top5 Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

hasina22.jpg

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জন্মাষ্টমী উৎসব শ্রীকৃষ্ণের ভক্তগণকে তাঁর জীবনাদর্শ অনুসরণ করতে অনুপ্রাণিত করবে।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে দেয়া বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমি আশা করি, এই জন্মাষ্টমী উৎসব শ্রীকৃষ্ণের ভক্তগণকে তাঁর জীবনাদর্শ অনুসরণ করতে আরো অনুপ্রাণিত করবে।”

তিনি আরো আশা প্রকাশ করেন, ‘সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম-আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

প্রতিষ্ঠিত হবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আজীবন লালিত ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ’।

শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মদিবস জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সনাতন ধর্মাবলম্বী সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, শ্রীকৃষ্ণের জীবনের উদ্দেশ্য ছিল মানুষে মানুষে ভ্রাতৃত্ব স্থাপন এবং সমাজে সাম্য প্রতিষ্ঠা।

তিনি আজীবন শান্তি, মানবপ্রেম ও ন্যায়ের জন্য কাজ করে গেছেন। শ্রীকৃষ্ণ তাঁর জীবনাচরণ এবং কর্মের মধ্য দিয়ে মানুষের আরাধনা করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এদেশে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষ যুগ যুগ ধরে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছে।

আমাদের সংবিধানে সকল মানুষের সমানাধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার।’

সরকার দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করতে বদ্ধপরিকর উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, ‘শ্রীকৃষ্ণের আদর্শ ও শিক্ষা বাঙালির হাজার বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে আরো সুদৃঢ় করবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণে বর্তমানে বিশ্ব বিপর্যস্ত। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে মহামারী হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। তিনি এ প্রেক্ষাপটে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সবাইকে এবারের জন্মাষ্টমী উদযাপনের আহ্বান জানান।

তিনি জন্মাষ্টমী উপলক্ষে দেশের সকল নাগরিকের সুখ, শান্তি ও কল্যাণ কামনা করেন।

Sifat-Sipra.jpg

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে প্রত্যেকটি সত্য তুলে ধরবেন বলে জানিয়েছেন শিপ্রা দেবনাথ।

এ সময় শিপ্রা দেবনাথ বলেন, হঠাৎ করে সব অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাগুলো ঘটে যাওয়ায় আমরা ট্রমাটাইজড।

আমাদের সঙ্গে যা হয়েছে, যে অন্যায়টা হয়েছে; দেশবাসী সবসময় আমাদের সঙ্গে ছিলেন। আমরা তাদের উদ্দেশে বলব- ‘প্লিজ, প্রে ফর আস।

সিফাত এবং আমি আপনাদের প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ। আপনারা আমাদের পাশে ছিলেন, পাশে থাকবেন। আপাতত এতটুকুই বলার আছে।

আমরা প্রত্যেকটা কথা বলব। প্রত্যেকটা সত্যি বলব। একটু সময় দেন। প্রচুর গুজব শোনা যাচ্ছে। আমরা বিভ্রান্তিমূলক নিউজ চাই না।

এদিকে সাহেদুল ইসলাম সিফাত বলেন, মানসিকভাবে শারীরিকভাবে আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি।

একটা গুজব ছড়িয়েছিল যে হয়তো আমার পায়ে গুলি লেগেছিল। আসলে এ রকম কিছু হয়নি। আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি।

আশা করি সুষ্ঠু তদন্ত হবে। সুষ্ঠু বিচার হবে। আর তো কিছু চাওয়ার নাই। আর যিনি চলে গেছেন তাকে তো আর ফেরানো যাবে না।

প্রসঙ্গত, ঈদের আগের রাতে (৩১ জুলাই) কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ রোডে টেকনাফের বাহারছড়া চেকপোস্টে তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন সাহেদুল ইসলাম সিফাত। ভ্রমণ বিষয়ক তথ্যচিত্র নির্মাণের জন্য মেজর (অব.) সিনহা, শিপ্রা, সিফাত ও তাসকিন ৩ জুলাই থেকে কক্সবাজারে অবস্থান করছিলেন।

