ক্রিকেট Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

mosaddek-223423.jpg

বিয়ে করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তবে এটি তার দ্বিতীয় বিয়ে।

শুক্রবার (১০ জুলাই) ময়মনসিংহে ঘরোয়া আয়োজনে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে তাদের।

নিজের ফেসবুকে বিয়ের ছবি পোস্ট করে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন মোসাদ্দেক।

ফেসবুকে নববধূর সঙ্গে তোলা ছবি আপলোড করে ২৪ বছর বয়সী ক্রিকেটার মোসাদ্দেক লিখেছেন, ‘জীবনের নতুন যাত্রা শুরু করছি।

আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’ দ্বিতীয় স্ত্রীর নাম উম্মে তামান্না। তার বাড়ি ময়মনসিংহ নগরীর তালতলা এলাকায়।

বিয়ে নিয়ে গণমাধ্যমকে মোসাদ্দেক হোসেন বলেছেন, করোনার কারণে ঘরোয়া পরিবেশেই বিয়ে হয়েছে। বড় আয়োজন করতে পারিনি।

তবে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বড় পরিসরে অনুষ্ঠান করব ইনশাল্লাহ।

এর আগে ২০১২ সালে প্রথম বিয়ে করেন মোসাদ্দেক। তার প্রথম স্ত্রী ছিলেন আপন খালাতো বোন সামিয়া শারমিন।

তবে তাদের সংসার বেশিদিন টিকেনি। পারিবারিকভাবে মনোমালিন্য হওয়ায় প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স দেন মোসাদ্দেক।

Kemar-Roach-Test-1280.956x538.jpg

সাউদাম্পটন টেস্টের চতুর্থ দিনের শুরু থেকেই ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা আশা দেখাচ্ছিলেন দর্শকদের।

তবে শেষ বিকেলে মাত্র ৩০ রানের ব্যবধানে স্বাগতিকদের ৫ উইকেট তুলে নিয়ে দারুণভাবে খেলায় ফিরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

চতুর্থ দিন শেষে সুবিধাজনক অবস্থানে সফরকারীরাই।

বিনা উইকেটে ১৫ রান নিয়ে দিন শুরু করা ইংল্যান্ড ৮ উইকেটে ২৮৪ রানে দিন শেষ করেছে।

৩ উইকেটে ২৪৯ থেকে এক পর্যায়ে ৮ উইকেটে ২৭৯ রানে পরিণত হয় দলটি।

এখন পর্যন্ত ইংলিশরা ১৭০ রানের লিড পেয়েছে। প্রথম ইনিংসে তাদের ২০৪ রানের বিপরীতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাদের প্রথম ইনিংসে করে ৩১৮ রান।

জ্যাক ক্রলি ও বেন স্টোকসের ব্যাটে বড় লিডের স্বপ্নই দেখছিল স্বাগতিকরা।

তবে পেসার আলজারি জোসেফ ইংলিশদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৬ রান করা ক্রলিকে ফিরিয়ে দেন।

সঙ্গে শিকার বানান জস বাটলারকে (৯)। এর আগে ৪৬ রান করা বেন স্টোকসকে ফিরিয়ে দেন জ্যাসন হোল্ডার।

ডম বেস (৩) এবং ওলি পপও (১২) খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। চার বলের ব্যবধানে এই দুজনকে ফিরিয়ে দেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।

তাতেই ৩ উইকেটে ২৪৯ থেকে ৮ উইকেটে ২৭৯ হয়ে যায় ইংল্যান্ড।

এর আগে রবি বার্নস ও ডমিনিক সিবলি দিনের শুরুটা করেন দারুণ। মাটি কামড়ে উইকেটে থেকে ব্যাট করে যাচ্ছিলেন।

ব্যক্তিগত ৪২ রানে বার্নস রোস্টন চেজের শিকার হন। এরপর গ্যাব্রিয়েলের শিকার হন সিবলি।

