খেলাধুলা Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

psl_tahir.jpg

করোনার কারণে গত মার্চে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ষষ্ঠ আসর মাঝপথেই স্থগিত হয়ে যায়। যা ফের মাঠের গড়ানোর সময় নির্ধারণ হয়েছে।

স্থগিত থাকা লিগটি ১ জুন মাঠে গড়াবে। ২০ জুন অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল। বাকি থাকা ২০টি ম্যাচই হবে করাচিতে। পিসিবির গভর্নরস মিটিংয়ে শনিবার এই সিদ্ধান্ত হয়।

টুর্নামেন্টের সব দলের ক্রিকেটার, সাপোর্ট স্টাফ ও সম্পৃক্ত অন্যদের ২২ মে জৈব-সুরক্ষা বলয়ে ঢুকে যেতে হবে। এরপর সবাইকে বাধ্যতামূলক সাত দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এরপর টুর্নামেন্ট শুরুর আগে তিন দিন অনুশীনের জন্য অনুমতি পাবে দলগুলো।

করোনা পরিস্থিতিতে গত মার্চে জৈবসুরক্ষা বলয়েই টুর্নামেন্টটি আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু টুর্নামেন্ট চলাকালে ছয় জন ক্রিকেটারসহ মোট সাত জনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। এরপরই অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেওয়া হয় আসর।

Sakib-kkr.jpg

৭১৯ দিন পর আইপিএলে খেলতে নেমে ব্যাট হাতে ভালো করতে পারেননি সাকিব আল হাসান। ৫ বলে মাত্র ৩ রান করে আউট হয়ে গেলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের পেসার ভুবনেশ্বরের বলে।

তবে বল হাতে প্রথম ডেলিভারিতেই সাফল্য পেলেন। হায়দরাবাদের ওপেনার ঋদ্ধিমান সাহাকে ৭ রানের বেশি করতে দেননি সাকিব।

ব্যাট হাতে সাকিব ব্যর্থ হলেও কলকাতা নাইট রাইডার্সের ওপেনার নীতিশ রানা ও তিনে নামা রাহুল ত্রিপালি খেলেছেন অসাধারণ ইনিংস।

বিশেষ করে প্রথম ম্যাচেই নীতিশ রানা নিজের জাত চিনিয়েছেন। ৫৬ বলে করেছেন ৮০ রান।

এই দুই ব্যাটসম্যানের দুর্দান্ত ইনিংসে ভর করে হায়দরাবাদকে ১৮৮ রানের বিশাল লক্ষ্য দেয় কলকাতা।

যা পূরণ করতে পারেনি ডেভিড ওয়ার্নারের দল। নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৭৭ রানে থেমে যায় হায়দরাবাদের ইনিংস।

ফলে আইপিএলের ১৪তম আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ১০ রান জয় পেল সাকিবের কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)।

রোববার রাতে চেন্নাইয়ের চিদাম্বরাম স্টেডিয়ামে টসে জিতে নাইটদের ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান হায়দরাবাদের ডেভিড ওয়ার্নার।

নীতিশ ও রাহুলের যথাক্রমে ৮০ ও ৫৩ রানের ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৮৭ রান তোলে কেকেআর।

১৮৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি হায়দরাবাদের। স্কোরবোর্ডে ১০ রান তুলতেই দুই ওপেনারকে হারায় হায়দরাবাদ। অধিনায়ক ওয়ার্নারকে ৩ রানে সাজঘরে ফেরান প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা। ঋদ্ধিমান সাহাকে ৭ রানে ফেরান সাকিব।

তবে দলের হাল ঠিকই ধরেন মনীষ পাণ্ডে ও ইংলিশ তারকা জনি বেয়ারস্টো। এ জুটি কোনে বিপদ না ঘটিয়ে ১০২ রানে নিয়ে পৌঁছায় দলকে।

দুর্দান্ত এই জুটিতে ভাঙন ধরান প্যাট কামিন্স। আউট হওয়ার আগে বেয়ারস্টো খেলেন ৪০ বলে ৫৫ রানের একটি প্রয়োজনীয় ইনিংস।

বেয়ারস্টোর পর হায়দরাবাদের বাকি ব্যাটসম্যানরা মনীষের সঙ্গে ছোটা ছোট পার্টনারশিপ গড়েন।

