খেলাধুলা Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

anjum-chopra.jpg

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে ধারাভাষ্য দিচ্ছেন ভারতীয় নারী ক্রিকেট দলের সাবেক ক্রিকেটার আনজুম চোপড়া। খেলা ছাড়ার পর পেশা হিসেবে তিনি বেছে নিয়েছেন ধারাভাষ্যকে। আইপিএলের পর বিপিএলে টেলিভিশন দর্শকরা প্রথমবার শুনতে পাচ্ছেন নারী কণ্ঠ।

বহু গুণের অধিকারী ৪২ বছর বয়সী আনজুম ধারাভাষ্যকার ছাড়াও লেখক, অভিনেত্রী, মোটিভেশনাল স্পিকার ও পরামর্শক। দিল্লিতে বেড়ে ওঠা আনজুমের বাবা কৃঞ্চান চোপড়া ছিলেন গলফার। নানা ভেড প্রকাশ সাহানি ছিলেন অ্যাথলেট ও ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার।

আনজুমের ছোট ভাই নিরভান চোপড়া দিল্লির অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলেছেন। চাচাও খেলেছেন পেশাদার ক্রিকেট। ক্রীড়া পরিবার থেকে উঠে আসা আনজুম বিপিএলে আতহার আলি খান, শামীম আশরাফ চৌধুরীদের সঙ্গে ধারাভাষ্য দিচ্ছেন সমান তালে।

Sakib-Al-Hasan-3-1.jpg

সাকিব আল হাসান পুরো বছরই ছিলেন আলোচনায়। বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স, আন্দোলন এরপর নিষেধাজ্ঞা। এসব নিয়ে আলোচনার শীর্ষে ছিলেন বিশ্বসেরা সেরা এই অলরাউন্ডার। শুধু আলোচনায়ই নয়, বছরজুড়ে গুগল সার্চেও ভ্ক্তরা তাকে বেশি খুঁজেছে।

গত অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের আন্দোলন-ধর্মঘট ছাপিয়ে বাংলাদেশ এবং বিশ্বক্রিকেটে আলোচনায় কেন্দ্রে ছিলেন সাকিব আল হাসান।

ভারতীয় জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করার কারণে আইসিসি থেকে নিষিদ্ধ হন তিনি। সাজা পাওয়ার আগে পরে তাকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা ছিল মুখে মুখে।

এছাড়া বিশ্বকাপেও দুর্দান্ত পারফর্ম করেছেন। এক কথায় বছরজুড়েই নানা কর্মকাণ্ডে সবার আগ্রহের কেন্দ্রে ছিলেন সাকিব। এসবের ফলে স্বাভাবিকভাবেই এ বছর গুগলে বাংলাদেশ থেকে সবচেয়ে বেশি অনুসন্ধান করা হয়েছে তাকে নিয়ে।

বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সার্চ ইঞ্জিন গুগল ধারাবাহিকভাবে বছর শেষে তাদের অনুসন্ধানের তালিকায় শীর্ষে থাকা ব্যক্তি, বিষয়বস্তুসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরির তালিকা প্রকাশ করা হয়।

এবার দেশভিত্তিক সে তালিকায় বাংলাদেশ থেকে ব্যক্তি তালিকায় অনুসন্ধানে শীর্ষে আছেন সাকিব আল হাসান।

বাংলাদেশ থেকে অনুসন্ধানের ভিত্তিতে সেরা দশের তালিকায় আছেন আরো চারজন ক্রিকেটার। তারা হলেন- মোহাম্মদ নাঈম শেখ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মোহাম্মদ মিথুন ও মুশফিকুর রহিম। বিষয়ভিত্তিক অনুসন্ধানের তালিকায় শীর্ষস্থানে আছে বাংলাদেশ বনাম ভারতের বিষয়।

সেরা দশে ক্রিকেটের আরো বিষয় জায়গা পেয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে আছে ভারতের ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজ লাইভ স্কোর। পরের স্থানগুলোতে ক্রিকেটের মধ্যে আছে যথাক্রমে- আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯, বিনোদন ও সরাসরি ক্রিকেট ম্যাচ দেখার মাধ্যম র‍্যাবিটহোলবিডি এবং ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা।

এবছর গুগলের এ প্রতিবেদন যেনো বাংলাদেশের সাকিব ও ক্রিকেটপ্রীতিকেই তুলে ধরেছে।

30-6-1.jpg

ভালোবাসার টানে প্যারিস থেকে স্পেনের বার্সেলোনাতে গিয়ে মেসির খেলা উপভোগ করেছেন নোয়াখালীর শহীদুল কবির। শুধু স্পেনে গিয়েই ক্ষান্ত হননি এই যুবক, নিজে নিজে খুঁজে বের করেছেন রেকর্ড ষষ্ঠ ব্যালন ডি’অর বিজয়ী লিওনেল মেসির বাড়িও!

