ফুটবল Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

laliga334.jpg

আগামী ৮ জুন থেকে পুনরায় শুরু হচ্ছে স্প্যানিশ ফুটবল লিগ লা লিগা।

নতুন সূচিও প্রকাশ করা হয়েছে।

গেল মার্চে করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত করা হয়েছিল লা লিগার মৌসুম।

সে সময় ১১ রাউন্ডের খেলা বাকি ছিলো।

লিগের বাকি খেলাগুলো ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে স্প্যানিশ সরকার।

২৮তম রাউন্ডের সূচি :

মায়োর্কা-বার্সেলোনা

রিয়াল মাদ্রিদ-এইবার

এস্পানিওল-আলাভেজ

রিয়াল সোসিয়েদাদ-ওসাসুনা

অ্যাথলেটিক ক্লাব বিলবাও-অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ

সেল্টা ভিগো-ভিয়ারিয়াল

লেগানেস-রিয়াল ভায়োদোলিদ

ভ্যালেন্সিয়া-লেভান্তে

গ্রানাডা-গেটাফে

সেভিয়া-রিয়াল বেটিস।

বাকি রাউন্ডের সূচি :

২৯তম রাউন্ড- ১৯-২১ জুন।

৩০তম রাউন্ড- ২৩-২৫ জুন।

৩১তম রাউন্ড- ২৬-২৮ জুন।

৩২তম রাউন্ড- ৩০জুন-২ জুলাই।

৩৩তম রাউন্ড- ৩-৫ জুলাই।

৩৪তম রাউন্ড- ৭-৯ জুলাই।

৩৫তম রাউন্ড- ১০-১২ জুলাই।

৩৬তম রাউন্ড- ১৪-১৬ জুলাই।

৩৭তম রাউন্ড- ১৭-১৯ জুলাই।

৩৮তম রাউন্ড- ২৪-২৬ জুলাই।

লা লিগার এবারের মৌসুমের ২৭ রাউন্ড শেষে শীর্ষে রয়েছে বার্সেলোনা।

তাদের পয়েন্ট ৫৮। ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে রিয়াল মাদ্রিদ। খবর বাসসের।

PSG.jpg

করোনাভাইরাসের কারণে ইউরোপের অন্যান্য ক্লাবগুলোর তুলনায় সবচেয়ে

বেশী ক্ষতির মুখে পড়েছে লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়ন প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইন।

বায়ার্ন মিউনিখ, রিয়াল মাদ্রিদ কিংবা জুভেন্টাসের মত বড় দলগুলো যেখানে

ইতোমধ্যেই লিগ শুরু কিংবা শুরুর অপেক্ষায় রয়েছে সেখানে করোনার কারণে

লিগ ওয়ানের ২০১৯/২০ মৌসুম শেষের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে এই সিদ্ধান্তটা খুব বেশী তাড়াহুড়া করেই নিয়ে ফেলেছে লিগ ওয়ান কর্তৃপক্ষ।

প্রায় চার মাসেরও বেশী ফুটবলের সাথে কোন সংস্পর্শ ছাড়াই প্যারিসের জায়ান্ট

দলটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অংশগ্রহণের নিশ্চয়তা পেয়েছে।

মৌসুম শেষের ঘোষণা আসায় পিএসজির খেলোয়াড়রা এখনো অনুশীলনে ফিরেনি।

এমনকি খেলোয়াদের বেতন কম করার ব্যপারেও কোন সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেনি পিএসজি।

ক্লাবটির স্পোর্টিং পরিচালক লিওনার্দো ও খেলোয়াড়রা এ ব্যপারে এখনো কোন চুক্তি করতে পারেনি।

ফ্রান্স সরকারের অনুমোদিত আইনানুযায়ী প্রতিটি ক্লাবকে

তাদের স্টাফদের ৮৪ শতাংশ বেতন অবশ্যই পরিশোধ করতে হবে।

এদিকে করোনার কারণে পিএসজি টেলিভিশন স্বত্ব থকে প্রায় ২০০ মিলিয়ন ইউরো ক্ষতি করবে।

সামাজিক নিরাপত্তা ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধার জন্য যে পরিমাণ অর্থ তারা ব্যয়

করেছে তা ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক বেশী।

এমনকি অন্যান্য লিগের তুলনায় লিগ ওয়ানকে কিছুটা হলেও কম প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ মনে করা হয়