আফগান তারকা মোহাম্মদ নবী ১১ বলে ১৪ রান করে আউট হন প্রসিদ্ধর বলে। বিজয় শংকরকে ১১ রানে থামান আন্দ্রে রাসেল। এরপর আবদুল সামাদকে নিয়ে লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যান মনীষ পাণ্ডে।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য হায়দরাবাদের প্রয়োজন ছিল ২২ রানের।

টি-টোয়েন্টির ধুমধারাক্কা মঞ্চে এটি অসম্ভবের কিছু নয়। কারণ ৪২ বলে ৫৪ রানে অপরাজিত মনীষ। ওদিকে মাত্র ৪ বলে ১৫ রান করে ছক্কা হাঁকানোর জন্য মুখিয়ে সামাদ।

হাতে রয়েছে ৫টি উইকেট। রান বেশি হলেও এমন পরিস্থিতিতে ম্যাচ বের করা খুব একটা কষ্টসাধ্য নয়।

শেষ ওভারটি করতে ক্যারিবীয় পেসার আন্দ্রে রাসেলের হাতে তুলে দেন কেকেআর অধিনায়ক এইউন মরগ্যান।

কিন্তু হতাশ করেন সামাদ। প্রথম ৪ বলে মাত্র ৪ রান নেন তিনি। ফলে খেলা কেকেআরের ভাগ্যে চলে যায়। শেষ ২ বলে প্রয়োজন পড়ে ১৮ রানে। যা নো বল ছাড়া অসম্ভব।

শেষ বলে মনীষ পাণ্ডে ছক্কা হাঁকালে সর্বসাকুল্যে ১৭৭ রান জমা হয় স্কোরবোর্ডে। অর্থাৎ ১০ রানে জয়ী কলকতা নাইট রাইডার্স।

এর আগে কেকেআরের প্রথম ইনিংসে ৭ ওভারে দলের ৫৩ রান তোলার সময় ফেরেন ওপেনার শুভমন গিল (১৫)। এরপর তিনে ব্যাটিংয়ে নামা রাহুল ত্রিপাঠিকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাটিং তাণ্ডব শুরু করেন নীতিশ রানা। দ্বিতীয় উইকেটে ৫০ বলে ৯৩ রানের জুটি গড়েন তারা।

১৫.১ ওভারে এক উইকেটে ১৪৬ রান করে বড় স্কোর গড়ার আভাস দিয়েছিল কেকেআর। কিন্তু এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় তারা। দলীয় ১৪৬ রানে দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ফেরেন ত্রিপাঠি। তার আগে ২৯ বলে ৫টি চার ও দুই ছক্কায় ৫৩ রান করেন।

বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ইনিংস শুরু করা আন্দ্রে রাসেল ফেরেন ৫ বলে মাত্র ৫ রান করে। ইনিংসের শুরু থেকে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া নীতিশ রানা ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দেন। তার আগে ৫৬ বলে ৯টি চার ও চারটি ছক্কায় করেন দলীয় সর্বোচ্চ ৮০ রান। ৩ বলে ২ রানে ফেরেন অধিনায়ক ইয়ন মরগান।

ইনিংস শেষ হওয়ার ১৪ বল আগে নেমে সুবিধা করতে পারেননি সাকিব। ইনিংসের শেষ বলে আউট হওয়ার  আগে ৫ বলে করেন মাত্র ৩ রান। শেষ দিকে ৯ বলে  দুই চার ও এক ছক্কায় অপরাজিত ২২ রান করেন দিনেশ কার্তিক। শেষ দিকে তার বিধ্বংসী ইনিংসে ৬ উইকেটে ১৮৭ রান করে কেকেআর।

degv.jpg

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১৪তম আসরের শুরুটা ভালো হয়নি চেন্নাই সুপার কিংসের। শনিবার রাতে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে হেরেছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। ম্যাচ হারের সঙ্গে জরিমানাও গুনতে হয়েছে চেন্নাই অধিনায়ককে।

স্লো ওভার রেটের কারণে ১২ লক্ষ রুপি জরিমানা দিতে হবে ধোনিকে। টুর্নামেন্টে এটি দলের প্রথম ‘অপরাধ’ তাই শুধুমাত্র অধিনায়ক জরিমানা গুনে ছাড় পেয়েছেন। এরপর একই ভুল হলে ২৪ লক্ষ রুপি জরিমানা দিতে হবে ধোনিকে। পাশাপাশি দলের প্রত্যেক সদস্যকে ৬ লক্ষ রুপি অথবা ম্যাচ ফি-র ২৫ শতাংশ জরিমানা দিতে হবে। ধীরে ধীরে জরিমানার অঙ্কটা আরও বাড়বে।

