ফুটবল Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

messi-metre.jpg

প্রাণঘাতী মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বে ইতিমধ্যে প্রায় দুই কোটি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

মারা গেছেন ৭ লাখেরও বেশি। খুব স্বাভাবিকভাবে করোনা থেকে মুক্তি পেতে তাই মানুষ খুঁজছেন নানা উপায়।

ফুটবল তারকা লিওনেল মেসিও খুঁজে নিয়েছেন তেমন এক উপায়। তিনি করোনা থেকে রক্ষা পেতে কিনেছেন বিশেষ এক ম্যাট্রেস।

স্পেনের একটি কোম্পানি, টেক মুন এই বিশেষ ম্যাট্রেসটি তৈরি করেছে।

মেসি নিজে ব্যবহারের পাশাপাশি আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের সতীর্থ এবং বন্ধু সার্জিও অ্যাগুয়েরোকেও ম্যাট্রেসটি ব্যবহার করতে পরামর্শ দিয়েছেন।

তাদের সঙ্গে আরও কয়েকজন ফুটবলারও এই ম্যাট্রেসটি নেওয়ার বিষয়ে আগ্রহ জানিয়েছেন।

আর এমন তথ্য প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ গণমাধ্যমগুলো।

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘এএস’ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, টেক মুন কোম্পানির বিশেষ এই ম্যাট্রেসটি কিনতে মেসির খরচ পড়েছে মাত্র ১২০০ ইউএস ডলার।

যা বাংলাদেশি অর্থমূল্যে এক লাখ টাকার সমান। এই ম্যাট্রেসটির বিশেষত্ব হচ্ছে, এর মধ্যে এমন একধরনের জীবাণুনাশক আছে, যা প্রতি চার ঘণ্টা পরপর ম্যাট্রেসটিকে প্রায় শতভাগ জীবাণুমুক্ত করতে সক্ষম হয়।

কেবল ভাইরাস প্রতিরোধে নয়, ঘুমাতেও সাহায্য করে এই ম্যাট্রেস।

বিশেষ একটি পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে এটি তৈরিতে, যাকে কোম্পানিটি নাম দিয়েছে ‘স্লিপ সিস্টেম’।

bd_football_team.jpg

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ের প্রাথমিক ক্যাম্পে থাকা ফুটবলারদের মধ্যে ৪ জনের করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে।

তারা হলেন- বিশ্বনাথ ঘোষ, এম এস বাবলু, সুমন রেজা ও নাজমুল ইসলাম।

বুধবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) ব্যবস্থাপনায় ১১ ফুটবলারের সঙ্গে কোচিং স্টাফ ও সাপোর্ট স্টাফ মিলে মোট ২০ জনের করোনা পরীক্ষা করানো হয়। যাদের মধ্যে ৩ জনের ফল পজিটিভ আসে। তারা সবাই ফুটবলার।

পুলিশ এফসির নাজমুল ও বাবলু এবং উত্তর বারিধারার সুমন রেজা- এই তিনজনই জাতীয় দলের ক্যাম্পে প্রথমবার ডাক পেয়েছিলেন।

বাফুফের ব্যবস্থাপনা করানো পরীক্ষায় তাদের ফল পজিটিভ আসে।

আর বসুন্ধরা কিংসের বিশ্বনাথ দুদিন আগে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় করোনা পরীক্ষা করিয়েছিলেন।

যার ফল পজিটিভ আসায় এদিন তিনি বাফুফেতে রিপোর্ট করেননি।

প্রাথমিক ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ৩৬ ফুটবলারদের মধ্যে ৩১ জনের তিন ধাপে বুধবার থেকে ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার কথা।

প্রথম দিন ১২ ফুটবলারের যোগ দেওয়ার কথা থাকলেও বিশ্বনাথ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় যোগ দেননি। বাকি ১১জন বাফুফেতে রিপোর্ট করেন।

বৃহস্পতিবার ১২ জন ও শুক্রবার আরো ৭ জন ফুটবলার বাফুফেতে রিপোর্ট করবেন। তাদেরও করোনা পরীক্ষা করানো হবে।

