ক্রিকেট Archives - Page 2 of 200 - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

sourav3.jpg

করোনা সংকটে বাড়তি অর্থ-তো দূরের কথা নিজেদের প্রাপ্য অর্থই বুঝে পাননি ভারতের প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটাররা।

এমন খবরই প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বিসিসিআই প্রধানের দায়িত্ব নিয়ে, স্থানীয় ক্রিকেটের বেতন কাঠামো উন্নত করার নিশ্চয়তা দিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী।

তবে টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রঞ্জি ও মুশতাক ট্রফি খেলার প্রাপ্য অর্থই এখনো বুঝে পাননি অনেক ক্রিকেটার।

ফলে করোনাকালে মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।

রঞ্জি ট্রফিতে দিন প্রতি ৩৫ হাজার রুপি পান একজন ক্রিকেটার। মুশতাক আলী ট্রফিতে যে পরিমাণ সাড়ে ১৭ হাজার রুপি।

রঞ্জি ট্রফির পুরো মৌসুম খেলে এক একজনের আয় হয় প্রায় ১৩ লাখ রুপি।

কিন্তু এবার অনেক ক্রিকেটারই সে অর্থ বুঝে পাননি। এ ছাড়া প্রতিশ্রুতির পরেও দেয়া হয়নি বিসিসিআইয়ের লভ্যাংশের ভাগও।

যদিও এর জন্য কারিগরি ত্রুটিকে দায়ী করেছেন বিসিসিআই কোষাধ্যক্ষ অরুন ধামাল।

pakistan_team_afp.gif

তিন ম্যাচের টেস্ট ও সমান সংখ্যক টি-টোয়েন্টি খেলতে ইংল্যান্ড পৌঁছেছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল।

২০ ক্রিকেটারসহ মোট ৩১ সদস্যের পাকিস্তান কন্টিনজেন্ট ভাড়া করা বিমানে রবিবার লাহোর থেকে ম্যানচেস্টারে পৌঁছে।

পিসিবির ব্যবস্থাপনায় প্রথমবার করোনা টেস্টে পজিটিভ হওয়া ১০ ক্রিকেটারকে রেখেই ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টারের উদ্দেশ্যে রবিবার ভোরে যাত্রা করেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট দল।

১০ জনের মধ্যে ৬ জনের অবশ্য দ্বিতীয় দফার পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ এসেছে।

এরা হলেন ফখর জামান, মোহাম্মদ হাসনাইন, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহাম্মদ রিজওয়ান, শাদাব খান ও ওয়াহাব রিয়াজ।

আরো একবার নেগেটিভ হলেই কেবল ইংল্যান্ডের বিমানে চড়তে পারবে তারা।

দ্বিতীয় দফাতেও নেগেটিভ হয়েছেন- হায়দার আলি, হারিস রউফ, কাসিফ ভাট্টি ও ইমরান খান।

তারা দুইবার নেগেটিভ আসার পর ইংল্যান্ডের টিকিট পাবেন।

ইংল্যান্ডে আজহার আলি, বাবর আজমদের আরেকবার করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনেও থাকতে হবে।

এ সময় অনুশীলনও চলবে। কোয়ারেন্টাইন পর্ব শেষে ১৩ জুলাই পাকিস্তান দল যাবে ডার্বিশায়ারে।

সেখানেই হবে তাদের পুরো দমে অনুশীলন।

যে ২০ ক্রিকেটার নিয়ে ইংল্যান্ডে পাকিস্তান দল:

আজহার আলি (টেস্ট অধিনায়ক), বাবর আজম (টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক), আবিদ আলি, আসাদ শফিক, ফাহিম আশরাফ, ফাওয়াদ আলম, ইফতিখার আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, ইনাম-উল-হক, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ আব্বাস, মুসা খান, নাসিম শাহ, রোহেল নাজির, সরফরাজ আহমেদ, শাহিন শাহ আফ্রিদি, শান মাসুদ, সোহেল খান, উসমান শিনওয়ারি এবং ইয়াসির শাহ।

Irfan-Dhoni_571_855.jpg

উইকেটকিপিং পজিশন থেকে দৌড়ে বোলিং প্রান্তে আসছেন। বোলারদের পরামর্শ দিচ্ছেন।

ভারতীয় দলের অধিনায়ক থাকার সময় মহেন্দ্র সিং ধোনিকে এমন দৃশ্যে নিয়মিতই দেখা যেত।

