বিনোদন Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

Amitabh-Bachchan-Featured.jpg

ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদ দিয়েছেন বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন। অভিনেতা বলেন, আমার লিভারের ৭৫ শতাংশ নষ্ট হয়ে গেছে। মাত্র ২৫ শতাংশের উপর বেঁচে আছি।

সম্প্রতি নিজের স্বাস্থ্য নিয়ে এমনই তথ্য জানান ৭৬ বছরের এই অভিনেতা। শুধু তাই নয়, দীর্ঘ ৮ বছর ধরে তিনি যক্ষ্মা রোগেও আক্রান্ত ছিলেন বলে জানান বর্ষীয়ান এই অভিনেতা।

বিষয়টি জানায় ভারতীয় গণমাধ্যম জিনিউজ।

সম্প্রতি একটি স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক প্রচারের অনুষ্ঠানে হাজির হন অমিতাভ। সেখানেই নিজের স্বাস্থ্য সম্পর্কে বলেন তিনি। স্বাস্থ্য সম্পর্কে উপস্থিত দর্শকদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে বিভিন্ন পরামর্শও দেন।

তিনি জানান, তিনি যক্ষ্মা ও হেপাটাইটিস বি-তে আক্রান্ত ছিলেন। তবে যক্ষ্মার প্রতিকার আছে। যখন শরীর খারাপ হতে শুরু করে, তখন তিনি জানতেন না যে তার শরীরে যক্ষ্মার জীবাণু আছে।

অভিনেতা বলেন, আমি যে রোগে আক্রান্ত, যে কেউ যে কোনও মুহূর্তে একই সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। তাই নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা খুবই জরুরি।

উল্লেখ্য, বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে পোলিও, হেপাটাইটিস বি, যক্ষ্মা ও ডায়াবেটিক সম্পর্কে সচেতনতামূলক প্রচারের সঙ্গে যুক্ত আছেন অভিনেতা। বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ক্যাম্পেইনে মানুষের মাঝে কথা বলেন।

hinakhan.jpg

আমেরিকায় নিজের দেশের পতাকা তুললেন হিনা খান। হিনা খান লাল, সাদা রঙের শাড়ি পরে নিউ ইয়র্কে যখন ভারতের পতাকা নিয়ে প্যারেডে হাঁটেন, সেই সময় তাঁর ছবি দ্রুত সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। জি নিউজ বাংলা

সোশ্যাল হ্যান্ডেলে যখন ভারতের পতাকা নিয়ে হিনা খান ছবি শেয়ার করেন, তখন তিনি লেখেন, বিদেশে গিয়ে পতাকা হাতে নিয়ে নিজের দেশের প্রতিনিধিত্ব করার অনুভূতিটাই একেবারে অন্যরকম।

বিশ্বের অন্যতম সুন্দর দেশে হাজির হয়ে যখন আপনি সেই অনুভূতির ভাগীদার হন, তখন তার চেয়ে ভালো কিছু আর হতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন হিনা খান।

জনপ্রিয় টেলিভিশন শো ‘বিগ বসের’ ঘর থেকে বেরনোর পর ‘কসৌটি জিন্দগি কি’-র সিক্যুয়েলে অভিনয় করেন হিনা খান। জনপ্রিয় ওই হিন্দি মেগা সিরিয়ালে কমোলিকার চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের মনে জায়গা করে নেন হিনা।

টেলিভিশন পাশাপাশি পরিচালক বিক্রম ভাটের ‘হ্যাকড’ নামে একটি সিনেমা দিয়ে বলিউডে আসছেন হিনা খান। ‘হ্যাকড’-এর পাশাপাশি ‘কার্গিল ওয়ার’ নামে আরও একটি সিনেমায় দেখা যাবে হিন্দি সিরিয়ালের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রীকে।

sunnyleone.jpg

বাংলাদেশের সিনেমায় অভিনয় করবেন বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন। এমন খবর বছর দুই আগে চাউর হয়েছিলো। জানা গিয়েছিল শাপলা মিডিয়ার ব্যানারে নির্মিত একটি ছবিতে শাকিব খানের সঙ্গে আইটেম গানে পারফর্ম করবেন সানি।