শুধুমাত্র এই একটি কারণেই, এখানকার ক্লাবগুলো সামাজিক নিরাপত্তার জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করে থাকে।

পিএসজি প্রতিবছর খেলোয়াড়দের বেতনের ওপর সামাজিক চার্জ দিয়ে থাকে ৮০ মিলিয়ন ইউরোরও বেশী।

ক্লাবের মতে এটি স্পেন, ইতালি কিংবা জার্মানীর শীর্ষ ক্লাবগুলোর তুলনায় অনেক বেশী।

এদিকে এখনো পর্যন্ত কোপা ডি ফ্রান্স ও কোপা ডি লা লিগার ফাইনালের তারিখ নির্ধারিত হয়নি।

ফ্রেঞ্চ ফুটবল ফেডারেশন জানিয়েছে তারা দুটি ম্যাচই আগস্টে করার ব্যপারে আশাবাদী।

সে কারনেই কোচ থমাস টাচেল জানিয়েছেন এখনো অনুশীলনে ফেরার ব্যপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।

চলতি সপ্তাহে মারকুইনহোস ব্রাজিলে ফিরে গেছেন।

নেইমার ও থিয়াগো সিলভা লকডাউনে ব্রাজিলেই অবস্থান করছেন।

কেইলর নাভাস ও এডিনসন কাভানিও যথাক্রমে কোস্টা রিকা ও উরুগুয়েতে রয়েছেন।

jamal-bhuyan-lead.png

জন্ম এবং বেড়ে ওঠা ডেনমার্কে। ইউরোপের হাওয়া-বাতাস গায়ে লাগিয়ে

এবং সেখানকার খাদ্যে অভ্যস্থ হয়ে বড় হওয়া জামাল ভূঁইয়া কি করে মানিয়ে নেন বাংলাদেশে?

তার খাদ্য তালিকার শীর্ষেই বা কি থাকে? ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠানে সেগুলো জানতেও ছাড়েননি তার ভক্তরা।

খ্যাতির একটা বিড়ম্বনা থাকে।

তারকা ক্রীড়াবিদদের যে ভক্তকূল গড়ে ওঠে তা সামলানোও একটা কঠিন কাজ।

সেগুলো কিভাবে মেইনটেইন করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক?

এমন নানা প্রশ্নের উত্তর জামাল ভূঁইয়া দিয়েছেন ঘণ্টাব্যাপি ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠানে।

বাংলাদেশে যখন থাকেন তখন কি খান? আপনার প্রিয় খাবার কি এখানে?

বাংলাদেশের রুই মাছটা খুব প্রিয় জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়কের।

ডেনমার্ক বসে এখন এ মাছটিই খুব মিস করছেন তিনি।

‘বাংলাদেশে যখন থাকি তখন রুই মাছটা বেশি খাই। ওটা আমার খুব প্রিয়।

এছাড়া আমার খাওয়ার রুটিনটা এমন- সকালে ফল আর চা। চা অবশ্যই চিনিছাড়া।

মধু দিয়ে খাই। মাঝেমধ্যে দই। সেটা বাংলাদেশের মতো মিষ্টি দই নয়।

ফ্রুটসদই খাই আমি। দুপুরে পাস্তা আর ভেজিটেবলস থাকে আমার খাবার মেন্যুতে।

রাতে অল্প রাইসের সাথে ভেজিটেবলস আর চিকেন। ফলও থাকে।

আমি ফলটাকে বেশি গুরুত্ব দিই। পুরো দিনে ৩ থেকে ৫ লিটার পানি পান করি।’

অসংখ্য ভক্ত সামলানো প্রসঙ্গে বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া বলেন,

‘আমি স্পেশাল কোনো জিনিস করি না। যখন যেটা ফিল করি তখন সেটা করি।

অনেক মানুষ আছেন যারা আমাকে খুব ভালোবাসেন।

কেন বাসেন সেটা তাদের বিষয়। সেখানে আমার কোনো হাত নেই।

তবে এটা বলবো- মানুষের এই ভালোবাসা পাওয়া আমার বড় অর্জন।’

Qatar-2022-1280x720.jpg

করোনার প্রভাব আগামী ফুটবল বিশ্বকাপে পড়বে না বলে জানিয়ে দিয়েছে আয়োজক কমিটি।

অর্থনীতিতে যাই প্রভাব ফেলুক না কেন, বিশ্বকাপ সমর্থকদের কাছে যথেষ্ট সাশ্রয়ী হতে যাচ্ছে।

