লবণ Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

saltt.jpg

লবণ না থাকলে কি স্বাদ বুঝা যায়! খাবারে লবণ খাওয়া ঠিক আছে। কিন্তু মাত্রাবিহীন লবণ খাওয়া কতটুকু ঠিক বা আদ্দ ঠিক কিনা অনেকেই জানে না। কেউ কেউ তো খাবারে কাঁচা লবণও ব্যবহার করেন। লবণ খাওয়া শরীরের জন্য ক্ষতিকর। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সম্প্রতি গবেষণায় লবণ খাওয়ার আশঙ্কার পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে।

গবেষণায় দেখা গেছে মানুষ তার প্রয়োজনের থেকে দ্বিগুণ পরিমাণ লবণ খেয়ে থাকেন। যা থেকে হৃদরোগের সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার ফলে অকাল মৃত্যুও হয়ে থাকে।

খাদ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, গত ৩০ বছরে আধুনিকতার জন্য মানুষের খাদ্যাভ্যাসে আমূল পরিবর্তন এসেছে। শাক-সবজি,ফলমূলের পরিবর্তে এখন খাদ্যতালিকায় থাকছে প্রক্রিয়াজাত খাদ্য ও ফাস্টফুড। এসব খাবারে সাধারণত লবণের পরিমাণ বেশি থাকে। এছাড়াও শর্করা ও ফ্যাটের পরিমাণও বিপদসীমার ওপরে থাকে।

জাঙ্ক ফুডে অতিরিক্ত লবণযুক্ত উপাদান, শর্করা ও ক্ষতিকর ফ্যাট থাকে। এসব থেকে মানুষের উচ্চ রক্তচাপ,শরীরে ফ্যাট ও হৃদরোগের সম্ভাবনা বাড়ছে। বিভিন্ন গবেষণার প্রতিবেদন বলছে, শুধুমাত্র লবণ খাওয়া থেকে প্রতিবছর অনেক মানুষ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। লবণের বিষাক্ত ভূমিকা থেকেই অস্বাভাবিক মৃত্যু হচ্ছে, যা আগামীতে আরও বাড়বে। তাই এখনই উচিত বাড়তি লবণ খাওয়ার অভ্যাস পরিহার করা।

saltt.jpg

লবণের খনিজ উপাদান শরীরের জন্য উপকারী হলেও মাত্রা বেশি বা কম দুটোই শরীরের জন্য ভালো নয়।

অতিরিক্ত লবণ খাওয়া হলে রক্তচাপ বৃদ্ধি, পেটে ক্যান্সার, স্থূলতা এমনকি হাঁপানির সমস্যা দেখা দেয়। অতিরিক্ত লবণ খাওয়া হলে হৃদয় ও কিডনির সমস্যা দেখা দিতে পারে।

স্বাস্থ্য গবেষকদের মতে, রক্তসঞ্চালন প্রক্রিয়া ও স্নায়ুতন্ত্রের উপরেও খারাপ প্রভাব ফেলে কাঁচা লবণ।

রান্না করা খাবারে লবণ ছিটিয়ে খেলে ক্ষতি বেশি:

বিশ্বাস করা হয়, খাবারে বাড়তি লবণ নেওয়া মানে অসুখকে দাওয়াত দেওয়া। রান্না করা হলে লবণের লৌহযৌগের সরলীকরণ ঘটে এবং তা খুব সহজেই শোষিত হয়। কাঁচা লবণের লৌহযৌগ একই থাকে এবং তা চাপ বাড়ায়। ফলে শরীরে রক্তচাপ বৃদ্ধি পায়।

কম লবণও ক্ষতিকর:

বেশি লবণ খাওয়া যেমন উচ্চ রক্তচাপের জন্য দায়ী তেমনি লবণ না গ্রহণ করাও শরীরের জন্য ক্ষতিকর। এতে মৃত্যু ঝুঁকিও থাকে।

গবেষণা অনুযায়ী, হৃদরোগ ও অন্যান্য কারণে মৃত্যুর হার লবণ বেশি খায় এমন মানুষের তুলনায় লবণ খায় না এমন মানুষদের সংখ্যা বেশি।

যতটা লবণ খাওয়া উচিত:

আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন’য়ের স্বাস্থ্য গবেষকদের মতে, পূর্ণ বয়স্ক মানুষের দৈনিক দুই চা-চামচ লবণ খাওয়া দরকার।