Minni.jpg

করোনার কারণে বন্ধ থাকার পাঁচ মাস পর পুনরায় শুরু হয়েছে আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার বিচারিক কার্যক্রম।

সোমবার সকালে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে প্রাপ্তবয়ষ্ক আসামিদের বিচারিক কার্যক্রম শুরু হয়।

এ সময় জামিনে থাকা আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ১০ আসামি হাজির হন।

রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট এম মজিবুল হক কিসলু বলেন, আদালতে আসামিদেরকে ৭৬ জন সাক্ষীর দেয়া সাক্ষ্য পড়ে শোনানো হবে।

এছাড়াও আসামিদের সাফাই সাক্ষী গ্রহণ ও কোনো কাগজপত্র জমা দেয়া হবে কিনা জানতে চাওয়া হবে।

কোনো আসামির পক্ষে কাগজপত্র জমা দেয়ার না থাকলে আজকেই আদালতে বিচারিক কার্যক্রম শেষ হতে পারে।

রিফাত হত্যা মামলায় মোট ২৪ জনকে আসামি করে দুটি ভাগে চার্জশিট দেয় পুলিশ। এর মধ্যে ১০ জন প্রাপ্তবয়স্ক ও ১৪ জন শিশু।

মামলায় প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে মিন্নি ও শিশু আসামিদের মোট আটজন জামিনে আছেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে বন্ড গ্রুপ।

এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

Jonmastomi.jpg

সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের আরাধ্য ভগবান শ্রী কৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী আজ।

দিনটি দেশের হিন্দু সম্প্রদায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে জন্মাষ্টমী পালন করবেন।

তবে এবার জন্মাষ্টমী অনুষ্ঠান যথারীতি ধর্মীয় রীতি অনুসরণ করে পূজা-অর্চনার মাধ্যমে পালিত হবে।

জন্মাষ্টমী সংশ্লিষ্ট সব অনুষ্ঠানমালা মন্দিরাঙ্গনে সীমাবদ্ধ থাকবে।

এ উপলক্ষে সর্ব প্রকার সমাবেশ, শোভাযাত্রা বা মিছিল করা থেকে বিরত থাকারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সনাতন ধর্মালম্বীদের বিশ্বাস, প্রায় পাঁচ হাজার বছর পূর্বে অশুভ শক্তিকে দমন করে সত্য ও সুন্দরের প্রতিষ্ঠায় ধরাধামে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটেছিল।

তার আবির্ভাব বিশ্বের ইতিহাসে এক নতুন যুগের সূচনা করে।

নির্যাতিত নিপীড়িত মানুষকে রক্ষায় তিনি পরিত্রাতার ভূমিকা পালন করেন, অন্ধকার সরিয়ে পৃথিবীকে আলোয় উদ্ভাসিত করেন।

পাশবিক শক্তি যখন ন্যায়নীতি, সত্য ও সুন্দরকে গ্রাস করতে উদ্যত হয়েছিল, তখন সেই শক্তিকে দমন করে মানবজাতির কল্যাণ এবং ন্যায়নীতি প্রতিষ্ঠার জন্য মহাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটেছিল।

তাদের আরো বিশ্বাস, দুষ্টের দমন করতে এভাবেই যুগে যুগে ভগবান মানুষের মাঝে নেমে আসেন এবং সত্য ও সুন্দরকে প্রতিষ্ঠা করেন।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ ও জেলা, মহানগর শাখাসমূহের মধ্যে ভার্চ্যুয়াল সভার মতামতের আলোকে বৈশ্বিক করোনা অতিমারীজনিত পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে জন্মাষ্টমী অনুষ্ঠান যথারীতি ধর্মীয় রীতি অনুসরণ করে পূজা-অর্চনার মাধ্যমে পালন এবং জন্মাষ্টমী সংশ্লিষ্ট সব অনুষ্ঠানমালা মন্দিরাঙ্গনে সীমাবদ্ধ থাকার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জী জানান, উৎসব উদযাপনে কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির প্রাঙ্গনে একদিনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