ফ্রান্সের প্যারিস থেকে মেসির ভালোবাসার টানে স্পেনে পাড়ি জমান বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলার মোহাম্মদ শহীদুল কবির। ৮ ডিসেম্বর, বার্সা বনাম মায়োর্কার মধ্যকার খেলা উপভোগ করার জন্যই তিনি সহধর্মীনিসহ গিয়েছিলেন স্পেনে।

খেলা মাঠে গড়ানোর আগের দিনই ঘুরে দেখেছিলেন বার্সার ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু। কিন্তু মেসির বাড়ি খুঁজে বের করা তার জন্য ছিল এক কঠিন পরীক্ষা। যদিও পরিশেষে নিজের স্ত্রীকে নিয়ে পাহাড় বেয়ে আবিষ্কার করেন মেসির বাড়িও।

শহীদুলের ভাষ্যমতে, ‘বিচের পাশে বাস থেকে নেমেই হাঁটা শুরু করি। কতটা কষ্ট হয়েছে সে কথা বলে বোঝানো যাবে না। অনেক দূর যাওয়ার পর আমার স্ত্রীই আমাকে বলে একটি বাড়ির কথা, যেখানে স্টেডিয়ামের মতো লাইট দেখা যাচ্ছিল। চোখে ভেসে উঠল মেসির বাড়ির মাঠ। এইতো এটাই মেসির বাড়ি। আমার খুশি দেখে কে।’

এরপর শহীদুল চলে যান মেসির বাড়ির সামনে এবং গেটের সামনে গিয়ে দাঁড়ানোর সঙ্গে সঙ্গেই গেট খুলে যায়। গার্ড বের হয়ে এসে শহীদুলকে বলল, ‘হোলা’। এরপর স্প্যানিশ ভাষায় যা বলল তাতে বুঝলাম এখানে দাঁড়ানো যাবে না। আমি জানতে চাইলাম এইটা কি মেসির বাড়ি? সে বলল, হ্যাঁ। বললাম, ছবি তুলে চলে যাব।’

‘সাধারণত ছবি তুলতে দেয় না কিন্তু আমি ইংলিশে কথা বলায় বুঝেছে আমি অন্য কোথাও থেকে এসেছি, তাই বলল- ওকে একটা ছবি। হাসি মুখে ধন্যবাদ জানালাম।’

নিজের ইচ্ছা পূরণ হওয়ায় ব্যাপক খুশি বাংলাদেশের এই তরুণ। শহীদুলের মতে ‘অনেকের কাছে এসব হাসির কাজ, পাগলামি কিন্তু আমার কাছে এসব হচ্ছে স্বপ্ন পূরণ করা আর যেটা সবার পক্ষে সম্ভব হয় না।’

afridi987.jpg

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিবিপিএল) অংশ নিতে পাকিস্তানের সাবেক হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান শহীদ আফ্রিদি এখন ঢাকায়। মঙ্গলবার তিনি ঢাকায় এসে পৌঁছান।

আগেও কয়েক আসরে খেলা আফ্রিদি এবার ঢাকা প্লাটুন্সের হয়ে আসর মাতাবেন। বিপিএলে খেলা নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বাংলাদেশের মানুষের প্রশংসা করেন আফ্রিদি।

তিনি টুইটে লেখেন, ‘বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলার জন্য ঢাকায় ফিরে দারুণ লাগছে। এখানকার খাবার দারুণ, ক্রিকেটের প্রতি মানুষের আবেগও দারুণ। রোমাঞ্চকর একটি বিপিএল আসরের জন্য মুখিয়ে আছি।’

