শিশির Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

shakib-20190430185416.jpg

আইপিএল খেলে আগের দিন রাতেই ঢাকায় এসেছিলেন সাকিব আল হাসান। সোমবার ছিল বিশ্বকাপগামী বাংলাদেশ দলের অফিসিয়াল ফটোসেশন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন না সাকিব। এ নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন পর্যন্ত বলেছেন, ‘দুঃখজনক। এটা সাকিবেরই দুর্ভাগ্য।’

বিসিবিতে এসেও অফিসিয়াল ফটোসেশনে যোগ না দিয়ে চলে যাওয়ার কারণে মিডিয়ায়ও সাকিবকে নিয়ে নানা রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। তার ওপর সাকিবের এই আচরণ নিয়ে কথা বলেছেন খোদ বিসিবি সভাপতি নিজেও। সাংবাদিকদের অনেকেই তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কঠোর সমালোচনা করেছেন সাকিবের।

সাংবাদিকদের এই সমালোচনাই গায়ে জ্বালা ধরিয়ে দিয়েছে সাকিবপত্নী উম্মে আহমেদ শিশিরের। তার মোটেও পছন্দ হয়নি নিজের স্বামীকে নিয়ে এসব সমালোচনা। এ কারণে আজ বিকালের দিকে নিজের ফেসবুক আইডিতে সাংবাদিকদের উল্টো সমালোচনায় মেতে ওঠেন শিশির। বলতে গেলে সমালোচক সাংবাদিকদের একহাত নিয়েছেন তিনি।

উম্মে আহমেদ শিশির তার ক্ষোভের কথাগুলো লেখেন ইংরেজিতেই। যার সোজা বাংলা করলে দাঁড়ায়, ‘সাংবাদিকদের নিয়ে আসলেই আমার বলার কিছু নেই, কেন তারা সাকিব আল হাসানকে এত ঘৃণা করে! আমার ধারণা, এটা আমাদেরই দোষ যে, আমরা তাদেরকে ডিনার বা লাঞ্চে দাওয়াত দিইনি কেন? কিংবা তাদের সঙ্গে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কথা বলে তোষামোদ করিনি, অথবা তাদের দলের ভেতরের খবর বলে দিইনি কেন (এ কারণে)? সাকিব জীবনের এ পর্যায়ে এসেছে কঠোর পরিশ্রম করে। ছোটবেলা থেকে সে বিকেএসপিতে পরিশ্রম করেছে, শুধু ক্রিকেটই ছিল তার ধ্যান-জ্ঞান। ক্রিকেটেই মনোযোগ দিয়েছে। সে অভিনয় শেখেনি কিংবা মানুষের সহানুভূতি নিয়ে খেলা করাও শেখেনি। এখন মনে হচ্ছে সেটা শিখলেই ভালো করত। হয়তো এ কারণেই সে খুব একটা ইতিবাচক মানুষ নয়। যাই হোক সে নিজের ভালো কাজগুলো ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে দেখিয়ে মানুষকে খুশি করতে চায় না এবং মানুষের আগ্রহের কেন্দ্রে থাকতে চায় না।’

সাংবাদিকদের সমালোচনা শেষ করেই মূল প্রসঙ্গে আসেন শিশির। তিনি বলেন, ‘এখন আলোচনার বিষয় হলো, সে কেন বিশ্বকাপের ফটোসেশনে ছিল না। প্রথমত সে এখানে যেতে পারেনি কিন্তু সেটা ইচ্ছে করে নয়। কারণ, তাকে যে মেসেজ পাঠানো হয়েছিল সেটা ভুল বুঝেছে সে। এর পর সে দায়িত্বপ্রাপ্তদের কাছে ক্ষমা চেয়েছে। আমরা দুঃখিত যে এ বিষয়টা প্রমাণ করার জন্য কোনো কিছু ভিডিও করে রাখিনি।’