ফলাফল নেগেটিভ এলেই কেবল গাজীপুরের সারাহ রিসোর্টের ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার অনুমতি পাবেন তারা।

নিয়ম অনুযায়ী নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় একবার করোনা পরীক্ষা করিয়ে বাফুফেতে রিপোর্ট করতে হবে ফুটবলারদের।

এরপর বাফুফের ব্যবস্থাপনায় হবে আরেকবার পরীক্ষা।

প্রথম দিন মোট ৪ ফুটবলার করোনা পজিটিভ হওয়ায় সংখ্যাটা আরো বাড়ে কিনা সেই শঙ্কা থাকছেই।

কারণ অর্ধেকের বেশি ফুটবলারেরই এখনো পরীক্ষা করা বাকি।

bangladesh-football-20190822220829.jpg

করোনা বিরতি পর অক্টোবরে ফের বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ে নিজেদের মিশন শুরু করবে বাংলাদেশ।

বাকি থাকা ৪ ম্যাচের জন্য প্রাথমিক স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়েছিল আগেই। বুধবার থেকে তিন ধাপে যারা ক্যাম্পে যোগ দেবেন।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) তিন ধাপে খেলোয়াড়দের ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার কথা জানায়।

করোনার কারণে এই প্রথম ফুটবলারদের ক্যাম্প হবে কোনো রিসোর্টে। গাজীপুরের সারাহ রিসোর্টে হবে এই আইসোলেশন ক্যাম্প।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাকি চার ম্যাচের জন্য ৩৬ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছিল বাফুফে।

এদিন সংস্থাটি জানিয়েছে, ৫ ও ৬ আগস্ট ১২ জন করে খেলোয়াড় ক্যাম্পে যোগ দেবেন। ৭ আগস্ট যোগ দেবেন ৭ জন।

বাকি ৫ জনের মধ্যে দুই প্রবাসী ফুটবলার জামাল ভূঁইয়া ও তারিক রায়হান কাজী দেশের বাইরে থাকায় যোগ দেবেন পরে।

অন্যদিকে মাশুক মিয়া জনি, আতিকুর রহমান ফাহাদ ও মতিন মিয়া, এই তিনজনকে ছাড়তে রাজি হয়নি তাদের ক্লাব বসুন্ধরা কিংস।

চোট থেকে সেরে ওঠা এই তিন ফুটবলারকে আরো কিছুদিন নিজেদের পর্যবেক্ষণে রাখতে চায় তারা।

যা মেনে নিয়েছেন জাতীয় দলের কোচ জেমি ডেও।

এদিকে জেমি ডে ইংল্যান্ডে অবস্থান করছেন মার্চ থেকেই। তাকে শুরুতেই পাচ্ছে না ফুটবলাররা।

তিনি আসার আগ পর্যন্ত স্থানীয় কোচরাই কাজ চালিয়ে নেবেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ।

ফুটবলাররা সবাই নির্ধারিত দিনে প্রথমে বাফুফেতে রিপোর্ট করবে। সেখান থেকে তাদের করোনা পরীক্ষা করানোর জন্য নিয়ে যাওয়া হবে।

সন্ধ্যার মধ্যে পাওয়া যাবে রিপোর্ট। ফলাফল নেগেটিভ হলে তারা যোগ দেবেন গাজীপুরের সারাহ রিপোর্টে।

করোনা বিরতির পর বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে।

৮ অক্টোবর সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি।

casillas-20181117093841.jpg

ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দিলেন স্পেনের বিশ্বকাপজয়ী গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াস।

এক বছর আগে হার্ট অ্যাকাট হওয়ার পর থেকেই মাঠের বাইরে ছিলেন রিয়াল মাদ্রিদ ও স্পেনের ইতিহাসের অন্যতম সফল এই তারকা।

সবশেষ তিনি পোর্তোর জার্সিতে খেলছিলেন। এ মৌসুমে আর মাঠে নামা হয়নি তার। তবে দলটির লিগ জয়ের পর উদ্‌যাপনে অংশ নিয়েছেন।

৩৯ বছর বয়সী ক্যাসিয়াস মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া বিবৃতিতে গ্লাভসজোড়া তুলে রাখার ঘোষণা দেন।

