পাকিস্তান Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

sushma-swaraj-20190419212713.jpg

কাশ্মীরে পুলওয়ামা হত্যাকাণ্ডের পর প্রতিশোধ হিসেবে পাকিস্তানে ঢুকে ভারত যে বিমান হামলা চালায় তাতে কোনো পাকিস্তানি সৈন্য কিংবা সাধারণ মানুষ নিহত হয়নি বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

সুষমা স্বরাজের এমন বক্তব্যের পর সন্তুষ্টি জানিয়েছে পাকিস্তান। দেশটির আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘শেষ পর্যন্ত সত্যটা উন্মোচিত হলো।’

আত্মরক্ষার্থেই বিমান হামলা করা হয়েছে দাবি করে সুষমা স্বরাজ বলেন, ‘পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলার পর আমরা যখন সীমান্তে বিমান হামলা চালাই তখন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বলেছিলাম, নিজেদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই এমন পদেক্ষেপ নিয়েছি আমরা।’

সুষমা স্বরাজ আরও বলেন, ‘আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে জানানো হয়েছে, আমরা সেসময় সামরিক বাহিনীকে এই নির্দেশনা দিয়েছিলাম যে তারা যখন হামলা চালাবে তখন যেন পাকিস্তানি নাগরিক এবং তাদের সেনাদের কোনো ক্ষতি না হয়। হামলার লক্ষ্য যেন হয় শুধু জইশ-ঈ-মোহাম্মদের ঘাঁটি।’

সুষমা স্বরাজ বলেন, ‘আমাদের বাহিনী সেই নির্দেশনা মতোই হামলা চালিয়েছে। আর তাতে পাকিস্তানের কোনো সৈন্য কিংবা সাধারণ মানুষের ক্ষতি হয়নি।’ জইশ মোহাম্মদ যে পুলওয়ামায় হামলা চালিয়েছিল তারও উল্লেখ করেন তিনি।

মেজর জেনারেল আসিফ গফুর বলেছেন, তিনি আশা করেন ভারত সেই হামলায় সফল হয়েছে বলে যে মিথ্যা দাবি করেছিল তার বিপরীতে যে সত্যটা আছে তা খুব শিগগিরই উন্মোচিত হবে। পাকিস্তানের দুটি বিমান ভূপাতিত করার ভারতীয় দাবিকে মিথ্যা বলে অভিহিত করেন তিনি।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরে সিআরপিএফ এর গাড়িবহরে জঙ্গি হামলায় ৪০ জওয়ানের প্রাণহানি ঘটে। পরে পাক-অধিকৃত কাশ্মীরে যুদ্ধবিমান থেকে অভিযান চালায় ভারতীয় বিমানবাহিনী। পরদিন দুই দেশের আকাশসীমায় পাল্টাপাল্টি যুদ্ধবিমানের অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে।

পাকিস্তান ভারতীয় বিমানবাহিনীর দু’টি বিমান ভূপাতিত এবং একজন পাইলটকে আটকের দাবি জানায়। পাকিস্তানের বালাকোটের সেই বিমান হামলায় অন্তত ২৫০ থেকে ৩০০ জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে দাবি করে ভারত।

qureshi-1549618538-8046.jpg

এপ্রিল মাসে আবার পাকিস্তানে একটি হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত। রবিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ কুরেশি এ কথা বলেন।

এক প্রতিবেদনে রয়টার্স জানিয়েছে, ভারত হামলা চালাতে পারে এমন তথ্য পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার কাছে আছে বলে জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এ মাসের ১৬ ও ২০ তারিখের মধ্যে হামলা চালাতে পারে ভারত। ইতিমধ্যে জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলের স্থায়ী পাঁচ সদস্যকে এ হামলার বিষয়ে পাকিস্তান জানিয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এপ্রিলে ভারত হামলা চালাতে পারে এবিষয়ে তাদের (পাকিস্তান) কাছে কি প্রমাণ আছে এ বিষয়ে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিস্তারিত কিছু জানাননি। অন্যদিকে এ হামলার বিষয়ে ভারতের পক্ষ থেকে কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামাতে এক জঙ্গি হামলায় ভারতের ৪৩ জনের বেশি জওয়ান নিহত হয়েছে। এছাড়া ওই হামলায় ৪০ জনের বেশি সেনা আহত হয়। এ হামলার জেরে ভারত পাকিস্তানের মধ্যে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এছাড়া এরপর এনিয়ে দেশ দুইটি একে অপরের সীমান্ত ভেদ করে কয়েক দফায় হামলা চালায়।