এরপর একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের আলোচনা অনুষ্ঠানের সমালোচনা করেন শিশির। সেই টিভি চ্যানেলের নাম নিয়েই। শিশির লিখেন, ‘দ্বিতীয়ত, চ্যানেল২৪ তাদের বিয়ন্ড দ্য গ্যালারি অনুষ্ঠানে দুজন সাংবাদিক সাকিবকে নিয়ে অনেক আজেবাজে কথা বলেছেন। এর মাঝে একটি হলো, সে বিখ্যাত হওয়ার জন্য এসব করছে। আমি যদি ভুল না করি, এটাই ওর সবচেয়ে কম দরকার। এটা আসলে উল্টো, আপনারা (সাংবাদিক) ওকে নিয়ে নেতিবাচক কথা বলে বিখ্যাত হতে চাইছেন। কারণ এটাই ব্যবসা, এ ব্যবসায় এটাই সবচেয়ে লাভজনক এবং আপনাদের প্রোফাইলও ভারী হবে! যদি তার আচরণ নিয়ে প্রশ্ন থাকে তবে যে কোনো খেলোয়াড়কে ব্যক্তিগতভাবে জিজ্ঞেস করুন। মাঠ ও মাঠের বাইরে ভেতরের খবর নিন। বিশ্বকাপ এগিয়ে আসছে। তাকে তার মতো থাকতে দিন। আমার মনে হয় আরও অনেক জিনিস আছে কথা বলার জন্য।’

sakibfb.jpg

ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়ে চরম রসিকতার তোপে পড়েছেন দেশ সেরা অলরান্ডার সাকিব আল হাসান। ইতিমধ্যে পোস্টটির কমেন্ট সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৩ হাজার। বিশেষ করে পোস্টটির সুযোগ ব্যবহার করেছেন বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পেজ গুলো।
তা ঠিক কি কারণে হঠাৎই এত রসিকতা করছে সাকিব অনুসারীরা? বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি এবং টেস্ট অধিনায়ক পোস্টটির মাধ্যমে মেয়ের আবদার পূরণের একটু সাহায্য চেয়েছিলেন। কিন্তু তা নিয়ে যে অনুসারীরা এত হুমড়ি খেয়ে পড়বে সেটা হয়তো সাকিবের নিজেরও জানা ছিল না।

শনিবার গভীর মনোযোগে মোবাইল চালানোর একটি ছবি আপলোড করেন সাকিব আল হাসান। ছবির ক্যাপশনে লিখেন, ড্রাইভার গিয়েছে শিশিরকে ড্রপ করতে। কিন্তু আলাইনা চায় আইসক্রিম খেতে যেতে! কিভাবে যাই?
পোস্টটি দেওয়া মাত্রই শুরু হয়ে গেছে কমেন্টের ঝড়। তবে অবাক করা ছিল বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের করা কমেন্ট গুলো।
রাইড শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয় মাধ্যম ‘পাঠাও’ লিখেছে, হায় সাকিব! আপনার দরকার অলরাউন্ডার এপ। তাহলে আপনি পাচ্ছেন খাবার, কার, বাইক পারসেল এবং অনেক কিছু।
উবার লিখেছে,আমরা আপনাকে সাহায্য করতে চাই।

আবার উবারের কমেন্টেকে রসিকতা করে হোম গার্ডেন প্লান্টস লিখেছে,‘উবার আপনাকে সময় অপচয়ের মোটিভেশন দিচ্ছে। গুগুল ম্যাপ বলছে, ঢাকার অধিকাংশ রাস্তায় এখন জ্যাম। তাই আপনি পাঠাও এর মাধ্যমে আইসক্রিম হোম ডেলিভারি নিয়ে নিন। আর এই সময়টুকু আপনি আলাইনাকে বাসার গাছগুলোর সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে পারেন।
হুয়াওয়ে মোবাইলের পেজ থেকে লেখে,ধন্যবাদ আমাদের পাশে থাকার এবং আমাদের ফোন ইউজ করার জন্য।
আবার একটি রেডিও লিখেছে,‘বস আপনি উবার কল করেন আর গাড়িতে উঠে ড্রাইভারকে বলেন এফ এম ৯৪.৪ টিউন করতে।  অন এয়ারে আর জে অলরেডি আলাইনার জন্য আইসক্রিম অর্ডার করে গান গাইতেছে।

তবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যম গুলোর সঙ্গে পাল্লা দিতে ভুল করেননি সাকিব অনুসারীরাও। আবদুল নামের একজন লিখেছেন,‘তাসকিন ইদানিং ভালই ড্রাইভ করে, সহজ রাইড এ তাসকিন কে নক দিন ভাই, দেয়ার আগেই তিনি হাজির।’
ফারজানা নিশি লিখেছেন, একটু কষ্ট করে হেটে নিয়ে আসুন..মেয়ের জন্য এতটুকু তো করাই যায়,দোকান নিশ্চই বাসার নিচেই পাবেন। এছাড়াও হাজার হাজার কমেন্ট করে পোস্টটি নিয়ে রসকিতা করে সাকিব ভক্তরা।