এর আগে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস, সিলেট সুপার স্টার্স, ঢাকা ডায়নামাইটস, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, রংপুর রাইডার্সের হয়ে খেলেছেন আফ্রিদি।

mush66.jpg

জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়ে গোপন রাখায় সব ধরণের ক্রিকেট থেকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ সাকিব আল হাসান। সেজন্য অনুমিতভাবেই দেশ এবং দেশের বাহিরে কোনো ক্রিকেটে লম্বা এ সময় দেখা যাবে না এই তারকা ক্রিকেটারকে। সেই সুযোগে কপাল খুলতে পারে মুশফিকুর রহিমের। ইতোমধ্যে আইপিএলের নিলামেও নাম তুলেছেন তিনি। এখন দেখার অপেক্ষা মুশফিককে কারা দলে ভেড়ায়।

সাকিব নেই, মুস্তাফিজুর রহমানেরও দল পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। বাকি রইল মুশফিক। জানা গেল, আইপিএল আয়োজকরা চায় বাংলাদেশি দর্শকদের বড় একটা অংশ ধরতে। সেক্ষেত্রে হয়তো শেষ সময়ে হলেও মুশফিককে টানতে পারে কোনো দল। তবে সব কিছু জানা যাবে ১৯ ডিসেম্বর। সে দিন কলকাতায় অনুষ্ঠিত হবে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের আসন্ন মৌসুমের নিলাম।

আইপিএল নিলামের জন্য এবার প্রাথমিকভাবে ৭৫৮ ভারতীয়সহ সর্বমোট ৯৭১ জন খেলোয়াড় নিজেদের নাম নিবন্ধন করেছিলেন। সেখান থেকে কাটছাঁট হয়ে নিলামের জন্য চূড়ান্ত তালিকায় জায়গা হয়েছে ৩০৮ জনের। পাশাপাশি এর বাহির থেকে আরও ২৪ জনকে নিয়ে করা হয়েছে ৩৩২ ক্রিকেটারের চূড়ান্ত নিলাম তালিকা।

এই ৩৩২ জনের সবাই কিন্তু দল পাবেন না। এদের মধ্যে থেকে সর্বোচ্চ ৭৩ জন খেলোয়াড় দল পাবেন। যার মধ্যে আবার সর্বোচ্চ ২৯ জন হতে পারেন বিদেশি কোটায়। ফলে এটা নিশ্চিত, কঠিন প্রতিযোগিতার মধ্যেই আছেন বাংলাদেশের মুশফিক।

এর আগে নিলামের জন্য নিবন্ধিত ৯৭১ জনের তালিকায় ছিলেন বাংলাদেশের ছয় ক্রিকেটার। তারা হলেন-তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজ এবং তাসকিন আহমেদ।

এদের কেউ চূড়ান্ত তালিকায় আছেন কি-না বলা মুশকিল। কেননা আইপিএল কর্তৃপক্ষ নিলামের জন্য চূড়ান্ত তালিকার সব ক্রিকেটারের নাম প্রকাশ করেনি। কেবল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের অনুরোধক্রমে যে ২৪ জনকে বাড়তি নেয়া হয়েছিল, সেই তালিকা প্রকাশ করে। তাতেই জানা গেল মুশফিকের থাকার বিষয়টি।

উল্লেখ্য, আগামী বছরের এপ্রিলে শুরু হবে আইপিএলের ১৩তম আসর। এবারও আট দলের অংশগ্রহণে মাঠে গড়াবে এই জমজমাট টুর্নামেন্ট। টি২০ ফরম্যাটে রাউন্ড রবির পদ্ধতিতে মোট ৬০ ম্যাচের ফয়সালা হবে।

nabi5.jpg

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর দুর্দান্ত পারফর্ম করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলে নিজের ছন্দ হারান কাটার স্টার খ্যাত এ ক্রিকেটার।

সাম্প্রতিক সময়ে অফ ফর্মে থাকা এ ক্রিকেটার বিপিএলেও প্রত্যাশিত পারফর্ম করতে পারছেন না। বুধবার তার করা ১৯তম ওভারে টানা চার বলে চারটি ছক্কা হাঁকান কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের শ্রীলংকান ক্রিকেটার দাসুন সানাকা।

শুধু তাই নয়, মোস্তাফিজের করা ওই ওভারের দ্বিতীয় বলে হাঁকানো প্রথম ছক্কাটি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম ছাড়া করেন দাসুন। চার ওভারে ৯.২৫ গড়ে ৩৭ রান খরচ করে ২ উইকেট শিকার করেন কাটার মাস্টার।