india-20190318212613.jpg

পুলওয়ামা হামলার পর ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্ক স্মরণকালের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায়। যার প্রভাব পড়ছে ক্রীড়াঙ্গনেও। পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপের মতো বড় ইভেন্টেও ম্যাচ খেলতে নারাজ ভারত।

ভারত আইসিসির কাছে আবেদন করেছিল, আসন্ন বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে পুরো টুর্নামেন্ট থেকেই নিষিদ্ধ করতে। আইসিসি তাতে সাড়া দেয়নি। গ্রুপপর্বে দুই দল মুখোমুখি হবে। এখনও কথা চলছে, ওই ম্যাচটি ছেড়ে দিতে পারে ভারত।

যদিও তাতে ঝুঁকি থাকছে। এবারে টুর্নামেন্টের ফরমেটটা এমন, গ্রুপপর্বে দুই পয়েন্ট ছেড়ে দিলে সেমিফাইনালে উঠার পথও কঠিন হয়ে যেতে পারে ভারতের।

সেক্ষেত্রে ভারত ওমন ঝুঁকি নেবে কিনা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। তবে দলটির সাবেক ওপেনার গৌতম গম্ভীর মনে করেন, শুধু গ্রুপপর্বে নয়, যদি পাকিস্তানের সঙ্গে ফাইনালেও খেলা পড়ে, তবু ভারতের উচিত ম্যাচটা ছেড়ে দেয়া।

পাকিস্তানের বিষয়ে মাঝামাঝি অবস্থানে থাকার কোনো সুযোগই দেখছেন না গম্ভীর। কন্ঠে তার কঠিন প্রতিবাদ, ‘শর্তসাপেক্ষে কোনো নিষেধাজ্ঞা হতে পারে না। হয় আপনি পাকিস্তানের সঙ্গে সবকিছু বন্ধ করেন, না হয় সব খুলে দিন। পুলওয়ামাতে যা ঘটেছে, তা নিঃসন্দেহে মেনে নেয়ার মতো নয়। আমি জানি আইসিসির টুর্নামেন্টে পাকিস্তানকে বয়কট করা কঠিন হবে ভারতের জন্য। তবে তারা এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলা বন্ধ করতে পারে।’

২০০৩ সালের বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে জিম্বাবুয়েতে রাউন্ড রবিন লিগ ম্যাচ ছেড়ে দিয়েছিল ইংল্যান্ড। যদি ভারতীয় বোর্ডও এমন সিদ্ধান্ত নেয়, তবে সবাইকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানালেন গম্ভীর।

সাবেক এই ওপেনার বলেন, ‘দুই পয়েন্ট গুরুত্বপূর্ণ নয়। দেশ গুরুত্বপূর্ণ, নিহত ৪০ সেনা একটি ক্রিকেট ম্যাচের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যদি আমরা বিশ্বকাপের ফাইনালেও (তাদের পেয়ে) যাই, তবেও ম্যাচ ছেড়ে দেয়ার প্রস্তুতি রাখা উচিত। সমাজের কেউ কেউ বলছেন, খেলার সঙ্গে রাজনীতি জড়ানো উচিত নয়। কিন্তু একটি ক্রিকেট খেলার চেয়ে জওয়ানরা অবশ্যই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

4xA.jpg

সোমবার (১১ মার্চ) ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় ভারত থেকে পাকিস্তানের দিকে প্রবাহিত তিনটি আন্তর্জাতিক নদীর গতি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত।

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় বোমা হামলার পর পাকিস্তান-ভারতের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয়ার পর এমন পদক্ষেপ নিলো ভারত। এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের খবর।