সেই আইটেম গানের খবর আর পাওয়া যায়নি। এবার জানা গেল, ‌‘বিক্ষোভ’ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন। সিনেমাটিতে একটি আইটেম গানে মুম্বাইয়ের রাহুল দেবের সঙ্গে নাচবেন এই বলিউড অভিনেত্রী।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিনেমাটির পরিচালক রনি। তিনি বলেন, ‘আজ বিকালে সানি লিওনের সঙ্গে আমাদের চুক্তি সম্পাদিত হয়েছে। আগামী ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মুম্বাইয়ে আইটেম গানটির শুটিং হবে। গানটির নৃত্য পরিচালনা করবেন ভারতের বব ও পাবন। সব কিছু ঠিক থাকলে এবারই প্রথম বাংলাদেশের কোনো সিনেমায় দেখা যাবে সানিকে। সেকারণে আমরা বেশ উত্তেজিত।’

এদিকে এরই মধ্যে সিনেমাটিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। সিনেমাটি প্রযোজনা করবে স্প্ল্যাশ মিডিয়া। এর কর্ণধার শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খানের কন্যা পিংকি খান। এই সিনেমা দিয়ে প্রায় দেড় বছর পর আবারও বাংলাদেশি সিনেমাতে দেখা মিলবে শ্রাবন্তীর। তবে তার বিপরীতে কে থাকবেন সেটি এখনো নিশ্চিত নয়।

প্রযোজনা সূত্রে জানা গেছে আগামী ১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় এই সিনেমার মহরত হবে। সেদিন থেকেই সিনেমাটি শুটিংও শুরু হওয়ার কথা আছে।

Srejit-Mithila.jpg

বেশ কিছুদিন আগে কলকাতার গণমাধ্যমে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিথিলা রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা ও সৃজিত মুখার্জির মধ্যকার প্রেম ও বিয়ের গুঞ্জনে প্রকাশ হয়েছিল। মাস খানেক আবারও তারা দুজনে সংবাদের শিরোনামে।

নতুন শিরোনামে জানা গেলো, সৃজিতের সঙ্গে ঈদের অবসর সময় কাটানোর জন্যই কলকাতায় গেছেন মিথিলা। কেবল তাই নয়, তারা একাধিক প্রাইভেট পার্টিতেও অংশ নিয়েছেন বলে খবর।

ভারতের প্রথম সারির একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, সম্প্রতি ‘এক যে ছিল রাজা’ সিনেমাটির জন্য ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন সৃজিত মুখার্জি। এই আনন্দে তিনি তার রাজারহাটের বাড়িতে একটি প্রাইভেট পার্টি দিয়েছেন। যেখানে ছিল কেবল কাছের মানুষজন। সেখানেই তিনি মিথিলাকে পরিচয় করিয়ে দেন বন্ধুদের সঙ্গে।

এখানেই শেষ নয়, মিথিলাও একটি ঘরোয়া আয়োজনে সৃজিত ও তার বন্ধুদের ডেকেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, সৃজিতের সঙ্গে সম্পর্কটা পোক্ত করতেই এরকম আয়োজন করেছেন মিথিলা।

টালিউডের সবচেয়ে আলোচিত ব্যাচেলর সৃজিত মুখার্জি। বিভিন্ন সময় অনেক অভিনেত্রীর সঙ্গে তার প্রেমের গুঞ্জন ছড়িয়েছিল। বাংলাদেশের জয়া আহসানের সঙ্গেও তার সম্পর্কের গুঞ্জন ছড়ায়। তবে কোনো সম্পর্কই বিয়ে পর্যন্ত এগোয়নি।

