খেলাধুলা Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

sujon3.jpg

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সম্ভাব্য ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন বলেছেন, গণমাধ্যমের সামনে কান্নাকাটি একজন ক্রিকেটারের জন্য অসম্মানজনক। যা কোনো ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। ফিটনেসের কারণে বিশ্বকাপের দলে জায়গা না পাওয়া তাসকিনের, আবেগ নিয়ন্ত্রণ করা উচিত ছিল বলে মনে করেন তিনি।

এদিকে প্রিমিয়ার লিগে সৌম্য’র অফফর্মে থাকা কিছুটা চিন্তার হলেও, বিশ্বকাপে ঠিকই জ্বলে উঠবে তার ব্যাট, বিশ্বাস সুজনের।

সুজন বলেন, মন খারাপ থাকবে, আমি কাছের মানুষের কাছে শেয়ার করবো। কিন্তু, এটা পাবলিকলি আসবে, এটা ঠিক না। আমি ব্যাপারটা কোনো ভাবেই নিতে পারিনি। আমি তাসকিনকে সব সময় অন্যভাবেই দেখি, খুব ছোট থেকেই তাসকিনকে দেখেছি। আমার কাছে জিনিসটা ভালো লাগেনি। কারণ, সে বড় হয়েছে। সে অনূর্ধ্ব-১৯ এ নেই।

তিনি আরও বলেন, একটা খেলোয়াড়ের খারাপ সময় যাবে, ভালো সময় আসবে। ও জানে যে, ওর সিলেকশনটা একটা মাত্র কারণেই সম্ভবত নির্বাচকরা আটকে রেখেছেন, সেটা হলো ওর ফিটনেসের কারণে। আর ওয়ার্ল্ড কাপ কিন্তু এখনি না। অনেক সময় আছে। আর তাসকিন যদি এরমধ্যে ভালো হয় তাহলে পুনরায় চিন্তা করার ব্যাপার তো থাকতেও পারে। কিন্তু যেভাবে মিডিয়াতে এসেছে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসেছে সেটা আমি মনে করি, জাতীয় দলের একজন খেলোয়াড়ের জন্য অসম্মানের। মানসিকভাবে আমাদের শক্ত হতে হবে। আমরা তো বড় দলের বিপক্ষে খেলি, অনেক কঠিন সময় হ্যান্ডল করতে হবে। আপনি যদি হেরেই কান্নাকাটি করেন তাহলে তো হবে না।’

Messi-Suarez-with-Iqbal.jpg

চট্টগ্রামের এক যুবক ফুটবলের দুই মহাতারকা লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন। বুধবার তাদের সঙ্গে ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করে তিনি।

ওই যুবকের নাম ইকবাল হৃদয়। তিনি মিরসরাইয়ের বাসিন্দা। চট্টগ্রাম সিটি কলেজ থেকে পড়াশোনা করেছেন। বর্তমানে তিনি স্পেনের বার্সেলোনায় অবস্থান করছেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, মেসি ও সুয়ারেজ রাতের বেলা হাঁটছেন। এ সময় ইকবালের সঙ্গে তাদের দেখা হয়। ইকবাল স্প্যানিশ ভাষায় তাদের সঙ্গে কথা বলেন। মেসি এবং সুয়ারেজ দুজনেই তার সঙ্গে হেসে প্রত্যুত্তর দেন এবং ছবি তোলেন।

ইকবাল হৃদয়ের ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ৫ সেপ্টেম্বর প্রথমবারের মতো নিজ দেশকে নিয়ে বাংলাদেশে আসেন মেসি। সে সময় মেসিকে এক ঝলক দেখার জন্য বাংলাদেশের ফুটবল প্রেমিরা স্টেডিয়ামে ভিড় করেন। অনেক সৌভাগ্যবান ফুটবল প্রেমিরা সে সময় মেসির সংস্পর্শে আসতে পেরেছিলেন।

Geplaatst door Ikbal Hriday op Woensdag 17 april 2019

Dr-Dipu-Moni.jpg

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির প্রশ্নপত্রে পর্নোতারকাদের নাম আসার বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শুক্রবার সকালে ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