সোমবার ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন মেঘওয়াল রাজস্থানে ঘোষণা করেছেন, নয়াদিল্লি তিনটি নদীর .৫৩ মিলিয়ন একর ফুট পানি বন্ধ করেছে যা পাকিস্তানের দিকে প্রবাহিত ছিল। এ বন্ধ করা পানি রাজস্থান বা পাঞ্জাবের প্রয়োজন। পানি পান করার কাজে অথবা ইরিগেশনের জন্য ব্যবহার হবে।

এর আগে ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলার পর আরেকজন ভারতীয় মন্ত্রী নিতিন গাদকারী একই কথা ঘোষণা করেছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধাসামরিক বাহিনীর গাড়িবহরে হামলায় অন্তত ৪৯ আধাসামরিক জওয়ান নিহত হন। ভারত এ হামলার পেছনে পাকিস্তানের মদদ রয়েছে বলে দাবি করে আসছে। এ নিয়ে দু’দেশের মধ্যে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছিল।

আর এই হামলার জেরে কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাকিস্তানের বালাকোটে বিমান হামলা চালায় ভারতীয় বাহিনী। পাকিস্তানের অভ্যন্তরে ভারতীয় দুটি বিমান ঢুকে পড়লে পাকিস্তান তা ভূপাতিত করে ভারতীয় পাইলটকে আটক করে পাকিস্তান। তিন দিন আটক রাখার পর গত শুক্রবার তাকে ফেরত দেয়া হয়।

drone-20190310215350.jpg

পাকিস্তানের আরও একটি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি করছে ভারত। শনিবার আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে রাজস্থান রাজ্যের পাক-ভারত সীমান্তের আকাশসীমা থেকে ড্রোনটি ভূপাতিত করা হয় বলে এক বিবৃতির মাধ্যমে জানিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী।

গত মাসে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় আধাসামরিক বাহিনীর অন্তত ৪০ জওয়ান নিহত হওয়ার পর দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যে এ নিয়ে পাকিস্তানের তিনটি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি করলো নয়া দিল্লি।

ভারতের সেনাবাহিনী বলছে, নতুন কোনো লক্ষ্য নিয়ে ড্রোনটি সীমান্ত পার হয়ে ভারতের আকাশসীমায় প্রবেশ করে। নজরে আসার পর তারা দ্রুত তা বিধ্বস্ত করে ফেলে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

গত সোমবার রাজস্থানের বিকানেরের নাল সেক্টরের কাছে ভারতের আকাশসীমায় ঢুকে পড়া পাকিস্তানের একটি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি করে ভারত। দেশটির পক্ষ থেকে বলা হয়, আকাশসীমা লঙ্ঘন করা মাত্রই তা ধরা পড়ে বিমানবাহিনীর রাডারে। সঙ্গে সঙ্গে হামলা চালায় সুখোই-৩০এমকেআই বিমান। ফলে মাঝ আকাশেই ধ্বংস হয়ে যায় ড্রোনটি।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে পাকিস্তানের মূল ভূখণ্ডে ঢুকে ভারতীয় বিমান বাহিনীর মিরাজ ২০০০ যুদ্ধবিমান দিয়ে হামলা করে জঙ্গিঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয়ার দাবি করে। সেদিনই গুজরাট রাজ্যের কুচ জেলার সীমান্তে দেখা যায় পাকিস্তানের আরেকটি ড্রোনকে। পরদিন পাকিস্তান ভারতের দুটি বিমান ভূপাতিত করে পাইলটকে আটক করলে দুই দেশের উত্তেজনা চরমে পৌঁছায়।

pilot8.jpg

ভারতের দু’টি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার দাবি তুলে পাকিস্তান জানিয়েছে, তারা ভারতের দুই পাইলটকে আটক করেছে। এদের একজন অভি নন্দন। আটক করার সময়ের যে ভিডিও পাকিস্তান প্রকাশ করেছিল সেখানে অভির মুখ দিয়ে রক্ত ঝরছিল এবং তাকে বিপর্যস্ত লাগছিল। তবে এবার তাকে জিজ্ঞাসাবাদের একটটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। ভিডিওতে চায়ের কাপ হাতে অভিকে বলতে শোনা যায়, তিনি পাকিস্তানি সেনাদের আচরণে মুগ্ধ। অভি নন্দন জিজ্ঞাসাবাদ করা পাকিস্তান আর্মির ওই সদস্যকে মেজর বলে সম্বোধন করেন। খবর দ্য ডনের।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে অভিনন্দনকে পাকিস্তানি মেজরের নানা প্রশ্নের মুখোমুখি হতে দেখা যায়। এসময় অভিনন্দন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রশংসা করেন। তারা আপদমস্তক ভদ্রলোক বলে মন্তব্য করেন তিনি।

যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর তাকে উদ্ধার করায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান অভি। চা ‘চমৎকার’ হয়েছে বলে তার জন্যও ধন্যবাদ দেন ভারতীয় উইং কমান্ডার।

উইং কমান্ডার অভি নন্দন বলেন, আমি যদি আমার দেশে ফিরে যেতে পারি তখনো আমার অবস্থান পরিবর্তন হবে না। এমন ব্যবহারই আমি অন্য আর্মির কাছ থেকে আশা করি।

এরপর তাকে জিজ্ঞাসা করা হয় ভারতের কোথায় আপনার বাড়ি? উত্তরে তিনি বিনীতভাবে বলেন, মেজর, আমার কি আপনাকে এটা বলার কথা? তবে এটুকু বলি আমার বাড়ি নিম্ন দক্ষিণ ভারতের দিকে।

এরপরের প্রশ্ন ছিল আপনি কি বিবাহিত? অভি বলেন, হ্যাঁ।

পাকিস্তানি মেজর আরও প্রশ্ন করেন, কোন যুদ্ধবিমানটি আপনি চালাচ্ছিলেন? এই প্রশ্নের উত্তরে অভি নন্দন একটু দ্বিধাবোধ করে বলেন, আমি দুঃখিত, আপনারা ইতোমধ্যেই রেকর্ডস পেয়ে তা জেনে থাকবেন।

এরপর তাকে আরও প্রশ্ন করা হয়, আপনার মিশন কী ছিল?

এ প্রশ্নের উত্তরে বিনীতভাবে এড়িয়ে অভিনন্দন বলেন, দুঃখিত আমার এটা আপনাকে বলার কথা না।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ভারতের বিশেষায়িত নিরাপত্তা বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় ৪৪ জওয়ান নিহত হন।

জঙ্গিদের মদত দেওয়ার জন্য ইসলামাবাদকে অভিযুক্ত করে এর মোক্ষম জবাব দিতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোরের দিকে পাকিস্তানের বালাকোট শহরে জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদের আস্তানায় হামলা চালায় ভারতীয় বিমান বাহিনী। হামলায় প্রায় ৩০০ জঙ্গি নিহত হয় বলে দাবি করে ভারত। এর একদিন পরই ভারতের দু’টি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত ও দু’জন পাইলট আটক করার দাবি করে পাকিস্তান।

paki9.jpg

পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইটারে বলেন, পাকিস্তান সীমান্তে ভারতীয় বিমান বাহিনীর দুটি বিমান গুলি ধ্বংস করা হয়েছে। এছাড়া ভারতের অংশেও আরেকটি বিধ্বংস্ত হয়েছে। পাকিস্তানের এক সামরিক মুখপাত্রের বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর দিয়েছে। এছাড়া একজন ভারতীয় পাইলটকে আটক করার কথাও জানা গেছে।

এর আগে ভারতনিয়ন্ত্রীত কাশ্মীরের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তানি যুদ্ধ বিমান। বুধবার এসব বিমান ভারতীয় আকাশে ঢুকে পড়লেও নিজ সীমায় ফিরে যেতে বাধ্য করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপির। এর আগে মঙ্গলবার নিয়ন্ত্রণ রেখা (লাইন অব কন্ট্রোল) পেরিয়ে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বালাকোটে বোমা হামলা চালিয়েছে ভারতীয় বিমান বাহিনী।