এদিকে সৃজিত জানিয়েছেন, তিনি এই বছরও বিয়ের চিন্তা করছেন না। অন্যদিকে মিথিলাও তাদের সম্পর্কের বিষয়টিকে স্রেফ গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। তবে ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুসারে জানা গেছে, আগামী বছরের শুরুর দিকেই সৃজিত-মিথিলা বিয়ে করবেন।

17-9.jpg

জিম থেকে বেরিয়ে গাড়িতে উঠছিলেন জাহ্নবী কাপুর। আচমকাই এক শিশু বই বিক্রি করার জন্য তার সামনে এসে হাজির হয়। সেই শিশুকে দেখে জাহ্নবী বই কিনবেন না বলে জানিয়ে দেন।

কিন্তু সেই শিশুও নাছোড়বান্দা। জাহ্নবীর কাছে বই বিক্রি করেই তবেই সে শান্ত হবে ঠিক করে নেয়।

আর তখনই শ্রীদেবী-কন্যা জানিয়ে দেন, তার কাছে এই মুহূর্তে কোনও টাকা নেই। যা শুনে বেশ বিমর্ষ হয়ে পড়ে শিশুটি। কিন্তু এর কয়েক মুহূর্ত পর জাহ্নবী কাপুর গাড়িতে উঠে, তার চালেকর কাছ থেকে টাকা চেয়ে নিয়ে ওই শিশুর হাতে তুলে দেন। যে ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর, তা ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে।

hrithik_roshan_inside.jpg

গোটা বিশ্বের সব থেকে ‘হ্যান্ডসাম’ পুরুষের তকমা পেলেন বলিউড অভিনেতা হৃত্বিক রোশন। হলিউড অভিনেতা রবার্ট প্যাটিসন, ক্রিস ইভানসরা ও ফুটবল তারকা ডেভিড বেকহ্যাম এই তালিকায় থাকলেও তাদেরকে হারিয়ে সেরার শিরোপা জিতে নিয়েছেন ঋত্বিক।

অবশ্য এবারই প্রথম নয়। এর আগেও বিশ্বের অন্যতম ‘গুড লুকিং ম্যান’-এর তকমা পেয়েছেন এই বলি তারকা। তবে হৃত্বিককে বিশ্বের সব থেকে ‘সুদর্শন পুরুষ’ এর তকমা দিয়েছেন একটি মার্কিন সংস্থা।

শুধু অভিনয়ে পারদর্শিতাই নয়, ঋত্বিক রোশনের আকর্ষণীয় চেহারা আর ফিটনেসের কারণে ভক্তরা তাকে আদর্শ পুরুষ হিসেবে বিবেচনা করে। তার এই জনপ্রিয়তা শুধু বলিউডেই সীমাবদ্ধ নয়, বরং তা ছড়িয়ে আছে গোটা বিশ্বজুড়ে।

ঋত্বিকের গোপন রহস্য সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলে তিনি হেসে উত্তর দেন, ‘ভালো, এটা ব্রকলির অবদান। মজা করলাম!’ তবে একে তার অর্জন হিসেবে স্বীকার করতে মোটেও রাজি নন তিনি। ঋত্বিক বলেন, ‘আমার মতে, যদি পৃথিবীতে এমনকিছু থাকে যা মানুষের তীব্রভাবে কামনা করা ও সর্বাধিক মূল্যায়ন করা উচিত তা হলো তাদের চরিত্র। একটি ভালো চরিত্র আপনাকে সবসময়ই আরও আকর্ষণীয় করে তুলবে।’