ইরফান পাঠান বলছেন, এর কারণ ২০০৭ সালে অধিনায়কত্বের শুরুর দিকে বোলারদের উপর নিজের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চাইতেন ধোনি।

তবে ২০১৩ সালের দিকে বোলারদের ওপর বিশ্বাস তৈরি হয়েছিল ধোনির। আর এ কারণে তিনি অনেক শান্ত অধিনায়ক হতে পেরেছিলেন।

এ বছরের শুরুতে সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় বলা ইরফান পাঠান ধোনির নেতৃত্বে খেলেছেন দীর্ঘসময়।

ধোনির অধিনায়কত্বে ভারতের ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ী দলের সদস্যও ছিলেন এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

স্টার স্পোর্টসের সঙ্গে আলাপকালে পাঠান বলেন, ‘২০০৭ বিশ্বকাপের সময় উইকেটকিপার ধোনি বোলারদের দিকে ছুটে আসত।

ও তখন বোলারদের নিয়ন্ত্রণ করতে চাইত। ও তখন ম্যাচের সময় অনেক বেশি উত্তেজিত থাকত।’

‘পরে আর ও এ রকম ছিল না। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের সময় ধোনি ছিল ঠান্ডা মানসিকতার অধিনায়ক। তখন ও বোলারদের স্বাধীনতা দিত।

আর তাদের নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করত না। সে খুব শান্ত এবং নিজেকে নিয়ন্ত্রণে রাখত।’

ধোনি টিম মিটিং কখনো লম্বা হতো বলেও মন্তব্য করেন পাঠান। ধোনির এই দর্শন অধিনায়কত্বের শুরু ও পরের দিকেও বজায় ছিল।

‘টিম মিটিং সব সময় সংক্ষিপ্ত হতো। ২০০৭ এবং ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, মাত্র ৫ মিনিটের হতো টিম মিটিংগুলো।’- বলেন পাঠান।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ২০০৭ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ধোনি।

২০০৮ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত টেস্টে নেতৃত্ব দেন দেশকে। ধোনির নেতৃত্বে আইসিসির সব ধরনের আসরেই ট্রফির স্বাদ পেয়েছে ভারত।

২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০১০ এবং ২০১৬ সালে এশিয়া কাপ, ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি রয়েছে এই তালিকায়।

২০০৭ ও ২০১৩ এই সময়ে অধিনায়ক ধোনির বিবর্তন নিয়ে পাঠান আরো বলেন, ‘সে পরে স্লো বোলার ও স্পিন বোলারদের বিশ্বাস করার ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছিল।

যখন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আসল, এটা পরিষ্কার ছিল যে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ম্যাচ জেতার জন্য স্পিনারদের ওপর আস্থা রাখত।’

sourav-ganguly-2.jpg

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বোর্ড- আইসিসি’র সভাপতি হিসেবে শশাঙ্ক মনোহরের মেয়াদ শেষ।

তার জায়গায় সৌরভ গাঙ্গুলিকে দেখা যেতে যাবে কি-না এ ব্যাপারে আগামী সপ্তাহে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে বলে জানা গেছে।

পরবর্তী আইসিসি সভাপতি নিয়ে বৃহস্পতিবার আলোচনায় বসেছিল আইসিসি’র বোর্ডের সদস্যরা।

সেখানেই চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বোর্ড সদস্য বলেন, “চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়ে ভালো আলোচনা হয়েছে।

পরের সপ্তাহেই এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে আমরা আশাবাদী।”

মনোনয়নের কোনো দিনক্ষণ ঠিক করা হয়নি কেন, এমন এক প্রশ্নের জবাবে ওই সদস্য বলেন,

“এখনো কিছু বিষয়ে স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে। আশা করি, সামনের সপ্তাহেই এই বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছানো সম্ভব হবে।”

নির্বাচন নাকি পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে কাউকে সভাপতি হিসেবে বেছে নেওয়া হবে কি-না এ বিষয়ে

এখনো সবাই একমত হতে পারছে না বলে জানিয়েছেন ওই সূত্র।

ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান কলিন গ্রেভস ও বিসিসিআই সভাপতি

সৌরভ দুজনেই আইসিসির চেয়ারম্যান হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন।

তবে দুজনের কেউই নির্বাচন চাইছেন না এই পদের জন্য। সৌরভের মনোনয়ন এখনো চূড়ান্ত নয়।