আজ সকাল ৮ টায় দেশ, জাতি ও বিশ্ব মঙ্গল কামনায় শংকর মঠ ও মিশন, সীতাকু-’র সন্ন্যাসীদের পরিচালনায় শ্রীশ্রী গীতাযজ্ঞ অনুষ্ঠিত হবে ও রাতে শ্রী শ্রী কৃষ্ণ পূজা অনুষ্ঠিত হবে। পুরো অনুষ্ঠান সরকার নিদের্শিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা রামকৃষ্ণ মঠে এ উপলক্ষে সকাল ৯টা থেকে ১১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত গীতা পাঠের আয়োজন করা হয়েছে।

গীতা পাঠ করবেন স্বামী দেবধ্যানানন্দ ও ব্রক্ষ্রচারী ভাস্কর। অন্যকর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ভজন ,দুপুরে মধ্যাহ্নে প্রসাদ বিতরন, রাত ৭ টা ৪০ মিনিটে গুরু মহারাজের বানীবর্চন ও রাত ৮ টায় শ্রীকৃষ্ণ পূজা।

মন্দিরে আসন গ্রহন ও প্রসাদ গ্রহনের সময় ভক্তদের স্বাস্থ্যগত ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক পরিধান আবশ্যক বলে মঠের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

জন্মাষ্টমী উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি। বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনসহ বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলে সম্প্রচারিত হবে বিশেষ অনুষ্ঠান।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জন্মাষ্টমী উপলক্ষে পৃথক বাণীতে হিন্দু সম্প্রদায়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

মহানবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মদিন জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত ও সাধারণ সম্পাদক নির্মল চ্যাটারর্জী এবং মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি শৈলেন্দ্র নাথ মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কিশোর রঞ্জন মন্ডল আজ এক বিবৃতিতে- জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষকে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

Padma31.jpg

পদ্মা সেতুর দুপাশে ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। নদী গতিপথ পরিবর্তন করে ভিতরে ঢুকে পড়ছে।

সেতুর ১ কি.মি. পূর্বে কুমারভোগে কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড এবং পশ্চিমে পুরাতন ফেরীঘাট এলাকায় গত কয়েক বছরে দুদফা ব্যাপক ভাঙন দেখা দেয়।

মূল সেতুর দুই পাশে এ ভাঙন পদ্মা সেতুর জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে

২০১৫ সালে ভাঙনে তিনটি জেটিসহ কোটি টাকার সম্পদ নদীগর্ভে বিলীন হয়। নদী তার গতিপথ পরিবর্তন করে প্রায় ৫০ মিটার ভিতরে ঢুকে পড়ে।

এ বছর আবারো সেখানে তীব্র ভাঙন দেখা দেয়। এতে পদ্মা সেতুর এবং রেল পথের রোড স্ল্যাব, গার্ডার ক্রেনসহ বিপুল অঙ্কের সম্পদ নদীগর্ভে বিলীন হয়।

একি অবস্থা মাওয়ায় পুরাতন ফেরী ঘাট এলাকাতেও। ইতোপূর্বে হঠাৎ তীব্র ভাঙনে ফেরীঘাট, দোকানসহ বিস্তৃর্ণ এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়।

সম্প্রতি নদী শাসন করতে গভীরতা ৭০ ফুট বৃদ্ধি করার পর চলতি বর্ষা মৌসুমে সেখানে আবারো ব্যাপক ভাঙন দেখা দেয়।

এতে কান্দিপাড়ার পশ্চিমে নদী কয়েকশত ফুট ভিতরে ঢুকে পড়েছে।

যে কোন সময় নদীর স্রোত সোজা পথে প্রবাহিত হয়ে পুরাতন ফেরীঘাটসহ বিস্তৃত এলাকা গ্রাস করতে পারে।

হুমকির মধ্যে পরতে পারে মূল সেতু এলাকা।

পদ্মার ভাঙনের চরিত্র বোঝা দায়। ফলে মাওয়া এলাকায় সেতুর পাইলিংয়ের নকশায় পরিবর্তন আনতে হয়।