পরীক্ষা শুরুর আগেই সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল রাজধানীর তিতুমীর কলেজকেন্দ্র পরিদর্শনে যান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, স্কুলের প্রশ্নপত্রে পর্নোতারকাদের নাম আসাটা অন্যায়। এটি শিক্ষার্থীদের মনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। যেই স্কুলের নামে এ অভিযোগ উঠেছে, তদন্ত করে সেটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কেন্দ্র পরিদর্শনকালে তিনি শিক্ষকদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান এসএম আশফাক হুসেন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির বাংলা প্রথমপত্রের বহু নির্বাচনী প্রশ্নপত্রে (এমসিকিউ) দুটি প্রশ্নের সম্ভাব্য উত্তরে দুই পর্নোতারকা মিয়া খলিফা ও সানি লিয়নের নাম এসেছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে সমালোচনা। অনেকেই নবম শ্রেণির ওই প্রশ্নপত্র ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। অল্প সময়ের মধ্যেই তা ভাইরাল হয়।

প্রশ্নপত্রের এমসিকিউ অংশের ৮ নম্বর প্রশ্নে জানতে চাওয়া হয়েছে, আম আটির ভেঁপু—কার রচিত? এর উত্তরে চারটি বিকল্পের একটি সানি লিওন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

২১ নম্বর প্রশ্নে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পিতার নাম কি? এখানে চারটি সম্ভাব্য উত্তরের একটি বলা হয়েছে মিয়া খলিফা। এ ছাড়া ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তরে বলা হয়েছে, ঢাকার ‘বলধা’ গার্ডেনের পরিবর্তে লেখা হয়েছে ‘বলদা’ গার্ডেন।

101170_404052_125.jpg

পাকিস্তান প্রথম এবং শেষ আইসিসি বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছিলো ১৯৯২ সালে। ইমরান খানের নেতৃত্বে সেবার প্রথম আর এখন পর্যন্ত শেষ শিরোপার ছোঁয়া পায় দেশটি। এরপর কেটে গেলো ২৬টি বসন্ত। বিশ্বকাপ জয়ী পাকিস্তানের সেই অধিনায়ক এখন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। দুই দশক ধরে পুরো দস্তুর রাজনীতিক করছেন তিনি।

প্রায় ২০ বছরেও বেশি সময় যার কেটেছে তার ব্যাট-বলের সাথে। সেই ইমরান খান কি ক্রিকেট থেকে দূরে থাকতে পারেন? না, তিনি তা পারেননি। বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত পাকিস্তান দলের সাথে শুক্রবার বৈঠক করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। দিয়েছেন তাদের নানা টিপস। নিজে বিশ্বকাপ জিতেছেন, তাই আরেকটি বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে দলের জন্য তার উপদেশই তো সবার আগে দরকার।

ইসলামাবাদের বানি গালার বাসভবনে পাকিস্তান ক্রিকেট টিমের সদস্যদের সাথে এক ঘণ্টারও বেশি সময় নিয়ে বৈঠক করেছেন ইমরান খান। বিশ্বকাপে সফল হওয়ার জন্য জন্য দিয়েছেন নানা পরামর্শ। সেই সাথে জানিয়েছেন নিজের বিশ্বকাপ জেতার অভিজ্ঞতার কথা। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আশা করছেন, বিশ্বকাপ জেতা এক নায়কের মুখ থেকে সরাসরি তার অভিজ্ঞতার কথা শুনলে ক্রিকেটাররা উদ্দীপ্ত হবে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেটারদের বলেছেন, জয়ের ক্ষুধা আর সুন্দর পরিকল্পনা নিয়ে চ্যাম্পিয়নরা মাঠে নামে। আর বিজয়ের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ টিম স্পিরিট। তিনি ক্রিকেটারদের বলেন, তোমার দক্ষতা, খেলোয়াড়ি চেতনা আর দৃঢ়তা দিয়ে পাকিস্তানের জন্য সুনাম বয়ে আনো’।

ইমরান বলেন, বিভিন্ন সেক্টরে কিছু দুর্বলতা থাকলেও ১৯৯২ সালে আমরা আমাদের অত্যন্ত শক্তিশালী টিম স্প্রিটের কারণেই শিরোপা জিতেছিলাম।

বিশ্বকাপ ও ইংল্যান্ড সফরের জন্য ঘোষিত দলের মোট ১৭ জন সদস্য। নির্বাচক মণ্ডলি, কোচসহ টিম ম্যানেজমেন্টের অন্যান্য কর্মকর্তার উপস্থিত ছিলেন বৈঠকে।