পুরো টুর্নামেন্টে তৃতীয়বার স্লো ওভার রেটের দায়ে অভিযুক্ত হলে ৩০ লক্ষ রুপি জরিমানা দিতে হবে ধোনিকে। সঙ্গে ১ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা। দলের বাকিদের ১২ লক্ষ রুপি জরিমানা অথবা ম্যাচ ফি-র ৫০ শতাংশ কেটে নেওয়া হবে। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের পর আইপিএলের সবচেয়ে সফল দল চেন্নাই। এখন পর্যন্ত ৪ বার শিরোপা জিতেছে দলটি। তবে গত মৌসুমটা ভালো যায়নি তাদের। প্রথমবারের মতো শেষ চারে না উঠেই আসর শেষ করে ধোনির চেন্নাই।

শনিবার প্রথমে ব্যাট সুরেশ রায়নার হাফ সেঞ্চুরিতে স্কোরবোর্ডে ১৮৮ রান যোগ করে চেন্নাই। কিন্তু বোলিংয়ে নেমে শিখ্র ধাওয়ান এবং পৃথ্বী শ’র তোপের মুখে পরে দলটির বোলাররা। দুই ওপেনার ধাওয়ান (৮৫) ও পৃথ্বী (৭২) এর ব্যাটে ৭ উইকেটে জয় তুলে নেয় তরুণ অধিনায়ক ঋষভ পান্তের দল।

Mominul_h.jpg

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে ১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কা সফরে যাবে বাংলাদেশ। যেখানে লঙ্কানদের বিপক্ষে খেলতে দেখা যাবে না সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানকে। মূলত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলার জন্য ছুটি নেয়ায় লঙ্কানদের বিপক্ষে দলে নেই তাঁরা দুজন। সাকিব-মুস্তাফিজরা না থাকলে দলের ভালো ফলাফল হবে না এমনটা মানেন না মুমিনুল হক। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে বাংলাদেশের এই টেস্ট অধিনায়ক বলেন, ‘না, আমার কাছে মনে হয় না সাকিব ভাই বা মুস্তাফিজ না থাকলে দলের ফলাফল হবে না। দেখেন খেলোয়াড় তো আরও আছে। ওনাদের তো ১০-১২টা হাত না। বাকিদেরও ১০-১২টা হাত না। আমার কাছে মনে হয় না এর কোনো প্রভাব পড়ে। আমরা হয়তো দলগত ভাবে খেলতে পারছি না এই কারণে ইতিবাচক ফলাফল হচ্ছে না। আর কোন কিছু না।’

আইপিএলের এবারের নিলাম থেকে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে সাকিবকে দলে নিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। সবকিছু ঠিক থাকলে দলটির হয়ে খেলতে দেখা যাবে এই টাইগার অলরাউন্ডারকে। এর আগে ২০১২ ও ২০১৪ সালে কলকাতার হয়ে শিরোপা জিতেছিলেন সাকিব। এর মাঝে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেললেও খুব বেশি সুযোগ পাননি। তবে এবারের আসরে কলকাতার হয়ে মুখিয়ে রয়েছেন তিনি। আইপিএলের পুরো মৌসুম খেলতেই মূলত শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ থেকে ছুটি নিয়েছেন সাকিব। এ ছাড়া সন্তান সম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে সর্বশেষ নিউজিল্যান্ড সফরেও ছিলেন না তিনি।

এদিকে সাকিব ছাড়াও আইপিএল মাতাতে দেখা যাবে মুস্তাফিজ। এর আগে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেললেও এবারের আসরে রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে খেলতে দেখা যাবে তাঁকে। এবারের মৌসুমের নিলাম থেকে ১ কোটি রুপিতে বাঁহাতি এই পেসারকে দলে নিয়েছে রাজস্থান।

ipl5.jpg

এবারের আইপিএলে ডোপ পরীক্ষার সংখ্যা কমিয়ে দিচ্ছে জাতীয় ডোপ বিরোধী সংস্থা নাডা। করোনার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। গত আইপিএলে ৫০’র বেশি ডোপ পরীক্ষা হয়েছিলো। এবার সংখ্যাটা থাকবে ৩০ এর আশেপাশে।