২০২২ সালের নভেম্বর-ডিসেম্বরে বিশ্বকাপ ফুটবল আসর বসবে মরুদেশ কাতারে।

টিকিটের দাম থাকবে দর্শকের আওতার মাঝেই। করোনার প্রভাবে বিশ্বকাপ টিকিটের দাম বাড়বে না।

বিশ্বকাপের আয়োজক কমিটির প্রধান হাসান আল তৌহিদী

জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা ব্যাপকভাবে উন্নতি করার বিষয়ে আশাবাদী।

তবে অর্থনীতি যে চ্যালেঞ্জের সামনে ফেলতে চলেছে, সেটা তিনি স্বীকার করেছেন।

স্পোর্টস অনলাইন ফোরামে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বেই অর্থনৈতিক মন্দা শুরু হবে।

এর মধ্যেই সমর্থকরা বিদেশ থেকে এসে বিশ্বকাপ দেখতে এসে উপভোগ কীভাবে করবে, সেটা নিয়ে আমরাও চিন্তিত।’

পরিস্থিতি সামাল দিতে অলিম্পিক আয়োজক কমিটির সঙ্গে আলোচনা চলছে।

হাসান তৌহিদী জানান, ‘আমরা প্রথম থেকেই বলে এসেছি,

এই টুর্নামেন্ট সমর্থকদের কাছে যথেষ্ট সাশ্রয়ী হবে।

যে কেউ এই বিশ্বকাপে এসে টুর্নামেন্ট উপভোগ করতে পারেন।

তবে করোনা পরবর্তী সময়ে ব্যাপক অনিশ্চয়তা তৈরি হওয়ায়

আপাতত কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার কথা বলতে পারছি না।

আপাতত সমর্থকদের জন্য সাশ্রয়ী টিকিট আর ফুটবল অঙ্গনের অর্থনৈতিক উন্নতির মেলবন্ধন তৈরির চেষ্টা করছি।’

চীনের উহান থেকে শুরু করে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী

নোভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। এই ভাইরাসের প্রভাব পড়েছে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনেও।

তবে ইউরোপে ফিরতে শুরু করেছে ফুটবল আসর।

ইতোমধ্যে ফের শুরু হয়েছে জার্মান বুন্দেসলিগা।

ইতালিয়ান সিরি’আ শুরু নিয়েও জল্পনা-কল্পনা চলছে। আর ১২ জুন সেভিয়া ডার্বি দিয়ে শুরু হচ্ছে লা লিগা।

কপ নামের এক গণমাধ্যমের বরাতে এমনটাই জানিয়েছে স্প্যানিশ ক্রীড়ামাধ্যম মার্কা।

নতুন সূচিতে শুক্রবার (১২ জুন) প্রথম ম্যাচে

এস্তাদিও র‌্যামন সানচেজ স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে সেভিয়া বনাম রিয়াল বেতিস।

বাকি ১১ ম্যাচের দিনগুলির সম্পূর্ণ সময়সূচি ২৮ মে শীর্ষ বিভাগের ২০টি ক্লাবকে জানানো হবে।

মার্কা জানিয়েছে, লা লিগা প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের তেভাসের কাছে শীর্ষ লিগ ফেরানোর

এটি আদর্শ সময়সূচি হলেও এই সূচিকে বাস্তবায়নের জন্য অবশ্যই

স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন (আরএফইএফ) এবং স্পেন সরকারের কাছে এটি গৃহীত হতে হবে।

mesii.jpg

লিওনেল মেসির মতো সেরাদের সেরা ফুটবলার থাকতেও আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ

না জিততে পারাটা হতাশাজনক বলে মনে করেন বার্সেলোনা কিংবদন্তি আন্দ্রে ইনিয়েস্তা।

২০১৪ বিশ্বকাপে মেসি ছাড়াও সার্জিও আগুয়েরো, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, গঞ্জালো হিগুয়াইন,

হ্যাভিয়ের মাশ্চেরানোদের মতো তারকারা ছিলেন।

দলে ছিলেন পাবলো জাবালেতা, ফার্নান্দো গাগো, এজেকুয়েল গারায়,

এজেকিয়েল লাভেজ্জি, সার্জিও রোমেরো। যারা প্রত্যেকেই নিজেদের ক্যারিয়ারের সেরা সময় পার করছিলেন।

সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে স্পেনের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী  ইনিয়েস্তা বলেন,

‘সেরা ফুটবলার থাকাকালেও আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ না জিততে পারাটা অবাক করার মতো।

পুরো দলটিতেই একেকজন ছিলেন সময়ের সেরা।

আমার চোখে সেরাদের সেরা খেলোয়াড়ও (মেসি) ছিলেন ওই দলে।’

ছয় বছর আগে ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে পুরো টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত ফুটবল উপহার দেয়

মেসি নেতৃত্বাধীন দলটি। যদিও ফাইনালে ১-০ গোলে হারতে হয় আলবিসেলেস্তেদের।

বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা এই মিডফিল্ডার মনে করেন বিশেষ মুহূর্তকে কাজে লাগাতে পারলে ব্যবধান গড়া সম্ভব।

ইনিয়েস্তা বলেন, ‘তারা শিরোপা তুলতে সক্ষম হয়নি। জার্মানির বিপক্ষে যা ঘটেছে, ছোট কিছু মুহূর্ত থাকে।

যেগুলোর কারণে দলের পার্থক্য প্রকাশ পেয়ে যায়।

আলাদা পরিকল্পনা নিয়ে খেললে সেদিন ফল হয়তো ভিন্ন হতে পারত।’

ছয়বারের ব্যালন ডি’ অর জয়ী মেসিকে জন্মভূমিতে

এখন শুনতে হয় জাতীয় দলের জন্য কিছুই এনে দিতে পারেননি তিনি।

তবে বার্সায় সাবেক সতীর্থের চোখে মেসিকে শুধু দোষ দেয়ার জন্যই এমন মন্তব্য করা হয়।

‘শেষ পর্যন্ত যখন ফল আসে না। এরকম অনেক পরিস্থিতিতে পড়তে হয়।

সবাই যেকোনও এক জনকে বেছে নেয় দোষারোপ করার জন্য।

আমার মতে এটা বলা বেশ কঠিন যে, মাঠে নেমে মেসি খারাপ খেলেছে।

কারণ তিনি খারাপ খেলেছেন সেটা হতেই পারে না।

তবে এটা সঠিক, সময় আপনার পক্ষে নাই থাকতে পারে।

পাশাপাশি বার্সা ও আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের পরিবেশ একভাবে মাপাটাও বোকামি।

দলটি প্রতিদিন পরিকল্পনা করে আগামী দিনে কেমন হবে তাদের মাঠের খেলা।

এদিকে মেসিকে নিয়ে বার্সায় আরেকটি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস

লিগ জেতা উচিৎ ছিল বলে মনে করেন কিংবদন্তি মিডফিল্ডার।

বার্সার হয়ে ইউরোপ সেরার খেতাব চারবার জিতেছেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা।

যদিও ২০১৫ সালের পর ক্লাব ফুটবলের মহাদেশীয় এই শিরোপা লাভ করতে সক্ষম হননি তিনি।

cr7.jpg

ইতালিয়ান সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী অনুশীলনে ফিরেছে জুভেন্টাস।

দুই মাস আগে অসুস্থ মাকে দেখতে পর্তুগালে গেলে করোনার প্রকোপে স্থবির হয়ে পড়ে বিশ্ব।

পরিবারসহ জন্মস্থান মাদেইরায় আটকা পড়েন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

সিরি আ’ শুরুর প্রাথমিক ঘোষণা এলে প্রাইভেট জেটে তুরিনে চলে আসেন।

তবে সরকারের নিয়ম, দেশের বাইরে থেকে ফিরলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

৪ মে থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শুরু করে জুভিরা।

একই দিন ইতালি থেকে রোনালদো ফিরলেও সোজা চলে যান কোয়ারেন্টিনে।

সোমবার শেষ হবে ১৪ দিনের এই স্বেচ্ছা গৃহবন্দীর নিয়ম।

তাই মঙ্গলবার থেকে অনুশীলন শুরু করতে পারবেন সিআর সেভেন।

এরই মধ্যে জুভেন্টাস জানিয়েছে, সেরে উঠেছেন করোনায় আক্রান্ত

তিন ফুটবলার পাউলো দিবালা, ব্লাইস মাতুইদি ড্যানিয়েল রুগানি।

দিবালা ও রুগানি অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন।

মঙ্গলবার রোনালদোর সঙ্গে ফিরতে পারেন মাতুইদি।

ইতালির প্রধানমন্ত্রী গিউসেপ্পে কন্তে জানিয়েছেন

আগামী ১৩ জুন ইতালিয়ান লিগ শুরু হওয়ার প্রাথমিক দিন।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ওই দিনটি ধরেই আগে বাড়ছে।

