গুগল Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

google-20190513130835.jpg

ব্যবহারকারীর তথ্য সংরক্ষণ নীতিমালায় পরিবর্তন আনছে গুগল। এতদিন গুগল তার বিভিন্ন সেবার ব্যবহারকারীর সব তথ্যই অনায়াসেই পেয়ে যেত। তবে এখন থেকে নির্ধারণ করতে পারবেন যে, আপনি কোন তথ্য গুগলকে দিতে চান।

আপনি চাইলেই মাই গুগল অ্যাক্টিভিটি পেজে গিয়ে, ‘ওয়েব অ্যান্ড অ্যাপ অ্যাক্টিভিটি’ অপশনে ক্লিক করে গুগলকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য জানতে বাধা দিতে পারেন। মনে করেন, আপনার মোবাইলের জিপিএস অ্যাকটিভ করা। তাহলে আপনার বাড়ি কোথায়, কোথায় ঘুরতে যাচ্ছেন, আপনার অফিস কোথায়, এ সব তথ্য খবু সহজেই জেনে যেত গুগল।

এতদিন আপনার অগোচরে গুগল আপনার ব্যক্তিগত তথ্য এভাবেই সংগ্রহ করে রাখতো। এখনই চাইলেই আপনার সম্পর্কে কতটা গুগলকে জানতে দেবেন সেই অনুমতি দিতে পারবেন। যা এতদিন ছিল না।

গুগল অ্যাকাউন্টে অন/অফ ব্যবহার করে লোকেশন হিস্ট্রি এবং ওয়েব-অ্যাপ অ্যাকটিভিটি যেমন নিয়ন্ত্রণ করেন ঠিক তেমনই ম্যানুয়েলি ডিলিটও করতে পারবেন। পাশাপাশি অটো-ডিলিট ফিচারে সময়সীমা ঠিক করে সেটিকে অন রাখতে পারেন। সার্চের পর তিন মাস বা আঠারো মাসের পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডিলিট হতে থাকবে।

যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করবেন –
১. Visit myaccount.google.com and log in if you haven’t already.
২. Choose “Data & Personalization” on the left-side panel.
৩. Select the arrow next to “Web & App Activity.”
৪. Choose “Manage Activity.”
৫. Select “Choose to delete automatically.”
৬. Select either 18 months or three months.

baishak-20190414012915.jpg

বাংলা নতুন বছরে আজ বিশেষ ডুডল প্রদর্শন করছে গুগল। ডুডলটিতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে মঙ্গল শোভাযাত্রা। সবুজ জমিনের ওপর রঙিন শোভাযাত্রাটি রাজধানীর চারুকলা থেকে বের হওয়ার আদলে ডুডলে শোভা পেয়েছে। দেখা যাচ্ছে রয়েল বেঙ্গল টাইগারের প্রতিকৃতির শোভাযাত্রা। সেইসঙ্গে শোভা পাচ্ছে কাগজের তৈরি ঘোড়া, যা আবহমান বাঙলা সংস্কৃতির অংশ।

গুগলের হোমপেজে দেখানো বিশেষ লোগো হচ্ছে এ ডুডল। বিশেষ কোনো দিন বা বিশেষ কোনো ব্যক্তির জন্য সার্চ বক্সের ওপরে নিজেদের লোগো বদলে বিশেষ দিনটির সঙ্গে মানানসই নকশার যে লোগো তৈরি করে গুগল, তা–ই ডুডল।

জীর্ণ পুরাতন যাক ভেসে যাক, মুছে যাক গ্লানি’ এই প্রণতির ভেতর রাত পোহালেই নতুন দিন। নববর্ষকে বরণ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে দেশবাসী। সকালে রমনা বটমূলে সমবেত সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হবে দিনটি। সারা দেশের বিভিন্ন জায়গায় বসবে মেলা। অনেকেই বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করবেন। সেখানে প্রাধান্য থাকবে বাঙালি খাবারের। এটি এমন একটি উৎসব যা সব ধর্মের মানুষ অংশ নিতে পারেন। এ জন্য এ উৎসবকে সর্বজনীন উৎসবে আখ্যায়িত করা হয়।

google4.jpg

বুধবার (২০ মার্চ) বিশ্বের সবচেয়ে বড় সার্চ ইঞ্জিন ‘গুগল’কে ১৪ হাজার ৪০০ কোটি টাকা (১.৭ বিলিয়ন ডলার) জরিমানা করেছে ইউরোপীয় কমিশন।