বিপিএল সপ্তম আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে মোস্তাফিজের এমন পারফরম্যান্সে পর গুঞ্জন তৈরি হয়েছে পরের ম্যাচগুলোতে তাকে একাদশে রাখা নিয়ে। তবে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী আশ্বস্ত করেছেন মোস্তাফিজকে সবগুলো ম্যাচেই খেলা হবে।

কুমিল্লার বিপক্ষে ১৭৪ রান তাড়া করে মাত্র ৬৮ রানেই গুটিয়ে যায় রংপুর রেঞ্জার্স। ১০৫ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজয়ের পর রংপুরের অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী ম্যাচ শেষে বলেন, মোস্তাফিজ ছন্দে নেই। আমার বিশ্বাস সে ছন্দে ফিরে আসবে। আমরা দল হিসেবে কাজ করব এবং তার সমস্যা নিয়ে আলোচনা করব। তাকে প্রতিটি ম্যাচে খেলানো হবে এবং একসঙ্গে কাজ করব আমরা।

bpl22d.jpg

বিপিএল সপ্তম আসরের উদ্বোধনী দিনেই বল স্টেডিয়াম ছাড়া করলেন কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের অধিনায়ক দাসুন সানাকা। রংপুর রেঞ্জার্সের তারকা পেসার মোস্তাফিজুর রহমানের বলে মিরপুর শেরেবাংলার সেরা ছক্কা হাঁকিয়েছেন এই লংকান ক্রিকেটার।

সঞ্জিত সাহার অফ স্পিনে শিকার হয়ে ডেভিড মালান যখন পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন তখন কুমিল্লার সংগ্র ১১.৫ ওভারে ৮৫ রান। এরপর ব্যাট হাতে নামেন কুমিল্লার শ্রীলংকান অধিনায়ক দাসুন সানাকা। ব্যাটিংয়ে নেমে উইকেটে সেট হওয়ার পরই তাণ্ডব শুরু করেন তিনি।

প্রথম ১৪ বলে ১৫ রান করা এ লংকান ১৮তম ওভারেই লুইস গ্রেগরিকে দুটি ছক্কা হাঁকিয়ে ১৬ রান আদায় করে নেন। ঠিক পরের ওভারে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমানের উপর রীতিমতো তাণ্ডব শুরু করেন সানাকা।

১৯তম ওভারে মোস্তাফিজের করা দ্বিতীয় বলটিকে ছক্কা হাঁকিয়ে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের ছাদের শেষ ভাগে নিয়ে ফেলেন সানাকা। বলটি ছাদে এক ড্রপ খেয়ে স্টেডিয়ামের বাইরে গিয়ে পড়ে।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের এটাই হয়ত সবচেয়ে বড় ছক্কা। এর আগে ২০১২ সালে বিপিএলের প্রথম আসরের প্রথম ম্যাচে গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের ছাদে বল ফেলেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের তারকা ক্রিকেটার ক্রিস গেইল। লেগ স্পিনার নূর হোসেন মুন্নার শর্ট বলটি গেইল গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের ছাদের ওপর নিয়ে ফেলেন। বলটি ছাদের ওপর কয়েকটি ড্রপখেয়ে গড়িয়ে মাঠের বাইরে গিয়ে পড়ে।

এদিন নিজের ইনিংসের প্রথম ১৪ বলে ১৫ রান করা সানাকা পরের ১৭ বলের মধ্যে ১০টি বাউন্ডারি হাঁকান। শেষ ১৭ বলের মধ্যে ৯টি ছক্কা ও একটি চারের সাহায্যে রেকর্ড ৬০ রান সংগ্রহ করেন সানাক।

তার ব্যাটিং তাণ্ডবেই ১৭ ওভারে ৬ উইকেটে ১০৮ রান করা কুমিল্লা শেষ তিন ওভারে যোগ করে ৬৫ রান।

দলের হয়ে মাত্র ৩১ বল খেলে ৯টি ছক্কা ও তিনটি চারের সাহায্যে অপরাজিত ৭৫ রান করেন সানাকা।

bpl99.jpg

বিপিএল শুরু হতে না হতেই বিতর্ক। উদ্বোধনী ম্যাচেই সিলেট থান্ডার্সের ক্যারিবীয় পেসার ক্রিসমার স্যান্টোকি যা দেখালেন, তাতে সমালোচনা হওয়াটাও স্বাভাবিক। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে বিতর্কের ঝড়।