‘সুপার ৩০’ সিনেমায় অনবদ্য অভিনয়ের প্রশংসা ও সাফল্য নিয়ে ঋত্বিক এখনো এর রেশ কাটিয়ে ওঠেননি। টাইগার শ্রফের সঙ্গে তার ‘ওয়ার’ সিনেমা মুক্তি পাবে চলতি বছরের ২ অক্টোবর। এছাড়া ‘কৃষ’ ফ্র্যাঞ্চাইজির চতুর্থ কিস্তির কাজও শুরু করবেন শিগগিরই।

ad2x.jpg

বাংলা অডিও গানের যুবরাজ খ্যাত কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর প্রয়াত জনপ্রিয় গিটারিস্ট আইয়ুব বাচ্চুর জন্মদিনে তাকে স্মরণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) রাত সাড়ে নয়টায় আসিফ আকবরের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টে প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণ করে, ২০০৪ সালের নিউইয়র্ক ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড এর একটি গ্রুপ ছবি পোস্ট করেন। এর ক্যাপশনে তিনি লিখেন, সারাদিন ভেবেছি আপনাক নিয়ে কী লিখবো বাচ্চু ভাই !!! মৃত্যু বার্ষিকীর আগে জন্মদিনটা কিভাবে উইশ করবো? তবুও শুভ জন্মদিন বাচ্চু ভাই, মহান আল্লাহ আপনার আত্মাকে শান্তি দিন, আমীন…

ক্যাপশনে তিনি উল্লেখ করেন, নিউইয়র্ক ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড ২০০৪ সালের ছবিটা খুঁজে পেলাম। সামনের সারিতে রিজিয়া পারভীন আপা, মরহুম রাজ্জাক আঙ্কেল, জাহাঙ্গীর সাইদ ভাই, চন্দন দত্ত দাদা।পেছনে কানিজ সুবর্না, আমি, বাচ্চু ভাই আর ফেলে আসা কিছু ভালবাসা…

ভালবাসা অবিরাম …

shahrukh-khan-20190817171640.jpg

বলিউডে বিশ বছর পার করেছেন জনপ্রিয় নির্মাতা ও প্রযোজক করণ জোহর। ক্যারিয়ারে বিশ বসন্ত পার করা উপলক্ষে সম্প্রতি ইন্ডিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব মেলবোর্নে করণের ডেবিউ ছবি ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’র বিশেষ প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়।

ওই উৎসবে করণকে প্রশ্ন করা হয় ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’র রিমেক বানালে কাকে নিতে চান তিনি? এই প্রশ্নটা করণকে আরও বহুবার করা হয়েছে। তবে সে নিয়ে কখনো তেমন করে মুখ খোলেননি তিনি।

এবার জবাব দিলেন। তার ইচ্ছা, ছবিটির রিমেক হলে সেখানে শাহরুখ খানের রাহুল চরিত্রে রণভীর সিংকে নিতে চান। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, যুবক শাহরুখের মধ্যে যে উচ্ছলতা ও পাগলামি ছিল সেটা রণভীরের মধ্যেও রয়েছে। তাই রাহুল চরিত্রে রণভীরকেই মানাবে।

আর তার সঙ্গে কাজলের অঞ্জলি চরিত্রে করণের পছন্দ আলিয়া ভাটকে। রানি মুখার্জির টিনা চরিত্রে জাহ্নবী কাপুরকে পছন্দ করণ জোহর।

পরিচালক করণ জোহর বলেন, ‘আপাতত ওই আইকনিক ছবির রিমেক বানানোর কোনো প্ল্যান নেই আমার। তবে ভবিষ্যতে যদি কোনো দিন রিমেক করার ইচ্ছা জাগে, সে ক্ষেত্রে আমার ড্রিম-কাস্ট আলিয়া, জাহ্নবী এবং রণভীর।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত শাহরুখ, কাজল এবং রানি মুখার্জি অভিনীত ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’ বক্স অফিসে বহু দিন রাজত্ব করেছিল। তারপর কেটে গেছে অনেকগুলো বছর। কিন্তু ছবিটি নিয়ে আজও দর্শকের উন্মাদনা বহমান।

