হাসিনা Archives - 24/7 Latest bangla news | Latest world news | Sports news photo video live

sheikhhasina-20190603205844.jpg

যোগাযোগ ব্যবস্থার আরও উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এই দেশে আমরা বিদ্যুৎ চালিত ট্রেন চালু করবো। বাংলাদেশের মানুষ যেন দ্রুত গতিতে কম খরচে কম সময়ে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যেতে পারে সে ব্যবস্থা করা হবে।

আজ বুধবার বেনাপোল-ঢাকা-বেনাপোল রুটে আন্তঃনগর ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেনের এবং রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ রুটে বর্ধিত বিরতিহীন আন্তঃনগর ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ রুটে বর্ধিত বিরতিহীন আন্তঃনগর ‘বনলতা এক্সপ্রেস’কে তিনি কোরবানি ঈদের উপহার বলেও ঘোষণা দেন।

প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাঁশিতে ফু দিয়ে ও সবুজ পতাকা উড়িয়ে নতুন এ ট্রেনের উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন- রেলপথমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জল হোসেন। এ ছাড়া রেলপথ উন্নয়নের ওপর একটি ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যেকোনো দেশের উন্নয়নের স্বার্থে যোগাযোগ ব্যবস্থা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর এই যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নত করার জন্য নানা পরিকল্পনা গ্রহণ করে। রেলপথ যোগাযোগের জন্য এমনই একটি মাধ্যম, যাতে অল্প সময়ে এবং কম খরচে দেশের মানুষ এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেন। এ ছাড়া রেলে মালামাল খুব কম খরচে পরিবহন করা যায়। এজন্য রেলের উন্নয়নে আমরা আলাদা মন্ত্রণালয় করেছি। যার নাম দেওয়া হয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

তিনি বলেন, যে সমস্ত জেলার মানুষ কখনও কোনোদিন রেলপথ দেখেনি, ভবিষ্যতে সেখানেও রেলপথ যাবে।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রেললাইন উদ্বোধন করার পর প্রধানমন্ত্রী বেনাপোল এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলেন।

mamata-modi-hasina-20190424164536.jpg

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এখনও বছরে তিন চারবার উপহার পাঠান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। ভারতের জনপ্রিয় অভিনেতা অক্ষয় কুমারকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মোদি এ কথা জানিয়েছেন।

রাজনীতির বাইরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মোদির সঙ্গে আলাপ করেছেন অক্ষয়। মঙ্গলবার অক্ষয়ের সঙ্গে সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী আলাপচারিতায় মোদি বলেন, শুনতে অবাক লাগতে পারে এবং ভোটের সময় আমার হয়ত বলা উচিত নয় কিন্তু মমতা দিদি এখনও আমাকে উপহার পাঠান। এখনও তার কাছ থেকে বছরে এক বা দুটি পাঞ্জাবি পেয়ে থাকি।

প্রধানমন্ত্রী মোদি জানিয়েছেন, শুধু মমতা নন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তাকে উপহার পাঠান। তবে পাঞ্জাবি নয় মিষ্টি। এটা জানতে পেরে মমতাও তাকে মিষ্টি পাঠাতে শুরু করেন।

মোদি এবং অক্ষয়ের এই আলাপচারিতা বুধবার প্রকাশিত হয়। এর ঠিক একদিন আগেই ভারতের তৃতীয় দফার লোকসভার ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মমতা সম্পর্কে এই বক্তব্য প্রকাশের একদিন আগেই আসানসোলে মোদি বলেন, দেশের সর্বোচ্চ পদ নিলামের জন্য নয়, যা সারদা বা নারদের টাকা দিয়ে কেনা যাবে। এক মুঠো আসন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন আমাদের দিদি। প্রধানমন্ত্রী পদের নিলাম হলে কংগ্রেস এবং দিদি দুর্নীতি করে যা পেয়েছেন তা কাজে লাগাবেন।

sheikh-hasina-20190204122604.jpg

সরকার ও দলের ভাবমূর্তি যারা বিনষ্ট করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক এবং প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) গণভবনে দলের নেতৃবন্দের সাথে এক বৈঠকে এ নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

ছাত্রলীগের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড এবং দীর্ঘ ১ বছরেও কমিটি করতে না পারায় ছাত্রলীগের বর্তমান নেতৃত্বের প্রতি চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে সংগঠনের বর্তমান কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার বিষয়েও আলোচনা করেন তিনি।