তবে দুজনেই চাইছেন শীর্ষ পদের বসার আগে যেন সর্বসম্মতিক্রমে বাছাই প্রার্থী হন।

shakib55.jpg

ভারতীয় জুয়াড়ি দিপক আগারওয়ালের স্পট ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব তাৎক্ষনিকভাবে আইসিসি’র এন্টি করাপশন

ইউনিটের কাউকে জানাননি, তার বড় মাশুল দিয়েছেন বিশ্বের নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

গত বছরের ২৯ অক্টোবর বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন।

যার মধ্যে এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা আইসিসি’র এন্টি করাপশন ইউনিটের জেরার মুখে ২ দফা পড়েছেন সাকিব আল হাসান।

স্ত্রী-সন্তানদের সাথে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন সাকিব।

সেখানে থেকে আজ ক্রিকবাজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেছেন, এই নিষেধাজ্ঞাকে শিক্ষা হিসেবে নিয়েছেন তিনি।

আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগের কর্মকর্তাদের সব বলে দেওয়াতেই বড় শাস্তি এড়াতে পেরেছেন তিনি।

তা না হলে ৫ থেকে ১০ বছরের জন্য শাস্তি পেতে পারতেন বিশের অন্যতম এই অলরাউন্ডার।

এ ব্যাপারে সাকিব বলেন, ‘আমি বিষয়টি একটু হালকাভাবে নিয়েছিলাম। এখানে আমি সবকিছু আলোচনা করতে চাই না।

তবে আমি যখন দুর্নীতি দমন বিভাগের কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করলাম তাদের সব বললাম।

তারা সবকিছু জানত, আমি সব প্রমাণ দিলাম, ভেতরে-বাইরের সবকিছুর খুঁটিনাটি তারা জানত।

সত্যি কথা বলতে, সেই কারণেই মাত্র এক বছরের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। তা না হলে ৫-১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারতাম।’

তবে এটা যে পুরোটাই নিজের দোষ তা মানতেও নারাজ সাকিব। প্রতিদিন অনেক মানুষের সাথে কথা হয়। সবকিছু তো আর মনে রাখা সম্ভব না।

ঠিক তেমনি জুয়াড়ির সাথে আলাপের বিষয়টিও ভুলে গিয়েছিলেন বলে দাবি সাকিবের।

সাকিব বলেন, ‘আমি মনে করি, খুবই বোকার মতো ভুল করেছি।

আমার যে অভিজ্ঞতা, যে পরিমাণ আন্তর্জাতিক ম্যাচ আমি খেলেছি এবং আইসিসির দুর্নীতি দমন বিষয়ে যতগুলো ক্লাস করেছি,

আমার ওই সিদ্ধান্ত (আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগ না জানানো) নেওয়া উচিত হয়নি।

সেটা নিয়ে আমি অনুতপ্ত।

আমি মনে করি, কারোরই ওই ধরনের মেসেজ বা ফোন-কল হালকাভাবে নেওয়া উচিত না কিংবা এড়িয়ে যাওয়া উচিত না।’

westindies2.jpg

ইংল্যান্ড সফরে গিয়ে ১৪ দিনের আইসোলেশন পর্ব শেষ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

করোনাভাইরাস আশঙ্কা কাটিয়ে ৮ জুলাই মাঠে নামবে দু’দল।

এদিকে টেস্ট জার্সিতে নিজেদের নামের বদলে করোনা যোদ্ধাদের নাম নিয়ে খেলতে নামবেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা।

করোনার সঙ্গে লড়াই করা মানুষদের সম্মান জানাতেই এই উদ্যোগ বলে জানায় তারা।

লম্বা সময় পর সরব হচ্ছে ক্রীড়াঙ্গন। ফুটবলের পর ক্রিকেটের ২২ গজেও হাওয়া লেগেছে।

একের পর এক স্থগিত হওয়া সিরিজগুলো আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছে।

করোনা ভয়কে পাশ কাটিয়ে এরই মধ্যে ইংল্যান্ডের মাটিতে সিরিজ খেলতে গিয়েছে ক্যারিবিয়ানরা।

শর্ত অনুযায়ী মানতে হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি। ইংল্যান্ড পৌঁছেই ১৪ দিনের আইসোলেশন পর্বও শেষ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল।

গেল ৯ জুন ইংল্যান্ডে পা রেখে ওল্ড ট্রাফোর্ডে হোটেলবন্দী হয়ে পড়ে ক্যারিবীয় ক্রিকেটাররা।