রিয়াল মাদ্রিদে ১৬ বছরের ক্যারিয়ারে ৭২৫ ম্যাচ খেলেছেন ক্যাসিয়াস। এই সময়ে তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, ৫টি লা লিগা শিরোপা জিতেছেন এই কিংবদন্তি।

২০১০ সালে তার নেতৃত্বেই বিশ্বকাপ জয় করে স্পেন। এছাড়া দেশেটির হয়ে ২০০৮ ও ২০১২ সালে টানা দুটি ইউরো জিতেছেন তিনি।

২০১৫ সালে পোর্তোতে যোগ দিয়েছিলেন ক্যাসিয়াস। তবে ২০১৯ সালের এপ্রিলে হার্ট অ্যাকাটের পর আর মাঠে নামেননি। গত বছর জুলাই থেকে পুনর্বাসনের সময়টায় ক্লাবের কোচিং স্টাফের অংশ ছিলেন ক্যাসিয়াস।

পর্তুগালের ক্লাবটির হয়ে ১৫৬ ম্যাচ খেলেছেন ক্যাসিয়াস। দুটি লিগসহ জিতেছেন একটি পর্তুগিজ কাপ।

নিজ দেশের হয়ে ২০০০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ১৬৭ ম্যাচ খেলেছেন। দেশটির হয়ে তার চেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড কেবল সার্জিও রামোসের।

অবসরের ঘোষণা দিয়ে ক্যাসিয়াস এদিন লিখেছেন, ‘আপনার চলার পথে কোথায় গিয়ে শেষ করলেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আপনার পেরিয়ে আসা পথ এবং সেখানে সঙ্গী কারা ছিল সেটা। আমি কোনো দ্বিধা ছাড়াই বলতে পারি আমি ঠিক পথটাই পেরিয়ে এসেছি এবং স্বপ্নের গন্তব্যে শেষ করেছি।’

ক্যাসিয়াসের বিদায় বেলায় বিবৃতি দিয়েছে তার বেড়ে ওঠার ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। স্প্যানিশ ক্লাবটিতে মাত্র ৯ বছর বয়সে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। ক্লাবটি নিজেদের ১১৮ বছরের ইতিহাসে ক্যাসিয়াসকে সেরা গোলরক্ষক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি পদে লড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন ক্যাসিয়াস। পরে অবশ্য করোনাভাইরাসের কারণে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তিনি।

red-card3.jpg

করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ফের ফুটবল মাঠে বল গড়াতে শুরু করেছে। তবে অবশ্যই রয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ।

তবে এসবের পাশাপাশিই এবার নতুন নিয়ম আনল ইংল্যান্ড ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বা এফএ।

এবার থেকে ম্যাচ চলাকালীন বিপক্ষ খেলোয়াড় বা ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের সামনে ইচ্ছাকৃতভাবে কাশলেই বিপদ।

সেক্ষেত্রে ওই খেলোয়াড়কে সরাসরি লাল কার্ড দেখাতে পারেন রেফারি। অর্থাৎ ম্যাচে আর অংশ নিতে পারবেন না ওই খেলোয়াড়।

তবে অনিচ্ছাকৃতভাবে কেউ যদি কেশে ফেলেন, সেক্ষেত্রে অবশ্য কোনোপ্রকার শাস্তি হবে না।

সম্প্রতি নয়া নির্দেশিকা জারি করে এমনটাই জানানো হয়েছে এফএ’র তরফে।

তাতে স্পষ্ট বলা হয়েছে, বিপক্ষের কোনো খেলোয়াড় বা ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা কোনো কর্মকর্তার সামনে কোনো খেলোয়াড় ইচ্ছাকৃতভাবে কাশলে, রেফারি মনে করলে তখনই ওই খেলোয়াড়কে লাল কার্ড দেখাতে পারেন।

মাঠের মধ্যে অশালীন আচরণের অন্তর্গত ধরা হবে এই অপরাধকে।

তবে এর পাশাপাশি বলা হয়েছে, রেফারি যদি মনে করেন দোষ তেমন গুরুতর নয়, সেক্ষেত্রে কেবলমাত্র হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করা হবে অভিযুক্ত খেলোয়াড়কে।