ইউরোপীয় কমিশনার মার্গারেট ভেস্টাজার বুধবার বেলজিয়ামের রাজধানী ব্যাসেলসে এক সংবাদ সম্মেলনে এ জরিমানার ঘোষণা দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠানটিকে প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকা ও ২০১৭ সালে প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা জরিমানা করেছিল ইউরোপীয় কমিশন।

ইন্টারনেটে বিজ্ঞাপন প্রচারের ক্ষেত্রে পতিযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের ক্ষেত্রে অনৈতিকভাবে পেছনে রাখার অভিযোগে গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান ‘অ্যালফাবেট’কে এ জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার অংশ নির্ধারণে ২০১৮ সালে গুগলের মোট লেনদেনের ১ দশমিক ২৯ ভাগ ধার্য্য করা হয়েছে। এর পরিমাণ দাড়িয়েছে ১ দশমিট ৭ বিলিয়ন ডলার।

google-bolo-20190306175747.jpg

প্রত্যন্ত অঞ্চলে শিশুদের শিক্ষাব্যবস্থায় নতুনত্ব আনতে নতুন অ্যাপ নিয়ে এলো গুগল। Google Bolo নামের এই অ্যাপটি বুধবার থেকে প্লে-স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে।

এক বিবৃতিতে গুগল জানিয়েছে, আমরা মনে করি প্রযুক্তি বিশ্বের শিক্ষাব্যবস্থাকে বদলে দিতে পারে। সেজন্য অনেক দিন ধরেই বিভিন্ন প্রোডাক্ট তৈরি করছি। আশা করছি নতুন অ্যাপটি ছাত্র-ছাত্রীদের কাজে লাগবে। ইন্টারনেট ছাড়াও অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে।

আপাতত শুধু হিন্দি ভাষায় এই অ্যাপ কাজ করবে। অ্যাপটি শিশুদের হিন্দি ও ইংরেজি পড়ার ক্ষমতা বাড়াবে। শিশুকে উচ্চ কণ্ঠস্বরে পড়ার অভ্যাস তৈরিতে কাজ করবে।

এমনভাবে এই অ্যাপ ডিজাইন করা হয়েছে যে, বড়দের সাহায্য ছাড়াও শিশু নিজেই পড়তে ও বলতে শিখবে। স্পিচ রেকগনিশান ও টেক্সট টু স্পিচ ইঞ্জিন ব্যবহার করে কাজ করবে এই অ্যাপ।

প্রত্যেক শিশুর জন্য আলাদা ভাবে কাজ করবে গুগল বলো। একই বাড়িতে দুটি শিশু থাকলে দুজনের জন্য আলাদা অনুশীলনী তৈরি করবে এ অ্যাপ। এখনও বেটা মোডে রয়েছে এই অ্যাপ।

best-toilet.jpg

গুগলে ‘বেস্ট টয়লেট পেপার ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’ বা বিশ্বের সেরা টয়লেট পেপার লিখে সার্চ দিলে পাকিস্তানের পতাকার ছবি দেখাচ্ছে এই সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট। ধারণা করা হচ্ছে, ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত অধ্যুষিত কাশ্মীরে হামলার প্রতিবাদে গুগল সার্চের বিভিন্ন বিষয় পরিবর্তন করে ভারতীয় বিক্ষোভকারীরা এই ব্যবস্থা করেছে। খবর বিবিসি বাংলার।