এবারের দলটি বিশ্বকাপে ভালো করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ইমরান । তিনি বলেন, পুরো দেশ তোমাদের জন্য দোয়া করবে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে দেশের প্রতিনিধিত্ব করা অত্যন্ত সম্মানের। তোমরা জাতির প্রতিনিধি।

বৈঠকে ক্রিকেটারদের ফিটনেস, বিশ্বকাপ প্রস্তুতির নানা বিষয়ে খোঁজ খবর নেন ইমরান খান। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে সামনে থেকে দক্ষতার সাথে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য পরামর্শ দেন তিনি। পৃথক কিছু পরামর্শ দিয়েছেন দলের বোলাদের উদ্দেশ্যে।

b3aq.jpg

মাঠেই আলাপ হয়েছিল দুইজনের। সেখান থেকেই ভালো লাগার শুরু। শেষ পর্যন্ত একসঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার নিকোলা হ্যানকক ও নিউজিল্যান্ডের হেইলি জেনসেন। সমলিঙ্গে বিয়ে নিয়ে প্রথমে কিছুটা বাধার মুখে পড়তে হয়েছিল দু’জনকে। তবে সেসব তাদের আটকাতে পারেনি।

হ্যানকক ও জেনসেন ধুমধাম করেই বিয়েটা সেরে ফেলেছেন। মহিলাদের ক্রিকেটে এটি তৃতীয় সমলিঙ্গের বিয়ে।

নিউজিল্যান্ড জাতীয় মহিলা দলের ক্রিকেটার হেইলি জেনসেন বিগ ব্যাশে খেলেন মেলবোর্ন স্টার্সের হয়ে। জেনসেন নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার হলেও অস্ট্রেলিয়া ঘরোয়া ক্রিকেটে অতি পরিচিত নাম। উইমেন বিগ ব্যাশ লিগের প্রথম দুই মরশুমে মেলবোর্ন স্টার্সের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ছিলেন ২৬ বছর বয়সী এই জেনসেন। তবে তৃতীয় মৌসুমে তিনি খেলেন মেলবোর্ন রেনেগেডসের হয়ে।

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ান টি-২০ লিগে টিম গ্রিন-এর হয়ে খেলেন ২৩ বছর বয়সী হ্যানকক। জাতীয় দলের হয়ে অবশ্য এখনও অভিষেক হয়নি তাঁর।

দুই ক্রিকেটারের বিয়ের ছবি পোস্ট করে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছে মেলবোর্ন স্টার্স।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধ বলে ঘোষণা করে আইন পাস হয় নিউজিল্যান্ডে। এর পরই নিউজিল্যান্ডের দুটি মহিলা ক্রিকেট দলের দুই ক্রিকেটার অ্যামি সাটারথওয়েট ও লি তাহুহু বিয়ে করেন।

গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকা মহিলা দলের দুই ক্রিকেটার ড্যান ফন নিয়েকার্ক ও মারিজানে ক্যাপ বিয়ে করেছিলেন। আর এবার হ্যানকক ও জেনসেনের বিয়ে যেন আরও এক রূপকথা লিখে গেল।

mash-20190419205914.jpg

দুদিন আগেই (বুধবার) বাংলাদেশের মাত্র দ্বিতীয় বোলার হিসেবে দারুণ এক কীর্তি গড়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। আবাহনী লিমিটেডের এই পেসার লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৪০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন।

মাশরাফির এমন কীর্তিকে স্মরণীয় করে রাখতে আজ (শুক্রবার) মিরপুর শেরে বাংলায় কেক নিয়ে হাজির আবাহনীর সমর্থক গোষ্ঠী। উৎসবমুখর পরিবেশে সেই কেক মাশরাফিকে কেটে খাওয়ান তার সতীর্থ, ভক্ত-সমর্থকরা।

মাশরাফির আগে বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৪০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন বর্ষীয়ান স্পিনার আবদুর রাজ্জাক। মাশরাফি বিন মর্তুজাই যে এই তালিকায় দ্বিতীয় হিসেবে ঢুকবেন, সেটা অনুমিতই ছিল।