তবে তার আগে ফিফটি (৫০) তুলে নেন তিনি। তিনে নামা জো ডেনলি করেন ২৯ রান।

ক্যারিবীয়দের পক্ষে গ্যাব্রিয়েল সর্বাধিক ৩ উইকেট নিয়েছেন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন চেজ ও জোসেফ।

জোফরা আর্চার ৫ ও মার্ক উড ১ রান নিয়ে রবিবার পঞ্চম দিনের খেলা শুরু করবেন।

mushi5.jpg

মুশফিকুর রহিম পেয়ে গেছেন তার কাঙ্ক্ষিত লোগো। গত ২৬ মে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ১৫ বছর পূর্তিতে বাংলাদেশ দলের সিনিয়র ব্যাটসম্যান তার ফাউন্ডেশন ‘এমআর ১৫’ এর জন্য লোগো আহ্বান করেন ভক্তদের কাছে।

সেখান থেকেই চূড়ান্ত করেছেন ফাউন্ডেশনের লোগো। পুরস্কার হিসেবে শিগগির বিজয়ী ভক্তদের নিয়ে মুশফিক যাবেন নৈশভোজে।

শুক্রবার সেরা পাঁচ লোগো উন্মোচন করে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন মুশফিক। জাতীয় দলের এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান সেরা পাঁচ ডিজাইনারকে নিয়ে এবার ডিনারে যাবেন।

মুশফিকের আহ্বানে সাড়া দিয়ে জমা পড়ে ১,৭০০ এর বেশি লোগো ডিজাইন। সেই হাজার ডিজাইন থেকে সেরা পাঁচটি লোগো নির্বাচন করেন খোদ মুশফিক।

নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এই ফল ঘোষণা করেন সাবেক এই অধিনায়ক। সেরা ডিজাইনের পাশাপাশি বেছে নেন সেরা পাঁচ লোগো।

এই পাঁচ লোগোর ডিজাইনার পাঁচতারকা হোটেলে মুশফিকের সঙ্গে ডিনার করার সুযোগ পাচ্ছেন।

একইসঙ্গে তারা অটোগ্রাফ সম্বলিত মুশির জার্সিও পাবেন।

সেরা লোগোটি তৈরি করেছেন ইয়াসিন সিদ্দিক আসিফ। বাকি ৪জন হলেন- আসিফ মাহমুদ খান, রবিউল আলম, শফিউল ইসলাম শামিম ও সুবর্না সাজ্জাদ সুইট।

শুক্রবার মুশফিক তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘আমার অনেক বছরের স্বপ্ন আমার ফাউন্ডেশনের লোগো প্রকাশ করতে পেরে দারুণ আনন্দিত।

চমৎকার সব লোগোর ডিজাইন জমা পড়েছিল এ সময়ে। অংশগ্রহণকারী সবাইকে ধন্যবাদ।

যদিও সেরা পাঁচটি লোগো এখান থেকে আমাকে বেছে নিতে হয়েছে, কিন্তু যারা এখানে অংশ নিয়েছেন তারা সবাই আমার চোখে জয়ী।

আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। আলহামদুলিল্লাহ।

যার লোগো আমি সেরা হিসেবে নির্বাচন করেছি তার নাম ইয়াসির সিদ্দিক আসিফ। আপনাকে অভিনন্দন।

ইনশাআল্লাহ যে পাঁচ জন প্রতিযোগির লোগো নির্বাচিত হয়েছে তাদের সবার সাথে আমি শীঘ্রই যোগাযোগ করবো কবে , কিভাবে ডিনার করা যায় এবং কিছুটা সময় কাটানো যায় তা জানানোর জন্য।’

একইসঙ্গে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মুশফিক। ১,৭০০ এর বেশি লোগো ডিজাইন জমায় মুগ্ধ হয়েছেন তিনি।

inzamam-20190506203910.jpg

বিশ্বকাপ বাতিল করে আইপিএলের আয়োজন করলে বিষয়টি ক্রিকেটবিশ্বে অনেক বড় বির্তকের জন্ম দেবে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক এবং সাবেক প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল হক।

তিনি প্রশ্ন তুলেছেল, বিশ্বকাপ বাতিল করে আইপিএল আয়োজন কেন করা হবে?