এদিকে ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’র রিমেকে আপাতত দেখা না গেলেও করণ জোহরের পরবর্তী ছবি ‘তখত’–এ একসঙ্গে দেখা যাবে রণভীর, আলিয়া এবং জাহ্নবীকে। ২০২০ সালের মে মাসে বড় পর্দায় মুক্তি পাবে ছবিটি।

nobel-2-20190816182315.jpg

সোশ্যাল মিডিয়ায় কয়েক দিন থেকে ভেসে বেড়াচ্ছে সা রে গা মা পা অনুষ্ঠান থেকে আলোচনায় আসা কণ্ঠশিল্পী মাইনুল আহসান নোবেলের বেশ কিছু নগ্ন ও আপত্তিকর ছবি। এক কিশোরীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ছড়ানো হয় ছবিগুলো। পরে ভারতীয় কয়েকটি অনলাইনেও বেশ রসিয়ে নিউজ প্রকাশ করা হয় এটি নিয়ে।

কলকাতার গণমাধ্যমে নোবেলকে নিয়ে সংবাদের শিরোনাম করা হয়েছে ‘বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস! ‘নোবেলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ কিশোরীর’। রহস্য জনক ব্যাপার হলো যে কিশোরীর ফেসবুক থেকে ছবিগুলো প্রকাশ করা হয়েছে তার পরিচয় মেলেনি এখনো। কারণ ছবিগুলো পোস্ট করার পর সেই অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভ করা হয়।

এই অল্প সময়ের মধ্যেই নোবেলকে নিয়ে লেখা সেই কিশোরীর স্ট্যাটাস ও ছবি কপি পেস্ট হয়ে যায়। অনেকে সেটার স্ক্রিনশর্ট নিয়ে ছড়িয়ে দেয়। নোবেল ভক্তদের দাবি এই সুযোগ নিয়ে ভারতীয় কিছু গণমাধ্যম নোবেলকে দুশ্চরিত্র প্রমাণ করতে উঠে পড়ে লেগেছে।

কলকাতার একটি অনলাইন পোর্টাল বাংলাদেশি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে খবর প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশের গণমাধ্যমে এরকম কোনো খবরই প্রকাশ হয়নি। তবে একটি নামসর্বস্ব ওয়েবসাইটে অস্থায়ী অ্যাকাউন্ট-এর লেখাগুলোকে ‘সংবাদ’ বানিয়ে আপলোড করা হয়।

শাহরীন সুলতান নামের সেই সেই ফেসবুক আইডির স্ট্যাটাসটি এমন- ‘নোবেল, বাংলাদেশের লাখো মেয়ের ভালোবাসা। লাখো ছেলের আইডল। কিন্তু একমাত্র গোপালগঞ্জবাসীরাই চিনে ওর আসল রূপ। আজ আমি আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব ভোলাভালা চেহারার পিছে লুকিয়ে থাকা এক হিংস্র জানোয়ারের সাথে যাকে আপনারা সবাই নোবেলম্যান নামে চিনেন।

আমার মতো অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের মিথ্যা প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে ইজ্জত নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার উপর যদি নোবেল থাকতো, তাহলে তা এই সারাগামাপা খ্যাত মাদকাসক্ত নোবেল-ই পেতো। মাদক আর নারীর নেশায় আসক্ত নোবেলকে আজ যখন কোটি মানুষ আইডল মানে, তা দেখে আসলেই দেশের ফিউচার জেনারেশান নিয়ে খুব ভয় হয়।

মাদকাসক্ততার কারনে দুইবার রিহ্যাবে গিয়ে মাদকের নেশা থেকে কয়েকদিন দূরে ছিল। কিন্তু নারীর নেশার জন্যতো রিহ্যাব নেই। আর এটি কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে আমার মতো শত শত মেয়ের জন্য।

নোবেলের সাথে আমার পরিচয় হয় গতবছরে, যখন আমার বয়স মাত্র ১৫। প্রেম ভালোবাসা এগুলো তত বুঝতাম না। নোবেল আমাকে বুঝতে শিখায় ভালোবাসা কি। বয়স কম থাকার কারণে ওর প্রতিটা ফাঁদে খুব সহজেই পরে যাই। এই ফাঁদে শুধু আমি পড়িনি। আমার মতো আরো অনেক মেয়েই পড়েছে। মেয়েগুলো বেশিরভাগি অপ্রাপ্তবয়স্ক ছিল।