চলতি মৌসুমে ২৬টি করে ম্যাচ খেলার পর আর মাঠে নামতে পারেনি সিরি আ’র দলগুলো।

৬৩ পয়েন্ট নিয়ে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস সবার উপরে অবস্থান করছে।

এক পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে লাজিও।

Match.jpg

প্রত্যাবর্তনের ম্যাচটা জয় দিয়েই স্মরণীয় করে রাখলো বায়ার্ন মিউনিখ।

দুই মাসের বেশি সময় পার মাঠে নামলেও, খুব একটা খেদ পড়েনি বাভারিয়ানদের পারফরমেন্সে।

আর তাই খুব সহজেই ইউনিয়ন বার্লিনকে ২-০ গোলে হারিয়েছে তারা।

এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ স্থান ধরে রাখলো জার্মার লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

ঠিক কার ম্যাচ দেখছেন টিভি পর্দায় ঠাউর করে উঠতে পারবেন না। দর্শক শূন্য গ্যালারি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ চলছে না’কি বুন্দেস লিগা!

এমন ফিল চলে আসতে পারে অবচেতন মনে।

তবুও দুই মাসের বেশি সময় পর মাঠে গড়িয়েছে ফুটবল, এটা স্বস্তির।

সমর্থক না থাকলে যা হয় তাই যেন হলো বুন্দেস লিগায় বায়ার্ন মিউনিখ আর ইউনিয়ন বার্লিনের এই ম্যাচে।

ফুটবলাররা খেলে গেলেন উৎসাহ বিহীন এক ম্যাচ।

সেখানে চাপ নেয়ার তো কোন প্রশ্নই আসে না! তাই ম্যাচটাও হলো যাচ্ছে তাই।

একগাদা ভুল পাসের ছড়াছড়ি।

অবশ্য অনেক দিন পর কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে খেলতে নেমেছে কি’না তাই হচ্ছে এমন।

এই যুক্তিটা উঠতেই পারে। তারপরও এমন ম্যাচে প্রভাব খাটাতে ভুলে যায়নি বায়ার্ন।

যদিও নিজেদের মাঠে জায়ন্টদের ৪০ মিনিট পর্যন্ত গোল বঞ্চিত রাখে বার্লিনের ক্লাবটি।

এরপর আর পেরে উঠেনি ইউনিয়ন বার্লিন।

অবশ্য উপহারটা নিজেরাই তুলে দিয়েছে প্রতিপক্ষের কাছে।

ম্যাচের ৩৯ মিনিটে গোরেৎজাকে ডি বক্সের মধ্যে ফাউল করে বসেন বার্লিন ডিফেন্ডার।

পেনাল্টি পায় বায়ার্ন মিউনিখ।

সেখান থেকে স্কোর করতে মোটেও ভুল হয়নি রাবার্ট লেওয়ানদোস্কির।

১-০ গোলের লিড। প্রথমার্ধ শেষ করে ম্যাচ দ্বিতীয়ার্ধে। বাভারিয়ানরা ব্যাতিব্যাস্ত ব্যবধান বাড়ানোর।

কিন্তু আবারো দারুণ প্রতিরোধ ইউনিয়ন বার্লিনের।

মাঝে তাদের দু-একটি কাউন্টার অ্যাটাক নিশ্চিত ভাবেই শিহরিত

করেছে টিভি সেটেরে সামনে বসে থাকা দর্শকদের।

ম্যাচের প্রথম ৪০ মিনিট পর দ্বিতীয় ৪০ মিনিটও হতাশা হয়ে আসে বার্লিনের ক্লাবটির জন্য।

এবার স্পটলাইটে আসেন বেঞ্জামিন পাভার্ড।

এই ফ্রেঞ্চ ডিফেন্ডারের গোলে লিগ ২-০ করে বায়ার্ন।

পরের দশ মিনিটে হয়নি আর কোন গোল।

ফলে লিগে প্রত্যাবর্তনের ম্যাচটা জয় দিয়ে শেষ করে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

bundes.jpg

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই মাঠে ফিরেছে জার্মান লিগ বুন্দেসলিগা।