কাশ্মীরে ওই হামলায় ভারতীয় আধা সামরিক বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স বা সিআরপিএফ-র অন্তত ৪২ জন নিহত হয়েছেন। কাশ্মীরে ভারতের শাসনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু হওয়ার পর থেকে এটিই ছিল সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী হামলা।

পাকিস্তানভিত্তিক ইসলামপন্থী জঙ্গি সংগঠন জৈইশ-ই-মুহাম্মদ দাবি করেছে যে, তারা এই আক্রমণের নেপথ্যে ছিল।

ভারত-শাসিত কাশ্মীরের পুলওয়ামাতে আত্মঘাতী হামলার পর এখন দেশের নানা প্রান্ত থেকে কাশ্মীরীদের ওপর হামলা ও চড়াও হবার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

পাকিস্তানের পতাকার সাথে টয়লেট পেপারের যোগসূত্রের বিষয়টি আলোচনায় আসে ১৪ ফেব্রুয়ারির হামলার পর তা নিয়ে সমালোচনা তৈরি হওয়া কয়েকটি ব্লগ ব্যবহারকারীদের আলোচনায়।

দ্রুতই এটি সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া তৈরি করে। ধারণা করা হচ্ছে, সামাজিক মাধ্যমে আলোচনায় আসার পর পতাকার সঙ্গে টয়লেট পেপারের যোগসূত্র খুঁজতে গিয়ে মানুষ গুগল সার্চ করার কারণে বিষয়টি বেশি করে গুগলের সার্চের তালিকার শীর্ষে আসছে।

এখন ‘বেস্ট টয়লেট পেপার ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’ বা বিশ্বের সেরা টয়লেট পেপার লিখে সার্চ দিলে ওই সংক্রান্ত বেশকিছু খবর তুলে ধরছে; কিন্তু এই সার্চটি দিয়ে গুগলে ছবি খুঁজলে শুরুতেই পাকিস্তানের পতাকা সম্বলিত বেশ কয়েকটি পেজের লিংক সামনে আসছে।

সেসব ছবির অনেকগুলো এ বিষয়ে তৈরি করা খবরে ব্যবহার করা ছবি। অন্যগুলো পাকিস্তানের পতাকার সাথে টয়লেট পেপারকে জড়িয়ে বিভিন্ন ব্লগে এবং সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত ছবি এবং ছবির স্ক্রিনশট।

এটি কীভাবে হওয়া সম্ভব, সে বিষয়ে গুগল এখনও কোনও মন্তব্য করেনি। বিশেষ কোনও বিষয়ে সার্চ করে গুগলে অদ্ভূত ফল পাওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম নয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভারতীয় প্রেসিডেন্ট নরেন্দ্র মোদিকে জড়িয়ে এর আগেও ব্যাঙ্গাত্মক এবং কোনও কোনও ক্ষেত্রে অসম্মানজনক কন্টেন্ট তৈরি করে গুগল সার্চের মাধ্যমে প্রচার করা হয়েছিল।

pichai8.jpg

গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাইয়ের ওপর আস্থা নেই বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মীরা। প্রতি বছর গুগলের কর্মীদের নিয়ে গুগলজাইস্ট সমীক্ষা হয়। কর্মীরা কতটা সন্তুষ্ট, শীর্ষ নেতৃত্বের ওপর আস্থা আছে কিনা, সংস্থার ভবিষ্যৎ নিয়ে আশাবাদী কিনা-এসব জানতে চাওয়া হয় ওই সমীক্ষায়। আর এতেই পিচাইয়ের ওপর আস্থা নেই বলে জানিয়েছেন গুগল কর্মীরা।আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছরের শুরুতে তেমনই একটি সমীক্ষা করা হয়।