স্থানীয় সময় ভোর রাতে ১২টি মিরেজ-২০০০ জঙ্গিবিমান জঈশ-ই-মোহাম্মদ, হিজবুল্লাহ মুজাহেদীন ও লস্কর-ই-তৈয়েবার স্থাপনা টার্গেট করে হামলা চালায়। বোমাবর্ষণ করা হয়েছে মুজাফফরাবাদ ও ছাকোতি শহরেও। এ সময় এক হাজার কেজি বোমা ফেলা হয়। মঙ্গলবার পাল্টা হামলার হুমকি দিয়েছে পাকিস্তানও। ভারতের হামলার পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেন।

তিনি শীর্ষস্থানীয় মন্ত্রী, সেনাপ্রধান ও উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তাসহ সশস্ত্র বাহিনীকে যে কোনো পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেছেন। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর বলেছেন, ‘বুধবার (আজ) পার্লামেন্টে যৌথ অধিবেশন হবে।

এরপরই পরমাণু অস্ত্রবিষয়ক কমিটি ন্যাশনাল কমান্ড অথরিটির (এনসিএ) সঙ্গে বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী।’ এ হামলায় ভারত তিনশ’ নিহতের যে দাবি করেছে পাকিস্তান তা প্রত্যাখ্যান করে। এদিকে হামলার পর থেকে ভারতের সব বিমানবন্দরে সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

pak-20190226224946.jpg

ভারতীয় সীমান্ত এলাকার শূন্যরেখায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর ভারী মর্টারশেল হামলায় দুই ভারতীয় নাগরিক নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, এ হামলায় অনেকে আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৬টার দিকে ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুঞ্চ জেলায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র জানান, পুঞ্চ এলাকায় নিয়ন্ত্রণ লাইনের কাছে পাকিস্তান যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে ভারী মর্টারশেল ও অস্ত্র দিয়ে এ হামলা চালায়। এতে অনেকে আহত হয়েছেন। ওই এলাকার পুলিশ দাবি করছে, পাক সেনারা গ্রামবাসীর ওপর মর্টার বোমা হামলা চালিয়েছে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় ভারতের কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) কমপক্ষে ৪৬ সদস্য নিহত হয়েছেন। ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদ। এরপর থেকেই ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এর মাঝেই মঙ্গলবার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে ১২টি মিরাজ-২০০০ জঙ্গিবিমান নিয়ে পাক-অধিকৃত কাশ্মীরে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের আস্তানায় অভিযান চালায় ভারতীয় নৌ-বাহিনী। বিমান থেকে এক হাজার কেজি বোমা বর্ষণ করে জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের বেশ কিছু ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে নয়াদিল্লি।

এ নিয়ে দুই দেশের মাঝে যুদ্ধংদেহী অবস্থা বিরাজ করছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির সঙ্গে জরি এক বৈঠকের পর সেনাবাহিনী ও দেশের সাধারণ মানুষকে যেকোনো ধরনের পরিস্থিতিতে তৈরি থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে, পাক-কাশ্মীরে অভিযানের ব্যাপারে ১২টি দেশের প্রতিনিধিকে জানিয়েছে নয়াদিল্লি। মঙ্গলবার বিকেলের দিকে ভারতের পররাষ্ট্রবিষয়ক সচিব বিজয় গোখলে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, তুরস্কসহ আসিয়ানের সদস্য ছয় দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক বৈঠক করেন।

বৈঠকে ভারতীয় বিমান বাহিনী সীমান্ত রেখা পেরিয়ে কাশ্মীরে জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের আস্তানা গুঁড়িয়ে দিয়েছে বলে প্রতিনিধিদের অবহিত করেন তিনি।

ভারত বলছে, কাশ্মীরে ভারতীয় অভিযানে জয়েশের প্রধান মাসুদ আজহারের শ্যালক ইউসুফ আজহারসহ অন্তত ৩০০ জঙ্গি মারা গেছেন। তবে হামলায় কোনো ধরনের হতাহত কিংবা ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। তারা বলছে, পাকিস্তানের যথাযথ জবাবে পালিয়ে গেছে ভারতীয় বিমান।

india-20190226135127-1.jpg

নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সন্ত্রাসীদের বেশ কয়েকটি ঘাঁটি ও লঞ্চ প্যাডে হামলা চালিয়েছে ভারত। এতে অন্তত ৩০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে ১২টি মিরাজ ২০০০ যুদ্ধবিমান পাক জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে এক হাজার কেজি বোমা বর্ষণ করেছে।

pakistan-1

পাক সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। তারা মুজাফফরাবাদ সেক্টরে অনুপ্রবেশ করেছে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পরপরই বেশ কয়েকটি টুইট করেছেন তিনি।