শনিবার মাঠে গড়িয়েছে ৬ টি ম্যাচ।

শালকের বিপক্ষে ৪-০ গোলের বড় জয় পেয়েছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড।

ফ্রেইবুর্গের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছে লিপজিগ।

হফেইনহেইমকে ৩-০ তে হারিয়েছে হার্থা। সবগুলো ছিলো ক্লোজড ডোর ম্যাচ।

ফুটবল শুধু একটা খেলা নয়, ফুটবল একটা আবেগ. একটা উৎসব।

উচ্ছ্বাস-ভালোবাসা। উন্মাদনাতো বটেই।

ফুটবল ছাড়া আর কত দিন? রাত জেগে দুর্দান্ত সব গোল দেখা হয়না।

প্রিয় দলের সমর্থনে হাততালি হয়না। উচ্ছ্বাসে ভেসে, উন্মাদনায় মেতে চায়ের কাপে ঝড় তোলা হয়না।

এভাবে আর কতোদিন। আচ্ছা, সব আগের মতো যদি হয়ে যায়।

হবে নিশ্চয়ই। সে প্রার্থনাইতো সবাই করছে।

শুরুটা করেছে বুন্দেসলিগা। আহা, কতদিন পর মাঠে গড়ালো ফুটবল।

হোকনা গ্যালারি ফাঁকা। তবুতো দেখা যাচ্ছে ক্যামেরার চোখে।

বরুশিয়া ডর্টমুন্ড-শালকের ম্যাচটা দেখুন। গোল করেও উদযাপনে আগ্রহ নেই খুব একটা।

দর্শকের উন্মাদনা ছাড়া খেলা কি আর জমে।

ইয়োহান ক্রুইফ প্রায়ই বলতেন,

দর্শকরা যদি ম্যাচ উপভোগ করে আর হাসিমুখে বাড়ী ফেরে তাহলে এটাই সবচেয়ে বড় পাওয়া।

ম্যাচ জিতলেও না পাওয়ার হতাশই হয়তো পেয়ে বসেছিলো ডটমুন্ডকে।

যা একটু উদযাপন সেটাও যেনো ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে লোক দেখানে.

ডর্টমুন্ড জিতেছে ৪-০ গোলে। একইসময় অনুষ্ঠিত হয়েছে আরো ৪ টি ম্যাচ।

jamal-bhuyan-lead.png

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া বলেছেন, দেশের সবাই যদি বাড়িতে থাকে তাহলে অবশ্যই পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

আমার বিশ্বাস খুব শীঘ্রই করোনাভাইরাসের এই সংক্রমণ মোকাবেলা করতে পারব।

করোনাকালে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা ছিল তার আগেই।

সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী নিজের দাদা বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইল গ্রামের

প্রায় ৪০০ অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন জামাল ভূঁইয়া।

করোনাভাইরাসের মাঝে ছুটি পেতেই ডেনমার্কে ফিরে গেছেন বাংলাদেশ ফুটবল দলের অধিনায়ক।

তবে মন পড়ে আছে তার বাংলাদেশে। অসহায় মানুষদের জন্য মন কাঁদছে তার।

ডেনমার্কে থাকলেও নিজের দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে ঠিকই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন এই মিডফিল্ডার।

জামালের নির্দেশনা অনুযায়ী তার চাচাতো ভাই জুনায়েদ ভুঁইয়া এই ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।

আপাতত ৩০০ অসহায় পরিবারকে চাল, তেলসহ অন্যান্য খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হচ্ছে।

ঈদের আগে আরও প্রায় ১০০ পরিবারকে দেওয়া হবে এক হাজার করে টাকা।

জুনায়েদ বলেছেন, ‘জামাল আগে থেকেই করোনাকালে অসহায় লোকজনের পাশে এসে দাঁড়াতে চেয়েছে।

সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী আমরা এই মাসের শুরু থেকে ত্রাণ দেওয়া শুরু করেছি।

ভাগে ভাগে দিচ্ছি। এখনও তা চলছে। সবমিলিয়ে আমরা ৪০০ পরিবারকে সাহায্য করছি।’