জামাল ভুঁইয়া Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

Jamal_vai_pic.jpg

বাংলাদেশ-নেপালের মধ্যে দ্বিতীয় ম্যাচ চলাকালীন এক দর্শক মাঠে ঢুকে বাংলাদেশ ফুটবল দলের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়াকে জড়িয়ে ধরে সেলফি তোলেন।

এ সময় ম্যাচের নিরাপত্তায় থাকা পুলিশ সদস্যরা তাকে ধরে থানায় নিয়ে যান।

তবে মঙ্গলবার রাতেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক।

দৈনিক আমাদের সময়কে মুঠোফোনে ওসি বলেন, ‘আটক কিশোর নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। গতকাল রাতেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।’

ম্যাচ শেষে এই কিশোরকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলেছিলেন অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া।

গতকাল বিকেলে শুরু হওয়া মুজিববর্ষ ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে এ ঘটনা ঘটে।

এই ম্যাচে বাংলাদেশ ড্র করলেও আগের ম্যাচে ২-০ গোলে জয়ের কারণে শিরোপা জিতে নেন জামালরা।

সেলফি তুলতে যাওয়া ওই এই কিশোরের নাম হাসিফ।  তিনি রাজধানীর ডেমরা এলাকার বাসিন্দা। ওই ঘটনার পর পুলিশ তাকে  থানায় নিয়ে যায়।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) একটি সূত্র জানিয়েছিল, সেলফি তোলা ওই কিশোরকে জামাল ছেড়ে দিতে বলেছেন।

তবে তিনি এখন পুলিশের জিম্মায় থাকায় তাকে ছাড়া না ছাড়া পুলিশের ব্যাপার।’

jamal-bhuyan-lead.png

করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন যাবৎ বন্ধ দেশের ফুটবল। এই সময়টা ইউরোপেই কাটাচ্ছেন জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া।

অলস সময় না কাটিয়ে লা লিগায় নিয়মিত ম্যাচ বিশ্লেষক হিসেবে কথা বলছেন তিনি।

সেখানে কথা বলে প্রতি ম্যাচ থেকে প্রায় পৌনে দুই লাখ টাকা করে আয় করছেন দেশের ফুটবলের পোস্টার বয়।

সম্প্রতি দেশের এক গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই তথ্য জানান জামাল ভুঁইয়া।

সেখানে তিনি বলেন, এবার ২৩-২৪ দিন স্পেনের বার্সেলোনায় ছিলাম। সব মিলিয়ে সাত-আটটি ম্যাচে বিশ্লেষণ করেছি।

ম্যাচপ্রতি ২ হাজার ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা) সম্মানীও পাই।

মধ্যমাঠের এই তারকা লা লিগায় ম্যাচ বিশ্লেষণের অভিজ্ঞতা জানিয়ে আরো বলেন, সেখানে উন্নত মানের হোটেলে থাকার ব্যবস্থা থেকে শুরু করে যাতায়াত ও খাওয়াদাওয়া সব ব্যবস্থাই আয়োজকেরা করে থাকেন।

বলা যায় সব মিলিয়ে অভিজ্ঞতাটা ভালো। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আমি বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক হিসেবেই লা লিগায় ম্যাচ বিশ্লেষণ করছি।

সম্প্রতি ফুটবলারদের গত মৌসুমের পারিশ্রমিক ৩৫ শতাংশ দেয়ার ব্যাপারে কথা বলেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।

সে সম্পর্কে জামাল বলেন, আপনাকে যদি জিজ্ঞাসা করি কেমন পারিশ্রমিক আশা করেন তখন আপনি কিন্তু ১০০ ভাগের কথাই বলবেন।

যেকোনো পেশার মানুষই হোন না কেন, সবাই ১০০ ভাগই আশা করেন। পরিস্থিতির বিচারে ৪০ ভাগ হলেও ঠিক ছিল।

আমাদের পারিশ্রমিকটা কম হয়ে গেল। সভাপতি তো ৪০ ভাগের কথাই বলেছিলেন।