বিনোদন Archives - Page 2 of 140 - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

akkhoi8.jpg

মারামারিতে জড়িয়ে পড়লেন বলিটাউনের ‌‘খিলাড়ি’ অক্ষয় কুমার ও পরিচালক রোহিত শেট্টি। সম্প্রতি নেট দুনিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে অক্ষয় ও রোহিত তুমুল মারামারি করছেন।

তবে বিষয়টি খুলেই বলা যাক। রোহিত শেট্টির পরিচালনায় ‘সূর্যবংশী’র শ্যুটিং। প্রধান চরিত্রে অক্ষয়। রিলিজ করবে সামনের বছরই।সেই ছবির সেট থেকেই আচমকা অভিনেতা-পরিচালকের হাতাহাতির ভিডিও প্রকাশ্যে আসতে ইন্ডাস্ট্রিতে শোরগোল! নেটিজেনদের প্রশ্ন, হচ্ছেটা কি? ভিডিওটি মজার ছলে শ্যুট করা হয়েছে। দু’’জনেই মজার ছলে মারামারি করছিলেন।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন খোদ অক্ষয়। ক্যাপশনে লিখেছেন ‘‘ব্রেকিং নিউজ। এমন একটা ঝগড়া যা আপনার দিনটা ভালো করে দেবে।’

ভিডিওর শুরুতেই দেখা যায়, ‘সূর্যবংশী’র নায়িকা ক্যাটরিনা কাইফকে, তিনি মোবাইল নিয়ে খুনসুটি করছেন। কিন্তু অক্ষয় ও রোহিত মারামারি শুরু করতেই পুলিশ এসে উপস্থিত হয়।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন এখানে: শুটিংয়ে অক্ষয় ও রোহিতের মধ্যে মারামারি (ভিডিও)

Humayun-Ahmed-696x418.jpg

সাহিত্যাঙ্গনে কিংবদন্তি এক নাম। পাঠক মুগ্ধ করার জাদুকর তিনি। নাটক ও চলচ্চিত্র নির্মাণেও সফল, ভিন্ন এক ধারার প্রবর্তক। গান লেখাতেও হয়ে আছেন কালজয়ী গীতিকবি। তিনি হুমায়ূন আহমেদ। সবার প্রিয় হুমায়ূন স্যার।

আজ প্রয়াত এই কথাসাহিত্যিক ও নন্দিত নির্মাতার ৭১তম জন্মদিন। তার জন্মদিনকে ঘিরে ভক্ত-অনুরাগীরা ভাসছেন স্মৃতির সাগরে। প্রিয় লেখকের নানা উক্তি, ছবি পোস্ট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন তারা। এ ছাড়া বেশকিছু টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে নানারকম অনুষ্ঠান।

জন্মদিন উপলক্ষে হুমায়ূন আহমেদের পরিবারের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে কিছু উদ্যোগ। লেখকের নিজের হাতে গড়া নুহাশ পল্লীতে তার সমাধিস্থলে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হবে।

দুই বাংলার তুমুল জনপ্রিয় সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ জন্মেছিলেন ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে। তার বাবা ফয়জুর রহমান আহমদ এবং মা আয়েশা আখতার খাতুন। হুমায়ূন আহমেদ তার কীর্তি রেখেছেন শিল্প-সাহিত্যর বেশিরভাগ শাখাতেই।

বাংলা সাহিত্য, নাটক, চলচ্চিত্র ও গান পালাবদলের এ কারিগর ১৯৭২ সালে প্রকাশিত প্রথম উপন্যাস ‘নন্দিত নরকে’ দিয়ে নিজের জানান দেন। এরপর তিন শতাধিক গ্রন্থ লিখেছেন। আগুনের পরশমনি ছবির দৃশ্যে আসাদুজ্জামান নূর ও শীলা টেলিভিশন নাটকেও চমক দেখিয়েছেন তিনি। বদলে দেন নির্মাণের বাঁক।

১৯৯০-এর গোড়ার দিকে চলচ্চিত্র নির্মাণ শুরু করেন। তার পরিচালনায় প্রথম চলচ্চিত্র ‘আগুনের পরশমণি’ মুক্তি পায় ১৯৯৪ সালে। ২০০০ সালে ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ও ২০০১ সালে ‘দুই দুয়ারী’ দর্শকের কাছে দারুণ গ্রহণযোগ্যতা পায়। ২০০৩-এ নির্মাণ করেন ‘চন্দ্রকথা’।