ভারতীয় পুষ্টিবিদ তানিয়া কাপুর জানান, ১০ গ্রাম লবণে ৪০০ মি.গ্রা. সোডিয়াম থাকে যা প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য প্রযোজ্য।

যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে তাদের দৈনিক আধা চা-চামচের বেশি লবণ খাওয়া উচিত নয়।

salt-.jpg

লবণ ছাড়া খাবার মুখে তোলা কঠিন। কিন্তু ঠিক কতখানি লবণ শরীরের জন্য ভাল? অতিরিক্ত লবণ যেমন খাবারকে বিস্বাদ করে তোলে তেমনই ক্ষতি করে শরীরেও। উচ্চ রক্তচাপ, হার্টের সমস্যা, কিডনির সমস্যা-সহ নানা অসুখ লবণের হাত ধরেই বাসা বাঁধে শরীরে।

কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না ঠিক কতখানি লবণ আমাদের শরীরের জন্য প্রয়োজন। এক এক জন মানুষের ক্ষেত্রে এই পরিমাণ তাদের শারীরিক অবস্থা বুঝে এক এক রকম হয়। তবে এক জন সুস্থ-স্বাভাবিক মানুষের শরীরে লবণের পরিমাণ ঠিক কতখানি হলে তা বিপদসীমা ছাড়ায় না তা নিয়ে ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’-র একটি নির্দেশিকা রয়েছে। তা জানার আগে আসুন দেখা যাক, লবণ নিয়ে সাম্প্রতিক গবেষণাগুলি ঠিক কতটা সতর্কতার কথা জানাচ্ছে।

চিকিৎসকদের মতে, মাত্রাতিরিক্ত লবণে রক্তচাপ তো বাড়েই, তা ছাড়াও ডেকে আনে আরও নানা অসুখ। ‘আমেরিকান হেলথ অ্যাসোসিয়েশন’-এর গবেষকদের দাবি, শরীরে জল ধরে রাখা লবণের বিশেষ বৈশিষ্ট্য।

লবণের পরিমাণ বেড়ে গেলে শরীরে অতিরিক্ত জল জমে যায়, এতে ব্রেনস্ট্রোকের ভয় থেকে যায়। মূত্রের মাধ্যমে বাড়তি নুন শরীর থেকে বার করে। কিন্তু কিডনির কোনও সমস্যা থাকলে সেই বাড়তি লবণ শরীর থেকে বেরতে না পেরে মারাত্মক বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। অতিরিক্ত লবণে ক্ষয়ে যেতে থাকে হাড়ের ক্যালসিয়াম। তাই অস্থিসন্ধি ও হাড়ের নানাবিধ অসুখে প্রত্যক্ষ ভাবে নুনের ভূমিকা আছে।

আমেরিকান হেলথ রিসার্চ ইনস্টিটিউট-সহ বিশ্বের বিভিন্ন স্বাস্থ্য গবেষণা সংস্থা এর আগে বহু বার দাবি করেছে, কাঁচা লবণ মস্তিষ্কের নিউরোনকেও প্রভাবিত করে। এর প্রভাবে কোলন ক্যানসার ও পাকস্থলীর ক্যানসারের মতো মারণরোগও বাসা বাঁধতে পারে শরীরে। শরীরে হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হওয়ার ক্ষেত্রেও অনেক সময় এই অতিরিক্ত লবণ মূল ভূমিকা পালন করে।

লবণের সোডিয়াম যে কেবল কিডনি বা যকৃতের ক্ষতি করে এমনই নয়, ওবেসিটি বা মেদবাহুল্যের জন্যও লবণ অনেকটাই দায়ী। হার্টের নানা অসুখ, বিশেষ করে ইস্কিমিয়ায় ভোগেন এমনন মানুষদের জন্য অতিরিক্ত লবণ ক্ষতি করে। এ ছাড়াও অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের জন্যও অতিরিক্ত লবণ ভাল নয়, এর প্রভাবে রক্তচাপ বৃদ্ধি পায় যা তাঁদের অন্তঃস্থ ভ্রূণের উপর প্রভাব ফেলে।

তাই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, লবণের পরিমাণ যেমন কমে গেলে সমস্যার, তেমনই তা বেড়ে গেলেও শরীরের প্রভূত ক্ষতি। তাই তাদের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী, প্রতি দিন দু’গ্রাম বা হাফ চা চামচের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখুন লবণের পরিমাণ। এড়িয়ে চলুন কাঁচা লবণও। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

salt-.jpg

লবণ ছাড়া খাবার মুখে তোলা কঠিন। কিন্তু ঠিক কতখানি লবণ শরীরের জন্য ভাল? অতিরিক্ত লবণ যেমন খাবারকে বিস্বাদ করে তোলে তেমনই ক্ষতি করে শরীরেও। উচ্চ রক্তচাপ, হার্টের সমস্যা, কিডনির সমস্যা-সহ নানা অসুখ লবণের হাত ধরেই বাসা বাঁধে শরীরে।

কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না ঠিক কতখানি লবণ আমাদের শরীরের জন্য প্রয়োজন। এক এক জন মানুষের ক্ষেত্রে এই পরিমাণ তাদের শারীরিক অবস্থা বুঝে এক এক রকম হয়। তবে এক জন সুস্থ-স্বাভাবিক মানুষের শরীরে লবণের পরিমাণ ঠিক কতখানি হলে তা বিপদসীমা ছাড়ায় না তা নিয়ে ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’-র একটি নির্দেশিকা রয়েছে। তা জানার আগে আসুন দেখা যাক, লবণ নিয়ে সাম্প্রতিক গবেষণাগুলি ঠিক কতটা সতর্কতার কথা জানাচ্ছে।

চিকিৎসকদের মতে, মাত্রাতিরিক্ত লবণে রক্তচাপ তো বাড়েই, তা ছাড়াও ডেকে আনে আরও নানা অসুখ। ‘আমেরিকান হেলথ অ্যাসোসিয়েশন’-এর গবেষকদের দাবি, শরীরে জল ধরে রাখা লবণের বিশেষ বৈশিষ্ট্য।

লবণের পরিমাণ বেড়ে গেলে শরীরে অতিরিক্ত জল জমে যায়, এতে ব্রেনস্ট্রোকের ভয় থেকে যায়। মূত্রের মাধ্যমে বাড়তি নুন শরীর থেকে বার করে। কিন্তু কিডনির কোনও সমস্যা থাকলে সেই বাড়তি লবণ শরীর থেকে বেরতে না পেরে মারাত্মক বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। অতিরিক্ত লবণে ক্ষয়ে যেতে থাকে হাড়ের ক্যালসিয়াম। তাই অস্থিসন্ধি ও হাড়ের নানাবিধ অসুখে প্রত্যক্ষ ভাবে নুনের ভূমিকা আছে।

আমেরিকান হেলথ রিসার্চ ইনস্টিটিউট-সহ বিশ্বের বিভিন্ন স্বাস্থ্য গবেষণা সংস্থা এর আগে বহু বার দাবি করেছে, কাঁচা লবণ মস্তিষ্কের নিউরোনকেও প্রভাবিত করে। এর প্রভাবে কোলন ক্যানসার ও পাকস্থলীর ক্যানসারের মতো মারণরোগও বাসা বাঁধতে পারে শরীরে। শরীরে হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হওয়ার ক্ষেত্রেও অনেক সময় এই অতিরিক্ত লবণ মূল ভূমিকা পালন করে।

লবণের সোডিয়াম যে কেবল কিডনি বা যকৃতের ক্ষতি করে এমনই নয়, ওবেসিটি বা মেদবাহুল্যের জন্যও লবণ অনেকটাই দায়ী। হার্টের নানা অসুখ, বিশেষ করে ইস্কিমিয়ায় ভোগেন এমনন মানুষদের জন্য অতিরিক্ত লবণ ক্ষতি করে। এ ছাড়াও অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের জন্যও অতিরিক্ত লবণ ভাল নয়, এর প্রভাবে রক্তচাপ বৃদ্ধি পায় যা তাঁদের অন্তঃস্থ ভ্রূণের উপর প্রভাব ফেলে।

তাই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, লবণের পরিমাণ যেমন কমে গেলে সমস্যার, তেমনই তা বেড়ে গেলেও শরীরের প্রভূত ক্ষতি। তাই তাদের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী, প্রতি দিন দু’গ্রাম বা হাফ চা চামচের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখুন লবণের পরিমাণ। এড়িয়ে চলুন কাঁচা লবণও। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।


About us

DHAKA TODAY is an Online News Portal. It brings you the latest news around the world 24 hours a day and 7 days in week. It focuses most on Dhaka (the capital of Bangladesh) but it reflects the views of the people of Bangladesh. DHAKA TODAY is committed to the people of Bangladesh; it also serves for millions of people around the world and meets their news thirst. DHAKA TODAY put its special focus to Bangladeshi Diaspora around the Globe.


CONTACT US

Newsletter