কোন এক স্থানে হঠাৎ ঘূর্ণিপাকে ১৫/২০ ফুট নিচের মাটি সরে গিয়ে কয়েক কি. মি. এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

ইতোপূর্বে পদ্মার করাল থাবায় কয়েকদিনে লৌহজেং দিঘলীবাজার থেকে ঘোড় দৌড় বাজার পর্যন্ত কয়েক কি. মি. এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়।

করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির মস্তিস্কের অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।

আপাতত তিনি ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রয়েছেন।

সোমবার রুটিন চেকআপ করাতে হাসপাতালে গেলে ৮৪ বছর বয়সী প্রণব মুখার্জির দেহে মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের বর্ষীয়ান এই নেতা এক টুইট বার্তায় নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়ে লেখেন, ‘আমি কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছি। অন্য কাজে হাসপাতালে যাওয়ার পর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে।

গত সপ্তাহে আমার সংস্পর্শে আসা সবাইকে সেলফ আইসোলেশনে থাকার অনুরোধ করছি’।

কলকাতার সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, প্রণব মুখার্জি এখন আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারাল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

সোমবার সেখানেই তার মস্তিস্কে সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে।

জমাট বাঁধা রক্ত সরাতেই এই সার্জারি বলে জানা গেছে। আপাতত চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে রয়েছেন তিনি।

২০১৪ সালে হার্টের সমস্যা ধরা পড়ার পর থেকে রুটিন স্বাস্থ্য পরীক্ষার অংশ হিসেবে সোমবার হাসপাতালে যাওয়ার পর প্রণব মুখার্জির দেহে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

ভারতের সাবেক এই রাষ্ট্রপতি ছাড়াও দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর জানার পর প্রণব মুখার্জির মেয়ে শর্মিষ্ঠা মুখার্জির সঙ্গে কথা বলেন ভারতের বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

এছাড়া প্রণব মুখার্জির করোনায় আক্রান্তের খবর প্রকাশ হতেই কংগ্রেসসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা তার দ্রুত সুস্থতা কামনা করে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেন।

mokabbir-khan.jpg

সিলেট-২ আসনের এমপি, গণফোরাম নেতা মোকাব্বির খানের গাড়িতে হামলা হয়েছে।

ইটের আঘাতে তার গাড়ির সামনের একটি গ্লাস ভেঙেছে। তবে এমপি ও তার সফরসঙ্গীরা অক্ষত আছেন।

সোমবার বিকেলে বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের দুজন নেতার নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন এমপি মোকাব্বির।

একাধিক সূত্র জানায়, এমপি মোকাব্বির খান এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ নেতা এসএম নুনু মিয়ার বিরোধের জেরে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা জানান, উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় যোগদানের জন্য এমপি মোকাব্বির খান বিশ্বনাথে যান।

গাড়িটি উপজেলা পরিষদ এলাকায় পৌঁছালে কিছু লোক হঠাৎ স্লোগান শুরু করে।

এ সময় এমপির গাড়ি লক্ষ্য করে একটি ইট ছোড়া হয়। এতে গাড়ির একটি গ্লাস ভেঙেছে।

ওসি জানান, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, এমপি মোকাব্বির খান ও উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়ার মধ্যে বিরোধ চলছে।

আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এমপি যোগদান করবেন, এ কথা জেনে উপজেলা চেয়ারম্যান পাশেই আরেকটি শোকসভা আয়োজন করেন।

এই শোকসভায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে কয়েকজন এমপির গাড়িতে ঢিল ছুড়েছে।

হামলার ঘটনার পর উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় যোগদান করেন এমপি মোকাব্বির।

সভায় বক্তব্যকালে এমপি বলেন, ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক শামীম আহমদের নেতৃত্বে আমার গাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে। অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।’

ওই সভায় উপস্থিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পংকি খানও এমপির গাড়িতে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানার জন্য এসএম নুনু মিয়ার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর লেবানন সরকার পদত্যাগ করতে যাচ্ছে।

লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব সোমবারই পদত্যাগ ঘোষণা করবেন বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানায়।

স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সড়ে ৭টায় জাতির উদ্দেশে হাসান দিয়াব ভাষণ দেবেন বলে জানিয়েছে তার কার্যালয়।

সোমবার দেশটির মন্ত্রিসভার এক বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হামাদ হাসান বলেন, পুরো সরকার পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তিনি জানান, প্রেসিডেন্ট ভবনের দিকে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব। তিনি সেখানে মন্ত্রিসভার পক্ষ থেকে পদত্যাগপত্র জমা দেবেন।

লেবাননের রাজধানীতে বৈরুতের বন্দর এলাকায় গত মঙ্গলবার ভয়াবহ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা দুইশ’ ছাড়িয়েছে।

আহত হয়েছেন আরো প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ।

এ ঘটনায় রাজধানীজুড়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভও দিন দিন জোরদার হচ্ছে।

এ পর্যন্ত লেবানন সরকারের দুই মন্ত্রী এবং নয়জন এমপি পদত্যাগ করেছেন।

বিস্ফোরণের ঘটনায় রবিবার দেশটির তথ্য মন্ত্রী মানাল আবদেল সামাদ এবং পরিবেশ মন্ত্রী কাত্তার ডেমিয়ানোস পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করেছেন নয়জন এমপি।

পদত্যাগ করা এমপিরা হচ্ছেন, মারওয়ান হামাদেহ, পাউলা ইয়াকুবিয়ান, নাদিম গেমায়েল, সামি গেমায়েল, ইলিয়াস হানকাস, নেমাত এফরেম, মিখায়েল মওয়াদ, দিমা জামালি, হেনরি হেলু।

খবর: বিবিসি, আল সাবাহ।

hasan7.jpg

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বাঙালি জাতিরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাংলাদেশের নেতা ছিলেন না, তিনি ছিলেন বিশ্বনেতা।

বাঙালি জাতি তাদের হাজার হাজার বছরের ইতিহাসে তার নেতৃত্বেই স্বাধীনতা অর্জন করে রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করে, সে কারণেই তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, আমাদের জাতির পিতা।’

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর তেজগাঁও বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া স্টুডিওতে তাদের উদ্যোগে নির্মিত ‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবন ও বাংলাদেশের অভ্যুদয়’ প্রামাণ্যচিত্রের উদ্বোধনী প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতিসত্তার বিকাশের পর হাজার হাজার বছর আমাদের কোনো রাষ্ট্র ছিলো না।

অনেকেই চেষ্টা করেছেন কিন্তু বাঙালির স্বাধীনতা আনতে পারেননি। বাংলার শেষ নবাব সিরাজউদ্দৌলার ভাষাও বাংলা ছিলো না।

বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বেই বাঙালি জাতির স্বাধীন রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটে।

শুধু স্বাধীনতাই নয়, মুক্তিযুদ্ধের পর বঙ্গবন্ধু একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্রকে ধ্বংসস্তুপ থেকে তুলে সমৃদ্ধির পথে নিয়ে যাচ্ছিলেন উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘ভারতের আশ্রয় থেকে ফেরা এক কোটি সম্বলহীন মানুষ, দেশের ভেতরে আরো দুই কোটি উদ্বাস্তু মানুষ, ভগ্ন যোগাযোগ ব্যবস্থা আর শূন্য বৈদেশিক রিজার্ভের দেশকে তিনি যখন সমৃদ্ধির পথে নিয়ে যাচ্ছিলেন তখনই যারা এদেশের অভ্যুদয় চায়নি, স্বাধীনতা চায়নি, সেই চক্র স্বাধীনতার মাত্র সাড়ে তিন বছরের মাথায় তাকে সপরিবারে হত্যা করে।’

এই হত্যাকাণ্ড শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার উদ্দেশ্যে নয়, এটি ছিল বাঙালি জাতির স্বাধীনতাকে হত্যার ষড়যন্ত্র, বলেন ড. হাছান।