এক টুইট বার্তায় তিনি দাবি করেছেন, ভারতীয় সামরিক বিমান তাদের আকাশসীমা লঙ্ঘন করার পর পাকিস্তানি জঙ্গি বিমানের ‘তাড়া খেয়ে পালানোর’ আগে বালাকোটের কাছে ‘বোমা ফেলে’ গেছে। এই ঘটনায় কোনো হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

pakistan-2

পরবর্তীতে আরও এক টুইটে তিনি জানিয়েছেন, সময়মত উপযুক্ত সাড়া দিয়েছে পাকিস্তানের বিমান বাহিনী। ফলে পাক বাহিনীর তাড়া খেয়ে পালাতে বাধ্য হয়েছে ভারতীয় সেনারা।

157298_Sohail-0.jpg

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি সাংবাদিকদের সামনে আসার আগে ইসলামাবাদে তাঁর দপ্তরের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসেন কুরেশি।পরে তিনি সাংবাদিকদের সামনে বলেন,‘পাকিস্তানকে চ্যালেঞ্জ জানানোর সাহস ভারতের না দেখানোই উচিত। এই ঘটনার জবাব দেওয়ার অধিকার পাকিস্তানের আছে। পাকিস্তান জবাব দেবে।’মঙ্গলবার ভোর রাতে পাকিস্তানে ভারতীয় বিমানবাহিনীর বোমাবর্ষণের পর সাংবাদিকদের এ কথা বললেন সেই বৈঠকে কী কী আলোচনা হল, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে সেই সব জানাবেন তিনি। পাকিস্তানের এখন কী করণীয়, ভারতকে কীভাবে জবাব দেওয়া হবে তা ইমরানের খানের সঙ্গে ওই বৈঠকেই চূড়ান্ত হবে।

কুরেশি বলেন, ‘ভারত যা করেছে, তা আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণরেখার লঙ্ঘন। এতে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বিপদাপন্ন। আত্মরক্ষার অধিকার পাকিস্তানের রয়েছে। এই ঘটনার জবাব দেওয়ার সব রকমের অধিকার রয়েছে পাকিস্তানের। পাকিস্তান সেই জবাব দেবে।’

ওদিকে ভারতীয় বিমান বাহিনীর আকস্মিক হামলার পরপরই জরুরি বৈঠক তলব করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য দেশটির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেছেন তিনি।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারিতে জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার জবাবে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হামলায় অন্তত ২০০-৩০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া ট্যুডে।

দেশটির বিমানবাহিনীর একটি সূত্রের বরাত দিয়ে ইন্ডিয়া ট্যুডে বলছে, সীমান্ত রেখার কাছে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরে সন্ত্রাসীদের ঘাঁটি ও লঞ্চ প্যাডে বিমান হামলা চালানো হয়েছে।

সূত্র বলছে, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টার দিকে ভারতীয় বিমান বাহিনীর চালানো হামলায় অন্তত ২০০ থেকে ৩০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। যুদ্ধবিমান মিরাজ-২০০০ সহ অন্যান্য জঙ্গিবিমান থেকে কাশ্মীরে সন্ত্রাসীদের আস্তানায় অন্তত এক হাজার কেজি ওজনের বোমা ফেলা হয়েছে।

কাশ্মীরে ভারতের এই হামলা প্রায় ২১ মিনিট ধরে চলমান ছিল। এতে সন্ত্রাসীদের আস্তানা ধ্বংস হয়েছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় বিমানবাহিনী। মুজাফফরাবাদ থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরের তালেবান অধ্যুষিত পাকিস্তানের মূল ভূখণ্ড খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের বালাকোট সেক্টরেও হামলা হয়েছে।