সম্প্রতি নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ইজামাম বলেন, ‘গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে বিশ্বকাপ হলে নাকি আইপিএল আয়োজন করা সম্ভব নয়! কারণ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি নাকি আইপিএলের সূচির সঙ্গে সংঘর্ষ তৈরি করেছে।

একই সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া-ভারত সিরিজও বিশ্বকাপ সময়ের সঙ্গে সংঘর্ষ তৈরি করেছে। তাই শোনা যাচ্ছে, বিশ্বকাপই নাকি বাতিল করে দেয়া হতে পারে!’

ইনজামাম বলেন, অস্ট্রেলিয়ায় করোনা মহামারীর কারণে যদি বিশ্বকাপ আয়োজন না হয় তখন সেটা বিবেচনায় নেয়া যায়।

কিন্তু একই সময়ে যদি ক্রিকেটের অন্য কোনো ইভেন্ট অন্য কোথাও আয়োজন করা হয়, তখন এটা নিয়ে প্রশ্ন তৈরি হবেই।

ইনজামাম যোগ করেন, আইসিসির কোনোভাবেই একটি বিশ্বকাপের পরিবর্তে একটি দেশের ঘরোয়া লিগকে প্রাধান্য দেয়া ঠিক হবে না।

এটা ক্রিকেটের জন্য খুবই ভয়ঙ্কর হবে। কারণ এমনটা ঘটা মানে তরুণ খেলোয়াড়দের জোর করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পরিবর্তে ঘরোয়া লিগগুলোর দিকেই ঠেলে দেয়া।

যদিও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাতিল বা স্থগিতের বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি আইসিসি।

তবে আশঙ্কা প্রকাশ করে ইনজামাম বলেছেন, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নিয়ন্ত্রণে সবকিছু। চাইলে তারা সব কিছুই করতে পারে।

আইসিসিকে খুব শক্তহাতে নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই।

প্রসঙ্গত ইতিমধ্যে বাতিল হয়েছে এশিয়া কাপ-২০২০।

সেপ্টেম্বরে টুর্নামেন্টটি আয়োজনের কথা থাকলেও অবশেষে এ বছর আর এশিয়া কাপ হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে এসএসসি।

এদিকে অস্ট্রেলিয়ায় করোনা পরিস্থিতি অবনতি ঘটায় বাতিলের আশঙ্কায় ভুগছে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও।

ইতিমধ্যে ভেন্যু মেলবোর্নকে ৬ সপ্তাহের লকডাউনের আওতায় নিয়েছে প্রশাসন। যে কারণে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এখন প্রায় অনিশ্চিত।

Asia_Cup_.jpg

করোনাভাইরাস সংকটের কারণে এবার এশিয়া কাপ আর হচ্ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড- বিসিসিআই’র সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি।

যদিও এ ব্যাপারে আয়োজক পাকিস্তান, এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল বা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসেনি।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানের বসার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে টি-টোয়েন্টি এই টুর্নামেন্টটি নিয়ে অনেক দিন ধরেই অনিশ্চয়তার খবর ভেসে আসছিল।

এবার বিসিসিআই সভাপতি পরিষ্কার করেই জানিয়ে দিলেন আসরটি এবার আর হচ্ছে না।

৮ জুলাই নিজের ৪৮তম জন্মদিন উপলক্ষে কলকাতার বাংলা দৈনিক আনন্দবাজারকে দেওয়া বিশেষ এক সাক্ষাৎকারে এশিয়া কাপ নিয়ে সৌরভ বলেন, “এশিয়া কাপ বাতিল হয়ে গিয়েছে।

