কানাডার প্রধানমন্ত্রী Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

7-11-1.jpg

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর কাছে বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে ফেরত চাইলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিষয়টি বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী।

সোমবার (১৮ মার্চ) কানাডার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনালাপে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই আহবান জানান। শেখ হাসিনাকে কানাডার প্রধানমন্ত্রীর ফোন দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব ইমরুল কায়েস রানা।

টেলিফোনে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে প্রায় ২০ মিনিটের মতো কথা হয়। প্রথমেই নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের ঘটনায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সদস্যদের কোনো রকম ক্ষতি না হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেন জাস্টিন ট্রুডো।

ফোনালাপের এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোকে বলেন, বাংলাদেশ সরকার সমাজ থেকে সন্ত্রাসের মূল উৎপাটনের মাধ্যমে জনগণের জান-মালের নিরাপত্তা বিধানে সকলকে নিয়ে সমন্বিত উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় কানাডায় অবস্থানরত জাতির পিতার আত্মস্বীকৃত খুনী নূর চৌধূরীকে দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে তাঁর আহবান পুনর্ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, ‘নূর চৌধুরী বর্তমানে ন্যায় বিচার থেকে পলাতক থেকে কানাডায় অবস্থান করছে। এটি আইনের শাসনের ক্ষেত্রে একটি বড় কাজ হবে, যদি কানাডা বঙ্গবন্ধুর খুনীকে বাংলাদেশের হাতে তুলে দেয়, যাতে করে সে ন্যায় বিচারের সম্মুখীন হতে পারে।’

এর উত্তরে কানাডার প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা একটি আইনি বিষয় এবং আমরা বিষয়টি বিবেচনা করে দেখবো।’

trudeo.jpg

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় কানাডার নিহতদের পরিবারের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করার পর এ বিষয়ে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া পোস্টে এমন মন্তব্য করেন ট্রুডো।

স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন জাস্টিন ট্রুডো এই পৃথিবীতে ইসলামবিদ্বেষ ও ঘৃণার কোনো স্থান নেই মন্তব্য করে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, এর প্রভাব খুবই ভয়াবহ।

কানাডার অন্টারিওর অটোয়ার দক্ষিণ নিপেন মুসলিম কমিউনিটি মসজিদে তিনি স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজনের বক্তব্য শোনেন এবং কিভাবে নিরাপদ ও সমন্বিত সমাজ গড়ে তোলা যায় সে বিষয়ে মতামত তুলে ধরেন।

এর আগে গত শুক্রবার (১৫ মার্চ) জুমার নামাজের সময় মুসল্লিদের ওপর হামলার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দেন ট্রুডো। নিজের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা বিবৃতিতে ট্রুডো বলেন, ‘প্রার্থনার সময় মানুষকে আক্রমণ করা অত্যন্ত বেদনার এবং নিউজিল্যান্ডে আজ যে গুলির ঘটনা ঘটেছে তার কঠোর নিন্দা করছে কানাডা। হতাহত এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা। নিউজিল্যান্ড এবং বিশ্ব মুসলিম জনগোষ্ঠীর মতোই আমরা আজ শোকাহত।’

জুমার নামাজের পর ক্রাইস্টচার্চের দু’টি মসজিদে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল নিয়ে চালানো ভয়াবহ এই হামলায় শেষ খবর পর্যন্ত ৫০ জন নিহত হয়েছেন। গণহত্যা চালানোর আগে অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত এক শ্বেতাঙ্গ হামলাকারী অনলাইনে একটি পোস্ট করে জানায়, সে শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদে বিশ্বাসী।

দখলদারদের (অভিবাসী) ওপর প্রতিশোধ নিতেই সে এই হামলা করেছে। অবশ্য তাকে এবং আরও তিনজনকে আটক করেছে নিউজিল্যান্ডের পুলিশ। নিহতদে মধ্যে বেশ ক’জন বাংলাদেশিও রয়েছেন।