কিন্তু নোবেলের বিরুদ্ধে মুখ খুলার সাহস সব মেয়েগুলোর দিন দিন নোবেলের জনপ্রিয়তা বাড়ার সাথে সাথে ক্রমশ কমতে থাকে। আজ আমি কিছুটা সাহস নিয়ে আসলাম। আমি ডিপ্রেশানে চলে গিয়েছি। মাঝে মাঝে নিজের জীবনটা দিয়ে দিতে মন চায়। কিন্তু আত্মহত্যা মহাপাপ বলে তা পারি না। যদিও আমার আত্মাটা নোবেল আরো আগেই মেরে ফেলেছে।

আপনারা সবাই ভাবছেন নোবেল এগুলো কেমনে করে? আমি যদি বলি ওর এই সকল কুকর্ম ওর বাবা মা ও জানে তাহলে বিশ্বাস করবেন? প্রত্যেকটা মেয়েকে ও ওর বাসায় নিয়ে যায় ফিজিক্যালি ইনভল্ব হওয়ার জন্য। ওর বাবা মার সাথেও পরিচয় করায় বন্ধু হিসেবে।

অন্যদিকে মেয়েটাকে আশ্বাস দেয় যে বাবা মার সাথে তো পরিচয় হয়েছেই। বিয়েও করবে মেয়েটাকে। এখনতো সব করা যায়। আমিও এই ফাঁদে পা দিয়েছি। ওর পিপাসা মিটলে ওর ওই বাবা মার সামনেই মেয়েটাকে অপমান করে বের করে দেয়। আর ওর বাবা মা কিছুই বলেনা। তাই ওর এমন হওয়ার পিছে ওর পরিবারো দায়ী!

নোবেলের নিজের একটা বোন আছে। কীভাবে সে অন্যের বোনের জীবন এভাবে ধ্বংস করে আমার জানা নেই। অনেকেই বলবেন ওর নামে কেস করতে। ওর নামে কেস করেও লাভ নেই। পুলিশ ওর বাবার পকেটে থাকে।

সবশেষে বলবো যে আমি জানি এই সমাজ আমাকেই খারাপ বলবে। আমি-ই গালি খাবো নোবেলের ফ্যানদের থেকে। কারণ আমাদের সমাজে সব দোষ মেয়েদেরই হয়। এই পোস্ট দিয়ে নোবেলের কিছুই হবেনা এটাও আমি জানি। কিন্তু যাই হোক না হোক, আমার ভিতরের মৃত আত্মাটার কিছুটা শান্তি হবে এই জানোয়ারটাকে সবার সামনে তুলে ধরতে পারলে। ওর আসল চেহারা বাংলাদেশের প্রত্যেকটা মানুষের দেখা উচিৎ। ওর মত ছেলে লাখো ছেলের আইডল হোক, এটি মেনে নেওয়া যায়না। শত মেয়ের জীবন নষ্টের কারণ কোন মেয়ের ক্রাশ হতে পারে না।

ওর ব্যাপারে সর্বশেষ জানলাম যে ঈদের আগের দিনও মাতাল হয়ে গোপালগঞ্জের একজনের উপরে মোটরসাইকেল উঠিয়ে দেয়। তার মানে রিহ্যাবে গিয়েও লাভ হয়নি। ও এখনো মাদক সেবন করে। আর নারীর নেশা কাটানোর জন্যতো রিহ্যাব ও নেই। এই নেশা ওর কাটবেনা!