তবে সেখানে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, কোনো খেলোয়াড় অনিচ্ছাকৃত এই ভুল করে থাকলে রেফারি তাকে যেন শাস্তি না দেন।

এছাড়াও খেলোয়াড়রা যাতে মাঠের যত্রতত্র থুতু না ফেলেন, সে ব্যাপারেও সতর্ক থাকতে হবে রেফারিকেই।

করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর অবশেষে চালু হয়েছে বিভিন্ন দেশের ফুটবল লিগগুলো।

ইতিমধ্যে লা লিগা, সিরি আ, প্রিমিয়ার লিগের ফয়সালাও হয়ে গিয়েছে। তবে কোনো টুর্নামেন্টেই মাঠে দর্শকদের প্রবেশাধিকার দেওয়া হয়নি।

পাশাপাশি দলগুলো এবং তাদের খেলোয়াড়দের জন্য চালু করা হয়েছে একাধিক স্বাস্থ্যবিধি।

আর তারই একটি হল যত্রতত্র না কেশে ওঠা। কারণ কাশির মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের সুযোগ সবসময় বেশি থাকে।

messii-20190319152008.jpg

সিরি আ’য় নিজেদের শেষ ম্যাচে লাজিওর বিপক্ষে ৩-১ গোলে জয় পেয়েছে নাপোলি।

আগামী শনিবার চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলর দ্বিতীয় লেগে দলটির প্রতিপক্ষ বার্সেলোনা।

এই ম্যাচে নামার আগে নেপোলির কোচ জানিয়েছেন, বার্সা অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে স্বপ্নেই রুখা সম্ভব।

লাজিওর বিপক্ষে ফাবিয়ান লুইজ, লরেঞ্জো ইনসিগনে ও মাতেও পলিটানো গোল করে জয় এনে দেন দলকে।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে মুখোমুখি হয়েছিলেন কোচ জেন্নারো গাট্টুসো। সেখানে ইতালি ও এসি মিলানের সাবেক এই মিডফিল্ডারের কাছে জানতে চাওয়া হয় ছয়বারের ব্যালন ডি’ অর জয়ী মেসিকে নিয়ে তার পরিকল্পনা।

জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি মেসিকে শুধু স্বপ্নেই আটকাতে পারবো।’

মজার ছলে জেন্নারো গাট্টুসো আরও বলেন, ‘অথবা আমার ছেলের প্লে স্টেশন গেমে নেপোলি বনাম বার্সেলোনার ম্যাচেও তা সম্ভব।’

গেল ফেব্রুয়ারিতে প্রথম লেগে ঘরের মাঠ সান পাউলো স্টেডিয়ামে কাতালানদের বিরুদ্ধে ১-১ গোলে ড্র করে নেপলসের দলটি। ইতালিয়ান লিগে নিজেদের শেষ ম্যাচে বড় জয় কি বার্সার বিপক্ষে কাজে দিবে?

‘লাজিও ও বার্সেলোনা দুই দলই আলাদা। কৌশল ও শারীরিক দক্ষতার মিশ্রণ লাজিও। বার্সেলোনা পুরোটাই মানসম্পন্ন ফুটবল খেলে থাকে।’

যোগ করেন গাট্টুসো।

নেপোলির কোচ বলেন, ‘আমাদের খেলতে হবে দল হিসেবে। আত্মবিশ্বাস নিয়ে আমাদের মাঠে নামতে হবে।

আমরা জানি এখানে সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে। আমরা নিশ্চিন্তে নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে চাই।’

neymar-20190823123258.jpg

জোর ধারণা ছিল, আসছে দল-বদলে পিএসজি থেকে নেইমারকে ফেরাবেই বার্সেলোনা। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারী বদলে দিয়েছে সব।

কাতালান ক্লাবটির সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ জানালেন, করোনার কারণে চলমান অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে তারকা এই ফুটবলারের সঙ্গে চুক্তি করা ‘অসম্ভব’।