এসময় তিনি বিগত কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেনের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের থেকে তালিকা নিয়ে এবং ক্লিন ইমেজ ধারী ছাত্রনেতাদের সমন্বয়ে কমিটি ঘোষণার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের নির্দেশ দেন।

বৈঠকে মাহবুবুল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, বি এম মোজাম্মেল, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মির্জা আজম, এস এম কামাল হোসেন এবং আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাছিম উপস্থিত ছিলেন।

hasina5u.jpg

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যেকোনো সাবজেক্টে পড়ুক না কেন নার্সিংয়ে সবাই আসতে পারবে। সেই ব্যবস্থাটা নিতে হবে। ইতিমধ্যে সেই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কিছু পদক্ষেপও নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ ও জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, আমাদের বোধহয় এডুকেশন সিস্টেমে সমস্যা। ইতিমধ্যে আমি এখানে বসে বসে আমাদের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। এটার ব্যাপারে যদি কোনো আইন বা নীতিমালা বা কোনো কিছু মানে শিথিল করেও করতে হয়, আমরা তা করে দিব। কিন্তু শিক্ষাটাকে আমি গুরুত্ব দিতে চাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বতমানে আমাদের একটা সমস্যা রয়েছে যে, আমাদের নার্সিংয়ে কেউ যদি আসতে চায় তাকে সায়েন্স স্টুডেন্ট হতে হবে। ইতিমধ্যে এ ব্যাপারে আমি নির্দেশ দিয়েছি কোনো বাধ্যবাধকতা থাকা উচিত না। নার্সিং পড়ার সময় সায়েন্সের যে সাবজেক্ট যতটুকু প্রয়োজন, এটা ওই নার্সিং এডুকেশনের যে কারিকুলাম সেখানেই সংযুক্ত করতে হবে।

hasina-20190220154803.jpg

বিশ্বের সেরা ৫ নীতিমান নেতার একজন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার (১৪ এপ্রিল) নাইজেরিয়ার সবচেয়ে প্রভাবশালী সংবাদপত্র দ্য ডেইলি লিডারশিপ তাদের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে।

নাইজেরিয়ার বাংলাদেশ হাইকমিশনের বরাতে বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানিয়েছে, নাইজেরিয়ান সংবাদমাধ্যমটি বিশ্বের পাঁচ নেতাকে নিয়ে ‘ওয়ার্ল্ডস মোস্ট অস্টিয়ার প্রেসিডেন্টস’ শীর্ষক একটি ফিচার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানে শেখ হাসিনা খুব কম বেতন পান উল্লেখ করে বলা হয়েছে, তার মাসিক বেতন প্রায় ৮০০ মার্কিন ডলার। এছাড়া মার্কিন প্রভাবশালী ম্যাগাজিন ফোর্বসের ‘বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ১০০ নারী’র তালিকায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ৫৯তম অবস্থানে আছেন, সেটাও উল্লেখ করা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে।

পত্রিকাটি বলছে, শেখ হাসিনার অসামান্য দুটি অর্জন রয়েছে। একটি হলো তার নেতৃত্ব এবং অন্যটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকারী ও ১৯৭১ সালে স্বাধীনতাযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের সাফল্য।

hasina-20190413134316.jpg

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিংয়ের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৩ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী নিজ নিজ দেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। বৈঠকে স্বাস্থ্য, কৃষি, নৌপরিবহন, পর্যটন খাতে সহযোগিতা এবং জনপ্রশাসন খাতে প্রশিক্ষণসহ ৫টি বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে।