ওই সমীক্ষায় দেখা গেছে, সুন্দর পিচাইয়ের জনপ্রিয়তা এবং তার নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে প্রতিষ্ঠানটির কর্মীদের মনে।গুগলকে আরও দক্ষতার সঙ্গে ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে পিচাইয়ের নেতৃত্বের ওপর কতটা আস্থা আছে? সমীক্ষায় এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ৭৪ শতাংশ কর্মীর কাছ থেকে ইতিবাচক উত্তর পাওয়া গেছে। তবে এই হার গতবারের চেয়ে ১৮ শতাংশ কম। সমীক্ষায় আরও একটি বিষয় ছিল যেখানে পিচাইয়ের সিদ্ধান্ত ও কৌশল নিয়েও কর্মীদের কাছে জানতে চাওয়া হয়। এ ক্ষেত্রেও যে ইতিবাচক উত্তর মিলেছে, তা গত বারের তুলনায় অনেকটাই কম।মোট ৮৯ শতাংশ কর্মী এই সমীক্ষায় অংশ নেন।

পিচাইয়ের নেতৃত্ব, কৌশল ও সিদ্ধান্তে কর্মীদের আস্থা প্রদর্শনের পাল্লা ভারী হলেও, কিছু কর্মী তার প্রতি আস্থা হারিয়েছেন। আর এটাকেই উদ্বেগজনক পরিস্থিতি বলে উল্লেখ করেছে বিশেষজ্ঞরা।গুগল তার কর্মীদের সব ধরনের সুবিধা দিয়ে থাকে। এর মধ্যে বেতন থেকে শুরু করে উন্নত কাজের পরিবেশ, কর্মীদের স্বাচ্ছন্দ্য ইত্যাদি সবকিছুই নিশ্চিত করে তারা। এজন্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সমীক্ষায় যে উদ্বেগজনক রিপোর্ট উঠে এসেছে এ রকম চলতে থাকলে বহু প্রতিভাবান কর্মীকে হারাবে গুগল। আর সেই ফায়দা নেবে অন্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো।

google45.jpg

ইউরোপীয় ইউনিয়নের জেনারেল ডাটা প্রটেকশন রেগুলেশন(জিডিপিআর) আইন লঙ্ঘনের দায়ে টেকনোলজি কোম্পানি গুগলকে ৫০ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা করেছে ফ্রান্সের তথ্য পর্যবেক্ষক সংস্থা সিএনআইএল।

সোমবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ ও ব্যবসা সংক্রান্ত নিউজ ওয়েবসাইট বিজনেস ইনসাইডার।

সিএনআইএল বলছে, গুগল ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য নিয়ে কী করে তা স্পষ্টভাবে জানায় না। কোম্পানিটির তথ্য সংগ্রহের প্রক্রিয়াটি ‘বিশেষভাবে ব্যাপক ও অনধিকারপ্রবেশমূলক’। এছাড়া বিজ্ঞাপন দেখানোর আগে ব্যবহারকারীদের সম্মতি আছে কিনা তা সঠিকভাবে জানতে চায় না গুগল।

এটি গত বছরের ২৫ মে কার্যকর হওয়া জিডিপিআর আইনের একটি উল্লেখযোগ্য প্রয়োগ। এক্ষেত্রে ফরাসি কর্তৃপক্ষ বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেছে। তবে এর বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবে গুগল।

সিএনআইএল’র তদন্তে বড় ধরনের ভূমিকা পালন করেছে একাধিক টেক ফার্মের বিরুদ্ধে মামলাকারী প্রাইভেসি অ্যাক্টিভিস্ট ম্যাক্স স্ক্রিমস এবং ফরাসি প্রাইভেসি গ্রুপ ‘লা কোয়াদ্রাত্যুর দু নেট’।

স্ক্রিমস এক বিবৃতিতে বলেছেন, প্রথমবারের মতো কোনও ইউরোপীয় তথ্য সুরক্ষা কর্তৃপক্ষ জিডিপিআর আইন লঙ্ঘনের দায়ে একটি কোম্পানিকে জরিমানা করায় আমরা খুবই আনন্দিত। জিডিপিআর’র প্রথম অংশটুকু পড়লেই স্পষ্ট হয়ে যায় গুগলের মতো বড় করপোরেশন আইন মানার ক্ষেত্রে কতটা উদাসীন।