এ বারে আর হচ্ছে না। আমরা আইসিসি’র সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছি। দেখা যাক, কবে ওরা চূড়ান্ত ঘোষণা করে।”

“তার পরে আইপিএল নিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। আমরা মাথায় রাখছি, যদি অক্টোবর-নভেম্বরের দিকে পরিস্থিতির উন্নতি হলে আইপিএল করা যায়।

এই মুহূর্তে তার আগে ক্রিকেট শুরু হওয়ার সম্ভাবনা দেখছি না।”

এশিয়া কাপ নিয়ে যেমন দীর্ঘদিন ধরে অনিশ্চয়তার খবর আসছিল, তেমনি অনিশ্চয়তার গুঞ্জন আছে অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়েও।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে সৌরভ বলেন, “আইসিসি হয়তো চেষ্টা করছে, সব দিক ভালোভাবে দেখে নিতে যে, বিশ্বকাপ আয়োজনের আর কোনো সম্ভাবনা আছে কি-না।

বিশ্বকাপ থেকে হওয়া মুনাফা থেকে সব দেশকে আর্থিক অনুদানও দেওয়া হয়। তা থেকে ক্রিকেট উন্নয়নের অনেক কাজ হয়। নানা দিক নিয়ে ভাবতে হচ্ছে। তাই হয়তো আইসিসি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে উঠতে পারেনি।”

ash_with_familly.gif

৩৬ পূর্ণ করে মঙ্গলবার ৩৭-এ পা রাখলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের প্রথম সুপারস্টার মোহাম্মদ আশরাফুল।

সারাদিন ভক্তদের অভিনন্দন ও ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন দেশের ক্রিকেটের সাবেক এই অধিনায়ক।

করোনাকালে জন্মদিনটা যে পরিবারের সঙ্গেই কাটিয়েছেন, তা বলছে আশরাফুলের ফেইসবুক পোস্ট।

সন্ধ্যার পর নিজের ফেইসবুক আইডিতে পারিবারিক ছবি ও ভিডিও পোস্ট করেছেন আশরাফুল।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে বাচ্চাদের নিয়ে ছাদে ঘুড়ি ওড়াচ্ছেন তিনি। আর ছবিগুলোতে আছে ‘বিশেষত্ব’।

ক’দিন আগেই দ্বিতীয় সন্তানের বাবা হয়েছেন আশরাফুল ও আনিকা তাসনিম অর্চি দম্পতি।

তাদের ঘর আলো করে আসে পুত্র সন্তান। ছেলের নাম রেখেছেন মোহাম্মদ তাওয়াফ আদভি।

আদভির জন্মের পর নিজের জন্মদিনেই প্রথম পারিবারিক ছবি তুলেছেন আশরাফুল। পোস্ট করেছেন সেটি ফেইসবুকে।

স্ত্রী অর্চি, মেয়ে আরিবা তাসনিম তুবা ও ছেলে আদভিকে নিয়ে তোলা ছবিগুলো পোস্ট করে আশরাফুল ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আদভিকে নিয়ে আমাদের প্রথম পারিবারিক ছবি।’

ছবিটিকে নিজের আইডিতে কাভার ফটো হিসেবেও ব্যবহার করেছেন তারকা এই ক্রিকেটার।

mushfiq3.jpg

বাংলাদেশের ক্রিকেটে মুশফিকুর রহিমের আলাদা খ্যাতি আছে সেটা, কঠিন পরিশ্রমী হিসেবে।

মুশফিকের এই কঠিন পরিশ্রম তাকে নিয়ে গেছে অনন্য উচ্চতায়। তার ফলও পাচ্ছেন। তিনি এখন দেশের সেরা ব্যাটসম্যান।

তামিম ইকবালের ফেসবুক লাইভ শো-তে মাহমুদউল্লাহ-মাশরাফিরা মজা করেই বলেছেন, মুশফিক এভাবে আর কদিন ঘরবন্দী থাকলে মুশফিক মরেই যাবে।