বৈঠকে উভয় দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। দুই দেশ ব্যবসার প্রসার ঘটানোর লক্ষ্যে সম্মত হন দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন। এর আগে সকাল ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছালে তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল শুক্রবার (১২ এপ্রিল) ঢাকায় পৌঁছেই বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতি ও জাতীয় সৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানান ভুটানের প্রধানমন্ত্রী। পরে বিকেলে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এক বৈঠকে মতবিনিময় করেন।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের সাবেক ছাত্র ডা. শেরিংয়ের হৃদয়ে একটি বিশেষ জায়গা জুড়ে রয়েছে বাংলাদেশ। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের অষ্টাদশ ব্যাচের ছাত্র লোটে শেরিং এমবিবিএস পাস করার পর বাংলাদেশেই সার্জারিতে উচ্চতর ডিগ্রি নেন। দেশে ফিরে যোগ দেন চিকিৎসা পেশায়। পরে সরকারি চাকরি ছেড়ে ২০১৩ সালে রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে অল্প সময়ের মধ্যেই তার দল ডিএনটি চমক সৃষ্টি করে। ২০১৮ সালের নির্বাচনে ডিএনটি জয়ী হলে ডা. শেরিং হন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে আগামীকাল রোববার (১৪ এপ্রিল) পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে ভুটানের প্রধানমন্ত্রীর। ভোরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে সুরের ধারার আয়োজনে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকবেন। পরে নিজের পুরনো শিক্ষায়তন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে যাবেন তিনি। সেখানে বর্তমান শিক্ষার্থীদের মুখোমুখি হবেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী।

বিমসটেকের সদস্য দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঢাকায় এ জোটের সচিবালয়েও যাবেন লোটে শেরিং। সফর শেষ করে আগামী ১৫ এপ্রিল (সোমবার) তার ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে।

pm543.jpg

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের প্রশংসা করেছেন।

তিনি বলেছেন, শোভন যা করেছে তা রাজনৈতিক নেতৃত্বের আসল বৈশিষ্ট্য। নির্বাচনে হার জিত থাকবেই তা মেনে নিয়েই চলতে হবে এবং শোভন যথাযথ রাজনৈতিক দূরদর্শিতার প্রমাণ রেখেছে, ও ভবিষ্যৎ সে আরো ভালো জায়গায় যাবে।

শনিবার (১৬ মার্চ) বিকালে গণভবনে ডাকসুর নব নির্বাচিত নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় হল সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থীরাও উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতি আরো বলেন, শোভনের গোটা পরিবারকে আমি চিনি, ওর বাবা উপজেলার চেয়ারম্যান, ওর দাদা গণপরিষদের সদস্য ছিলেন। শোভনের পরিবারের সবাই রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত।

ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ভিপি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন শোভন। কিন্তু তিনি কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরের কাছে সামান্য ব্যবধানে পরাজিত হন। পরে তিনি নুরের জয়কে মেনে নিয়ে তাকে অভিনন্দন জানান।

pm-big-20190208074739.jpg

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর প্রশংসা করে বলেছেন, ক্রিকেটে ভাল করছে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও ভারতের মতো ভালো হবে। (Bangladesh Cricket would be as good as India, Australia and England.) এসময় তিনি বাংলাদেশের ক্রিকেটের উজ্জ্বল ভবিষ্যতও প্রত্যাশা করেন।

বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর বলেন, বাংলাদেশের ক্রিকেট খেলোয়াড়রা খুব ভালো খেলে, এর ধারাবাহিকতা প্রয়োজন। যদি খেলোয়াড়দের মধ্যে জাতীয় চেতনা সঞ্চারিত হয়, তারা দেশের প্রতি আরো বেশি প্রতিশ্রুতি নিয়ে ভালো খেলে। আইসিসি এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এর মধ্যে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে উল্লেখ করেন আইসিসি চেয়ারম্যান।

এসময় প্রথম মেয়াদে সরকার গঠনের পর থেকে ক্রিকেটসহ বিভিন্ন খেলাধুলার উন্নয়নে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ক্রিকেট খেলা দেখতে পছন্দ করেন জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সব সময় খেলোয়াড়দের উৎসাহ দেই এবং তাদের সঙ্গে কথা বলি।  সাক্ষাতের সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিসিবি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান পাপন।

pmpRLI.jpg

বরিশালে রেল যোগাযোগ স্থাপনে সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, নদ-নদী দ্বারা পরিবেষ্টিত বরিশালে রেল যোগাযোগ স্থাপনের জন্য সমীক্ষা চালানো হচ্ছে।

বুধবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) একাদশ জাতীয় সংসদের অধিবেশনে বিরোধীদল জাতীয় পার্টির সদস্য রুস্তম আলী ফরাজী’র এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বরিশাল এক সময় বাংলাদেশের ভেনিস ছিল উল্লেখ করে বলেন, এই জেলাটি নদ-নদী দ্বারা পরিবেষ্টিত। পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেল সংযোগ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যেহেতু পায়রা পর্যন্ত রেল যাবে, সেখান থেকে পাথরঘাটায় রেল নিতে খুব বেশি দূরে যেতে হবে না। সমীক্ষা চলছে নদ-নদীর কারণে বরিশাল অঞ্চলের মাটি খুব নরম। সমীক্ষার পর বলতে পারবো কতটুকু করা যাবে।

এরপর আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ এক সম্পূরক প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চান সরকারের চলতি মেয়াদে বরিশালে রেল যাবে কিনা? প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রেললাইন স্থাপনে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ চলছে। সম্ভাব্যতা যাচাই হওয়ার পরে বলতে পারবো এই মেয়াদে করতে পারবো কিনা।

জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশিদের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায় জায়গা নেই। যে জায়গা আছে সেটা চাষের জমি, সেটা নষ্ট করতে চাই না। চর জাজিরায় যে বিমানবন্দর করার কথা বলা হচ্ছে সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। মাটি বিমানবন্দর করার মতো শক্ত না। তবে দক্ষিণের আধুনিক বিমানবন্দর তৈরির জন্য বিভিন্ন জায়গায় সমীক্ষা চালাচ্ছি।

2-pm-1.jpg

সর্বশেষ সার্ভে অনুযায়ী দেশে ২৬ লাখের মতো বেকার রয়েছে। বেকারত্ব দূর করতে আমরা নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠিত হয়ে সেখানে প্রায় সোয়া কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা। জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নুর প্রশ্নের জবাবে জাতীয় সংসদে এক প্রশ্নত্তোর পর্বে কথাগুলো বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, শুধুমাত্র চাকুরির পেছনে না ছুটে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর সুযোগ গ্রহণের জন্য যুব সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বেকার যুবকরা বিনা জামানতে মাত্র এক শতাংশ সার্ভিস চার্জ দিয়ে দুই লাখ টাকার মতো ঋণ নিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারে, সেই ব্যবস্থা আমরা করে দিয়েছি। সবাই যেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে সেই ব্যবস্থা আমরা করে যাচ্ছি। বেসরকারি খাতকে উন্মুক্ত করে দেওয়ার কারণে সেখানে বিপুল সংখ্যেক মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে। কেউ নিজেরা যদি কাজ করে খেতে চায়, সেজন্য আনা ব্যবস্থা আমরা রেখেছি। দক্ষ জনশক্তি হিসেবে বিদেশে কর্মসংস্থানে যেতে পারে, সেজন্য উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

তিনি বলেন, নির্বাচনে জামায়াতকে জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে।তারা নিবন্ধিত না, সেই অবস্থাতেও তারা বিএনপির সঙ্গে জোট করে করে জামায়াত ইসলামী নামে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রার্থী হয়েছে। জনগণকে ধন্যবাদ জানাই তারা জামায়াতকে ভোট দেয়নি, প্রত্যাখ্যান করেছে। প্রশ্নোত্তর পর্বে তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীর এক সম্পুরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। প্রশ্নকর্তার প্রশ্ন ছিল- জামায়াতকে নিষিদ্ধ এবং বিএনপি নেতা তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনা হবে কি না? পরের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন তারেক রহমানসহ দন্ডিত পলাতক আসামীদের দেশে ফিরিয়ে এনে সাজা কার্যকরের ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, যারা অপরাধী, মানুষ খুন করা থেকে শুরু করে যারা মানিলন্ডারিং করেছে, এতিমের অর্থ আত্মসাত করেছে, দুর্নীতি এ সমস্ত মামলায় যারা সাজাপ্রাপ্ত, যারা বিদেশে পালিয়ে আছে, পলাতক আসামী- তাদেরকে ফিরিয়ে আনার জন্য আমাদের আলোচনা চলছে। আমি বিশ্বাস করি- আমরা তাদের ফিরিয়ে এনে সাজা কার্যকর করতে পারবো।