নিয়মানুযায়ী ১৪ দিনের সঙ্গনিরোধ কাটিয়ে বের হয়েছেন তারা।

১ জুলাই স্বাগতিক ইংল্যান্ডের সঙ্গে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে হোল্ডার, কেমার রোচদের।

এদিকে, ৮ জুলাই থেকে শুরু হতে যাওয়া দু’দলের টেস্ট সিরিজের নাম দেয়া হয়েছে ‘রাইজ দ্য ব্যাট’ সিরিজ।

কোভিড নাইন্টিন মোকাবিলায় সাহসী ভূমিকা রাখা মানুষদের সম্মানে এই নামকরণ বলে জানায় দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

টেস্ট সিরিজের জার্সিতে নিজেদের নাম ছাড়া খেলতে নামবেন রুট-স্টোকসরা। নিজের নামের বদলে জার্সিতে থাকবে করোনা যোদ্ধাদের নাম।

ডাক্তার, নার্স, শিক্ষক, সমাজকর্মী ও ভলান্টিয়ারসহ করোনা মোকাবিলায় যারা অগ্রণী ভূমিকা

রাখছেন তাদের উৎসর্গ করেই এই সিরিজ অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন টেস্টে খেলার জন্য পুরোপুরি ফিট বলে জানিয়েছেন ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চার।

কনুইয়ের ইনজুরি কাটিয়ে ক্যারিবীয়ানদের বিপক্ষে খেলতে মুখিয়ে আছেন।

mashrafi-mortaza.jpg

গত শনিবার, ২০ জুন মাশরাফি মোর্ত্তজা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন।

আক্রান্তের খবরের পর থেকে তিনি বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

গত তিন দিনে কিছুটা উন্নতির পথে তার শারীরিক অবস্থা।

তবে এই ভাইরাস শুধু মাশরাফিতেই থেমে নেই, ছড়িয়েছে তার পরিবারের সদস্যদের শরীরেও।

আজ সন্ধ্যায় তার ছোট ভাই মোরসালিন বিন মোর্ত্তজা জানান, তিনিও করোনা পজিটিভ হয়েছেন।

তিনিও বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। হালকা জ্বর ছাড়া অন্য কোনো উপসর্গ নেই বলেও জানান তিনি।

এদিকে মাশরাফির করোনা পজিটিভ হবার পর দুই সন্তান সাহেল ও হুমায়রাকে নড়াইলে মামা বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় গত পরশু।

গতকাল সোমবার তাদের করোনা টেস্ট করালে সবারই নেগেটিভ  ফলাফল আসে। সঙ্গে কোভিড নেগেটিভ আসে তার মা ও বাবার।

এদিকে গতকাল সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে যান মাশরাফি।

এনিয়ে মাশরাফি জানান, তিনি আগের থেকে সুস্থ বোধ করছেন। নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন চিকিৎসকদের সঙ্গে।

BD-NZ.jpg

আগামী আগস্ট-সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে এসে দুই ম্যাচের টেস্টের সিরিজ খেলার কথা ছিল নিউজিল্যান্ডের।

করোনাভাইরাসের প্রভাবে সিরিজটি স্থগিত করা হয়েছে।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের আওতায় সিরিজটি হওয়ার কথা ছিল।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড দুই দেশ সিরিজটি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সময় বের করে সিরিজটি আয়োজন করা হবে।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী (সিইও) নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘করোনাভাইরাসের বর্তমান

পরিস্থিতি অনুযায়ী চলতি বছরের আগস্টে এই সিরিজটি আয়োজন সত্যিই চ্যালেঞ্জিংই।

ক্রিকেটার, কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সবার সুরক্ষার বিবেচনায় আমরা কোনওরকম ঝুঁকি নিতে আগ্রহী নই।’

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের এই কর্মকর্তা জানান, পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়েই নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট

ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সিরিজটি পেছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

করোনার দাপট শুরু হওয়ার পরপরই বাংলাদেশের পাকিস্তান ও আয়ারল্যান্ড সফর স্থগিত হয়ে যায়।

অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল। জুনে শুরু হতে চলা দুই টেস্টের এই সিরিজটিও স্থগিত করা হয়েছে।

অন্যদিকে জুলাইতে টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত আসেনি।

Mashrafe-2.jpg

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা জানিয়েছেন,

তিনি শারীরিকভাবে এখন পর্যন্ত ‍সুস্থ আছেন এবং বাসা থেকেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করছেন।