১৯৭১-এ বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ২০০৪ সালে নির্মাণ করেন ‘শ্যামল ছায়া’ সিনেমাটি। এটি ২০০৬ সালে ‘সেরা বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র’ বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিল। এ ছাড়াও এটি কয়েকটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। এরপর ২০০৬ সালে মুক্তি পায় ‘৯ নম্বর বিপদ সংকেত’। ২০০৮-এ ‘আমার আছে জল’ চলচ্চিত্রটি তিনি পরিচালনা করেন।

২০১২ সালে তার পরিচালনার সর্বশেষ ছবি ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ মুক্তি পায়। নিজের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ একুশে পদক, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ দেশে-বিদেশে বিভিন্ন পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন।

তবে হুমায়ূন আহমেদ সর্বজন প্রিয় হয়ে আছেন হিমু ও মিসির আলী চরিত্রের স্রষ্টা হিসেবে। এ ছাড়াও তাকে বলা হয় তারকা গড়ার কারিগর। তার হাত ধরে অনেক অভিনয় ও সঙ্গীতশিল্পীরা জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

হুমায়ূন আহমেদের বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা ও মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধে তিনি পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও দোসরদের হাতে শহীদ হন। মায়ের নাম আয়েশা ফয়েজ। তার দুই ভাই মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ও আহসান হাবীব। প্রত্যেককেই লেখালেখিতে পাওয়া গেছে।

হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন অভিনয়, নৃত্যের পাশাপাশি পরিচালক হিসেবেও প্রশংসিত। তার বড় পুত্র নুহাশ হুমায়ূনও সাম্প্রতি নাটক নির্মাণে নাম লিখিয়েছেন।

nusrat-20191111181224.jpg

নায়িকা নুসরাত জাহানের পিছু ছাড়ছে না সমালোচনা। ইদানিং যা করছে তা নিয়ে ট্রোলের শিকার হতে হচ্ছে কলকাতার জনপ্রিয় এই নায়িকাকে। একশ্রেণির মানুষ সব সময় তার সমালোচনায় মেতে থাকে। মুসলিম হয়েও কেন হিন্দু ধর্মের ছেলেকে বিয়ে করলেন? কেন অষ্টমীতে অঞ্জলি দিলেন? এমন নানা প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় তাকে।

এবার ঈদে মিলাদুন্নবিতে একটি পোস্ট দিয়ে তোপের মুখে পড়েন নুসরাত জাহান। নবীর জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছিলেন নুসরাত। একটি পোস্টার শেয়ার করে নুসরাত লিখেছিলেন, ‘সকলকে জানাই নবী দিবসের শুভেচ্ছা।’‬ আর সেখানেই কমেন্টবক্সে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে নেটিজেনদের একটি অংশ।

নুসরাতে উদ্দেশ্যে এক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘নুসরাত তুমি তো জাহান্নামের দিকে চলে গিয়েছ। এখন ঈদে মিলাদুন্নবীর কথা বলে তোমার কি হবে! সময় থাকতে ফিরে এসে তওবা পড়ে আল্লাহ্ তায়ালার কাছে নিজের ভুলের জন্য ক্ষমা চাও। আল্লাহ তায়ালা অতি দয়ালু ও মহা ক্ষমাশীল।’

কেউ আবার বলছেন, নুসরাতের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। নুসরাতকে ভন্ড বলেও উল্লেখ করেছেন অনেকে। যদিও অভিনেত্রী এসব মন্তব্যের জবাবে মুখ খোলেননি।

ধর্মে মুসলিম হয়েও দুর্গাপূজা উৎসবে অংশ নেয়ার পর ভারতের উত্তরপ্রদেশের একজন ইসলাম ধর্মীয় নেতার সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান।

সমালোচনার জবাবে নুসরাত জাহান নিজেকে ‘ঈশ্বরের বিশেষ সন্তান’ বলে দাবি করেছিলেন। সে সময় তিনি বলেছেন, এ ধরনের বিতর্কে তার কিছু আসে যায় না এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা ছড়ানোর জন্য সৃষ্টিকর্তা তাকে বার্তাবাহক হিসেবে পাঠিয়েছেন।

susmita-20191111220905.jpg

রাজধানী ঢাকার ইডেন মহিলা কলেজের শহীদ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন যুগ্ম আহ্বায়ক মিলে ছাত্রলীগের এক কর্মীকে মারধর করে হল থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে৷

