অন্যান্য Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

weight-20181201190020.jpg

একজন নারী ভারোত্তোলককে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ যার বিরুদ্ধে, সেই ভারোত্তোলক সোহাগ আলী ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বরাবর লেখা এক চিঠিতে মো. সোহাগ আলী বলেছেন, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনি দেশের প্রচলিত আইনে যে সাজা হয়, তা মাথা পেতে নেবেন। আর অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হলে অভিযোগকারীকে সাজা প্রদানের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

একজন নারী ভারোত্তোলককে যৌন নিপীড়ন করা হয়েছে বলে তার মামা মো. নাজমুল হক অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশনে। যেখানে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনা হয়েছে ভারোত্তোলক মো. সোহাগ আলীর বিরুদ্ধে। এ অভিযোগের ভিত্তিতে বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশন ও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ আলাদা আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ইতোমধ্যে ওই নারী ভারোত্তোলকের মা পল্টন থানায় সোহাগ আলীকে আসামি করে মামলা করেছেন।

ভারোত্তোলক সোহাগ আলী খেলার পাশাপাশি ভারোত্তোলন জিমন্যাসিয়াম রক্ষণাবেক্ষণ করেন। এ জন্য তিনি ফেডারেশন থেকে আলাদা পারিশ্রমিকও পান। সোহাগ আলী ভারোত্তোলন ফেডারেশনকে দেয়া চিঠিতে বলেছেন, ‘২৫ নভেম্বর ২০১৮ একজন মহিলা ভারোত্তোলন খেলোয়াড়ের পক্ষে তার তার মামা মো. নাজমুল হক আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণের লিখিত অভিযোগ আপনার বরাবর পেশ করেন এবং আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পর তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা হিসেবে আমাকে ভারোত্তোলন খেলার সকল কর্মকাণ্ড এবং জিমন্যাসিয়ামের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি প্রদান করা হয়। তারপর আমি বাড়ি চলে যাই।

এ বিষয়ে আমার বক্তব্য হচ্ছে-আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে, বানোয়াট, ষড়যন্ত্রমূলক ও ভিত্তিহীন। গত ১৩ সেপ্টেম্বর আমি জাতীয় সার্ভিসেস ভারোত্তোলন প্রতিযোগিতার জন্য স্টেজ তৈরিসহ অন্যান্য কাজে ব্যস্ত ছিলাম। পরের দিন থেকে প্রতিযোগিতা থাকায় বিভিন্ন স্থান থেকে আসা লোকজন ছিলেন ফেডারেশন কার্যালয়ে। বাংলাদেশ আনসারের খেলোয়াড় নাঈম ইসলাম সার্বক্ষণিক আমার সাথে ছিল। এত লোকজনের মাঝে এমন জঘন্য কাজ করা কোনো ব্যক্তির পক্ষে মনে হয় সম্ভব নয়।

মহোদয়, দেশের ভারোত্তোলন যখন তলানির দিকে যাচ্ছে তখনই আপনার মতো একজন সুদক্ষ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের মাধ্যমে ফেডারেশনকে আলোর পথ দেখিয়ে ধীরে ধীরে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, তখনই আমার বিরুদ্ধে এমন ঘৃণিত, জঘন্য ও ন্যাক্কারজনক অভিযোগ উত্থাপিত করা হয়েছে; যেন আপনাকে বিব্রত ও আপনার সুনাম ক্ষুণ্ন করে ফায়দা লোটার জন্য কোনো মহল এ উস্কানি দিচ্ছে বলে মনে করি।

আমি সজ্ঞানে ও সুস্থ মস্তিষ্কে বলছি, অভিযোগ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু তদন্ত করলে সত্য ঘটনা উদঘাটন হবে। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে যে কোনো শাস্তি মাথায় পেতে নেবো। অভিযোগ মিথ্যা হলে অভিযোগকারীকে যেন সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হয়।

আমি ওই ঘটনার সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সুষ্ঠু বিচার করে যথাযথ বিচারের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।’