২০১৭ সালের বাইআউট ক্লজের ২২ কোটি ২০ লাখ ইউরো দিয়ে বার্সেলোনা থেকে নেইমারকে নিয়ে যায় পিএসজি।

কিন্তু শুরু থেকেই গুঞ্জন, প্যারিসের ক্লাবটিতে সুখে নেই তারকা এই ফরোয়ার্ড।

প্রকাশ্যেই অনেকবার আবার পুরোনো ঠিকানা কাতালান ক্লাবে ফিরে যাওয়ার কথা বলেছেন ২৮ বছর বয়সী এই ফুটবলার।

বার্সেলোনাও নেইমারকে ফিরিয়ে আনতে আগ্রহী। গত মৌসুমের আগে দল-বদলে নেইমারকে পিএসজি থেকে ফিরিয়ে আনার জন্য একাধিকবার চেষ্টা করেও দাম নিয়ে বনিবনা না হওয়ায় আলোর মুখ দেখেনি এই দল-বদল।

ধারণা করা হচ্ছিল এবারের দল-বদলে হয়তো ব্রাজিলিয়ান এই তারকাকে নিয়েই আসবে বার্সেলোনা।

কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে চলমান অর্থনৈতিক সংকটে তা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন বার্সেলোনা সভাপতি বার্তোমেউ।

স্প্যানিশ ক্রীড়া বিষয়ক দৈনিক স্পোর্তকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ ব্যাপারে তিনি বলেন, “ইউরোপের সবগুলো বড় ক্লাবই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ধাক্কা এই বছরেই শেষ নয়। আরও তিন-চার বছর থাকতে পারে।”

“নেইমারকে আনা? এই পরিস্থিতি অসম্ভব। এছাড়া পিএসজিও তাকে বিক্রি করতে চাইবে না।”

চলমান সংকটের কারণে কেবল নেইমারের ব্যাপারটিই নয় অন্যান্য খেলোয়াড়দের কেনার পরিকল্পনাও বন্ধ করে দিতে হয়েছে বলে জানালেন বার্সেলোনা সভাপতি। এ ব্যাপারে ইন্টার মিলানের আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের লরাতো মার্তিনেসের বিষয়টি তুলে ধরেন তিনি।

“ইন্টারের লরাতোর ব্যাপারে আলোচনা করেছিল বার্সেলোনা। কিন্তু আলোচনা এখন স্থগিত।

এই পরিস্থিতি বড় ধরনের কোনো বিনিয়োগ করাকে সমর্থন করে না।”

করোনার কারণে চলতি বছরের শুধু মার্চ ও জুনের মধ্যেই বার্সেলোনার ২০ কোটি ইউরো ক্ষতি হয়েছে বলে জানালেন বার্তোমেউ- “২০২০-২১ মৌসুমে আমরা আশা করেছিলাম, ১১০ কোটি ইউরো আয় হবে আমাদের। কিন্তু আয় হয়েছে এর মাত্র ৩০ শতাংশ।”

abhishek-bachchan-chelsea-fb.jpg

ছোটবেলা থেকেই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব চেলসির ভক্ত বলিউড অভিনেতা অভিষেক বচ্চন।

নিজের দুঃসময়ে প্রিয় ক্লাবের পক্ষ থেকে এবার দারুণ এক উপহার পেলেন এই তারকা।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে নানাভাতি হাসপাতালে ভর্তি অভিষেক। তার বাবা অমিতাভ বচ্চনও তার সঙ্গে একই হাসপাতালে ভর্তি।

তাদের অসুস্থতার খবর জানতে পেরে চেলসি তাকে একটি চিঠি পাঠিয়েছে। দ্রুত সুস্থতা চেয়ে শুভকামনাও জানিয়েছে ক্লাবটি।

চেলসি অধিনায়ক সিজার আজপিলিকুয়েটা স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, আমরা জানতে পেরেছি তুমি এই মুহূর্তে ভালো নেই।

তোমার এবং তোমার পরিবারের অসুস্থতার খবর শুনে আমরা সবাই কষ্ট পেয়েছি। আমরা তোমাকে শুভকামনা জানাতে চাই।