জানা গেছে, হামলায় আহত ওই ছাত্রলীগ কর্মী সুস্মিতা বাড়ৈর জরায়ুর টিউমারের অপারেশনের স্থানে গুরুতর আঘাত লাগে৷ পরে আহত অবস্থায় তাকে রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ কয়েকঘণ্টা চিকিৎসা নেয়ার পর সেন্ট্রাল হসপিটালে চিকিৎসা ব্যয়বহুল হওয়ায় সে এখন তার এক আত্মীয়ের বাসায় অবস্থান করছেন৷ সুস্মিতা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের অনুসারী ও ছাত্রলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য ছিলেন৷

জানা যায়, সোমবার সকালে হলের সিটবাণিজ্য ও সিট নিয়ন্ত্রণ করা নিয়ে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন যুগ্ম আহ্বায়ক মিলে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা ছাত্রীনিবাসের ছাত্রলীগের সদস্য সুস্মিতা বাড়ৈর ওপর হামলা করেন। এ সময় তাকে বেধড়ক পেটানো হয়৷ হামলায় সে পেটে (অপারেশনের স্থানে) ও ঘাড়ের মেরুদণ্ডে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হন।

সূত্র জানায়, ইডেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জান্নাত আরা জান্নাত, রিভা আক্তার, পাপিয়া আক্তার প্রিয়া, পাপিয়া রায়, বীথি আক্তার, জারিন পূর্ণি ও ইতি আক্তারসহ আরও কয়েকজন মিলে সুস্মিতাকে মারধর করেন।

মারধরের শিকার সুস্মিতা বাড়ৈ ইডেন কলেজের ২০১৪-১৫ সেশনের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী। তার গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বঙ্গমাতা হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, বেশ কয়েক দিন ধরে কলেজে ছাত্রলীগের সদস্যরা চেষ্টা করছেন হলের পলিটিক্যাল রুম তাদের নিয়ন্ত্রণে নিতে। অন্যদিকে যুগ্ম আহ্বায়করা চেষ্টা করছেন তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে। প্রথম বর্ষে যারা ভর্তি হবেন, সেই শিক্ষার্থীদের টাকার বিনিময়ে হলে তুলে সিটবাণিজ্য কেন্দ্র করে এসব সংঘর্ষ হচ্ছে। হলে সিটবাণিজ্যের পুরোটা নিয়ন্ত্রণ করে শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়করা। সিট বাণিজ্য থেকে যুগ্ম-আহ্বায়কদের প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা আয়ের অভিযোগ রয়েছে৷

সূত্র আরও জানায়, ইডেন কলেজের সব হল মিলিয়ে প্রায় দুই হাজারের মত অবৈধ শিক্ষার্থী টাকার বিনিময়ে হলে থাকেন৷

এ ঘটনার পর ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য দুপুর দুইটার দিকে ইডেন কলেজে এসে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন বলেও জানা গেছে৷

এর আগে গত শনিবার সিটসংক্রান্ত দ্বন্দ্বের জের ধরে সাবিকুন্নাহার তামান্না নামে এক ছাত্রলীগ সদস্যকে বটি দিয়ে কোপান ছাত্রলীগের আরেককর্মী।

এ বিষয়ে ইডেন কলেজ শাখার ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বিথী আক্তার বলেন, এ রকম কোন ঘটনা ঘটেনি। আপনি প্রশাসনের কাছে জানতে পারেন৷ একটা কুচক্রী মহল ছাত্রলীগকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে এসব রটাচ্ছে৷

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক জান্নাত আরা জান্নাত বলেন, সুস্মিতা লিগ্যালভাবে হলে থাকে না৷ ও ম্যামদের সঙ্গেও খারাপ ব্যবহার করে৷ ক্যান্টিনের মামাদের সঙ্গেও খারাপ ব্যবহার করে৷

হামলার অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, এসব কথার কোন ভিত্তি নেই৷ এগুলো সব বানোয়াট।

এ ব্যাপারে জানতে শহীদ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের তত্ত্বাবধায়ক সহযোগী অধ্যাপক ফেরদৌসী বেগমকে ফোন করলে ‘জরুরি মিটিংয়ে আছি, পরে কথা বলছি’ বলে ফোন কেটে দেন৷ পরে ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি৷

এ বিষয়ে জানতে ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ ড. শামসুন্নাহারকে ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

popkorn.jpg

মাত্র কয়েকদিন আগেও কলকাতার রানাঘাট স্টেশনে নিদারুণ কষ্টে দিন কাটিয়েছেন রানু মণ্ডল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কারণে আজ তিনি তারকা। তারকা হওয়ার পর থেকে তার ব্যবহার পরিবর্তন হতে শুরু করেছে।

বলিউডে প্লেব্যাক, টিভি শোতে অতিথি—রাতারাতি তারকা বনে গেছেন রানু। আর রাতারাতি রপ্ত করেছেন সেলিব্রেটিসুলভ আচরণ! অভিযোগ রয়েছে, রানু এখন গণমাধ্যমকেও পাত্তা দিচ্ছেন না। এবার সাংবাদিকদের বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পপকর্ন খেলেন রানু মণ্ডল!

