মোশাররফ Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

mosarraf47.jpg

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, নুসরাতের হত্যাকারীরা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী। আওয়ামী লীগ নেতার কারণেই এই হত্যাকাণ্ডের স্বপক্ষে সভা সমাবেশ হয়েছে ফেনীর সোনাগাজীতে। অধ্যক্ষ সিরাজ ওলামা লীগ নেতা।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবে আদর্শ নাগরিক আন্দোলন নামে একটি সংগঠনের তৃতীয় বর্ষপূর্তী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মো রহমতুল্লাহ প্রমূখ।

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা এখন বিভিন্ন কথা বলে এই ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে। তারা এখন মাদরাসা শিক্ষার উপর কটাক্ষ করছে। দোষ ব্যক্তির কোনো নির্দিষ্ট শিক্ষা ব্যবস্থার না।

তিনি বলেন, দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করার সব আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে। ব্যাংকগুলো ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। ১৪টি ব্যাংকের মূলধন এখন তিনজন আওয়ামী নেতার হাতে।

দেশে আইনের শাষন নেই উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, বিচারকরা স্বধীনভাবে বিচার করতে পারেন না। তারেক রহমানকে খালাস দেওয়া বিচারককে দেশ থেকে পালিয়ে যেতে হয়েছিল। বিচার ব্যবস্থাও একজন ব্যক্তির ইচ্ছার অনিচ্ছায় পরিচালিত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সাক্ষী প্রমাণ ছাড়াই খালেদা জিয়ার সাজা বাড়িয়েছে উচ্চ আদালত। এ ধরণের মামলায় জামিন হয়। কিন্তু বিভিন্ন মারপ্যাচে ১৩ মাস তিনি অন্যায়ভাবে কারাগারে। দেশে যে আইনের শাষন নাই এটিই তার উদাহরণ।

mosarraf46.jpg

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন (ডিএনসিসি) জনগণ প্রত্যাখান করে ভোটের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

শুক্রবার (১ মার্চ) মৎস্যজীবী দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

ডিএনসিসি নির্বাচন বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন জনগণ প্রত্যাখান করেছে, এটা পরিষ্কার। এই মেয়র উপ-নির্বাচনে জাপার যিনি প্রার্থী ছিলেন তিনি বলেছেন, প্রায় ৪০টি কেন্দ্রে তিনি গিয়েছেন, সেখানে কোনো ভোটার দেখেননি। ৫ শতাংশ ভোটও পড়েনি। অর্থাৎ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ এই সরকার ও প্রশাসনের যে চেহারা দেখেছে, তার প্রতিবাদ হিসেবে গতকাল তারা ভোটকেন্দ্র যায়নি।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোনো নির্বাচন জনগণ যে বিশ্বাস করে না, গতকাল সেটা প্রমাণ করেছে।’

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘ডিএনসিসি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম ৮ লাখ ৪৯ হাজার ৩০২ ভোট পেয়েছেন। এটা কোথা থেকে আসলো? আমাদের কাছে পরিস্কার, একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতি হয়েছিল, জনগণের ভোট দেয়ার প্রয়োজন হয়নি। এভাবে ৯০ শতাংশ ভোট তারা দিয়েছিল। একই প্রক্রিয়ায় গতকালও ৩১ শতাংশ ভোট পড়েছে। এটাও সরকার তার সিস্টেমের মাধ্যমে সম্পূর্ণ করেছে।’

তিনি বলেন, ‘এই যে দুটি ঘটনা- জনগণ ভোট দিতে পারেনি, তাদের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে। সেখানে বাংলাদেশ সরকার আজকে ভোটার দিবস পালন করছে! এটা অত্যন্ত হাস্যকর। ভোটাররা যেখানে ভোট দিতে পারে না, সেখানে আজকের স্লোগান হচ্ছে ভোটার হন, ভোট দিন! সরকারই আজকে ভোটাদের ভোটাধিকার হরণ করে ভোটার দিবস পালন করে হাস্যকর বিষয়ে পরিণত করেছে, তামাশা সৃষ্টি করেছে।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘একাদশ সংসদ নির্বাচন প্রত্যাখান করে আমরা পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানিয়েছি। আর খুব শিগগিরই এই সরকারের পতন ঘটিয়ে আমরা নির্বাচনে যাবো।’

এসময় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম মাহতাব ও সদস্য সচিব আব্দুর রহিমসহ দলটির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।