জুনের শুরুর দিকে দলের বেশ কয়েকজন সিনিয়র খেলোয়াড় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে আবেদন করেন, অন্তত একা অনুশীলনের সুযোগ করে দিতে।

তখন বিসিবি না করে পরে অনুমতি দেয় তবে সেটি বাস্তবায়ন হয়নি দেশের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য।

যদিও ক্রিকেটাররা ঘরে কাজ করছেন ফিটনেস নিয়ে।

তাতে কী আর হয়? ব্যাটে-বলে মাঠে ঘাম না ঝরালে ঘাটতি দেখা দিবে স্কিলেও। তাই সবার আগে মাঠে নেমে পড়েছেন মুশফিক।

গতকাল সোমবার মিরপুর শের ই বাংলা স্টেডিয়ামে এসেছিলেন মুশফিক তবে হতাশা নিয়ে ফেরেন বাসায়।

তবে আজ মঙ্গলবার প্রথম দিনের মতো অনুশীলন করেছেন বাড্ডার বেরাইদে ফর্টিস গ্রুপের মাঠে।

এখনই ব্যাটে-বলে লম্বা সেশনে নক না করলেও দুই ঘন্টার মতো রানিং, আর পিচে হালকা নক করেছেন।

এদিকে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন, অনুশীলনের জন্য আমাদের সুযোগ সুবিধা সব প্রস্তুত করা আছে।

দলের এলিট প্লেয়াররা অনুশীলন করতে চাইলে তাদের বলা আছে।

তারপরেও তাদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে যে তারা বর্তমান পরিস্থিতিতে যেন আরো সতর্ক থাকে।

এখন এরপরেও যদি কেউ ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেটা নিজ দায়িত্বে করবে। এখানে আমাদের বলার বা করণীয় কিছু নেই।

cricketaus.jpg

ধাপে ধাপে জার্মানি, স্পেন, ইতালি ও ইংল্যান্ডে শুরু হয়েছে ক্লাব ফুটবল। ইউরোপে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টার সঙ্গে এবার ফিরছে ক্রিকেটও।

১১৫ দিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরতে চলেছে। ইংল্যান্ডের মাটিতে অপেক্ষা ঘুচবে ক্রিকেটপ্রেমীদের।

বুধবার ৮ জুলাই ২২ গজ মাতাবে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সাউদাম্পটন শহরের রোজ বোল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে ফিরছে করোনা পরবর্তী ক্রিকেট।

সিরিজে ৩ টি টেস্টে মুখোমুখি হবে দুই দল। বাংলাদেশ সময় ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল চারটায়।

চলতি বছরের ১৩ মার্চ সব শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয়েছিল।

অস্ট্রেলিয়া বনাম নিউজিল্যান্ডের মধ্যেকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটি হলেও করোনার প্রকোপ বেড়ে গেলে ১৫ মার্চ দ্বিতীয় ওয়ানডে বাতিল হয়।

এর পর থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এদিকে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ফাঁকা গ্যালারিতে প্রতীকী দর্শক রেখে শুরু হয়েছে ফুটবল।

বুন্ডেস লিগা, সিরি আ’, লা-লিগা, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এমন দৃশ্য চোখে পড়েছে। এবার ক্রিকেট মাঠেও দর্শক ছাড়া ম্যাচ গড়াবে।

তবে দর্শকদের রেকর্ড করা সাউন্ডে হই হুল্লোড় মুখরিত থাকবে স্টেডিয়াম।

রোজ বোল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে উইকেট তুলে নিলে বা চার-ছক্কা হলেই বাজনা বাজবে।

ম্যাচের সব উত্তেজক মুহূর্তে গ্যালারি থেকে দর্শকদের রেকর্ড করা আওয়াজ বাজানো হবে।

এমন মাঠে আগে খেলা হয়নি। তাই পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে এরই মধ্যে মনোবিদের দ্বারস্থ হয়েছেন ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড।