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজের প্রতিবেদন জানাচ্ছে, সম্প্রতি গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছেন রানু। এরই মধ্যে সেই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। যে নেটিজেনরা আগে রানুর বন্দনা করতেন আজ তারা নিন্দায় সরব।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, রানুর বক্তব্য নেয়ার জন্য ভক্তদের পাশাপাশি ভিড় জমে গণমাধ্যমকর্মীদেরও। এক সাংবাদিক তাকে প্রশ্ন করেন, ‘এই যে আপনি এত দ্রুত এই পর্যায়ে পৌঁছে গেলেন, তা থেকে কি আপনার মনে হয় যে স্বপ্ন সত্যি হয়?’

সাংবাদিকের প্রশ্ন শুনে বিরক্ত হন রানু। সামনে ক্যামেরা ও বুম থাকা সত্ত্বেও খেতে থাকেন পপকর্ন। একটু পর বলেন, ‘কী বলল শোনাই যাচ্ছে না!’ তা শুনে ফের প্রশ্ন করেন ওই সাংবাদিক। তবে সে প্রশ্নকে পাত্তাই দিলেন না তিনি!

dipjol6.jpg

চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক মনোয়ার হোসেন ডিপজল নানা হচ্ছেন। তার কন্যা ওলিজা মনোয়ার মা হতে চলেছেন। রোববার (১০ নভেম্বর) দুপুরে তিনি নিজেই ফেসবুকে দেয়া এক পোস্টে এখবর জানিয়েছেন।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে ওলিজা মনোয়ার স্বামীর সঙ্গে গর্ভবতী অবস্থায় তিনটি ছবি পোষ্ট করে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গছে।, নানা হওয়ার খবরে ভীষণ খুশী দাপুটে অভিনেতা ডিপজল। চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন: ওলিজা আমার খুব আদরের মেয়ে। বিবাহিত জীবনে সে সুখী। এবার তার ঘরে নতুন অতিথি আসছে। সে আমারও কাঙ্ক্ষিত অতিথি। সবার কাছে তাদের জন্য দোয়া চাই।

গেল বছর জুনে মেয়ের বিয়ে দেন ডিপজল। তার মেয়ের জামাতার নাম অর্পণ। তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। পারিবারিকভাবে এই বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। তারপর গেল বছর ২৮ জুন বড় আয়োজনে বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

ওলিজা লন্ডনে বিজনেস স্টাডিজ নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া ও মেকআপ নিয়েও পড়াশোনা করেছেন ডিপজলকন্যা। ‘ওলিজা মনোয়ার লন্ডন মেকওভার স্টুডিও’ নামে ঢাকায় তার একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

apubiswc.jpg

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস ভারতের আসাম রাজ্যের একটি অনুষ্ঠানে স্থানীয়দের ‘বাংলাদেশের বাঙালি’ বলে অভিহিত করেছেন । সম্প্রতি এ রকম একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

অপুর বক্তব্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ভারতের আসামে করা জাতীয় নাগরিকপঞ্জির কারণে নাগরিকত্ব হারানোর আশঙ্কায় আছেন কয়েক লাখ মানুষ। আসামের অনেকে বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে আত্মহত্যাও করেছেন। অপুর এ বক্তব্য এমন পরিস্থিতিতে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকে।

আসামে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে অপু বলেন, আমি বাংলাদেশের মেয়ে। কিন্তু এখানে যারা বসে আছেন, তারা সবাই, তাদের সবার বাংলাদেশে জন্ম আছে… ঠিক তো? আমরা যখন বিদেশে যাই তখন আমরা সবাইকে বলি ‘বাঙালি’। আজকে আমি আসামেও একটি কথা বলবো, আপনারা সবাই আমার বাংলাদেশের বাঙালি। তাই তো?