যেভাবে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে এবং ক্রিকেটাররাও আক্রান্ত হচ্ছেন, তাতে নাডার কর্তারা ঠিক করেছেন এবার আর অতিরিক্ত মাত্রায় ডোপ পরীক্ষা করা হবে না। এখনো পর্যন্ত যা ঠিক হয়েছে, আইপিএলে যেসব ক্রিকেটার ভালো খেলবেন, তাদেরই ডোপ পরীক্ষা করা হবে। প্রতিযোগিতা চলাকালীন কারো রক্তের নমুনা নেওয়া হবে না। আইপিএল শেষ হলে গোটা প্রক্রিয়াটা একসঙ্গে করা হবে।

গতবার আইপিএল সংযুক্ত আরব আমিরশাহির যে তিনটি শহর হয়েছিলো, সেই দুবাই, শারজা ও আবু ধাবিতে মোট ৫টি ডোপ পরীক্ষা কেন্দ্র তৈরি করা হয়েছিলো। এবার ৬টি শহরে খেলা হলেও, মাত্র ৩টি পরীক্ষা কেন্দ্র তৈরি করা হবে।

দিল্লি, মুম্বাই ও আমদাবাদে এই কেন্দ্রগুলো হবে। কলকাতা, চেন্নাই, ব্যাঙ্গালুরুতে কোনো ডোপ পরীক্ষা কেন্দ্র থাকছে না। এবার পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানো হবে জার্মানির কোলন বা বেলজিয়ামের ঘেন্টে।

REALB.jpg

মৌসুমের দ্বিতীয় এল ক্লাসিকোর রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে শেষ হাসি হাসল রিয়াল মাদ্রিদ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনাকে ২-১ গোলে হারিয়েছে জিদান বাহিনী। সেই সাথে ৪৩ বছর পর কাতালানদের বিপক্ষে টানা তিন জয়ের দেখা পেলো লস ব্লাঙ্কস। দুর্দান্ত এ জয়ে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে বার্সা ও অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদকে টপকে টেবিলের শীর্ষে উঠে এলো বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিট। বক্সের একটু বাইরে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লেন ক্যাসেমিরো। লিওনেল মেসির ফ্রি কিকটা ছিল লক্ষ্যেও। তবে থিবো কোর্তোয়ার রুটিন সেভে সমতা আর ফেরানো হলো না বার্সেলোনার। এরপর দুই মিনিট দেখল আরও কয়েক প্রস্থ নাটক।

শেষটা অবশ্য হলো রিয়াল মাদ্রিদের হাসিতে। ২-১ ব্যবধানে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনাকে হারিয়ে লিগের লড়াইটাও জমিয়ে তুলেছে কোচ জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। প্রথমার্ধেই দুই গোল। তাতে ব্যবধানটা আরও বড় করার সম্ভাবনা জাগিয়ে বিরতিতে গিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ।

শেষ দেড় মৌসুমে বার্সেলোনা রক্ষণে যেমন নড়বড়ে, আরও বড় ব্যবধানে হারটাও ছিল খুব সম্ভব। এর আগে শুরুটা অবশ্য বেশ ভালো করেছিল কোচ রোনাল্ড কোম্যানের দল। ৩-৪-২-১ ছকে মাঠে নামায় মাঝমাঠে আধিপত্য ছিল বার্সার। অবধারিতভাবে বলের দখলেও এগিয়ে ছিলেন মেসিরাই, পেলেন প্রথম আক্রমণটাও।

গত মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ আটের প্রথম লেগে লিভারপুলের বিপক্ষে জয়ের পর বার্সেলোনার বিপক্ষে দারুণ এই সাফল্য। আত্মবিশ্বাসে ভরপুর রিয়ালের সামনে এবার অ্যানফিল্ড পরীক্ষা; চার দিন পর ফিরতি লেগে লিভারপুলের মুখোমুখি হবে ইউরোপের সফলতম দলটি।

sakib-asian.jpg

তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে বাংলাদেশে নিজেদের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ঘোষণা করলো অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ডেকোরেটিভ কোটিং ব্র্যান্ড এশিয়ান পেইন্টস।

