ্ছা।

জানা গেছে, বিয়ের অনুষ্ঠানে সাধ্যমতো সহায়তা করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখর, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পংকজ কুণ্ডু, পৌর মেয়র খুরশিদ হায়দার টুটুলসহ স্থানীয় অনেকেই।

11-19-1.jpg

টাকা দিয়ে খুলনার পাটকল শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ ছড়িয়ে দিতে কাজ করছে বিএনপির একটি অংশ। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফাঁস হওয়া একটি ফোনালাপে এই ষড়যন্ত্রের আভাস মিলেছে।

বিশেষ মহলের দাবি, শ্রমিকদের আন্দোলনে ‘উসকানি’ মূলক ওই ফোনালাপটি বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী এবং দলের খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জুর।

তাদের দাবি, ওই ফোনালাপের কণ্ঠের সঙ্গে রিজভী এবং মঞ্জুর কণ্ঠের সাদৃশ্য রয়েছে। তবে এ নিয়ে কেউ দায়িত্ব স্বীকার করেনি এবং তাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

রিজভী-মঞ্জুর কথিত ওই ফোনালাপে তিন লাখ টাকা খরচ করে শ্রমিকদের উসকানির বিষয়টি উঠে এসেছে। ফোনালাপটি হুবহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

ফোনালাপের শুরুতেই মঞ্জু জিজ্ঞেস করেন, ফোন দিয়েছিলেন? জবাবে রিজভী বলেন, হ্যাঁ।

এরপর মঞ্জু বলেন, ‘খালিশপুরে আমাদের বিএনপি অফিসে বসে তিনটি স্পট খালিশপুর, খানজাহান আলী থানার দুটি মিল এবং নওয়াপাড়ার দুইটি মিল এখানকার মোট পাঁচটি মিলকে ভাগ করে ৯০ হাজার, ৩০ হাজার এবং ৯৫ হাজার করে মোট তিন লাখ টাকা মিটিং করে দিয়ে আসছি।’ তখন এর উত্তরে রিজভী বলেন, আচ্ছা ঠিক আছে।

মঞ্জু আবার বলেন, ‘কিন্তু সমস্যা হচ্ছে কি এখানে যে মঞ্চ আছে সেটা আওয়ামী লীগের। ওখানে শ্রমিক লীগ লেখা আছে। যার কারণে আমরা মঞ্চের দিকে যাই নাই। দূর থেকে কাজ করি আর আলাদা প্রোগ্রাম করি মূল শহরে।’ এর জবাবে রিজভী বলেন, সেভাইবেই তো করবেন।

মঞ্জু আরও বলেন, মঞ্চের ওইখানে অ্যালাউ করে না, গেলে বাজে পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। তখন রিজভী বলেন, আপনারা একটা কন্ট্রিবিউট করেছেন দ্যাটস এনাফ।

এরপর মঞ্জু বলেন, ‘সেটাই প্রচার করছি আমরা, সেভাবেই জানছে।’ পরে রিজভী: আপনার সাথে কাল অমিত আর জয়ন্ত থাকবে। আপনি যেখানে যাবেন ওরা সঙ্গে থাকবে। সব বলে দেবেন আপনি। তখন মঞ্জু বলেন, আচ্ছা ঠিক আছে।


About us

DHAKA TODAY is an Online News Portal. It brings you the latest news around the world 24 hours a day and 7 days in week. It focuses most on Dhaka (the capital of Bangladesh) but it reflects the views of the people of Bangladesh. DHAKA TODAY is committed to the people of Bangladesh; it also serves for millions of people around the world and meets their news thirst. DHAKA TODAY put its special focus to Bangladeshi Diaspora around the Globe.


CONTACT US

Newsletter