অপুর এমন কথায় সম্মতি জানাতে অনেকেই অস্বীকৃতি জানান। ‘নো’, ‘নো’ বলে উঠেন। এমন প্রতিক্রিয়া পাওয়ার পর একটু হেসে অপু বলেন, ‘আপনারা সবাই আসামের, আমি জানি। কিন্তু যে ‘নো’ (অস্বীকার করছেন) বলছেন, দেখবেন আপনার দাদু, ঠাকুমা, তার ঠাকুমা, হয়তো কেউ বাংলাদেশেরই ছিল।

অপু বিশ্বাসের এই ভিডিওটি কোন সময়ের বা আসামের এই প্রোগামে তিনি কবে অংশ নিয়েছিলেন সেটার সঠিক দিনক্ষণ জানা যায়নি। তবে ভিডিওটি এমন সময়ে ভাইরাল হলো যখন আসামের মানুষ ‘এনআরসি’ নিয়ে উদ্বিগ্ন। এ কারণে অপু বিশ্বাসের ভাইরাল ভিডিওটি ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা রকমের সমালোচনা হচ্ছে।

mosharof1.jpg

মোশাররফ করিম দেশের একজন জনপ্রিয় অভিনেতা। অভিনয় দিয়ে যারা দর্শকের খুব কাছাকাছি চলে গেছেন অভিনেতা মোশাররফ করিম তাদের মধ্যে অন্যতম। পরিচালকদেরও যেন ভরসার জায়গা তিনি।

বৃহস্পতিবার গেজেট প্রকাশের মাধ্যমে তথ্য মন্ত্রণালয় ২০১৭ ও ২০১৮ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া শিল্পীদের নাম ঘোষণা করে। এতে গেল দুই বছরে সেরা কৌতুক অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন যথাক্রমে ফজলুর রহমান বাবু ও মোশাররফ করিম।

২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘কমলা রকেট’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য সেরা কৌতুক অভিনেতার পুরস্কার দেয়া হয় মোশাররফ করিমকে। বিষয়টি নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা। এর মধ্যেই শনিবার মোশাররফ করিম জানিয়ে দিলেন ওই পুরস্কার তিনি গ্রহণ করছেন না।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৮-এ শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (কৌতুক চরিত্রে) পুরস্কার প্রসঙ্গে মোশাররফ করিম বলেন, ‘কমলা রকেট’ চলচ্চিত্রে আমি যে চরিত্রটিতে অভিনয় করেছি সেটি কোনোভাবেই কমেডি বা কৌতুক চরিত্র নয়। ছবিটির চিত্রনাট্যকার, পরিচালকসহ সহশিল্পীরা নিশ্চয় অবগত আছেন। একই সঙ্গে যারা ছবিটি দেখেছেন তারাও নিশ্চয় উপলব্ধি করেছেন ‘কমলা রকেট’-এ আমার অভিনয় করা ‘মফিজুর’ চরিত্রটি কোনো কৌতুক চরিত্র নয়। এটি প্রধান চরিত্রগুলোর একটি।

কৌতুক চরিত্র তার কাছে কাছে অন্যসব চরিত্রের মতোই গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সন্মানিত জুরি বোর্ডের কাছে আমার অনুরোধ, ‘শ্রেষ্ঠ অভিনেতা কৌতুক চরিত্রে’ আমার জন্য বরাদ্দ করা পুরস্কারটি প্রত্যাহার করে নিলে ভালো হয়। না হলে আমার পক্ষে এই পুরস্কার গ্রহণ করা সম্ভব নয়। আমি কাজটাকে ভালোবেসে আমৃত্যু কাজ করে যেতে চাই। আমার ভক্ত, শুভাকাঙ্খিসহ সকলের কাছে আমার ও আমার পরিবারের জন্য দোয়া চাই। একই সঙ্গে যারা পুরস্কার পেয়েছেন সবাইকে অভিনন্দন জানাই।

মোশাররফ করিম বর্তমানে ব্যক্তিগত কাজে দেশের বাইরে রয়েছেন। গণমাধ্যমে বক্তব্য তুলে ধরে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

joya-20191109160651.jpg

হঠাৎ করেই আলোচনায় এলো পুরনো এক খবর। ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে কোনো একটা অনুষ্ঠানে নাকি বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের ওপর বিরক্ত হয়েছিলেন জয়া বচ্চন। শুধু তাই নয়, খানকে চড়ও মারতে চেয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চনের স্ত্রী।