জিয়াউর রহমানের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জামায়াত যুদ্ধাপরাধী পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর দোসর ছিল। এদেশে গণহত্যা থেকে শুরু করে নারী ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ নানা ধরনের তারা অপরাধ করেছে। স্বাধীনতার পর তাদের অপরাধের বিচার জাতির পিতা শুরু করেছিলেন। তিনি বলেন, জাতির পিতাকে নির্মমভাবে হত্যার পর জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে তাদের বিচার বন্ধ করে দেয়, তাদের ভোটের অধিকার দেয়, রাজনীতি করার সুযোগ করে দেয়। যেটা আমাদের সংবিধানে ছিল না। সংবিধানের ১২ অনুচ্ছেদ বিলুপ্ত করে তাদের রাজনীতি করার সুযোগ করে দেয়।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় ছিল প্রত্যাশিত

সরকারি দলের সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমানের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন,গত ৩০ ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে এদেশের আপামর জনসাধারণ বিপুল ভোটে বিজয়ী করেছে। এ বিজয় ছিল খুবই প্রত্যাশিত। নির্বাচনের প্রাক্কালে দেশি-বিদেশী বিভিন্ন জরিপের ফলাফলে এরকম পূর্বাভাসই দেয়া হয়েছিল। লন্ডন-ভিত্তিক ইকোনমিক ইনটেলিজেন্স ইউনিট এবং রিসার্স এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের জরিপের ফল সবাই লক্ষ্য করেছেন। আর আমাদের ল্যান্ড-স্লাইড বিজয়ের বহুবিধ কারণ রয়েছে।

তিনি বলেন, একটি সমাজের প্রায় সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ যখন কোন দলের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেন, তখন তাঁর পক্ষে গণজোয়ারের সৃষ্টি হয়। আমাদের বেলায় তাই হয়েছে। এদেশের মানুষ আমাদের ইশতেহারের পক্ষে নিরঙ্কুশ রায় প্রদান করেছেন। তিনি বলেন, যে কোন গণতান্ত্রিক নির্বাচন হলো পক্ষ এবং প্রতিপক্ষের মধ্যে ভোটারদের সমর্থন আদায়ের প্রতিযোগিতা। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী হলে প্রতিযোগিতা জোরালো হয়। কিন্তু এবারের নির্বাচনে আমাদের যারা প্রধান প্রতিপক্ষ ছিল তাদের কোন নির্বাচনী প্রস্তুতি বা কৌশল ছিল বলে আমার মনে হয়নি।

বিএনপি-জামায়াত জোটের ভরাডুবির কারণ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে তারা এক আসনে ৩-৪ বা তারও বেশি প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছিল। তাদের বিরুদ্ধে ব্যাপক মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ ছিল। তারা দূর্বল প্রার্থী দিয়েছিল। নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে কে প্রধানমন্ত্রী হবেন- সে বিষয়ে অনিশ্চয়তা ছিল। নিজেরা জনগণের জন্য কী করবে, সে কথা তুলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছে। এছাড়া ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াতের দেশব্যাপী অগ্নিসন্ত্রাস ও ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড সাধারণ মানুষের মন থেকে মুছে যায়নি। তিনি আরও উল্লেখ করেন, নির্বাচনের প্রাক্কালে বিএনপি-জামায়াত এবং তাদের নির্বাচনী প্লাটফরম ঐক্যফ্রন্ট থেকে বিভিন্ন আজগুবি প্রতিশ্রুতি ( যেমন- যে কোন বয়সে সরকারি চাকুরিতে প্রবেশের সুযোগ) দেয়, যা জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বিএনপির ধানের শীষ মার্কায় যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতাদের মনোনয়ন তরুণ ভোটাররা মেনে নিতে পারেনি। তরুণেরা আর যাই হোক স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির পক্ষ নিতে পারে না। এসব কারণে ভোটারগণ বিএনপির দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন এবং নৌকার অনুকূলে এবার গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছিল। আর সেই কারণেই আমাদের এই বিশাল বিজয় অর্জন। তাই এ বিজয়কে আমি দেশের মানুষের বিজয় বলে মনে করি। তিনি বলেন, জাতির পিতাকে নির্মমভাবে হত্যার পর জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে। জিয়া এসে তাদের বিচার বন্ধ করে দেয়, তাদের ভোটের অধিকার দেয়, রাজনীতি করার সুযোগ করে দেয়। যেটা আমাদের সংবিধানে ছিলো না। সংবিধানের ১২ অনুচ্ছেদ বিলুপ্ত করে তাদের রাজনীতি করার সুযোগ করে দেয়।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই পদ্মা সেতু