এদিকে গেল ৯ জুন ইংল্যান্ডে পৌঁছায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। নিয়ম মেনে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে ১৪দিনের জন্য হোটেলবন্দী হতে হয় সফরকারীদের।

কোয়ারেন্টিন শেষ হলে অনুশীলনে ফিরে ক্যারিবীয়রা। এরইমধ্যে আলাদা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে জেসন হোল্ডার-বেন স্টোকসরা।

IPLf.jpg

করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে অক্টোবরের টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত হচ্ছে এটা মোটামুটি নিশ্চিত।

ভারত এই সময়ে আইপিএল আয়োজনের রূপরেখা তৈরি করছে এটাও পরিষ্কার।

কিন্তু ভারতের করোনা পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রনে আসেনি।

সেজন্য নিরপেক্ষ ভেন্যুতে সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-২০ লিগ আয়োজনের কথা ভাবছে ভারতের ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

করোনা নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হওয়া নিউজিল্যান্ড তাই বিসিসিআইকে আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে।

বিষয়টি সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে ভারতের এক বোর্ড কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে করোনা পরিস্থিতি উন্নত হওয়া শ্রীলংকা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে ভারতকে।

বিসিসিআই ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ‘আমাদের প্রথম পছন্দ দেশের মাটিতেই আইপিএল আয়োজন করা।

কিন্তু সুরক্ষার কারণে যদি সেটা সম্ভব না হয়, তবে আমরা অন্য কোন দেশে এটা আয়োজন করবো।

শ্রীলংকা এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের পরে নিউজিল্যান্ড আমাদের আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে।

আমরা সকল অংশীদারদের সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত নেব। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা আমাদের কাছে সবকিছুর ওপরে।’

এর আগে ২০০৯ আইপিএলের আসর দক্ষিণ আফ্রিকা ও ২০১৪ আসর আরব আমিরাতে বসে।

দু’বারই ভারতের সাধারণ নির্বাচন ছিল। গত বছরও একই কারণে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে আইপিএল আয়োজনের কথা ওঠে।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত দেশের মাটিতেই ভারত তা আয়োজন করে।

অক্টোবরের টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত হলে ভারত সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরের মধ্যে একটা সময় বের করে আইপিএল আয়োজনের কথা ভাবছে।

shakib-222267.jpg

করোনাকালে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে বেশকিছু জনসেবামূলক প্রতিষ্ঠান।

যার মধ্যে অন্যতম মাস্তুল ফাউন্ডেশন। বর্তমানে করোনাভাইরাসের ক্রান্তিকালে সরব ভূমিকা পালন করছে ফাউন্ডেশনটি।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তিদের দাফনের কাজ করে যাচ্ছে মাস্তুল ফাউন্ডেশন।

এ কাজের জন্য তারা নিজেদের অর্থ খরচ করে ভাড়ায় নেয়া অ্যাম্বুলেন্স ব্যবহার করছে।

এবার এই কাজে মাস্তুল ফাউন্ডেশনের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ফাউন্ডেশন।

সাকিবের সরাসরি তত্ত্বাবধানে মাস্তুল ফাউন্ডেশনকে দেয়া হয়েছে একটি অ্যাম্বুলেন্স। যা ব্যবহার করা হবে করোনায় মৃতদের দাফনের কাজে।

নিজের ফেসবুক পেজে মাস্তুলের কাজের বিবরণসহ অ্যাম্বুলেন্স দেয়ার খবরটি জানিয়েছেন সাকিব।

বিস্তারিত পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘জনপ্রিয় অনলাইন ফান্ডরাইজিং ক্যাম্পেইন “অকশন ফর একশন” আমন্ত্রণ জানায় মাস্তুল ফাউন্ডেশনকে কোভিড-১৯ দুর্যোগ পরিস্থিতিতে তাদের কাজ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর জন্য।