সোমবার বিকেলে ফেইসবুক পোস্টে দেশের ক্রিকেট সাবেক অধিনায়ক ও অন্যতম

সেরা তারকা মাশরাফী নিজের বর্তমান শারীরিক অবস্থার কথা জানিয়ে সবাইকে গুজবে কান না দেওয়ার অনুরোধ করেন।

বিভিন্ন মাধ্যমে গুজব ছড়িয়েছিল, মাশরাফী হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে গেলেও ভর্তি হতে পারেননি।

অসত্য এই তথ্যে বিভ্রান্তি যাতে না ছড়ায়, মাশরাফী এ জন্য ফেইসবুক পোস্টে সব পরিষ্কার করেছেন।

নিজের ভেরিফায়েড পেজে করা পোস্টে মাশরাফী লিখেছেন, ‘আমি এখন পর্যন্ত শারীরিক ভাবে সুস্থ আছি।

বাসায় থেকেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করছি।

কিছু পরীক্ষা করার জন্য আমার হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজন হতে পারে, সেটা স্বাভাবিক।

হাসপাতালে ভর্তি কিংবা রুম না পাবার তথ্য সম্পূর্ণভাবে ভিত্তিহীন।

কোনো কারণে আপনারা বিভ্রান্ত হবেন না, কোনো ধরনের নিউজ-এ আপনারা বিচলিত হবেন না।’

করোনা প্রাদুর্ভাবের এই সময়ে সংকট মোকাবিলায় সবাইকে এক থাকার আহ্বানও জানান

নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী, ‘সবাই আমার জন্যে দোয়া করবেন।

সবাইকে একত্রে থেকে এই যুদ্ধে আমাদের জয় লাভ করতে হবে। আল্লাহ সবার সহায় হোন।’

আমি এখন পর্যন্ত শারীরিক ভাবে সুস্থ আছি। বাসায় থেকেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করছি। কিছু পরীক্ষা করার জন্য আমার…

Geplaatst door Mashrafe Bin Mortaza op Maandag 22 juni 2020

mash77.jpg

নোভেল করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার

শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এ বি এম আব্দুল্লাহ এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, সাবেক অধিনায়ক মাশরাফীর আপাতত কোন সমস্যা নেই।

এদিনে স্বাস্থ্যের অবস্থা ভালো আছে বলে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজেও জানিয়েছেন ম্যাশ।

তবে সামান্য শ্বাসকষ্ট থাকায়, রেগুলার চেকআপের জন্য তাকে নেয়া হতে পারে হাসপাতালে।

সেখানে একটি এক্সরে করার কথাও রয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়কের।

করোনায় আক্রান্ত মাশরাফি! এ নিয়ে একটা অজানা আতঙ্ক গ্রাস করে প্রতিনিয়ত।

ভয়ে গা শিউরে উঠে অপয়া কোন কিছুর শঙ্কায়! মনের অজান্তেই সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা চলে যায় লক্ষ্য কোটি ভক্তের।

দ্রুতই স্বাভাবিক জীবনে ফিরুক টাইগার ক্রিকেটের বরপুত্র।

হাটুর সাতটি সার্জারিও ম্যাশকে দমাতে পারেনি ২২ গজ থেকে। বজ্র কঠিন মনোবলে সকল প্রতিবন্ধকতা ঠেলে তিনি ফিরেছেন ভোরের সূর্য হয়ে।

তবে আলোক উজ্জল ঝলমলে আকাশে হঠাৎই মেঘের আনাগোনা। ভালো নেই প্রিয় কাপ্তান, এমন গুঞ্জন ঢেকে দিতে চায় সোনালী রোদ্দুর।

মাশরাফির দমযন্ত্র কেমন কাজ করছে, মুলত এটা জানার জন্যই হাসপাতাল ভাবনা।

চিকিৎসকের পরামর্শে সেটা নিতান্তই একটা রেগুলার চেকআপ। খুব বেশি হলে হতে পারে একটি এক্সরে।

এমনটাই খবর ঘনিষ্ট সুত্রের। আর এখানেই মেলে কানাঘুসার ডালপালা।

কোভিড নামের ক্ষুদ্র অনুজীব ম্যাশের দেহে বাসা বেধে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি।

বরং শুরুর দিনের চেয়ে এখন আরো ভালো অনুভব করছেন তিনি।

১০১ থাকা জ্বর নেমে গেছে ৯৯ ডিগ্রিতে। তবে সাবধানতা তার পুরোনো শত্রু শ্বাসকষ্ট নিয়ে।