বুধবার চির প্রতিদ্বন্দ্বী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে মাশরাফির নামের পাশে জ্বলজ্বল করছিল ৩৯৯ উইকেট। ছিল মাত্র ১ উইকেটের অপেক্ষা। এই অপেক্ষাটি অবশ্য ছিলো আগের তিন ম্যাচেও। কারণ টানা তিন ম্যাচ উইকেটশূন্য ছিলেন মাশরাফি।

সেই অপেক্ষা ফুরোতে মাশরাফি নেন মাত্র ১৩ বল। ম্যাচে নিজের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে মোহামেডানের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ইরফান শুক্কুরকে সরাসরি বোল্ড করেই লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের ৪০০তম উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

বাংলাদেশের লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেট প্রথম ৪০০ উইকেট শিকারি রাজ্জাকের এই মাইলফলক স্পর্শ করতে লেগেছিল ২৬৯ ম্যাচ। মাশরাফির লেগেছে একটু বেশি। ২৮৭তম ম্যাচে এসে এই মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি।

mominul-1-20190419214014.jpg

হয়ে গেল জাতীয় দলের তারকা টেস্ট ব্যাটসম্যান মুমিনুল হকের বিয়ে ও বিবাহত্তোর সংবর্ধনা। আজ (শুক্রবার) মিরপুরের ডিওএইচএস’র একটি কমিউনিটি সেন্টারে হয় এই অনুষ্ঠান।

বিশ্বকাপের আগে যেন বাংলাদেশ দলে বিয়ের হিড়িক পড়েছে। গত মাসেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেন সাব্বির রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান আর মেহেদী হাসান মিরাজ। তাদের বিয়ে অনেকটাই ঘরোয়াভাবে হলেও মুমিনুলের বিয়েটা হয়েছে রীতিমতো ধুমধাম করেই।

বিয়ের মঞ্চ সাজানো থেকে শুরু করে সবকিছুতেই ছিল রুচিশীলতার ছোঁয়া। মুমিনুল ও তার স্ত্রীকে লাগছিলও দারুণ। ফটোগ্রাফি হয়েছে, খাওয়া-দাওয়া, উৎসব কোনো কিছুরই কমতি ছিল না।

এর আগে গত বুধবার বেশ বড়সড় আয়োজনে মুমিনুলের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান হয়। যেখানে একত্রে নেচে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছেন মুমিনুল ও তার স্ত্রী।

২৭ বছর বয়সী মুমিনুলের স্ত্রীর নাম ফারিহা বাশার। তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসে (বিইউপি) ম্যানেজমেন্টে অনার্স করছেন। গত বছর পারিবারিকভাবে ফারিহার সাথে বাগদান হয় মুমিনুলের।

অনেকেরই হয়তো জানা নেই, মুমিনুলের হবু স্ত্রী ফারিহা প্রাইম দোলেশ্বরের ব্যাটসম্যান সৈকত আলীর শ্যালিকা। সৈকতের সঙ্গে অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলেছেন মুমিনুল, দুজনই বিকেএসপির ছাত্র।

24-12.jpg

৪৪ সেকেন্ডের একটি ভিডিও। তাতেই তোলপাড়। সেটিতে দেখা যায়, সুনিপুণ দক্ষতায় গানের তালে তালে পেট দোলাচ্ছেন একজন যুবক। দর্শকদের কাছে এটি ‘বেলি ড্যান্স’ হিসেবে সমধিক পরিচিত।

ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর ফুটবল বিশ্বে হইচই পড়ে গেছে। প্রথমে ভক্ত-সমর্থকেরা বলেন, এতদিন জানতাম মোহাম্মদ সালাহ অসাধারণ ফুটবলার। বল নিয়ে নানা কারিকুরিতে দক্ষ। এবার জানলাম তিনি একজন ভালো ড্যান্সারও। পেটের কী কসরতটাই না দেখালেন মিসরীয় কিং।

অবশ্য পরে তাদের ভুল ভেঙেছে। তিনি আসল সালাহ নন। মজার ব্যাপার হলো, ওই যুবক দেখতে হুবহু লিভারপুলের মিসরীয় ফরোয়ার্ডের মতো। এখানেই শেষ নয়, তাকে অনেকেই সালাহ বলে প্রচার করেন।