প্রতিষ্ঠান হিসেবে এশিয়ান পেইন্টস ও ক্রিকেটার হিসেবে সাকিব আল হাসান উভয়ই তাদের অসাধারণ পারফরমেন্সের জন্য বিশ্বজুড়ে পরিচিত। আর নতুন এই অংশীদারিত্ব নিজ নিজ ক্ষেত্রে ধারাবাহিক এ পারফর্মারদের একসাথে করেছে।

এ অংশীদারিত্ব নিয়ে এশিয়ান পেইন্টস ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী রাহুল ভাটনগর বলেন, ‘উদ্ভাবন-চালিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমাদের ক্রেতাদের বাসার সৌন্দর্য ও সুরক্ষায় আমরা উচ্চ মানসম্পন্ন পণ্য এবং ওয়ান স্টপ সল্যুশন প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশের সবচেয়ে পছন্দের ব্র্যান্ড হতে চাই।

সাকিব আল হাসান চ্যাম্পিয়ন অল-রাউন্ডার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন, আর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে আমরা সাকিব আল হাসানের সাথে দীর্ঘমেয়াদী ও সফল পার্টনারশিপ করতে চাই।

নিজের দেশ আর দলের জন্য জয় নিশ্চিতের প্রয়াসে সাকিব আল হাসান সবসময়ই অদম্য ও নির্ভয়। তিনি এশিয়ান পেইন্টসের অঙ্গীকারকেই তুলে ধরেন—ক্রেতাদের সর্বোত্তম সেবাপ্রদানে এশিয়ান পেইন্টস সবসময়ই বদ্ধপরিকর।’

ভিডিও বার্তায় সাকিব আল হাসান বলেন, ‘হাই পারফরমেন্সের জন্য এশিয়ান পেইন্টস সুপরিচিত; আমি যখন মাঠে নামি তখন সবসময় আমার মধ্যে একই প্রচেষ্টা থাকে। এমন একটি আইকনিক ব্র্যান্ডের অংশীদার হতে পেরে আমি গর্বিত এবং আমি আশা করি, আমরা একসাথে লক্ষাধিক বাংলাদেশির ঘরে উচ্চমানের অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে পারবো।’

Pakk.jpg

টান টান উত্তেজনা ও শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে শেষ বলের আগে জয় পেল পাকিস্তান। ১৮৯ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর তাড়া করতে নেমে জয়ের রেকর্ড গড়ল বাবর আজমের নেতৃত্বাধীন দলটি। ৪ উইকেটের এই জয়ে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেল বাবর আজমরা।

২০১২ সালের বিশ্বকাপে শ্রীলংকার পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দলের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ১৭৫ রানের টার্গেট তাড়া করে জয় পেয়েছিল পাকিস্তান।

শনিবার জোহানেসবার্গের দ্য ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে টস জিতে ৩৬ রানে দুই উইকেট হারানো দক্ষিণ আফ্রিকা তিন উইকেটে করে ১৫৯ রান। এরপর ১২ রানের ব্যবধানে হারায় তিন উইকেট।

দলের হয়ে ২৮ বলে দুই চার ও চার ছক্কায় সর্বোচ্চ ৫০ রান করেন অধিনায়ক হেনরি ক্লেসেন। ৩২ বলে আট চার ও এক ছক্কায় ৫১ রান করেন ওপেনার অ্যাইডেন মার্কওরাম। ২৪ বলে ৩৪ রান করেন বিলজোয়েন।

জয়ের টার্গেট তাড়া করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৪.৫ ওভারে ৪১ রান করে ফেরেন অধিনায়ক বাবর আজম (১৪)। এরপর ফখরজামানকে সঙ্গে নিয়ে ফের ৪৫ রানের জুটি গড়েন অন্য ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান। ১৯ বলে ২৭ রান করে ফেরেন ফখর।

দলীয় ১১০ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ফেরেন মোহাম্মদ হাফিজ (১৩)। তিন উইকেটে ১৩২ রান করা পাকিস্তান এরপর দুই বলে ২ উইকেট হারিয়ে চাপের মধ্যে পড়ে যায়।