আপনাদের বিশ্বাস করানোর জন্য কিছু ছবি দিলাম। ছবিগুলো কিছু ও তুলেছে কিছু আমি আমার আর ওর ছবি, ওর বাসার রুমের ছবি (বিশ্বাস না হলে ওর বাসায় গিয়ে দেখে আসেন), কিউট হয়ে ঘুমিয়ে থাকার ছবিটিও দিলাম।’

এই স্টাটাসকি সত্য! নোবেলের একভক্ত তার পর্যবেক্ষণ থেকে বলছেন,‘ভাইরাল হওয়া ছবিগুলায় কিছু ছবি আছে যে নোবেল শুয়ে আছে। আর ওই ছবিগুলায় বুঝা যাচ্ছে যে নোবেলের মোটা সোটা একটা লুক! খেয়াল করলে দেখা যায় যে গত কিছুদিন যাবত বিভিন্ন ফ্যানপেজ বা গ্রুপে নোবেলের মোটা-সোটা লুকের বেশ কিছু ছবি ভাইরাল। যেই মেয়েটা নোবেলের এগেইন্সটে এলিগেশন এনেছে তার ভাষ্যমতে নোবেলের সাথে ওর রিলেশন ছিল গতবছর।

কিন্তু গতবছরের নোবেলের ছবি ঘাটাঘাটি করলে দেখা যায় যে নোবেল স্লিম ছিল! তাহলে নোবেলের আজকের ভাইরাল হওয়া ছবি গুলায় মোটা লুক আসলো কীভাবে? নোবেল কি তাহলে প্রতি বছর নিয়ম করে মোটা হয়?’

নোবেলে এক ভক্ত বলছেন, ‘যে আইডির অস্তিত্ব নেই তার বক্তব্য কতখানি সত্য হতে পারে? পোস্ট এর সঙ্গে যে ছবি গুলো দেয়া হয়েছে সেগুলো দেখে অনেকে বলছেন স্রেফ ফটোশপ করে ছবি বিকৃতি ঘটিয়ে ছবির সঙ্গে ছবি বসিয়ে বানোয়াট একটা গল্প বানানো হয়েছে।’

এই এ বিষয়ে নোবেলে মন্তব্য নিয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

nusrat-5d55906b88e7f.jpg

স্বাধীনতা দিবস ও রাখিবন্ধন একসঙ্গে হওয়ায় ডাবল সেলিব্রেশন। ব্যস্ততাও বেশি। তিনি টালিউড অভিনেত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট থেকে নির্বাচিত লোকসভা সদস্য নুসরাত।

বৃহস্পতিবার একদিকে যেমন তাকে পতাকা উত্তোলনে যেতে হয়েছে, তেমনই রাখি পরানোর উৎসবেও শামিল হতে হয়েছে। পুরো দিনটাই কেটেছে তুমুল ব্যস্ততার মাঝে।

সংবাদ প্রতিদিনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সকাল থেকেই কাজে ঠাসা ছিল নুসরাতের শিডিউল। সকাল সাড়ে দশটার মধ্যেই তিনি পৌঁছে যান নিজের কেন্দ্র বসিরহাটে। সঙ্গে ছিলেন স্বামী নিখিল জৈন। বসিরহাট জেলা হাসপাতালের সামনে পতাকা উত্তোলন করেন। সেখানে দলীয় কর্মী ও উপস্থিত জনসাধারণের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের পর রাখিবন্ধন উৎসবে যোগ দিতে রওনা দেন। বেলা ১২টা নাগাদ বসিরহাট পুরসভার ১৩ নং ওয়ার্ডে পৌঁছান নুসরাত। সেখানে রাখিবন্ধন উৎসবে অংশ নেন। শান্তির বার্তা দিতে নুসরাত সেখান থেকে বেলুন ও পায়রা ওড়ান। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক ও দলীয় কর্মীরা।

সেখান থেকে নিমদাড় কোদালিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতে যান নুসরত। একটি ফুটবল টুর্নামেন্ট ছিল সেই গ্রাম পঞ্চায়েতে। বসিরহাটের সাংসদ সেই টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বসিরহাট দক্ষিণের বিধায়ক ও ফুটবলার দীপেন্দু বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে তাকে রাখি পরিয়ে দেন নুসরাত। এরপর নুসরাত ফুটবলে কিক করে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন। পরে তিনি যান মিনাখায়। সেখানেও একটি ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন তিনি।