তিনি বলেছেন, গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে হলো কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে যে অভিযোগের পর ভুল স্বীকার করা যথেষ্ট নয়। আমাদের তথ্য সুরক্ষা আন্দোলন ফলপ্রসূ হচ্ছে। এটা ভেবে আরও ভালো লাগছে। আমি আমাদের সমর্থকদেরকে ধন্যবাদ দিতে চাই। কারণ তারা আমাদের কাজকে সম্ভাব্য করতে সাহায্য করেছে।

গুগলের একজন মুখপাত্র যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ‘ব্লুমবার্গ’কে বলেন, মানুষ আমাদের কাছ থেকে উচ্চমানের স্বচ্ছতা ও নিয়ন্ত্রণ প্রত্যাশা করে। আমরা এই প্রত্যাশা পূরণ করতে এবং জিডিপিআর আইন মানতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞা। এই ঘটনায় আমাদের পরবর্তী পদক্ষেপ নির্ধারণ করতে আমরা সিদ্ধান্তটি খতিয়ে দেখছি।

google45.jpg

স্থানীয় সংবাদ প্রকাশকদের খবর প্রকাশের জন্য নতুন প্লাটফর্ম আনছে গুগল। গুগোলের এ উদ্যোগ সংবাদ প্রকাশকদের ডিজিটাল প্লাটফর্মে যাওয়ার চ্যালেঞ্জগুলো অনেকটাই কমিয়ে আনবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ প্রকল্পের জন্য ইতিমধ্যে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠান অটোমেটিক এবং ওয়ার্ডপ্রেস ডটকমের সঙ্গে চুক্তি করেছে গুগল নিউজ ইনিশিয়েটিভ। নতুন প্লাটফর্ম ‘নিউজপ্যাক’ তৈরি করতে ইতিমধ্যে ১২ লাখ মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে গুগল।

গুগলের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘দ্রুতগতির, নিরাপদ, কম খরচের প্রকাশনা প্লাটফর্ম হল নিউজপ্যাক, যা ছোট নিউজ রুমগুলোর চাহিদা মেটাবে।’ চলতি বছরের শেষ দিকে প্লাটফর্মটি উন্মুক্ত করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

গুগল সার্চের পণ্য ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিম অ্যালব্রেট বলেন, ‘পত্রিকাগুলো যখন ডিজিটাল প্লাটফর্মে প্রকাশনা শুরু করতে যায় তখন তাদেরকে কর্মী, প্রকাশনা ও প্রতিবেদক কমাতে হয়, এতে তারা প্রযুক্তিগত ও ব্যবসায়িক সমস্যার মধ্যে পড়ে।’ ‘সাংবাদিকদের উচিত তাদের খবর লেখা এবং তাদের কমিউনিটিতে মনযোগ দেয়া, ওয়েবসাইট নকশা, সিএমএস সাজানো বা বাণিজ্যিক ব্যবস্থা তৈরি নিয়ে চিন্তা করা উচিত নয়।’ ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের তৈরি সব প্লাগইনস ব্যবহার করা যাবে নিউজপ্যাকে।
কিন্তু মূল ব্যবস্থার সব ফিচার হয়তো সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে না। গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়, নিউজপ্যাকের ফিচার সেট নিয়ে উপদেশও দেবে তারা। আর এতে গুগল পণ্য অন্তর্ভুক্ত করতে প্রযুক্তিগত সমর্থনও দেয়া হবে।

mosa-2-20181204113917.jpg

শীতকাল মানেই মশার প্রকোপ বাড়বে। আর মশা মারতে আমরা কত রকম অনেক কিছুই ব্যবহার করা হয়। কিন্তু কিছুতেই কিছু হয় না। মশার কামড় তো খেতেই হয় সঙ্গে নানারকম অসুখেও পরতে হয়।

কিন্তু শুনে অবাক হবেন যে, সারা পৃথিবীতেই মশা ও মশাবাহিত রোগ বিনাশ করতে কাজ করতে শুরু করেছে গুগল। প্রযুক্তির সাহায্যেই মশার ব্যাকটেরিয়া নিয়ন্ত্রণ করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