প্রতিষ্ঠাতা কাজী রিয়াজ রহমান জানান, বর্তমানে তাঁরা কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের, করোনাতে মৃত ব্যক্তিদের দাফন কার্যক্রমও সম্পন্ন করেছে এবং এটি তারা নিজেদের টাকায় অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে চালাচ্ছে, যা তাদের জন্য অনেক কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ছিল।

সে আরও জানায় তাদের একটি নিজস্ব অ্যাম্বুলেন্স হলে করোনাতে আক্রান্ত ও মৃত ব্যক্তিদের দাফন কাজে সহযোগিতা করতে পারবে।’

সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা ব্যারিস্টার চিশতি ইকবাল এটিকে সাকিব আল হাসানের নজরে এনেছিলেন, যিনি অতি দ্রুত সিদ্ধান্ত নেন সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে মাস্তুল ফাউন্ডেশনকে সহায়তা করার।

মাস্তুল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক রেজিস্টার্ড সামাজিক প্রতিষ্ঠান। মাস্তুলের রয়েছে নিজস্ব স্কুল এবং এর বাইরে ২২টি স্কুলে, ১২ জেলায় ১১০০ সুবিধাবঞ্চিত গরিব শিক্ষার্থীদের স্কুল ব্যাগ, জুতা, মুজা, বই, খাতা সহ সকল শিক্ষার উপকরণ দিয়ে সহযোগিতা করে আসছে।

এর পাশাপাশি স্বাস্থ্য, পুষ্টিকর খাবার, শিশু অধিকার, মৌলিক চাহিদা নিশ্চিত করা হচ্ছে। মাস্তুলে রয়েছে পিতা-মাতাহীন/অনাথ/এতিম বাচ্চাদের জন্য “মাস্তুল শেল্টার হোম” এখানে প্রায় ২১ জন বাচ্চা রয়েছে।

মাস্তুলের রয়েছে সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, যার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত নারীদের কর্মক্ষম করে তোলা হচ্ছে।

এর বাহিরে স্বাবলম্বী প্রজেক্টের মাধ্যমে ৭০ জনকে স্বাবলম্বী করে তোলা হয়েছে।

মাস্তুল ফাউন্ডেশন থেকে মৃত ব্যক্তিদের জানাজা, দাফন কাফন কার্যক্রম ও সৎকার করা হয়ে থাকে।

এই কোভিড-১৯ করোনা দুর্যোগে মাস্তুল থেকে করোনাতে আক্রান্ত মৃতদের দাফন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

মাস্তুলের রয়েছে অসহায় ও গরিবদের জন্য ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও স্বাস্থ্য সেবা।

সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন এবং মাস্তুল ফাউন্ডেশন একত্রে সিদ্ধান্ত নেই যে যত দ্রুত সম্ভব অ্যাম্বুলেন্স সেবা দিয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবায় নিয়োজিত হওয়া যায়। আলহামদুলিল্লাহ আমরা আপনাদের সামনে আমাদের এই সেবা নিয়ে হাজির হয়েছি।’

মাস্তুল ফাউন্ডেশনের সঙ্গে জনসেবায় হাত মেলানোর জন্য তাদের যোগাযোগের নম্বর দিয়ে সাকিব আরও লিখেছেন, ‘চাইলে দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে আপনিও মাস্তুল ফাউন্ডেশনের এই সেবায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন।

দাফনের কাপড়, পিপিই, অক্সিজেন সিলিন্ডার, মাস্ক, গ্লাভস দিয়ে এগিয়ে এসে আপনিও আমাদের সাথে দেশের এই দুর্যোগে সমাজের পাশে দাড়াতে পারেন।

অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও মাস্তুল ফাউন্ডেশনকে সহযোগিতার জন্য এই নম্বরে যোগাযোগ করুন: 01730482279, 01715097762।