এও জানাতে চাই, তুমি এবং তোমাদের পরিবারের সবাই আমাদের প্রার্থনায় থাকবে। দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠো।

প্রিয় ক্লাবের পক্ষ থেকে এমন উপহার পেয়ে রীতিমতো বাকরূদ্ধ অভিষেক বচ্চন।

হাসপাতালে বসেই টুইট করেছেন, পুরো সপ্তাহটাই ভালো যাবে এবার তার।

উচ্ছ্বসিত জুনিয়র বচ্চন পোস্ট করেছেন চেলসির পক্ষ থেকে পাঠানো চিঠিটার ছবিও।

১১ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন অভিষেক বচ্চন।

তার স্ত্রী ঐশ্বরিয়া বচ্চন এবং কন্য আরাধ্যও করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

তবে সম্প্রতি ঐশ্বরিয়া এবং তার মেয়ে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন।

তবে এখনো পুরোপুরি সুস্থ হননি অমিতাভ বচ্চন ও ছেলে অভিষেক বচ্চন।

real6.jpg

২০২০-২১ মৌসুমের জন্য নতুন জার্সি উন্মোচন করেছে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ।

হোম এন্ড অ্যাওয়ের জন্য দু’টি জার্সি তৈরি করেছে এবারের লা লিগার চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ।

হোম জার্সিতে কোন পরিবর্তন না হলেও, অ্যাওয়ে জার্সিটি করা হয়েছে গোলাপি রঙের। হোমের জার্সিটি সাদা রং এরই রাখা হয়েছে।

অ্যাওয়ে জার্সিটির ডানদিকে অ্যাডিডাস ও বামদিকে রিয়াল মাদ্রিদের লোগো লাাগানো রয়েছে। দু’টো জার্সিরই গলা আকার ‘ভি’।

আগামী ৭ আগস্ট ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলতে নামবে রিয়াল মাদ্রিদ।

ঐ ম্যাচে নতুন গোলাপি রঙের জার্সি পরে দলে খেলোয়াড় নামবে বলে জানানো হয় ক্লাবের পক্ষ থেকে।

Ronaldo_Car_.jpg

উপলক্ষ পেলেই নতুন গাড়ি কেনেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। পর্তুগিজ এই তারকার সংগ্রহে আছে অসংখ্য দামি ব্র্যান্ডের গাড়ির সমাহার।

জুভেন্তাসের হয়ে টানা দ্বিতীয় সেরি আ শিরোপা জয়ের পর নতুন একটি কিনবেন না তা কী হয়!

ইউরোপের সংবাদমাধ্যমে খবর, নতুন গাড়ি কিনতে যাচ্ছেন ৩৫ বছর বয়সী রোনালদো।

ফরাসি স্পোর্টস কার ব্র্যান্ড বুগাত্তির সিনতোদিয়েসি মডেলের একটি গাড়ি অর্ডার করেছেন পর্তুগিজ এই ফুটবলার।

এটির নাম ৮৫ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড, বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৯৫ কোটি!

করোনাবিঘ্নিত সেরি আর মৌসুমেও শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রেখেছে জুভেন্তাস। টানা নবমবার ইতালির শীর্ষ লিগের শিরোপা ঘরে তুলেছে তুরিনের ক্লাবটি।

আর তাতে বড় অবদান রোনালদোর। ৩৩ ম্যাচে করেছেন ৩১ গোল!

লিগ শিরোপা জয়ের পর পরই রোনালদোর সিনতোদিয়েসি মডেলের গাড়ি কেনার খবর আসলো।

তবে গাড়িটি হাতে পেতে তাকে ২০২১ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

রোনালদোর সম্মানে জুভেন্তাসের জার্সির আদলে গাড়িটিতে সাদা-কালো মিশ্রণে রং করে দেবে বুগাত্তি।

পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার রোনালদোর স্পোর্টস কারটিতে থাকছে আধুনিক সব প্রযুক্তি।

১৬ সিলিন্ডারের গাড়িটির গতি প্রতি ঘণ্টায় ৩২৬ কিলোমিটার। ক্ষমতা ষোলোশো হর্সপাওয়ার। ২.৪ সেকেন্ডে চলে ৬০ মিটার!