তবে শুরু থেকেই দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখিয়ে যান ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান। শেষদিকে তাকে সঙ্গ দেন ফাহিম আশরাফ। ষষ্ঠ উইকেটে মাত্র ২৪ বলে ৪৮ রানের জুটি গড়েন তারা। জয়ের জন্য শেষ ওভারে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ১১ রান। ২০তম ওভারের প্রথম বলে ডবল রান নিয়ে দ্বিতীয় বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ফাহিম আশরাফ। তার আগে মাত্র ১৪ বলে চারটি চার ও এক ছক্কায় করেন ৩০ রান।

তৃতীয় বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দলের জয় সহজ করেন নতুন ব্যাটসম্যান হাসান আলী। পরের বলে নেন ডাবল রান। জয়ের জন্য শেষ দুই বলে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ৩ রান। পঞ্চম বলে মিস ফিল্ডিংয়ের কারণে দুই রানের পর তৃতীয় রান নিয়ে জয় নিশ্চিত করেন হাসান আলী ও মোহাম্মদ রিজওয়ানরা।

Babar-azam.jpg

এশিয়ার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে রেকর্ড গড়লেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। টি-টোয়েন্টিতে মাত্র ১৬৫ ম্যাচে দ্রুততম ৬০০০ রান সংগ্রহের ইতিহাস গড়লেন বাবর।

এই রেকর্ড গড়ার পথে বাবর ছাড়িয়ে গেছেন বিশ্বের এই সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে।

টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে কম ১৬২ ম্যাচে দ্রুততম ৬০০০ হাজার রান সংগ্রহের রেকর্ড গড়েন ওয়েস্ট ইন্ডিজের তারকা ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল। দ্বিতীয় পজিশনে বাবর।

১৮০ ম্যাচ খেলে এই রেকর্ড গড়ে তিনে অস্ট্রেলিয়ান তারকা শন মার্স। ১৮৪ ম্যাচে ছয় হাজার রান করে চারে রিবাট কোহলি। ১৯০ ম্যাচ খেলে এই রেকর্ড গড়ে পাঁচে আছেন অস্ট্রেরিয়ার বর্তমান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম ছয় হাজার রান সংগ্রহের পাশাপাশি সবেচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডও গড়েছেন ক্রিস গেইল। ৪১৬ ম্যাচে ১৩ হাজার ৭২০ রান করেন তিনি। ৫৩৫ ম্যাচ খেলে ১০ হাজার ৬৩৬ রান করে দ্বিতীয় পজিশনে গেইলের জাতীয় দলের সতীর্থ কায়রন পোলার্ড। তৃতীয় সর্বোচ্চ ১০ হাজার ৪৮৮ রান সংগ্রহ করেছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শোয়েব মালিক।

pak19.jpg

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতি ও লকডাউনের কারণে বাংলাদেশ-পাকিস্তান ক্রিকেট সিরিজ স্থগিত করা হয়েছে। রোববার (১২ এপ্রিল) চারদিনের একটি টেস্ট ম্যাচ এবং পাঁচটি ওয়ানডে ম্যাচের একটি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল পাকিস্তান যুবদলের। কিন্তু বাংলাদেশে লকডাউন চলার কারণে সেটি পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল ৬ দিন। কিন্তু তাতেও কোনো লাভ হলো না।

কেননা বাংলাদেশ সরকার ঘোষণা দিয়েছে, ১৪ এপ্রিল থেকে লকডাউন আরও কঠোর করা হবে। সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব ধরনের সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। দেশের এমতাবস্থায় আসন্ন এই সিরিজ সম্পন্ন করা প্রায় অনিশ্চিত।

বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার আবু এনাম মোহাম্মদ কায়সার বলেন, করোনাকালের বিধি-নিষেধ বিবেচনা করে আমরা সিরিজটি স্থগিত করেছি। পরিস্থিতির উন্নতি হলে ঈদ-উল-ফিতরের পর সুবিধাজনক সময়ে পিসিবি’র সঙ্গে আলোচনা করে সিরিজটি আয়োজনের চেষ্টা করব।


About us

DHAKA TODAY is an Online News Portal. It brings you the latest news around the world 24 hours a day and 7 days in week. It focuses most on Dhaka (the capital of Bangladesh) but it reflects the views of the people of Bangladesh. DHAKA TODAY is committed to the people of Bangladesh; it also serves for millions of people around the world and meets their news thirst. DHAKA TODAY put its special focus to Bangladeshi Diaspora around the Globe.


CONTACT US

Newsletter