বিতর্ক হবেই না বা কেন! সান্টোকির দুটি ডেলিভারি যে রীতিমত প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের এ পেসার আজ (বুধবার) একই ওভারে দৃষ্টিকটু দুটি ‘ওয়াইড’ ও ‘নো’ বল করেছেন।

মিরপুরে সিলেট থান্ডার্সের ছুড়ে দেয়া ১৬৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে আসেন সান্টোকি। ওভারের তৃতীয় ডেলিভারিটিই বড়সড় এক ‌‘ওয়াইড’ দেন তিনি। এরপর পঞ্চম বলে দেন বিশাল এক ‘নো’।

নো-বল বা ওয়াইড হতেই পারে, কিন্তু সন্দেহ জাগিয়ে তুলেছে নো-বলের দৈর্ঘ্য ও ওয়াইডের প্রস্থ। কারণ এই দুইটি এতই বড় ছিল যে মনে হতে পারে সান্তোকি ইচ্ছে করেই নো-বল ও ওয়াইড নিশ্চিত করতে চেয়েছেন।

ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত থেকে পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ আমির যে ইচ্ছাকৃত ‘নো-বল’ করেছিলেন, তার থেকেও সান্তোকির ‘নো-বল’ বড়। সেই ওভারের তৃতীয় ডেলিভারিতে লেগ সাইডে সান্তোকি দিয়েছেন বিশাল ওয়াইড। এরপর পঞ্চম বলে যে ‘নো-বল’টি করেছেন সেটিও অবিশ্বাস্য।

asif434.jpg

হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে রোববার হয়ে গেল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের সপ্তম আসরের বর্ণিল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান আকর্ষণ ছিলেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। তার সঙ্গে ছিলেন ক্যাটরিনা কাইফ। দুজনই মঞ্চে পারফর্ম করেন।

এছাড়া জমকালো এই অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন ভারতের কণ্ঠশিল্পী সনু নিগাম।

তবে বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সমালোচনা করে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল।

সোমবার দুপুরে নিজের নিজের ফেসবুক পেজে তিনি লেখেন, বঙ্গবন্ধুকে কীভাবে সম্মান দেখাতে হবে তা উনার দল সম্ভবত জানে না। বিপিএল-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বিভিন্ন আলামত দেখে সেটাই মনে হলো।

ঢাবির এই অধ্যাপক বলেন, বঙ্গবন্ধুকে সম্মান করা মানে তার প্রাণপ্রিয় দেশ, এর মানুষ, ভাষা আর ঐতিহ্যকে সম্মান করা। এর মানে বিভিন্নভাবে ভারতকে মাথায় তোলা না।

jnu.png

১৩তম সাউথ এশিয়ান গেমসে (এসএ) কারাতে থেকে সোনা জিতে নজর কেড়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) চারুকলা বিভাগের শিক্ষার্থী মারজান আক্তার প্রিয়া।

নেপালে আসর শুরুর দ্বিতীয় দিনে মেয়েদের কারাতে ডিসিপ্লিনের কুমি ইভেন্টে অনূর্ধ্ব-৫৫ কেজির ফাইনালে পাকিস্তানের কউসার সানাকে ৪-৩ পয়েন্টে হারিয়ে দেশকে স্বর্ণপদক এনে দিয়েছিলেন প্রিয়া।

আর দেশকে সোনা উপহার দেয়া প্রিয়াকে নিয়ে গর্বিত জবি। এখন প্রিয়ার লেখাপড়ার সকল ব্যয়ভার বহন করবে জবি। এমন ঘোষণা দিয়েছেন স্বয়ং জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

জবির ষষ্ঠ আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে মারজান আক্তার প্রিয়াকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন উপাচার্য। পুরস্কার প্রদানের আগে তিনি ঘোষণা দেন মারজানকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে কোন প্রকার খরচ দিতে হবে না। অর্থাৎ মারজানের শিক্ষা ব্যয়ের সবটুকুই বহন করবে জবি।

এরপর আন্তঃবিভাগ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে শিরোপা তুলে দেন জবি উপাচার্য।

সেই সঙ্গে পরিসংখ্যান বিভাগের হাতে বুঝিয়ে দেন রানার্সআপ ট্রফি। একই অনুষ্ঠানে ফাইনাল ম্যাচের সেরা ও টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটারকেও পুরস্কৃত করা হয়।