১৯৭৫ সালের দিকে তাকিয়ে এসময় তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭৫ সালে যখন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়, তখন দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৭.৪ শতাংশ, যা আমরা ৪০ বছর পর, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অতিক্রম করেছি।

সেবছর দেশ খাদ্যে প্রায় স্বয়ংসম্পূর্ণ  ছিলো, অনেক পরিসংখ্যান মতে সেবছর দেশে ১০ হাজার মেট্রিক টন অতিরিক্ত খাদ্যশস্য উৎপাদন হয়েছিলো।

বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে অগ্রগতির সেই ধারায় দেশ আজ উন্নয়নে মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুরকে ছাড়িয়ে যেতো।’

বঙ্গবন্ধু তার স্বপ্নপূরণ করে যেতে পারেননি, কিন্তু তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে, বলেন মন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাতাদের ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিশ্বনেতা হিসেবে বঙ্গবন্ধুর ওপর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র শুধু বাংলাদেশ নয়, সমগ্র বিশ্বের জন্য এক অনন্য দলিল।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাবেক মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া স্টুডিও’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক রহমান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন কবীর।

pm-211731.jpg

ভাদ্র মাসের মাঝামাঝি বন্যা হলে সেটা দীর্ঘমেয়াদি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ কারণে সংশ্নিষ্ট সবাইকে প্রস্তুত ও সতর্ক থাকতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একই সঙ্গে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মানুষকে মাস্ক পরতে বাধ্য করা এবং এ নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় মাঠ প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

সোমবার গণভবনে ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দিয়েছেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল বৈঠকে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রী ও সচিবরা অংশ নেন।

বৈঠকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী কল্যাণ ট্রাস্ট আইন, ২০২০-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন, বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে স্বাক্ষরের দ্বৈত করারোপ পরিহার ও রাজস্ব ফাঁকি রোধ সংক্রান্ত চুক্তির খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, মন্ত্রিসভা বৈঠকে বন্যা ও পুনর্বাসন কর্মসূচি নিয়ে বেশি আলোচনা হয়েছে। গত কয়েকদিন থেকে পানি নেমে যাচ্ছে।

যমুনা নদীর পানি বঙ্গবন্ধু ব্রিজের কাছে বিপদসীমার বেশ নিচে চলে গেছে। পদ্মা নদীর পানির স্তর ও গতি কমে গেছে।

তিনি বলেন, ভারতের আবহাওয়া বিভাগের অনুমান আছে, আগে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সে জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দিষ্টভাবে সংশ্নিষ্টদের সতর্ক করেছেন, সবাইকে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন। কারণ এটি দীর্ঘমেয়াদি হতে পারে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার অধীনে পুনর্বাসন কর্মসূচি রয়েছে।

একটি প্রকল্পের অধীনে তিনটি কাজ বাস্তবায়ন করার কথা রয়েছে। এর একটি হলো ঘরবাড়ি পুননির্মাণ।

আরেকটি হলো স্থানীয় সরকার ক্ষতিগ্রস্ত অবকাঠামো মেরামত করবে। পানি উন্নয়ন বোর্ডকেও সেখানে অন্তর্ভুক্ত করা আছে।

সেখানে বড় অঙ্কের টাকা ধরা আছে যদি কোথাও নদীর বাঁধ ভেঙে যায় তা তাড়াতাড়ি মেরামত করার জন্য। সে বিষয়ে বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, কৃষি মন্ত্রণালয়ের জন্য আলাদা বড় ধরনের পুনর্বাসন কর্মসূচি আছে।

প্রধানমন্ত্রী গুরুত্ব দিয়েছেন, আমনের বীজ নষ্ট হয়ে যাওয়ায় বীজতলা একটু উঁচু জায়গায় করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী রোপা আমনের দিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে বলেছেন। রোপা আমন ঠিকঠাক হলে খাদ্য ঘাটতির আশঙ্কা কমবে।

গতবার আমন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২৮ লাখ টন, এবার ৩৬ লাখ টন। সে তুলনায় কিছুটা কম হতে পারে।

তবে গতবারের তুলনায় উৎপাদন বেশি হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।