জাতীয় পার্টির ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী জানান, সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি ৩৮ লাখ টাকা ব্যয়ে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে। এরইমধ্যে এ প্রকল্পের ৬২ শতাংশ ভৌত কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তিনি বলেন, কারিগরি দিক থেকে অত্যন্ত জটিল এ সেতুর পাইল ড্রাইভিং চলাকালে সয়েল কন্ডিশনের কারণে কিছু পাইলের পুনরায় ডিজাইন করতে হয়েছে। দেশি ও আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞগণের পরামর্শ অনুযায়ী এসকল পাইলের ডিজাইন সম্পন্ন করতে কিছুটা অতিরিক্ত সময়ের প্রয়োজন হয়েছে। এ সত্ত্বেও চলতি ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করার সর্বাতœক প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ স্থাপন এবং পদ্মা সেতু হয়ে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা হতে বরিশাল পর্যন্ত রেল সংযোগ স্থাপনের কাজও চলছে। পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের আওতায় ঢাকা, ফরিদপুর, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, শরিয়াতপুর ও মাদারীপুর জেলার ৫৮২ একর ভূমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। ঢাকা, মুন্সীগঞ্জ, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, নড়াইল ও যশোর জেলার অবশিষ্ট ১ হাজার ২০৩ একর ভূমি অধিগ্রহণের কাজ চলছে। এছাড়া গত ২৭ এপ্রিল চীনের এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে ঋণচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এছাড়া গত ১৪ অক্টোবর প্রকল্পের মূল কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছি। সবশেষ ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রকল্পের অগ্রগতি ১৬ দশমিক ৭০ শতাংশ।

তিনি জানান, বরিশাল জেলাকে রেলওয়ে নেটওয়ার্কের আওতায় আনার লক্ষ্যে ভাঙ্গা হতে বরিশাল হয়ে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। বিশদ নকশা প্রণয়নসহ সম্ভাব্যতা সমীক্ষা বাস্তবায়ন অগ্রগতি ৩৯ শতাংশ।

রেকর্ডের জন্য রাজনীতি করি না সরকারি দলের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি রেকর্ডের জন্য রাজনীতি করি না। আমার বাবা এবং সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার সময় আল্লাহ’র অশেষ কৃপায় আমরা দু’বোন প্রাণে বেঁচে যাই। আমি এর আগে কোনদিন চিন্তাই করিনি জাতীয় রাজনীতিতে আসব। যদিও ছাত্রাবস্থাতেই আমি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম।

তিনি বলেন, হত্যা, মামলা, জেল-জুলুম, হত্যার পরিকল্পনা, গ্রেনেড আক্রমণ কোন কিছুই আমাকে আমার সংকল্প থেকে বিচ্যুত করতে পারেনি। আর আমার সংকল্প হচ্ছে আমার বাবা, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করা। তিনি দেশটা স্বাধীন করেছিলেন, কিন্তু মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে মুক্ত করার আগেই বর্বর ঘাতকের বুলেটের আঘাতে নির্মমভাবে নিহত হন। আমার প্রতিজ্ঞা ছিল এ দেশের মানুষের রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক মুক্তি। এ দেশের সাধারণ মানুষ যাতে ভালোভাবে বাঁচতে পারেন, উন্নত-সমৃদ্ধ জীবনের অধিকরী হতে পারেন- তা বাস্তবায়ন করাই আমার জীবনের একমাত্র লক্ষ্য।

শেখ হাসিনা বলেন, প্রধানমন্ত্রীত্ব আমার কাছে উপভোগের কোন বিষয় নয়; এটি একটি দায়িত্ব এবং অবশ্যই কঠিন দায়িত্ব। যখনই আপনারা আমাকে এ দায়িত্ব দিয়েছেন, তখনই আমি আরও বেশি করে দায় বোধ করছি। মানুষের ভালোবাসা, প্রত্যাশা পূরণের দায়িত্ব যাতে আমি আরও ভালোভাবে পালন করতে পারি, মহান রাব্বুল আলামিনের কাছে সব সময়ই আমি এই প্রার্থণা করি। এ জন্য তিনি দেশবাসীর দোয়া চান।