জানা গেছে, ওই যুবকের বাড়িও মিসরে। কেবল তা-ই নয়, তিনি দেখতে অবিকল সালাহর মতো এবং তার অন্ধ ভক্ত।

taskin-1562236407.jpg

বিপিএল ২০১৮-১৯ সিজনে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন তাসকিন। ২২ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের তালিকায় ছিলেন দ্বিতীয় অবস্থানে। তার থেকে এক ম্যাচ বেশি খেলে ২৩ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেটধারী হয়েছিলেন সাকিব। এমন ফর্মের পরও দলে জায়গা হয়নি তাসকিনের।

মঙ্গলবার ২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত দলে জায়গা হয়নি পেসার তাসকিন আহমেদের। দলে জায়গা না পেয়ে গণমাধ্যমের সামনে সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

তার ওই কান্নার ভিড়িও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও। ভক্তরাও সেই ভিডিও শেয়ার করে তাসকিনের জন্য সমবেদনা জানান। সেই সাথে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া জানান বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল নির্বাচন নিয়েও।

তবে তাসকিনের এমন দুঃসময়ে তাকে সান্ত্বনা দিতে বুধবার ফোন করে তার পাশে দাঁড়ালেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

পাপন বলেন, ‘আমি ওকে খেলার মধ্যে থাকার জন্য বলেছি। বলেছি- এখনো সব আশা শেষ হয়নি। মন খারাপ করার কিছু নেই। সুযোগ এলে তাকে বিবেচনা করা হবে।’

দল ঘোষণার দিন (মঙ্গলবার) বিকেলে ফিটনেস নিয়ে কাজ করতে বিসিবি একাডেমিতে এসেছিলেন তাসকিন। সেখানেই তাকে ঘিরে ধরেন সংবাদকর্মীরা। ঘোষিত বিশ্বকাপ দলে সুযোগ হয়নি; নিজের প্রতি সুবিচার করা হয়েছে নাকি অন্যকিছু- এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে নিজেকে আর ধরে রাখতে পারেননি তাসকিন। কান্নায় ভেঙে পড়েন সবার সামনেই। কান্নাজড়িত গলায় বলেন, ‘না, ঠিক আছে, যেটা ভালো হয় সেটাই করেছে। সবাই তো ভালো চায় (আমার)। খারাপ চায় না কেউ। সামনে আরও সুযোগ আছে। সুপার লিগের ম্যাচ আছে সেখানে ভালো করার চেষ্টা করব।’

বিশ্বকাপের জন্য পাঁচজন পেসার নিয়ে দল গড়ার চিন্তা-ভাবনা ছিল বিসিবির। এরমধ্যে আগে থেকেই নির্বাচকদের চোখে ছিলেন মাশরাফি, রুবেল, মোস্তাফিজ ও সাইফউদ্দিন। তবে দ্বিধা ছিল পঞ্চম বোলার নিয়ে। পঞ্চম বোলার হিসেবে তাসকিন ও শফিউল ইসলামের নামই উঠে এসেছিল এতোদিন। কিন্তু সবকিছুর অবসান ঘটিয়ে সে জায়গা দখল করে নেন পেসার আবু জায়েদ রাহী।

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ১২তম আসরকে সামনে রেখে ১৬ এপ্রিল মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে দল ঘোষণা করেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। এসময় বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের দল ছাড়াও আয়ারল্যান্ড সফরে ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করে বিসিবি। সেই সিরিজের জন্যও দলে জায়গা হয়নি তাসকিনের।

mominul-wife-916528006.jpg

গত বছর অনেকটা চুপিসারেই দীর্ঘদিনের বান্ধবী ফারিহা বাশারকে বিয়ে করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক।

আগামীকাল ১৯ এপ্রিল তার বিবাহোত্তর সংবর্ধনা। এরআগে বুধবার রাতে গায়ে হলুদের আয়োজন করা হয়েছিল। জাকজমকপূর্ণ এই হলুদে স্ত্রীকে নিয়ে নাচতে দেখা গেল মুমিনুলকে।

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সবচেয়ে শান্ত ক্রিকেটার মুমিনুলকে বেশিরভাগ সময় চুপচাপ অবস্থাতেই দেখা যায়। কথাও খুব একটা বলেন না।

তবে নিজের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে সবার ধারণা পাল্টে দিয়েছেন টপ অর্ডার এই ব্যাটসম্যান। এদিন যেন খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন মুমিনুল।