বদরাগি বা বাজে মেজাজের তারকা হিসেবে জয়া বচ্চনের পরিচয়টা নতুন করে করিয়ে দেয়ার কিছু নেই। বি টাউনে তার নাম উচ্চারিত হলে সবাই চুপ হয়ে যান। কেউ তার সাত পাঁচে যেতে রাজি নন। সবসময়ই রাগের মেজাজে থাকেন বলেও তাকে নিয়ে মজা করা হয়।

সেই জয়া একবার ক্ষেপে গিয়েছিলেন শাহরুখের ওপর। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এমনটা নিজ মুখেই স্বীকার করেছেন অভিনেত্রী।

কিন্তু কেন চড় মারতে চেয়েছিলেন শাহরুখকে? এমন প্রশ্নের জবাবে জয়া বলেন, ২০০৮ সালে ক্যাটরিনার জন্মদিনের পার্টি ছিলো। সেখানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জয়ার ছেলের বউয়ের সাবেক প্রেমিক সালমান খান ও অভিনেতা শাহরুখ খান। অনুষ্ঠানে ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে আজেবাজে মন্তব্য করেছিলেন শাহরুখ।

এ প্রসঙ্গে জয়া বচ্চন বলেন, ‘অনুষ্ঠানটি যদি তখন আমার বাড়িতে হতো তাহলে আমি শাহরুখকে চড় মারতাম। ঠিক যেমনটা আমি আমার ছেলের ক্ষেত্রেও করতাম। পুরুষ সবসময় নারীকে সম্মান করবে এটাই আশা করি আমরা। যদিও শাহরুখ সেটা করে বরাবরই। তবে ওইদিন সে বেশি মজা করে ফেলেছিলো।’

যোগ করে জয়া বচ্চন আরও বলেন, ‘তবে বিষয়টি নিয়ে শাহরুখ খানের সঙ্গে আলোচনা করার সুযোগ পাচ্ছিলাম না। একটা সময় সেটি ঠিকই পেয়ে যাই। কিন্তু খুব বেশি কিছু বলতে পারিনি তাকে। কারণ ওকে আমি খুব পছন্দ করি। বচ্চন বাড়িতে শাহরুখ সবসময়ই পুত্রের মতো। ওর প্রতি আমার ও আমাদের পরিবারের সবার দুর্বলতা আছে।’

প্রসঙ্গত, শাহরুখের সঙ্গে ‘কাভি খুশি কাভি গাম’ ছবিতে অভিনয় করেছেন জয়া বচ্চন। সেখানে মা-পুত্রের ভূমিকায় দুজনের অভিনয় জয় করে নিয়েছে কোটি কোটি দর্শকের মন।

shakib-alina-shishir-b-20191108102116.jpg

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের একমাত্র মেয়ে আলাইনার জন্মবার্ষিকী শুক্রবার (৮ নভেম্বর)। ২০১৫ সালের ৮ নভেম্বর সাকিব-শিশিরের কোলজুড়ে আসা একমাত্র মেয়ে চতুর্থ বছরে পদার্পণ করেছে। জন্মদিনের প্রথম প্রহরেই কেক কেটে মেয়ের জন্মদিন পালন করেছেন বাবা সাকিব। মেয়েকে শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন তিনি। যেখানে কেকসহ মেয়ের একটি ছবিও শেয়ার করেছেন।

সাকিব লেখেন, ‘চতুর্থ জন্মবার্ষিকীর শুভেচ্ছা, আমার জীবন। তুমি আমার জীবনে সূর্যের আলো। আমার জীবনে যা কিছু পেয়েছি, তার মধ্যে তুমিই সেরা। পৃথিবীর অন্য সবকিছুর চেয়ে আমি তোমাকেই বেশি ভালোবাসি।’

এদিকে, মেয়েকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন সাকিবের স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির। একটি ছবিসহ স্ট্যাটাস দেন তিনি। ছবিতে দেখা যায়, সাকিব আলাইনাকে কেক খাওয়াচ্ছেন। পাশে হাঁটু গেড়ে বসে সেই দৃশ্য দেখছেন শিশির।

শিশির লেখেন, ‘বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর মেয়েকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। তুমি আমাদের জন্য এ পৃথিবীতে অনেক ভালবাসা বয়ে এনেছ, যেটা বলে প্রকাশ করা যাবে না। পৃথিবীর সবকিছুর চেয়ে তোমাকেই বেশি ভালোবাসি।’

জুয়াড়ির তথ্য গোপন করার দায়ে আইসিসি সাকিবকে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এর মধ্যে এক বছরের স্থগিতাদেশ রয়েছে। তাই আপাতত সাকিব ক্রিকেটের বাইরে রয়েছেন।