পরীক্ষামূলক ভাবে কাজ চলছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ফ্রেসনো কাউন্টিতে। ওলবাচিয়া নামের একটি ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ করানো হচ্ছে পুরুষ মশার শরীরে। তবে এই ধরনের ব্যাকটেরিয়া মানুষ ও অন্যান্য পশুপাখির ক্ষেত্রে ক্ষতিকারক নয়। এই বিপুল সংখ্যক পুরুষ মশা ছাড়া হচ্ছে নানা এলাকায়।

এই পরীক্ষামূলক প্রকল্পটির অন্যতম সদস্য ও বিজ্ঞানী জ্যকব ক্রফোর্ড জানান, পুরুষ এডিস মশাগুলো স্ত্রী মশার সঙ্গে মিলিত হলেই মশার বংশ ক্রমে ধ্বংস হবে।

google4.jpg

শত শত কর্মী এক অভূতপূর্ব কর্মবিরতিতে যোগ দিয়েছেন বিশ্বজুড়ে গুগলের অফিসগুলোতে। তারা গুগলে নারী কর্মীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ এখন যে পদ্ধতিতে মিটমাট করা হয়, তার প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

বিষয়টি সমর্থন করেন গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাই। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘আপনাদের মনে যে ক্ষোভ এবং হতাশা কাজ করছে, আমি সেটা বুঝতে পারি। যে সমস্যাটা আমাদের সমাজে বহু বছর ধরে বিরাজ করছে, তার বিরুদ্ধে অগ্রগতির ক্ষেত্রে আমি পুরোপুরি অঙ্গীকারবদ্ধ।’

গুগলের কর্মীরা তাদের কাজ ফেলে অফিস থেকে বেরিয়ে আসেন, তারা তাদের ডেস্কে একটি নোট লিখে রেখে যান। সেখানে লেখা ছিল, ‘আমি আমার ডেস্কে নেই, কারণ আমি অন্য গুগল কর্মী এবং কন্ট্রাক্টরদের সঙ্গে মিলে যৌন হয়রানি, অসদাচরণ, স্বচ্ছতার অভাব ইত্যাদির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে অংশ নিতে অফিস থেকে বেরিয়ে যাচ্ছি।’

গুগল কর্মীরা কোম্পানির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের কাছে যেসব দাবি জানাচ্ছেন তার মধ্যে আছে:

১. গুগলের বর্তমান বা ভবিষ্যত কর্মীদের বেলায় হয়রানি বা বৈষম্যের অভিযোগ উঠলে তা সালিশের মাধ্যমে নিস্পত্তির বাধ্যবাধকতা তুলে দেয়া।

২. বেতন এবং সুযোগ সুবিধার ক্ষেত্রে বৈষম্য বিলোপের অঙ্গীকার

৩. যৌন হয়রানির বিষয়ে রিপোর্ট জনসমক্ষে প্রকাশ

৪. যৌন অসদাচরণের অভিযোগ যেন নিরাপদে এবং অজ্ঞাতনামা হিসেবে দায়ের করা যায়, তার ব্যবস্থা করা

গুগলে এই ব্যাপক ক্ষোভ-প্রতিবাদের সূচনা হয় এক উচ্চপদস্থ নির্বাহী কর্মকর্তা অ্যান্ডি রুবিনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগকে ঘিরে।

অ্যান্ডি রুবিন অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করেছেন। তিনি সম্প্রতি গুগলের চাকুরি ছেড়ে দেন। কিন্তু তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগ থাকার পরও তাকে চাকুরি ছাড়ার সময় মোট নয় কোটি ডলার দেয়া হয়েছিল।

গত সপ্তাহে এই পুরো বিষয়টি ফাঁস হওয়ার পর কোম্পানির কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

একই ধরণের অভিযোগ উঠেছে গুগলের এক্স রিসার্চ ল্যাবের আরেক নির্বাহীর বিরুদ্ধেও। তিনিও কোম্পানি থেকে পদত্যাগ করেছেন।